রনিল বিক্রমসিংহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সম্মানীয়
রনিল বিক্রমসিংহ
এমপি
රනිල් වික්‍රමසිංහ
ரணில் விக்ரமசிங்க
R Wickremasinghe.jpg
শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
৯ জানুয়ারি, ২০১৫
রাষ্ট্রপতিমৈত্রীপাল সিরিসেন
পূর্বসূরীডি. এম. জয়ারত্নে
কাজের মেয়াদ
৯ ডিসেম্বর, ২০০১ – ৬ এপ্রিল, ২০০৪
রাষ্ট্রপতিচন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গা
পূর্বসূরীরত্নাসিরি বিক্রমানায়েকে
উত্তরসূরীমহিন্দ রাজাপক্ষ
কাজের মেয়াদ
৭ মে, ১৯৯৩ – ১২ নভেম্বর, ১৯৯৪
রাষ্ট্রপতিডি.বি. বিজেতুঙ্গা
পূর্বসূরীডি.বি. বিজেতুঙ্গা
উত্তরসূরীচন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গা
বিরোধীদলীয় নেতা
কাজের মেয়াদ
২২ এপ্রিল, ২০০৪ – ৯ জানুয়ারি, ২০১৫
রাষ্ট্রপতিচন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গা
মহিন্দ রাজাপক্ষ
প্রধানমন্ত্রীমহিন্দ রাজাপক্ষ
রত্নাসিরি বিক্রমানায়েকে
ডি. এম. জয়ারত্নে
পূর্বসূরীমহিন্দ রাজাপক্ষ
উত্তরসূরীনিমল সিরিপাল ডি সিলভা
কাজের মেয়াদ
২৮ অক্টোবর, ১৯৯৪ – ১০ অক্টোবর, ২০০১
রাষ্ট্রপতিচন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গা
প্রধানমন্ত্রীসিরিমাভো বন্দরনায়েকে
রত্নাসিরি বিক্রমানায়েকে
পূর্বসূরীগামিনি দিসানায়েকে
উত্তরসূরীরত্নাসিরি বিক্রমানায়েকে
কলম্বো জেলা শ্রীলঙ্কান সংসদ সদস্য
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১৯৯৪
গামপাহা জেলা শ্রীলঙ্কান সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
১৯৮৯ – ১৯৯৪
বিয়াঙ্গামা শ্রীলঙ্কান সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
২১ জুলাই, ১৯৭৭ – ১৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮৯
পূর্বসূরীসংসদীয় আসন সৃষ্ট
উত্তরসূরীসংসদীয় আসন বিলুপ্ত
নীতি পরিকল্পনা ও অর্থনৈতিক উন্নয়নবিষয়ক মন্ত্রী
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১২ জানুয়াই, ২০১৫
রাষ্ট্রপতিমৈত্রীপাল সিরিসেন
প্রধানমন্ত্রীস্বয়ং
পূর্বসূরীবাসিল রাজাপক্ষ
শিল্প, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়কমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
১৯৮৯ – মে, ১৯৯৩
রাষ্ট্রপতিরানাসিংহে প্রেমাদাসা
প্রধানমন্ত্রীডি.বি. বিজেতুঙ্গা
শিক্ষামন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
১৪ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮০ – ১৯৮৯
রাষ্ট্রপতিজুনিয়াস রিচার্ড জয়াবর্ধনে
প্রধানমন্ত্রীরানাসিংহে প্রেমাদাসা
যুব ও কর্মসংস্থানবিষয়কমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
৫ অক্টোবর, ১৯৭৭ – ১৯৮০
রাষ্ট্রপতিজুনিয়াস রিচার্ড জয়াবর্ধনে
প্রধানমন্ত্রীরানাসিংহে প্রেমাদাসা
ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির দলনেতা
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১৯ আগস্ট, ১৯৯৪
ডেপুটিসজিত প্রেমাদাসা
কারু জয়াসুরিয়া
পূর্বসূরীডি.বি. বিজেতুঙ্গা
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মরনীল বিক্রমাসিংহে
(1949-03-24) ২৪ মার্চ ১৯৪৯ (বয়স ৭০)
সিলন ডমিনিয়ন
(বর্তমানে শ্রীলঙ্কা)
জাতীয়তাশ্রীলঙ্কান
রাজনৈতিক দলইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গীড. মৈত্রী বিক্রমাসিংহে
বাসস্থানটেম্পল ট্রিজ
প্রাক্তন শিক্ষার্থীরয়্যাল কলেজ, কলম্বো
কলম্বো বিশ্ববিদ্যালয়
পেশারাজনীতিবিদ
জীবিকাআইনজীবী
ধর্মথেরবাদ
ওয়েবসাইটOfficial website

রনীল শ্রীয়ান বিক্রমাসিংহে, এমপি (সিংহলি: රනිල් වික්‍රමසිංහ,তামিল: ரணில் விக்ரமசிங்க; জন্ম: ২৪ মার্চ, ১৯৪৯) সিলন ডমিনিয়নে জন্মগ্রহণকারী শ্রীলঙ্কার বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ। তিনি একাধারে শ্রীলঙ্কার বর্তমান প্রধানমন্ত্রী, ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির দলনেতা ও কলম্বো জেলার সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও, ইউনাইটেড ন্যাশনাল ফ্রন্টের প্রধান হিসেবে অক্টোবর, ২০০৯ সাল থেকে দলীয় জোটের প্রধান হিসেবে মনোনীত হয়েছেন রনীল বিক্রমাসিংহে[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

সাবেক সমসমাজপন্থী এসমন্ড ও নলীনি বিক্রমাসিংহে দম্পতির দ্বিতীয় পুত্র তিনি।[২] এসমন্ড বিক্রমাসিংহে সংবাদপত্রের গ্রুপ লেক হাউজের প্রধান।[৩] তার পৈতৃক সম্পর্কীয় কাকা লক্ষ্মণ বিক্রমাসিংহে শ্রীলঙ্কা চার্চে বিশপ ছিলেন।[৪] এছাড়াও, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জুনিয়াস রিচার্ড জয়েবর্ধনের ভাইপো তিনি।

কলম্বোর রয়্যাল কলেজে অধ্যয়ন করেন। সিলন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদে ভর্তি হন। স্নাতক ডিগ্রী লাভের পর শ্রীলঙ্কা ল কলেজ থেকে আইন পরীক্ষায় অংশ নেন। ১৯৭২ সালে এডভোকেট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন তিনি।[৫]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টিতে (ইউএনপি) যোগ দেন। ১৯৭০-এর দশকের মধ্যভাগে কেলানিয়া নির্বাচনী এলাকায় প্রধান সংগঠকের দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ১৯৭৭ সালে বিয়াগামা নির্বাচনী এলাকা থেকে সংসদীয় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়লাভ করেন।

জুনিয়াস রিচার্ড জয়াবর্ধনের নতুন সরকার গঠিত হলে পররাষ্ট্রবিষয়ক উপ-মন্ত্রী হন। এরপর যুব ও কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রীর দায়িত্ব পান। এরফলে শ্রীলঙ্কার সর্বকনিষ্ঠ মন্ত্রীর মর্যাদা পান।[৪] পরবর্তীতে শিক্ষামন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।[৬]

রাষ্ট্রপতি রানাসিংহে প্রেমাদাসা’র সরকারে শ্রমমন্ত্রীর হিসেবে নিযুক্ত হন। ১৯৮৯ সালে সংসদ নেতা মনোনীত হন। তামিল টাইগার্সের হাতে রানাসিংহে প্রেমাদাসা নিহত হলে ৭ মে, ১৯৯৩ তারিখে তিনি প্রধানমন্ত্রী ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডি. বি.বিজেতুঙ্গাকে ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি করা হয়।

প্রধানমন্ত্রীত্ব[সম্পাদনা]

৭ মে, ১৯৯৩ থেকে ১৯ আগস্ট, ১৯৯৪ এবং ৯ ডিসেম্বর, ২০০১ থেকে ৬ এপ্রিল, ২০০৪ তারিখ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন। নভেম্বর, ১৯৯৪ সালে রাষ্ট্রপতির নির্বাচন প্রচারকালে গামিনি দিসানেয়েকের হত্যাকাণ্ডের পর দলের নেতা মনোনীত হন।[৭] ২০১৫ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে মহিন্দ রাজাপক্ষকে পরাজিত করার পর ৮ জানুয়ারি, ২০১৫ তারিখে রাষ্ট্রপতি মৈত্রীপাল সিরিসেন কর্তৃক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন।[৮]

বিক্রমাসিংহের দলীয় জোট ইউনাইটেড ন্যাশনাল ফ্রন্ট ফর গুড গভর্ন্যান্স ২০১৫ সালের সংসদীয় নির্বাচনে ১০৬ আসন দখল করে। কিন্তু নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভে ব্যর্থ হওয়ায় শ্রীলঙ্কা ফ্রিডম পার্টির ৩৫ সদস্যকে নিজ মন্ত্রীসভায় অন্তর্ভুক্ত করে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পুণরায় নির্বাচিত হন।[৯][১০]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৪ সালে কেলানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের[১১] ইংরেজি বিভাগের জ্যেষ্ঠ প্রভাষক ড. মৈত্রী বিক্রমাসিংহের[১২] সাথে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন। তাদের সংসারে একমাত্র কন্যা রয়েছে।

২০১৪ সালে ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি কর্তৃক রবার্ট ই. উইলহেম ফেলো মনোনীত হন।[১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Ranil Wickremesinghe appointed Prime Minister"Trade Bridge Consultants। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  2. "Regi Siriwardena dies at 82"ancestry.com। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  3. "Prime Minister Ranil Wickrmesinghe: A social democrat with a vision and a mission, by N. Manoharan"। ৯ অক্টোবর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৫ 
  4. "Sri Lanka: Former Prime Ministers"priu.gov.lk। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  5. "Lankalovers"lankalovers.com। ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  6. "Ranil Wickremasinghe is scheduled to take oaths as Prime Minister tomorrow | ITN News"www.itnnews.lk। ২০১৬-০১-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-১০-২৪ 
  7. "Ranil Wickremesinghe - Gentlemen Politician of 4 decades, alias mature leader of the people"। United National Party। ২০ জুলাই ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  8. "Sri Lanka election: shock as president Mahinda Rajapaksa concedes defeat"The Guardian। ৯ জানুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  9. Ramachandran, Sudha (১৩ আগস্ট ২০১৫)। "Sri Lanka's Elections: Rajapaksa Tries a Comeback"The Diplomat। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  10. "Prime Minister Wickremesinghe Calls For Buddhist Approach: Nikkei"AsiaMirror cloned Nikkei। ২০ আগস্ট ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  11. "Academic Staff of the Department of English, University Of Kelaniya"। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৫ 
  12. "Maithree Wickremesinghe, Faculty of Humanities/Department of English, University Of Kelaniya"। ২৮ জুন ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০১৫ 
  13. "MIT CIS: Ranil Wickremesinghe Joins MIT"mit.edu। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

সরকারি দফতর


পূর্বসূরী
ডি. এম. জয়ারত্নে
শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী
২০১৫-বর্তমান
নির্ধারিত হয়নি
পূর্বসূরী
রত্নাসিরি বিক্রমানায়েকে
শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী
২০০১-২০০৪
উত্তরসূরী
মহিন্দ রাজাপক্ষ
পূর্বসূরী
দীনগিরি বান্দা বিজেতুঙ্গা
শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী
১৯৯৩-১৯৯৪
উত্তরসূরী
চন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গা