টিপ স্নুক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
টিপ স্নুক
Tip Snooke 1935.jpg
১৯৩৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা দলের ম্যানেজার হিসেবে টিপ স্নুক
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (1881-02-01) ১ ফেব্রুয়ারি ১৮৮১ (বয়স ১৩৯)
সেন্ট মার্কস, পূর্ব কেপ, দক্ষিণ আফ্রিকা
মৃত্যু১৪ আগস্ট ১৯৬৬(1966-08-14) (বয়স ৮৫)
হিউমউড, পোর্ট এলিজাবেথ, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার, অধিনায়ক
সম্পর্কস্ট্যানলি স্নুক (ভ্রাতা)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ২৬ ১২৪
রানের সংখ্যা ১০০৮ ৪৮২১
ব্যাটিং গড় ২২.৩৯ ২৫.৯১
১০০/৫০ ১/৫ ৭/২৪
সর্বোচ্চ রান ১০৩ ১৮৭
বল করেছে ১৬২০ ৬১৭৯
উইকেট ৩৫ ১২০
বোলিং গড় ২০.০৫ ২৫.১৪
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৮/৭০ ৮/৭০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২৪/- ৮২/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৬ নভেম্বর ২০১৮

সিবলে জন টিপ স্নুকার (ইংরেজি: Tip Snooke; জন্ম: ১ ফেব্রুয়ারি, ১৮৮১ - মৃত্যু: ১৪ আগস্ট, ১৯৬৬) পূর্ব কেপের সেন্ট মার্কস এলাকায় জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও অধিনায়ক ছিলেন।[১][২][৩] দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯০৬ থেকে ১৯২৩ সময়কালে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন তিনি।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে গটেং ও বর্ডারের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে খেলতেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে মিডিয়াম বোলিংয়ে পারদর্শিতা দেখিয়েছেন টিপ স্নুক

ঘরোয়া ক্রিকেট[সম্পাদনা]

টেম্বুল্যান্ডের সেন্ট মার্কস এলাকায় টিপ স্নুকের জন্ম। সমগ্র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবনে বর্ডার, ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স ও ট্রান্সভালের পক্ষে ১২৪টি খেলায় অংশ নিয়েছেন। এ সময়ে ২৫.৯১ গড়ে ৪৮২১ রান ও ২৫.১৪ গড়ে ১২০ উইকেট দখল করেছেন টিপ স্নুক।

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২ জানুয়ারি, ১৯০৬ তারিখে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে টিপ স্নুকের। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ২৬ টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ ঘটে টিপ স্নুকের। তন্মধ্যে ১৯০৬ থেকে ১৯১২ সালের মধ্যে প্রথম ২৩ টেস্ট খেলেছেন। ৪১ বছর বয়সে সফরকারী ইংরেজ দলের বিপক্ষে আরও তিন টেস্টে অংশগ্রহণ করেছিলেন টিপ স্নুক। ২২.৩৯ গড়ে ১০০৮ রান তুলেছেন তিনি। তন্মধ্যে, ১৯১০-১১ মৌসুমে অ্যাডিলেডে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ব্যক্তিগতভাবে একটি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। এছাড়াও বল হাতে ২০.০৫ গড়ে ৩৫ উইকেট দখল করেন। তন্মধ্যে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান গড়েন ৮/৭০। ১৯০৫-০৬ মৌসুমে জোহেন্সবার্গে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ঐ টেস্টে ১২৭ রানে ১২ উইকেট পেয়েছিলেন তিনি। চার বছর পর কেপটাউনের নিউল্যান্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ইংল্যান্ডের দুই ব্যাটসম্যান উইলফ্রেড রোডসডেভিড ডেন্টনকে টেস্টের প্রথম ওভারে আউট করেছিলেন। এ অনন্য সাধারণ কৃতিত্ব প্রায় নব্বুই বছর টিকেছিল।

অধিনায়কত্ব লাভ[সম্পাদনা]

১৯০৯-১০ মৌসুমে নিজদেশে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকা দলকে নেতৃত্ব দেন।[৪] তার অধিনায়কত্বে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে পাঁচ টেস্টের সিরিজে ৩-২ ব্যবধানে জয়লাভে সক্ষমতা দেখিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা দল।

অবসর[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর দক্ষিণ আফ্রিকা দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন টিপ স্নুক। ১৪ আগস্ট, ১৯৬৬ তারিখে ৮৫ বছর বয়সে পোর্ট এলিজাবেথের হিউমউডে টিপ স্নুকের দেহাবসান ঘটে। তার ভ্রাতা স্ট্যানলি স্নুক দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "South Africa – Players by Test cap"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০১৬ 
  2. "South Africa – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১৬ 
  3. "South Africa – Test Bowling Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১৬ 
  4. "List of captains: South Africa – Tests"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]