নিকোলাস পুরাণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নিকোলাস পুরাণ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামনিকোলাস পুরাণ
জন্ম (1995-10-02) ২ অক্টোবর ১৯৯৫ (বয়স ২৩)
কুভা, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র ওডিআই
(ক্যাপ ১৯০)
২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ বনাম ইংল্যান্ড
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ ৬৪)
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬ বনাম পাকিস্তান
শেষ টি২০আই১০ মার্চ ২০১৯ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১৩-২০১৪ত্রিনিদাদ ও টোবাগো
২০১৩-২০১৪ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স
২০১৫সেন্ট কিটস ও নেভিস প্যাট্রিয়টস
২০১৬–২০১৮বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস (দল নং ২৯)
২০১৬–২০১৭খুলনা টাইটানস
২০১৭ইসলামাবাদ ইউনাইটেড
২০১৭মুম্বই ইন্ডিয়ান্স
২০১৮–বর্তমানমুলতান সুলতান্স
২০১৮–বর্তমানসিলেট সিক্সার্স (দল নং ২৯)
২০১৯–বর্তমানকিংস এলেভেন পাঞ্জাব (দল নং ২৯)
২০১৯–বর্তমানগায়ানা আমাজন ওয়ারিয়র্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই টি২০ প্র-শ্রে LA
ম্যাচ সংখ্যা ১১ ১৯
রানের সংখ্যা ২১৪ ২১৮ ১৪৩ ৪৯২
ব্যাটিং গড় ৩২.৩৩ ২৪.২২ ২৩.৮৩ ৩২.৮০
১০০/৫০ ১/১ ০/২ ০/১ ০/৩
সর্বোচ্চ রান ১১৮ ৫৮ ৫৫ ৮৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ৪/– ২/২ ১২/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১ জুলাই ২০১৯

নিকোলাস পুরাণ ( /ˌprɑːn/; ইংরেজি: Nicolas Pooran; জন্ম: ২ অক্টোবর, ১৯৯৫) ত্রিনিদাদে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে ত্রিনিদাদ ও টোবাগো দলের প্রতিনিধিত্ব করছেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষকের দায়িত্বে রয়েছেন। এছাড়াও, বামহাতে কার্যকরী ব্যাটিং করে থাকেন তিনি।

ক্যারিবীয় প্রিমিয়ার লীগে (সিপিএল) রেড স্টিলের পক্ষে খেলছেন। ২০১৪ সাল পর্যন্ত সিপিএলে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড়ের মর্যাদা লাভ করেছেন।

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

কুভার উত্তরাঞ্চলীয় এলাকায় ম্যাকবিনে নিকোলাস পুরাণের জন্ম।[১] স্যান ফার্নান্দোর নাপারিমা কলেজে অধ্যয়ন করেছেন। সেখানে অবস্থানকালে বিদ্যালয় ক্রিকেট দলে খেলতেন।[২] বামহাতি ব্যাটসম্যান ও উইকেট-রক্ষক হিসেবে ত্রিনিদাদে ও টোবাগোর বয়সভিত্তিক ও বিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছেন। ২০১২ সালের আঞ্চলিক প্রতিযোগিতায় জাতীয় পর্যায়ের অনূর্ধ্ব-১৯ দলে মাত্র ১৬ বছর বয়সে অংশ নেন।[৩]

অক্টোবর, ২০১৩ সালে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দলের বিপক্ষে দ্বি-পক্ষীয় সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সদস্যরূপে অভিষেক ঘটে তার। এরপর ২০১৪ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছিলেন তিনি।[৪] দলের সহঃ অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন ও মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে ছয় খেলায় অংশ নিয়ে ৩০৩ রান তুলেন। এরফলে মোট রানের দিক দিয়ে চতুর্থ ও গড়ের দিক দিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে শীর্ষস্থান দখল করেন।[৫][৬] তন্মধ্যে, কানাডা ও ভারতের বিপক্ষে অর্ধ-শতক ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১৪৩ রানের মনোরম শতরানের ইনিংস ছিল তার। এ পর্যায়ে দলীয় সংগ্রহ ছিল মাত্র ২০৮ রান। প্রতিযোগিতায় এটি সর্বোচ্চ রানের মর্যাদা পায়। এছাড়াও প্রতিযোগিতার ইতিহাসে মারাত্মক ব্যাটিং বিপর্যয় পড়ে এ স্মরণীয় ইনিংসটি খেলেন।[৭][৮] পুরাণের ঐ ইনিংসটি অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ওডিআইয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সর্বোচ্চ সংগ্রহরূপে বিবেচিত হয়। এ সময়ে নবম উইকেট জুটিতে বার্বাডীয় জেরোম জোন্সের সাথে ১৩৬ রান তুলেন। এটিও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের রেকর্ডরূপে বিবেচিত।[৯]

ঘরোয়া ক্রিকেট[সম্পাদনা]

অনূর্ধ্ব-১৯ দলের পক্ষে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলার পূর্বে ফেব্রুয়ারি ও মার্চ, ২০১৩ সালে ঘরোয়া একদিনের রিজিওনাল সুপার ৫০ প্রতিযোগিতায় ত্রিনিদাদ ও টোবাগো দলের পক্ষে খেলেন।[১০]

২০১৩ সালের সিপিএল আসরের উদ্বোধনী মৌসুমে ত্রিনিদাদের সিপিএলে বিশেষ প্রাধিকারপ্রাপ্ত দল রেড স্টিলের পক্ষে খেলার জন্যে মনোনীত হন। ১৭ বছর বয়সে খেলার ফলে এ প্রতিযোগিতায় সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড়ের মর্যাদাপ্রাপ্ত হন।[১১] গায়ানা আমাজন ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে অভিষেকে খেলায় ২৪ বলে ৫৪ রান তুলেন। এ ইনিংসেটিতে ছয়টি ছক্কার মার ছিল। নিখুঁত, শান্ত মেজাজে ও অপ্রত্যাশিতভাবে আক্রমণাত্মক ধরনের ছিল না।[১২][১৩] তবে, প্রতিযোগিতার বাদ-বাকী খেলাগুলোয় ব্যাটিংয়ে কম সফলতা পান। ২০১৩ সালের চ্যাম্পিয়ন্স লীগেও এ ধারা অব্যাহত থাকে। সেখানে তিনি রেড স্টিলকে পাশ কাটিয়ে ত্রিনিদাদ ও টোবাগো দলের পক্ষে খেলেছিলেন।[১৪]

২০১৪ সালের সিপিএল মৌসুমে আবারও রেড স্টিলের পক্ষে খেলেন। তবে, ঐ প্রতিযোগিতায় কোন অর্ধ-শতকেরও সন্ধান পাননি।[১৫] ২০১৪-১৫ মৌসুমের রিজিওনাল ফোর ডে কম্পিটিশনে ত্রিনিদাদ ও টোবাগো দলের সদস্যরূপে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক হয় তার। নভেম্বর, ২০১৪ সালে লিওয়ার্ড আইল্যান্ডসের বিপক্ষে বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি।[১৬] দ্বিতীয় খেলায় জ্যামাইকার বিপক্ষে টিএন্ডটির দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৫ রান তুলে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকে পরিণত হন। এ পর্যায়ে নিকিতা মিলারের সপ্তম শিকারের অন্যতম হন।[১৭] ক্লাবে পর্যায়ের ক্রিকেটে ত্রিনিদাদ লীগে ক্লার্ক রোডের পক্ষে খেলেন।[১৮]

২০১৪ মৌসুমে খণ্ডকালীন সময়ের জন্যে অন্টারিওতে অবস্থান করেন। ইটোবাইকোক ও ডিস্ট্রিক্টস ক্রিকেট লীগে রেডেম্পশন স্পোর্টস ক্লাবের প্রতিনিধিত্ব করেন তিনি।[১৯]

জানুয়ারি, ২০১৫ সালে ত্রিনিদাদের সেন্ট মেরিজে সড়ক দূর্ঘটনায় হাঁটু ও গোড়ালির আঘাতে আক্রান্ত হন। এরফলে, ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর ঘরোয়া মৌসুমসহ ২০১৫ সালের ক্যারিবীয় প্রিমিয়ার লীগে অংশগ্রহণ করা থেকে দূরে অবস্থান করতে বাধ্য হন।[২০]

ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ সালে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে ৩০ লাখ রূপির বিনিময়ে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের সাথে চুক্তিবদ্ধ হন।[২১] ২০১৭ সালের পাকিস্তান সুপার লীগে ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের পক্ষে খেলেন। খসড়া তালিকায় থাকার পর বেন ডাকেটের স্থলাভিষিক্ত হন তিনি। প্লে-অফের পূর্বে দলের সাথে যুক্ত হন।[২২] করাচী কিংসের বিপক্ষে অভিষেক ঘটে তার।

জুন, ২০১৮ সালে গ্লোবাল টি২০ কানাডা প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী আসরে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ বি দলের পক্ষে খেলার জন্যে মনোনীত হন।[২৩] অক্টোবর, ২০১৮ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগকে ঘিরে সিলেট সিক্সার্সের পক্ষে খেলার জন্যে চুক্তিবদ্ধ হন।[২৪] ঐ প্রতিযোগিতায় এগারো খেলায় অংশ নিয়ে ৩৭৯ রান তুলে দলের শীর্ষ রান সংগ্রাহকে পরিণত হন।[২৫] ডিসেম্বর, ২০১৮ সালে ২০১৯ সালের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগকে ঘিরে ৪.২ কোটি রূপির বিনিময়ে কিংস ইলাভেন পাঞ্জাবের পক্ষে অংশ নেন।[২৬][২৭]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ তারিখে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক সিরিজের প্রথমটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো খেলেন।[২৮]

২০১৮-১৯ মৌসুমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সাথে ভারত গমন করেন। এ সিরিজেই ভারতের বিপক্ষে প্রথম টি২০আই অর্ধ-শতকের সন্ধান পান।[২৯] খেলার প্রথম ইনিংসে মাত্র ২৫ বলের ৫৩ রানের ইনিংস উপহার দেন।[৩০]

ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ সালে সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওডিআই সিরিজ খেলার জন্যে মনোনীত হন।[৩১] ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ তারিখে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওডিআই অভিষেক হয় তার।[৩২] এপ্রিল, ২০১৯ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশ নেয়ার জন্যে ১৫-সদস্যের খেলোয়াড়ের তালিকা প্রকাশ করা হয়। এতে তিনিও দলের অন্যতম সদস্যরূপে মনোনীত হন।[৩৩][৩৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Roger Seepersad (13 June 2013). "Pooran credits extra work for quick rise" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে – Trinidad Express. Retrieved 3 August 2014.
  2. Roger Seepersad (31 January 2012). "Pooran leads Naps to big win" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৪ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে – Trinidad Express. Retrieved 3 August 2014.
  3. Miscellaneous matches played by Nicolas Pooran (34) – CricketArchive. Retrieved 3 August 2014.
  4. Under-19 ODI matches played by Nicolas Pooran (11) – CricketArchive. Retrieved 3 August 2014.
  5. Batting and fielding in ICC Under-19 World Cup 2013/14 (ordered by runs) – CricketArchive. Retrieved 3 August 2014.
  6. Batting and fielding for West Indies under-19s, ICC Under-19 World Cup 2013/14 – CricketArchive. Retrieved 3 August 2014.
  7. Kanishkaa Balachandran (23 February 2014). "Australia move into semis despite Pooran 143" – ESPNcricinfo. Retrieved 3 August 2014.
  8. Kanishkaa Balachandran (23 February 2014). "Pooran's innings a mark of maturity, skill" – ESPNcricinfo. Retrieved 3 August 2014.
  9. Sidhanta Patnaik (23 February 2014). "The Dhoni factor in Nicolas Pooran's rise" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে – Wisden India. Retrieved 3 August 2014.
  10. List A matches played by Nicolas Pooran (4) – CricketArchive. Retrieved 3 August 2014.
  11. — (16 July 2013). "Youngest player in Limacol CPL out to prove his worth" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১০ আগস্ট ২০১৪ তারিখে – Guyana Times. Retrieved 3 August 2014.
  12. Garth Wattley (2 August 2013). "A Caribbean party with question marks" – ESPNcricinfo. Retrieved 3 August 2014.
  13. Tony Cozier (18 August 2013). "Taking their CPL chances" – ESPNcricinfo. Retrieved 3 August 2014.
  14. Garth Wattley (6 October 2013). "The T&T force" – ESPNcricinfo. Retrieved 3 August 2014.
  15. Twenty20 matches played by Nicolas Pooran (19) – CricketArchive. Retrieved 3 August 2014.
  16. First-class matches played by Nicolas Pooran (3) – CricketArchive. Retrieved 9 December 2014.
  17. Trinidad and Tobago v Jamaica, WICB Professional Cricket League Regional 4 Day Tournament 2014/15 – CricketArchive. Retrieved 9 December 2014.
  18. — (19 December 2013). "Pooran named Clarke Road's youth cricketer of year" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১৭-০২-২১ তারিখে – Trinidad and Tobago Guardian. Retrieved 3 August 2014.
  19. — (16 March 2014). "West Indies U-19 star Nicolas Pooran signs with Canadian club" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১১ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে – SportsDesk. Retrieved 3 August 2014.
  20. (8 January 2015). T&T's Nicolas Pooran injures leg in road accident – ESPNcricinfo. Retrieved 21 June 2015.
  21. "List of players sold and unsold at IPL auction 2017"ESPN Cricinfo। ২০১৭-০২-২০। সংগ্রহের তারিখ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  22. "Pooran replaces Ben Duckett ahead of play-offs"(Green team 92)। ২০১৭-০২-২৭। ২০১৭-০২-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  23. "Windies B squad for Global T20 League in Canada"Cricket West Indies। ১৩ জুন ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুন ২০১৮ 
  24. "Full players list of the teams following Players Draft of BPL T20 2018-19"Bangladesh Cricket Board। সংগ্রহের তারিখ ২৯ অক্টোবর ২০১৮ 
  25. "Bangladesh Premier League, 2018/19 - Sylhet Sixers: Batting and bowling averages"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  26. "IPL 2019 auction: The list of sold and unsold players"ESPN Cricinfo। ২০১৮-১২-১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  27. "IPL 2019 Auction: Who got whom"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  28. "West Indies tour of United Arab Emirates, 1st T20I: Pakistan v West Indies at Dubai (DSC), Sep 23, 2016"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  29. "West Indies tour of India 2018/19 Scores, Fixtures, Tables & News - ESPNcricinfo"ESPNcricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১১-১২ 
  30. "As tour winds to a close, Nicholas Pooran makes his case"ESPNcricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১১-১২ 
  31. "Chris Gayle back in West Indies' ODI squad"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  32. "1st ODI (D/N), England tour of West Indies at Bridgetown, Feb 20 2019"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  33. "Andre Russell in West Indies World Cup squad, Kieron Pollard misses out"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০১৯ 
  34. "Andre Russell picked in West Indies' World Cup squad"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]