প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম
Premier University Chittagong logo.png
প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের লোগো
নীতিবাক্য গুণগত শিক্ষা বিকাশের কেন্দ্র
ধরন প্রাইভেট, সহ-শিক্ষা
স্থাপিত ২০০১
আচার্য রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ
উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন
শিক্ষার্থী ১২০০০ জন (সন: ২০১৩)
অবস্থান ১/এ, ও আর নিজাম রোড, প্রবর্তক মোড়, পাঁচলাইশ, চট্টগ্রাম।, বাংলাদেশ
শিক্ষাঙ্গন শহর
সংক্ষিপ্ত নাম পি.ইউ.সি. (PUC)
অধিভুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন
ওয়েবসাইট www.puc.ac.bd

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বা পি.ইউ.সি. (ইংরেজি: Premier University, Chittagong) বাংলাদেশের একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। এটি ২০০১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।[১] অস্ট্রেলিয়ান সরকার কর্তৃক পরিচালিত এক আন্তর্জাতিক শিক্ষা সার্ভে অনুযায়ী প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় "এ" ক্যাটাগরির খেতাব লাভ করে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সমাবর্তনে উচ্চাসিত ছাত্র ছাত্রীদের একাংশ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রাক্তন মেয়র এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরী চিন্তা করেন চট্টগ্রামে উচ্চশিক্ষার জন্য একটি অসাধারণ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করার ব্যাপারে এবং তিনি এর জন্য যাবতীয় উদ্যোগ-ও গ্রহণ করেন। ২০০১ সালের মে মাসে মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী বরাবরে একটি পরিকল্পনা প্রস্তাব প্রেরন করা হয়। প্রস্তাবনাটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইনের অধীনে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যক্রম অনুমোদন করে। বিশ্ববিদ্যালয় ডিসেম্বর ২০০১ সালে উদ্বোধন করা হয় এবং জানুয়ারি ২০০২ থেকে তাদের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়।

প্রথম দিকে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় নির্দিষ্ট কিছু কোর্সে ৪ বছরের ব্যাচেলর ডিগ্রী ও দুই বছরের মাস্টার্স ডিগ্রী অফার করে।

বিভাগ ও বিশ্ববিদ্যালয় কার্যক্রম[সম্পাদনা]

ব্যবসায় অনুষদের বিদ্যালয়[সম্পাদনা]

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসায় অনুষদে বিভিন্ন বিষয়ে ডিগ্রী অফার করে। যার মাঝে রয়েছে- মার্কেটিং, ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম, মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা, ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস, বিজনেস পলিসি এন্ড স্ট্রাটেজি, ফাইন্যান্স এবং একাউন্টিং। ব্যবসায় অনুষদের বিদ্যালয় কর্তৃক প্রস্তাবিত সুবিধাগুলো হল:

  • ব্যাচেলর অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশন (বিবিএ)
  • মাস্টার্স অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশন (এমবিএ)
  • এক্সিকিউটিভ মাস্টার্স অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশন (ইএমবিএ)

ব্যবহারিক বিজ্ঞানের বিদ্যালয়[সম্পাদনা]

  • ব্যাচেলর অব সায়েন্স (স্নাতক) ইন কেমিস্ট্রি (রসায়ন)
  • ব্যাচেলর অব সায়েন্স (স্নাতক) ইন ম্যাথম্যাটিকস (গনিত)

আর্কিটেকচার অনুষদ[সম্পাদনা]

আর্কিটেকচার অনুষদ ড্রয়িং এবং অন্যান্য বিষয়ের উপর উপস্নাতক বা আন্ডারগ্রাজুয়েট কোর্স অফার করে। গনিতশাস্ত্র ও পদার্থবিদ্যার উপর কোর্সও দিয়ে থাকেন এই অনুষদের সদস্যরা। এই অনুষদ যে ডিগ্রী প্রদান করে থাকে তার নাম হল--

  • ব্যাচেলর অব সায়েন্স ইন আর্কিটেকচার (বি.এসসি ইন আর্ক)

কম্পিউটার সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ[সম্পাদনা]

২০০২ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে এই অনুুষদের কার্যক্রম শুরু হয়।[২] বর্তমানে এই অনুষদরে দায়িত্বে রয়েছেন অনুষদের অধ্যাপক তৌফিক সাঈদ।[৩] কম্পিউটার সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ অফার করছে কম্পিউটার সায়েন্স এবং টেলিকমিউনিকেশনে আণ্ডারগ্রাজুয়েট কোর্স। গনিতশাস্ত্র ও পদার্থবিদ্যার উপর কোর্সও দিয়ে থাকেন এই অনুষদের সদস্যরা। এই অনুষদ যে ডিগ্রী প্রদান করে থাকেন তাঁর নাম হল--

ইলেক্ট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ[সম্পাদনা]

ইলেক্ট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ অফার করছে ইলেক্ট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে আণ্ডার গ্রাজুয়েট কোর্স। গনিতশাস্ত্র, ব্যাবস্থাপনা ও পদার্থবিদ্যার উপর কোর্সও দিয়ে থাকেন এই অনুষদের সদস্যরা। এই অনুষদ যে ডিগ্রী প্রদান করে থাকেন তাঁর নাম হল--

  • ব্যাচেলর অব সায়েন্স ইন ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (বি.এসসি ইন ই.ই.ই)

বর্তমানে এই অনুষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে রয়েছেন অনুষদের সহযোগী অধ্যাপক টুটুন চন্দ্র মল্লিক।[৪] প্রকৌশল অনুষদের ডীন হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন ড. তৌফিক সাঈদ।

আর্টস এবং সোশাল সায়েন্সের বিদ্যালয়[সম্পাদনা]

আইন অনুষদ[সম্পাদনা]

ল' ডিপার্টমেন্ট বা আইন অনুষদ নিম্ববর্তী আন্ডারগ্রাজুয়েট ও পোস্টগ্রাজুয়েট ডিগ্রীসমূহ অফার করছে---

  • ব্যাচেলর অব ল'স (এল.এল.বি)
  • মাস্টার অব ল'স (এল.এল.এম)

চট্টগ্রাম নগরীর আন্দরকিল্লাস্থ হাজারী লেইনে এই অনুষদের ক্যাম্পাস অবস্থিত। এই অনুষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন অনুষদের সহকারী অধ্যাপক তানজিনা আলম।[৫]

ইংরেজি অনুষদ[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম নগরীর জি ইিসি মোড়ে এই অনুষদের ক্যাম্পাস অবস্থিত। এই অনুষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন অনুষদের সহকারী অধ্যাপক সাদাত জামান খান।[৬] ইংরেজি অনুষদ নিম্নবর্তী ডিগ্রীসমূহ অফার করছে---

  • ব্যাচেলর অব আর্টস (স্নাতক) ইন ইংলিশ (বি.এ. ইন ইংলিশ)
  • মাস্টার অব আর্টস ইন ইংলিশ (এম.এ. ইন ইংলিশ)

অর্থনীতি অনুষদ[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম নগরীর আন্দরকিল্লাস্থ হাজারী লেইনে এই অনুষদের ক্যাম্পাস অবস্থিত। এই অনুষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন অনুষদের সহকারী অধ্যাপক ফারজানা ইয়াছমিন।[৭] অর্থনীতি অনুষদ নিম্নবর্তী ডিগ্রীসমূহ অফার করছে---

  • ব্যাচেলর অব সোশ্যাল সায়েন্স (স্নাতক) ইন ইকোনমিক্স (বি.এস.এস ইন ইকো)
  • মাস্টার অব সোশ্যাল সায়েন্স ইন ইকোনমিক্স (এম.এস.এস. ইন ইকো)

রসায়ন অনুষদ[সম্পাদনা]

গণিত অনুষদ[সম্পাদনা]

ক্যাম্পাস[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম বঙ্গোপসাগরের তীরে অবস্থিত এক অপূর্ব নগরী। প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় এই শহরের প্রাণকেন্দ্রে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ, চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন এবং সেন্ট্রাল বাস ডিপোর অতি নিকটে অবস্থিত। প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচটি ক্যাম্পাস ভবন রয়েছে। দুইটি ভবন নিয়ে মূল ক্যাম্পাস গঠিত। আর বাকি ক্যাম্পাসগুলো হল—ব্যবসায় অনুষদ ভবন (ওয়াসা মোড়ে), আইন অনুষদ ভবন (হাজারী গলিতে) এবং অর্থনীতি অনুষদ (প্রেস ক্লাবে), প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় তাদের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করেছিল প্রবর্তক মোড়ে অবস্থিত তাদের ৪ তলা ক্যাম্পাস ভবন দিয়ে। এরপর পরই অতিদ্রুত প্রবর্তক মোড়েই ৭-তলা বিশিষ্ট আর্টস ও ইঞ্জিনিয়ারিং ভবন এবং ওয়াসার মোড়ে ৮-তলা বিশিষ্ট ব্যাবসায় অনুষদের ভবন নির্মাণের কাজ সম্পূর্ণ হয়। হাজারী গলিতে আইন অনুষদের জন্য ভবন নির্মাণের কাজ সমাপ্তির পথে। প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ও আর নিজাম রোডে ৬২ গণ্ডা জায়গার উপর তার আরেকটি ক্যাম্পাসের কাজ শুরু করেছে। ফয়েজ লেকের নিকটে আরো একটি ক্যাম্পাস নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের।

লাইব্রেরী[সম্পাদনা]

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক বড় লাইব্রেরী রয়েছে। লাইব্রেরীর বিভিন্ন ধরনের নিয়ম-কানুন রয়েছে যা শিক্ষার্থীদেরকে শেখানো হয়। আইন অনুষদ, ইংরেজি ও অর্থনীতি অনুষদের মূল লাইব্রেরীর পাশাপাশি সেমিনার লাইব্রেরীও রয়েছে। প্রিমিয়ার বিশ্যবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ব্রিটিশ কাউন্সিলের রিসোর্স সেন্টারও ব্যবহার করতে পারে। ব্যাবসায় অনুষদ ভবনে ২০০ জন ধারণ ক্ষমতার একটি বড় আলাদা লাইব্রেরী রয়েছে। সব লাইব্রেরীই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এবং বিনামূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহার যোগ্য। গবেষণা ও উন্নয়নের কেন্দ্র, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরী। প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ২০০২ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রার সুচনালগ্নেই এই লাইব্রেরি স্থাপন করেন। বর্তমানে এটি বাংলাদেশের সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরীসমূহের মধ্যে সর্ববৃহৎ। বর্তমানে প্রিমিয়ার বিশবিদ্যালয় লাইব্রেরীতে একাডেমিক প্রোগ্রাম ও কো-কারিকুলাম প্রোগ্রাম মিলিয়ে ১,০০,০০০ (এক লক্ষ)-এরও বেশি বই রয়েছে। এখানে সদস্যদের জন্য শুধুমাত্র লাইব্রেরীতে আলাদাভাবে ব্যবহারের জন্য রয়েছে দৈনিক সংবাদপত্র, মাসিক সংবাদপত্র, গবেষণা এবং প্রবন্ধ, রিপোর্ট, কনফারেন্স নোট, হাতে লিখা বই, ব্যবহারবিধি, শব্দকোষ, বিশ্বকোষ, সিডি, ভিসিডি ইত্যাদি। কেন্দ্রীয় লাইব্রেরীটি প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসে অবস্থিত।[৮] প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরীতে সম্প্রতি একটি স্বয়ংক্রিয় লাইব্রেরী সফটওয়্যার স্থাপন করেছে। যার নাম হল "কোহা"।[৯]

বিশ্ববিদ্যালয়ভুক্ত ক্লাব[সম্পাদনা]

  • প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি সাংস্কৃতিক দল[১০]
  • প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং ক্লাব
  • রোবটিক্স ক্লাব[১১]
  • প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ক্রিকেট দল

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.puc.ac.bd/
  2. http://www.puc.ac.bd/Default.aspx?mod=content&page=details&content=welcome-to-department-of-computer-science-n-engineering&dept=cse/
  3. "faculty members" 
  4. http://puc.ac.bd/Default.aspx?mod=users&page=details&content=37&dept=eee  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  5. http://www.puc.ac.bd/view_profile.aspx?user=138&dept=dlaw  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  6. http://www.puc.ac.bd/view_profile.aspx?user=118&dept=dell  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  7. http://www.puc.ac.bd/view_profile.aspx?user=71&dept=deco  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  8. http://www.puc.ac.bd/Default.aspx?mod=content&page=details&content=premier-university-library  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  9. "প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠাগার"puc.ac.bd 
  10. "তরুণেরাই স্বপ্নের বাংলাদেশ"। মতিউর রহমান। প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-০৮ 
  11. "প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে রোবট দৌড়"। আলমগীর হোসেন। বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-৩১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ২২°২০′২০″ উত্তর ৯১°৫০′০৯″ পূর্ব / ২২.৩৩৮৮৫৯° উত্তর ৯১.৮৩৫৮৪৬° পূর্ব / 22.338859; 91.835846