দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সার্ক
সার্ক (সার্ক) South Asian Association for Regional Cooperation (SAARC)  (ইংরেজি) ༄ ལྷོ ཨེསིཨ་ རེ་གིཨོནལ་ ཅོཨོཔེརཏིཨོན་ ཀོ་མི་ཏི། (জংখা) දකුණු ආසියාතික කලාපීය සහයෝගිතා සංවිධානය  (Sinhalese) தெற்காசிய நாடுகளின் பிராந்தியக் கூட்டமைப்பு (சார்க்)  (তামিল) दक्षिण एशियाली क्षेत्रीय सहयोग सन्गठन(सार्क)  (Nepali) दक्षिण एशियाई क्षेत्रीय सहयोग संगठन (दक्षेस)  (হিন্দি) ދެކުނު އޭޝިޔާގެ ސަރަޙައްދީ އެއްބާރުލުމުގެ ޖަމިއްޔާ (দিবেহি) ਦੱਖਣੀ ਏਸ਼ੀਆਈ ਖੇਤਰੀ ਸਹਿਯੋਗ ਸੰਗਠਨ (ਸਾਰਕ) (পাঞ্জাবি) د سویلي اسیا لپاره د سیمه ایزی همکارۍ ټولنه (পশতু) جنوبی ایشیائی علاقائی تعاون کی تنظیم  (Urdu) লোগো
লোগো
  সদস্য দেশ   পর্যবেক্ষক দেশ
  সদস্য দেশ
  পর্যবেক্ষক দেশ
সদর দপ্তরনেপাল কাঠমান্ডু, নেপাল
অফিসিয়াল ভাষাইংরেজি
সদস্যপদ
নেতৃবৃন্দ
 শ্রীলঙ্কা এসালা রোয়ান ওয়েরাকুন ১৪ তম
• পরিচালক
 আফগানিস্তান মাইহান সাঈদী

 বাংলাদেশ এমজেএইচ জাভেদ
 ভুটান সিঙয়ে রিচেন
 ভারত অজয় কুমার
 মালদ্বীপ ফাতিমাথ নাজওয়া
   নেপাল রিতা ধিতল
 পাকিস্তান মোহাম্মদ আলী হায়দার আলতাফ

 শ্রীলঙ্কা এমএইচএমএন বান্দারা
 মালদ্বীপ
প্রতিষ্ঠা৮ ডিসেম্বর ১৯৮৫
ওয়েবসাইট
www.saarc-sec.org
  1. যদি একটি একক সত্তা হিসাবে বিবেচনা করে।
  2. একটি সমন্বিত মুদ্রা প্রস্তাব করা হয়েছে।

দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা (সংক্ষেপে সার্ক) দক্ষিণ এশিয়ার একটি আঞ্চলিক সংস্থা। এর সদস্য দেশগুলো বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, নেপাল, ভুটান এবং আফগানিস্তানচীন, জাপান, যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান, মায়ানমার, মরিশাস, ও অস্ট্রেলিয়া হল সার্কের ৮ টি পর্যবেক্ষক রাষ্ট্র। সার্ক ১৯৮৫ সালের ৮ই ডিসেম্বর বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। যখন বাংলাদেশ,ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপশ্রীলঙ্কা নেতারা দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক,অর্থনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়ন এবং অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশসমূহের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ও সহযোগিতা করার লক্ষ্যে এক রাজকীয় সনদপত্রে আবদ্ধ হন । এটি অর্থনৈতিক, প্রযুক্তিগত, সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং উন্নয়নের যৌথ আত্মনির্ভরশীলতা জোর নিবেদিত । সার্কের প্রতিষ্টাতা সদস্য সমূহ হল বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মালদ্বীপ, ভুটান এবং ২০০৭ সালে আফগানিস্তান সার্কের সদস্য পদ লাভ করে । রাষ্ট্রের শীর্ষ মিটিং সাধারণত বাৎসরিক ভিত্তিতে নির্ধারিত এবং পররাষ্ট্র সচিবদের সভা দুই বছর পর পর অনুষ্ঠিত হয় । নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডু সার্কের সদর দফতর অবস্থিত ।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রথম দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতার জন্য একটি কাঠামো প্রতিষ্ঠার প্রস্তাবটি বাংলাদেশের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের চিন্তাধারা থেকে আসে ।

সচিবালয়[সম্পাদনা]

সার্ক সচিবালয় কাঠমান্ডু, নেপাল

সার্ক সচিবালয় জানুয়ারি ১৭, ১৯৮৭ সালে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং নেপালের প্রথিতযশা রাজা বীরেন্দ্র বীর বিক্রম শাহ দেব এটি উদ্বোধন করেন।

আঞ্চলিক কেন্দ্রসমূহ[সম্পাদনা]

সার্কের আঞ্চলিক কেন্দ্রসমূহ:[১]

কেন্দ্র্রর নাম সংক্ষিপ্ত নাম অবস্থান
সার্ক কৃষিবিষয়ক কেন্দ্র এসএসি ঢাকা, বাংলাদেশ
সার্ক আবহাওয়া গবেষণা কেন্দ্র (বর্তমানে বন্ধ আছে এবং এটি বর্তমানে দিল্লিতে অবস্থিত সার্ক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্রের অধিভুক্ত) এসএমআরসি ঢাকা, বাংলাদেশ
সার্ক যক্ষ্মা ও এইচআইভি/এইডস কেন্দ্র এসটিএসি কাঠমান্ডু, নেপাল
সার্ক নথিপত্রকরণ কেন্দ্র এসডিসি নয়া দিল্লি, ভারত
সার্ক মানব সম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র এসএইচআরডিসি ইসলামাবাদ, পাকিস্তান
সার্ক উপকূলীয় অঞ্চল ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র এসসিজেডএমসি মালদ্বীপ
সার্ক তথ্য কেন্দ্র এসআইসি নেপাল
সার্ক শক্তি কেন্দ্র এসইসি পাকিস্তান
সার্ক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র এডিএমসি নিউ দিল্লি, ভারত
সার্ক বন গবেষণা কেন্দ্র এসএফসি থিম্পু, ভুটান
সার্ক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র এসসিসি শ্রীলঙ্কা

মহাসচিব[সম্পাদনা]

সার্ক মহাসচিবদের তালিকা
ক্রমিক নং দেশ নাম সময়কাল
 বাংলাদেশ আবুল হাসান ১৬ জানুয়ারি, ১৯৮৫ – ১৫ অক্টোবর, ১৯৮৯
 ভারত কান্ত কিশোর ভার্গব ১৭ অক্টোবর, ১৯৮৯ – ৩১ ডিসেম্বর, ১৯৯১
 মালদ্বীপ ইব্রাহীম হুসাইন জাকী ১ জানুয়ারি, ১৯৯২ – ৩১ ডিসেম্বর, ১৯৯৩
   নেপাল যাদব কান্ত সিলওয়াল ১ জানুয়ারি, ১৯৯৪ – ৩১ ডিসেম্বর, ১৯৯৫
 পাকিস্তান নাঈম ইউ. হাসান ১ জানুয়ারি, ১৯৯৬ – ৩১ ডিসেম্বর, ১৯৯৮
 শ্রীলঙ্কা নিহাল রডরিগো ১ জানুয়ারি, ১৯৯৯ – ১০ জানুয়ারি, ২০০২
 বাংলাদেশ কিউ. এ. এম. এ. রহিম ১১ জানুয়ারি, ২০০২ – ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০০৫
 ভুটান লিয়নপো চেনকিয়াব দর্জি ১ মার্চ, ২০০৫ –২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০০৮
 ভারত শীল কান্ত শর্মা ১ মার্চ, ২০০৮ – ২৮, ফেব্রুয়ারি, ২০১১
১০  মালদ্বীপ ফাতিমা দিয়ানা সাঈদ (একমাত্র পদত্যাগকারী মহাসচিব) ১ মার্চ, ২০১১ – ১১ মার্চ, ২০১২
১১  মালদ্বীপ আহমেদ সেলিম ১২ মার্চ, ২০১২ – ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪[২]
১২    নেপাল অর্জুন বাহাদুর থাপা ১ মার্চ ২০১৪
১৩  পাকিস্তান আমজাদ হোসেন সিয়াল ১ মার্চ ২০১৭ [৩]
১৪  শ্রীলঙ্কা এসালা রোয়ান ওয়েরাকুন ৩ মার্চ ২০২০-বর্তমান

শীর্ষ সম্মেলন[সম্পাদনা]

শীর্ষ সম্মেলনের তালিকা
ক্রমিক নং তারিখ স্বাগতিক দেশ স্থান সভাপতি
১ম ৭-৮ ডিসেম্বর, ১৯৮৫  বাংলাদেশ ঢাকা আতাউর রহমান খান
২য় ১৬-১৭ নভেম্বর, ১৯৮৬  ভারত বেঙ্গালুরু রাজীব গান্ধী
৩য় ২-৪ নভেম্বর, ১৯৮৭    নেপাল কাঠমান্ডু মারীচ মান সিং শ্রেষ্ঠা
৪র্থ ২৯-৩১ ডিসেম্বর, ১৯৮৮  পাকিস্তান ইসলামাবাদ বেনজীর ভুট্টো
৫ম ২১-২৩ নভেম্বর, ১৯৯০  মালদ্বীপ মালে মাওমুন আবদুল গাইয়ূম
৬ষ্ঠ ২১ ডিসেম্বর, ১৯৯১  শ্রীলঙ্কা কলম্বো দীনগিরী বান্দা বিজেতুঙ্গে
৭ম ১০-১১ এপ্রিল, ১৯৯৩  বাংলাদেশ ঢাকা খালেদা জিয়া
৮ম ২-৪ মে, ১৯৯৫  ভারত নতুন দিল্লি পি. ভি. নরসিমা রাও
৯ম ১২-১৪ মে, ১৯৯৭  মালদ্বীপ মালে মাওমুন আবদুল গাইয়ূম
১০ম ২৯-৩১ জুলাই, ১৯৯৮  শ্রীলঙ্কা কলম্বো শ্রীমাভো রাতওয়াতে ডায়াস বন্দরনায়েকে
১১'শ ৪-৬ জানুয়ারি, ২০০২    নেপাল কাঠমান্ডু শের বাহাদুর দেউবা
১২'শ ২-৬ জানুয়ারি, ২০০৪  পাকিস্তান ইসলামাবাদ জাফরুল্লাহ খান জামালী
১৩'শ ১২-১৩ নভেম্বর, ২০০৫  বাংলাদেশ ঢাকা খালেদা জিয়া
১৪'শ ৩-৪ এপ্রিল, ২০০৭  ভারত নতুন দিল্লি মনমোহন সিং
১৫'শ ১-৩ আগস্ট, ২০০৮  শ্রীলঙ্কা কলম্বো রত্নাসিরি বিক্রমানায়েকে
১৬'শ ২৮-২৯ এপ্রিল, ২০১০  ভুটান থিম্ফু জিগমে থিনলে
১৭'শ ১০-১১ নভেম্বর, ২০১১[৪]  মালদ্বীপ আদ্দু মোহামেদ নাশিদ
১৮'শ ২৬-২৭ নভেম্বর, ২০১৪[৫]    নেপাল কাঠমান্ডু সুশীল কৈরালা

সার্কের বর্তমান নেতৃবৃন্দ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "আঞ্চলিক কেন্দ্রসমূহ"। saarc-sec.org। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৪ 
  2. SAARC website
  3. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আমজাদ হোসেন নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  4. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১১ আগস্ট ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১১ 
  5. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ নভেম্বর ২০১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  1. "সার্কের মহাসচিবের দায়িত্ব নিচ্ছেন আমজাদ সিয়াল"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৬-২৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]