ক্রেগ ম্যাথুজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ক্রেগ ম্যাথুজ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামক্রেগ রাসেল ম্যাথুজ
জন্ম (1965-02-15) ১৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৫ (বয়স ৫৪)
কেপ টাউন, দক্ষিণ আফ্রিকা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ১৮ ৫৬
রানের সংখ্যা ৩৪৮ ১৪১
ব্যাটিং গড় ১৮.৩১ ১০.৮৪
১০০/৫০ ০/১ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৬২* ২৬
বল করেছে ৩৯৮০ ৩০০৩
উইকেট ৫২ ৭৯
বোলিং গড় ২৮.৮৮ ২৫.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ৫/৪২ ৪/১০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪/- ১০/-
উৎস: ক্রিকইনফো[১], ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ক্রেগ রাসেল ম্যাথুজ (ইংরেজি: Craig Matthews; জন্ম: ১৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬৫) কেপ প্রদেশের কেপটাউনে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা দক্ষিণ আফ্রিকান সাবেক আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। ১৯৯১ থেকে ১৯৯৭ সময়কালে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলিং করতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিংয়ে সবিশেষ পারদর্শীতা দেখিয়েছেন ক্রেগ ম্যাথুজ

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

পাইনল্যান্ডস হাই স্কুলে অধ্যয়ন করেছেন তিনি।[২] সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ১৮ টেস্ট ও ৫৬টি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নিয়েছেন।[৩]

বিচার বুদ্ধিসম্পন্ন অধিনায়ক হিসেবে পরিচিত হানসি ক্রনিয়ের ডানহাত হিসেবে দুই বছর বিবেচিত হয়ে আসছিলেন। ১৯৯০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় সফলতার পিছনে ক্রেগ ম্যাথুজকে প্রায়শঃই পরোক্ষ ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে হতো। প্রচণ্ড চাপের মাঝে থেকেও নিজেকে সংযত রাখতেন ও শান্ত থাকতেন। ঐ সময়ে তরুণ ক্রোনিয়েকে বেশ কয়েকবার রক্ষা করেছেন। চার পেসার নিয়ে গড়া দক্ষিণ আফ্রিকা দলের বোলিং আক্রমণে প্রতিকূলতার মাঝেও অনেকগুলো ওভার করে কম রান খরচায় তাঁর বেশ সুনাম ছিল।

১৯৯৪ সালে অস্ট্রেলিয়া দল দক্ষিণ আফ্রিকা গমন করে। কেপটাউনের নিউল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত টেস্টে নিজস্ব সপ্তম খেলায় ৫/৮০ লাভ করেন। এরপর একই সালে সফরকারী নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত টেস্টে সুন্দর ক্রীড়ানৈপুণ্য প্রদর্শন করেন ক্রেগ ম্যাথুজ। জোহেন্সবার্গের নিউ ওয়ান্ডারার্স স্টেডিয়ামে ৫/৪২ বোলিং পরিসংখ্যান গড়েন।

একদিনের আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

২৩ অক্টোবর, ১৯৯৩ তারিখে সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সুন্দর ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শন করেন। ডারবানের কিংসমিড ক্রিকেট গ্রাউন্ডে সিরিজের ৪র্থ ওডিআইয়ে ৪/১০ বোলিং পরিসংখ্যান গড়ে অস্ট্রেলীয় ইনিংসে ধ্বস নামান। খেলায় তাঁকে ব্যাট হাতে মাঠে নামতে হয়নি ও তাঁর দল খুব সহজেই ৭ উইকেটে জয় পায়। ঐ খেলায় তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেয়েছিলেন। ২১ ডিসেম্বর, ১৯৯৪ তারিখে মান্ডেলা ট্রফির দ্বাদশ খেলায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অল-রাউন্ড নৈপুণ্য দেখান। পোর্ট এলিজাবেথের সেন্ট জর্জেস পার্কে ব্যাট হাতে ৮ বল মোকাবেলা করে এক বাউন্ডারির সাহায্যে অপরাজিত ১১ রান তুলার পর বল হাতে ৩/২২ পেয়ে দলকে ৪৪ রানের জয়ে সহায়তা করেন। এ খেলায়ও তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেয়েছিলেন। ১৬ এপ্রিল, ১৯৯৬ তারিখে পেপসি শারজাহ কাপের ৫ম খেলায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ওডিআইয়ে অংশ নেন। ব্যাট হাতে মাঠে না নামলেও ৩/১৯ বোলিং পরিসংখ্যানের পাশাপাশি ১ কট নিয়ে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেয়েছিলেন ক্রেগ ম্যাথুজ। ঐ খেলায় তার দল ৮ উইকেটে জয় তুলে নেয়।

অবসর[সম্পাদনা]

মাঠের বাইরেও খেলাকে ছড়িয়ে দিয়েছেন। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণের পর ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের বিপণনকারী ব্যবস্থাপক হিসেবে মনোনীত হন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ক্রেগ ম্যাথুজ"ইএসপিএনক্রিকইনফো। সংগৃহীত 25 January 2006। (ইংরেজি)
  2. "Most South African Test Cricketers by School since 1992"। School Sports News। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জানুয়ারি ২০১৫ 
  3. "Player profile: Craig Matthews"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]