হানসি ক্রনিয়ে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Hansie Cronje.jpg

ওয়েসেল জোহানেস " হানসি " ক্রনিয়ে (ইংরেজি: Wessel Johannes "Hansie" Cronje; সেপ্টেম্বর ২৫, ১৯৬৯ - জুন ১, ২০০২) একজন দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার (অলরাউন্ডার) ছিলেন। ১৯৯০ দশকে দক্ষিণ আফ্রিকান জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ছিলেন। তাকে একটি ম্যাচ-ফিক্সিং বা পাতানো খেলার অপবাদে তার ভূমিকার জন্য পেশাদার ক্রিকেট থেকে আজীবন নিষিদ্ধ করা সত্ত্বেও ২০০৪ সালে ১১তম সফল দক্ষিণ আফ্রিকান হিসেবে ভোট দেওয়া হয়েছিল। ২০০২ সালে বিমান দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়েছিল। ক্রনিয়ে মোট ৫৩ টি টেস্ট ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে নেতৃত্বে দিয়েছিলেন যার মধ্যে তিনি রেকর্ড ২৩টি জয় আর মাত্র ১১ টি হার রয়েছে। তিনি অধিনায়কত্বে তারা ৯৯ ওয়ানডে জিতেছিল। তিনি এবং কোচ বব উলমার একটি মারাত্মক জুটি ছিল, যা দক্ষিণ আফ্রিকাকে অনেক জয় এনে দিয়েছিল।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

সেপ্টেম্বর ২৫, ১৯৬৯ সালে, ক্রনিয়ের জন্ম দক্ষিণ আফ্রিকার ব্লোমফন্টেইনে হয়েছিল। তার পিতা এভি ক্রনিয়ে এবং মাতা সান-মেরি ক্রনিয়ে ছিলেন। ১৯৮৭ সালে ব্লয়েমফন্টেইনের গ্রে কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন এবং তিনি হেড বয়ও ছিলেন। তার খেলোয়াড় জীবন সেই সময়তেই শুরু হয়ে গিয়েছিল, তিনি তত্কালীন অরেঞ্জ ফ্রি স্টেট প্রদেশের ক্রিকেট এবং স্কুল পর্যায়ে রাগবিতে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। তিনি তার স্কুলের ক্রিকেট এবং রাগবি দলের অধিনায়কও ছিলেন। ক্রনিয়ে ফ্রি স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাণিজ্য নিয়ে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন। তারা দুই ভাই এবং এক বোন ছিলেন, তার বড় ভাই ফ্রান্স ক্রনিয়ে এবং ছোট বোন হস্টার পার্সনস ছিলেন। তার পিতা ১৯৬০ এর দশকে অরেঞ্জ ফ্রি স্টেটের হয়ে ক্রিকেট খেলেছিলেন এবং তার বড় ভাই ফ্রান্স প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটও খেলেছিলেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৮৮ সালের জানুয়ারিতে জোহানেসবার্গে, ক্রনিয়ে মাত্র ১৮ বছর বয়সে ট্রান্সওয়ালের বিপক্ষে অরেঞ্জ ফ্রি স্টেটের হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। পরের মৌসুমে তিনি নিয়মিত ক্রিকেট খেলেছিলেন, তিনি আটটি কারি কাপের ম্যাচের সাথে বেনসন এবং হেজেস সিরিজেও অংশ হয়েছিলেন এবং ফাইনালে ওপেনার হিসাবে ৭৩ রানের স্কোর তার দলকে বিজয়ী হতে সাহায্য করেছিল। তবে ১৯৮৯-৯০ সালেটা, শুরু টা তার ভালো ছিল না প্রত্যেকটা কারি কাপ ম্যাচ খেলেও তিনি সেঞ্চুরি করতে ব্যর্থ হয়েছিলেন এবং তার গড় ছিল মাত্র ১৯.৭৬; তবে ওয়ানডতে তার গড় ৬০.১২ ছিল। সেই মৌসুমে তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলির হয়ে মাইক গ্যাটিংয়ের রেবেলস বিরুদ্ধে প্রথম সেঞ্চুরি করেছিলেন।[১]

১৯৯৭ সালে, ক্রনিয়ে আয়ারল্যান্ডের হয়ে বেনসন ও হেজেস কাপে বিদেশী খেলোয়াড় হিসাবে খেলেছিলেন এবং মিডলসেক্সের বিরুদ্ধে ৪৬ রানের জয় ছিনিয়ে নিতে সাহায্য করেছিল। তিনি ৯৪ রান করে অপরাজিত থেকে যান এবং তিন উইকেট তুলে নেন। [২] ইংলিশ কাউন্টি বিরোধী দলের বিপক্ষে আয়ারল্যান্ডের এটি ছিল প্রথম জয়।[৩] পরে সেই মৌসুমে তিনি ৮৫ রান করেছিলেন এবং গ্ল্যামারগানের বিপক্ষে একটি উইকেট নিয়েছিলেন।[৪]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৯১-৯২ মৌসুমে, ক্রনিয়ে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন বিশেষত ওয়ানডতে তার গড় ছিল ৬১.৪০, ফলে ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপে তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার ডাক পেলেন, সিডনিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়ানডেতে আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়েছিল তার। টুর্নামেন্ট চলাকালীন তিনি দলের নয়টি আটটি খেলায় ব্যাট হাতে গড়ে ৩৪.০০ গড় এবং ২০ ওভারে বোলিংও করানো হয়েছিল।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

৮ এপ্রিল ১৯৯৫ সালে, হানসি ক্রনিয়ে বার্থা হান্সকে বিবাহ করেছিলেন। তাদের কোনও সন্তান ছিল না। পরে ২০০৩ সালে ক্রনিয়ের বিধবা জ্যাক ডু প্লেসিস নামে এক আর্থিক নিরীক্ষককে বিয়ে করেন। শোনা যায় সেই বিবাহ অনুষ্ঠানে ক্রনিয়ের বাবা-মা, ভাই এবং বোন উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "South African Universities v England XI, England XI in South Africa 1989/90"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২১ অক্টোবর ২০১০ 
  2. "Ireland v Middlesex, Benson and Hedges Cup 1997 (Group D)"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২১ অক্টোবর ২০১০ 
  3. James, Daniel (৩০ এপ্রিল ১৯৯৭)। "Irish 'weekend amateurs' enjoy historic success"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২১ অক্টোবর ২০১০ 
  4. "Glamorgan v Ireland, Benson and Hedges Cup 1997 (Group D)"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২১ অক্টোবর ২০১০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]