সুপারস্পোর্ট পার্ক

স্থানাঙ্ক: ২৫°৫১′৩৫.৬৯″ দক্ষিণ ২৮°১১′৪৩.৩৫″ পূর্ব / ২৫.৮৫৯৯১৩৯° দক্ষিণ ২৮.১৯৫৩৭৫০° পূর্ব / -25.8599139; 28.1953750
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সুপারস্পোর্ট পার্ক
সুপারস্পোর্ট সেঞ্চুরিয়ান , সেঞ্চুরিয়ান পার্ক
SS park.jpg
২০০৬ সালের একটি অনুষ্ঠানের সময় দর্শক
সুপারস্পোর্ট পার্কের লোগো.jpg
স্টেডিয়ামের তথ্যাবলি
অবস্থানসেঞ্চুরিয়ন
দেশদক্ষিণ আফ্রিকা
ধারণক্ষমতা২২,০০০
স্বত্ত্বাধিকারীসুপারস্পোর্ট (দক্ষিণ আফ্রিকান সম্প্রচারক)
ভাড়াটেদক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দল,
টাইটান্স ক্রিকেট দল
প্রান্তসমূহ
প্যাভিলিয়ন প্রান্ত (উত্তর)
হেন্নপ্স নদী প্রান্ত
আন্তর্জাতিক খেলার তথ্য
প্রথম পুরুষ টেস্ট১৬ নভেম্বর ১৯৯৫:
দক্ষিণ আফ্রিকা  বনাম  ইংল্যান্ড
সর্বশেষ পুরুষ টেস্ট২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩:
দক্ষিণ আফ্রিকা  বনাম  পাকিস্তান
প্রথম পুরুষ ওডিআই১১ ডিসেম্বর ১৯৯২:
দক্ষিণ আফ্রিকা  বনাম  ভারত
সর্বশেষ পুরুষ ওডিআই২৩ জানুয়ারি ২০১১:
দক্ষিণ আফ্রিকা  বনাম  ভারত
ঘরোয়া দলের তথ্য
নর্দার্নস (১৯৯৫– বর্তমান)
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ অনুযায়ী
উৎস: ক্রিকইনফো

সুপারস্পোর্ট পার্ক সেঞ্চুরিয়ন, গুটেং, দক্ষিণ আফ্রিকায় একটি ক্রিকেট খেলার মাঠ। একটি টেলিভিশন কোম্পানি শেয়ার কেনার পরে এটির নাম সেঞ্চুরিয়ান পার্ক থেকে সুপারস্পোর্ট স্টেডিয়াম নামকরণ করা হয়। মাঠটির ধারণ ক্ষমতা ২২,০০০। পূর্বের উত্তর ট্রান্সভাল হিসাবে পরিচিত টাইটানস ক্রিকেট দলের হোম গ্রাউন্ড এটি।

এই মাঠে ২০০৩ ক্রিকেট বিশ্বকাপ এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় হওয়া ২০০৯ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ হয়। এই মাঠে ২০০৯ আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনাল হয়েছিল। এই মাঠটিতে শচীন টেন্ডুলকার তার ৫০তম টেস্ট ম্যাচ সেঞ্চুরিটি করেছিলেন।

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

দক্ষিণ আফ্রিকার জন্যে অত্যন্ত পয়া মাঠ এটি। মাত্র ২টি টেস্ট ম্যাচে হেরেছে ২০০০ সালে ইংল্যান্ডের সাথে (সেটি একটি বাজেয়াপ্ত ম্যাচ ছিল) ও ২০১৪ য় অস্ট্রেলিয়ার সাথে (মিচেল জনসন-এর দুরন্ত বোলিংয়ে )। সফরকারী দলগুলোর মধ্যে ইংল্যান্ড তুলনামূলক সাফল্য এখানে বেশি পেয়েছে।  একটি জয় ছাড়াও ৩ টি ম্যাচ ড্র করেছে ১৯৯৫(মাঠটির উদ্বোধনী টেস্ট ম্যাচ ), ২০০৫ ও ২০০৯ সালে।

ওডিআই[সম্পাদনা]

  • ১৯৯২ সালে সাউথ আফ্রিকা ও ভারতের মধ্যে এই মাঠের প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়।
  • ২০০৭ সালে সাউথ আফ্রিকা পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ৩৯২ রান করে, যা এ মাঠের সর্বোচ্চ দলগত স্কোর।
  • ২০০৯ সালে অস্ট্রেলিয়া ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ২৫৮ রান তাড়া করে ৯ উইকেটে জয় লাভ করে, যা এ মাঠের সর্বোচ্চ ব্যবধানে জয় ।
  • ২০১৬ সালে কুইন্টন ডি কক অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১৭৮ রান করেন যা এই মাঠের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর।
  • ২০১৭ সালে সাউথ আফ্রিকা শ্রীলঙ্কার মধ্যেকার ম্যাচে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৬৮০ রান হয় , যা এ মাঠের সর্বোচ্চ ম্যাচ স্কোর ।
  • ২০১৮ সালে সাউথ আফ্রিকা ভারতের বিরুদ্ধে ১১৮ রানে অলআউট হয়ে যায় যা এই মাঠের সর্বনিম্ন দলগত স্কোর। গোটা ম্যাচে ২৩৭ রান হয় , যা এই মাঠের সর্বনিম্ন ম্যাচ স্কোর।

২০০৩ ক্রিকেট বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

গ্রুপ লীগের ম্যাচের পাশাপাশি সুপার সিক্সেস লীগের অস্ট্রেলিয়া -শ্রীলঙ্কা ম্যাচ ও নিউজিলান্ড - ভারত ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

২০০৯ আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি[সম্পাদনা]

টুর্নামেন্টের ফাইনাল সমেত একটি সেমিফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

টুয়েন্টি২০[সম্পাদনা]

আইপিএল ২[সম্পাদনা]

আইপিএল -এর দিল্লি -ডেকান সেমি-ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]