হেনরি টেবরার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হেনরি টেবরার
ক্রিকেট তথ্য
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১১
রানের সংখ্যা ২২২
ব্যাটিং গড় ২.০০ ১৩.০৫
১০০/৫০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ৪৭*
বল করেছে ৬০ ৯৬০
উইকেট ২২
বোলিং গড় ৪৮.০০ ২০.২৭
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/২৫ ৪/১৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/- ৫/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৮ নভেম্বর ২০১৮

হেনরি মেলভিল টেবরার (ইংরেজি: Henry Taberer; জন্ম: ৭ অক্টোবর, ১৮৭০ - মৃত্যু: ৫ জুন, ১৯৩২) কেপ প্রদেশের কিসকামাহোক এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও অধিনায়ক ছিলেন।[১] দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। ১৯০২ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে কোয়াজুলু-নাটালের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে ডানহাতে কার্যকরী ব্যাটিং করতেন হেনরি টেবরার

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

রেভারেন্ড সি. টেবরারের সন্তান তিনি। কেপ প্রদেশের কিসকামাহোকের ধর্মীয় আবাসস্থলে হেনরি টেবরারের জন্ম হয়। জানুয়ারি, ১৮৮৩ থেকে জুন, ১৮৯২ সাল পর্যন্ত গ্রাহামসটাউনের সেন্ট অ্যান্ড্রুজ কলেজে অধ্যয়ন করেন তিনি। সেন্ট অ্যান্ড্রুজ ক্রিকেট একাদশ ও রাগবি পঞ্চদশ দলে খেলেন। অক্সফোর্ডের কেবল কলেজে ধর্মতত্ত্ব বিষয়ে স্নাতক সম্মান শ্রেণীতে ভর্তি হন।[২] আন্তর্জাতিক রাগবি খেলোয়াড় বিল টেবরার সম্পর্কে তার ভাই।

ইংল্যান্ডে অবস্থানকালে হেনরি টেবরার অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণ করেছেন। তবে ব্লু লাভ করতে পারেননি তিনি। এছাড়াও প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটের মর্যাদা লাভের পূর্বে ১৮৯২ ও ১৮৯৩ সালে এসেক্সের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। অক্সফোর্ডের সদস্যরূপে কেমব্রিজের বিপক্ষে অ্যাথলেটিক্সে দীর্ঘ লম্ফ ও রাগবি ইউনিয়নে অংশ নিয়েছেন।[৩]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

বিরামহীনভাবে দক্ষিণ আফ্রিকান ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন হেনরি টেবরার। এ সময়ে নাটাল, ট্রান্সভালরোডেশিয়ার পক্ষে খেলেছেন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করলেও ঐ টেস্টে দলকে নেতৃত্ব দেয়ার বিরল গৌরবগাঁথা রচনা করেছেন। খেলায় তিনি মাত্র দুই রান তুলতে পেরেছিলেন। বল হাতে ভিক্টর ট্রাম্পারের একমাত্র উইকেট লাভে সক্ষমতা দেখান। এটিই তার খেলোয়াড়ী জীবনের সর্বশেষ প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণ ছিল।

প্রশাসনে অংশগ্রহণ[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর গ্রহণের পর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেট প্রশাসনে যুক্ত হন। স্থানীয় জনগোষ্ঠীর ভাষায় দক্ষতা দেখান। তিনি দাবী করেছিলেন যে, ইংরেজির তুলনায় ঐ ভাষায় সাবলীলতা প্রকাশে পটু ছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকান সরকারের অধীনে নেটিভ লেবার ব্যুরো’র ব্যবস্থাপক ও ক্রমবর্ধমান অস্থির শিল্পবিপ্লব চলাকালীন চেম্বার অব মাইনসের নিয়ন্ত্রণাধীন নেটিভ রিক্রুটিং কর্পোরেশনের পরামর্শক থাকাকালে এ ভাষা রপ্ত ও দক্ষতা অর্জন করেন।[৩]

১৮৯৪ সালে হেনরি টেবরার জুলুল্যান্ডের সচিব মনোনীত হন। ১৮৯৫ সালে জুলুল্যান্ডের এশোইয়ে ভারপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এপ্রিল, ১৮৯৬ সাল থেকে ১৯০০ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ রোডেশিয়ায় গবাদিপশু নিয়ন্ত্রকের দায়িত্বে ছিলেন। ১৮৯৫ সালে ম্যাশোনাল্যান্ডে মূখ্য স্থানীয় কমিশনার হিসেবে মনোনীত হন। আমটালি ভলান্টিয়ার রেজিমেন্টের অধিনায়ক ছিলেন ও ১৮৯৬-৯৭ মৌসুমে ম্যাশোনাল্যান্ড রিবেলিওনে সেবা করেন। তাকে দুইবার দায়িত্ব পালন থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছিল।[২]

৫ জুন, ১৯৩২ তারিখে ৬২ বছর বয়সে কেপ প্রদেশের কোলেসবার্গে দেহাবসান ঘটে হেনরি টেবরারের।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Player Profile: Henry Taberer"। www.cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ 
  2. Laurie 1914, পৃ. 185।
  3. "Obituaries: Mr H. M. Taberer"। The Times (46167)। London। ২৩ জুন ১৯৩২। পৃষ্ঠা 14। 

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]