ব্রায়ান ম্যাকমিলান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ব্রায়ান ম্যাকমিলান
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম ব্রায়ান মারভিন ম্যাকমিলান
জন্ম (১৯৬৩-১২-২২) ২২ ডিসেম্বর ১৯৬৩ (বয়স ৫৩)
ওয়েলকোম, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরন ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরন ডানহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
১৯৮৪-১৯৮৯ ট্রান্সভাল/বি
১৯৮৬ ওয়ারউইকশায়ার
১৯৮৯-২০০০ ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ৩৮ ৭৮
রানের সংখ্যা ১৯৬৮ ৮৪১
ব্যাটিং গড় ৩৯.৩৫ ২৩.৩৬
১০০/৫০ ৩/১৩ ১/০
সর্বোচ্চ রান ১১৩ ১২৭
বল করেছে ৬০৪৮ ৩৬২৩
উইকেট ৭৫ ৭০
বোলিং গড় ৩৩.৮২ ৩৬.৯৮
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a
সেরা বোলিং ৪/৬৫ ৪/৩২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪৯/- ৪২/-
উৎস: Cricinfo[১], ২৫ নভেম্বর ২০১৪

ব্রায়ান মারভিন ম্যাকমিলান (জন্ম: ২২ ডিসেম্বর, ১৯৬৩) ওয়েলকোমে জন্মগ্রহণকারী সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্য থাকাকালীন তিনি অল-রাউন্ডারের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি মিডিয়াম-পেস বোলার ও ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮৪-৮৫ থেকে ১৯৮৮-৯৯ মৌসুম পর্যন্ত ঘরোয়া ক্রিকেটে ট্রান্সভাল দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। এরপর ১৯৮৯-৯০ মৌসুম থেকে ১৯৯৯-২০০০ মৌসুমে অবসরের পূর্ব পর্যন্ত ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সে খেলেন। ১৯৮৬ মৌসুমে কাউন্টি ক্রিকেটে ওয়ারউইকশায়ারের পক্ষে খেলেন।

ওয়েলকোমে জন্মগ্রহণ করলেও তাঁর শৈশবকাল অতিক্রান্ত হয় দক্ষিণ আফ্রিকার কার্লেটনভিলে এলাকায়। ডারবান বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা পেশায় রয়েছেন তিনি। এছাড়াও কেপটাউনের একটি অফিস অটোমেশন ফার্মের প্রধানের দায়িত্ব পালন করছেন।[২]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

নভেম্বর, ১৯৯২ সালে ম্যাকমিলানের টেস্ট অভিষেক ঘটে। বিশ বছরের অধিককাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা থেকে নির্বাসন শেষে দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তনের প্রথম খেলায় ডারবানে ভারতের বিপক্ষে তাঁর এই অংশগ্রহণ। ১৯৯১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকান দলের বিশ্ব ক্রিকেটে পুণঃঅন্তর্ভুক্তিতে তিনি দলের প্রধান সদস্য হিসেবে ছিলেন। এছাড়াও, দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে আউটফিল্ডার হিসেবে শীর্ষস্থানীয় স্লিপ ফিল্ডারসহ টেস্টপ্রতি সর্বোচ্চসংখ্যক ক্যাচ পান। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ১৯৯১ থেকে ১৯৯৮ সময়কালের মধ্যে জাতীয় দলের পক্ষে তিনি ৩৮ টেস্ট ও ৭৮টি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নিয়েছেন।

সম্মাননা[সম্পাদনা]

১৯৯০-এর দশকের মধ্যবর্তী সময়কালে তাঁকে ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম সেরা অল-রাউন্ডার হিসেবে গণ্য করা হতো। ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে তিনি সাউথ আফ্রিকান ক্রিকেট এ্যানুয়েল ক্রিকেটার অব দি ইয়ার পুরস্কার লাভ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]