গোলাম মোস্তফা কাসেমি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গোলাম মোস্তফা কাসেমী
গোলাম মোস্তফা কাসেমী.jpg
গোলাম মোস্তফা কাসেমি
জন্ম(১৯২৪-০৬-২৪)২৪ জুন ১৯২৪
মৃত্যু৯ ডিসেম্বর ২০০৩(2003-12-09) (বয়স ৭৯)
হায়দরাবাদ, পাকিস্তান

গোলাম মোস্তফা কাসেমি (সিন্ধি: علامه غلام مصطفيٰ قاسمي) (১৯২৪ - ২০০৩) একজন পণ্ডিত, সিন্ধি ভাষার লেখক এবং সিন্ধু বিষয়ক গবেষক ছিলেন।[১][২]

শিক্ষা ও প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

তিনি ১৯২৪ সালের ২৪ জুন লারকানা জেলার মিরো খানের রইস বানভো খান চান্দিও তালুকোর গ্রামে। তিনি মাওলানা ফতেহ মোহাম্মদ সেরানী এবং মাওলানা খুশি মোহাম্মদ মিরোখানীর কাছ থেকে প্রাথমিক শিক্ষা পেয়েছিলেন, তার পরে দারুল উলূম দেওবন্দে চলে যাওয়ার পর সেখানে উবায়দুল্লাহ সিন্ধিহুসাইন আহমেদ মাদানীর সাথে তাঁর সাক্ষাত হয়। তিনি হাদীস, ফিকাহ, তাফসীর এবং যুক্তি (মান্তিক) বিষয়ে বিশেষজ্ঞ ছিলেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

তিনি করাচির সিন্ধু মুসলিম কলেজ, সিন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় এবং মাদারিসা মাজহার-ই-উলূমে শিক্ষকতা করেছেন। তিনি হায়দরাবাদ শাহ ওয়ালীউল্লাহ একাডেমির পরিচালক ও সিন্ধি আদবী বোর্ডের চেয়ারম্যান। ১৯৭৭ থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত রু'য়াত-ই-হিলাল কমিটির (চাঁদ দেখা কমিটি) চেয়ারম্যান ছিলেন।

তিনি তরুণ গবেষকদেরকে নিজ গবেষণা-ভিত্তিক কাজে পরিচালিত করেছিলেন এবং ৫০ টিরও বেশি পিএইচডি অর্জনকারী পণ্ডিত তাঁর তত্ত্বাবধানে সেই গবেষণা কাজ সমাপ্ত করেছিলেন।[৩]

কাজ[সম্পাদনা]

তিনি শাহ আবদুল লতিফ ভিট্টাইয়ের শাহ জো রিসালো থেকে তাঁর সাহিত্য যাত্রা শুরু করেছিলেন। তিনি সিন্ধি ভাষায় আরবী ও ফারসির ধর্ম ও ইসলামি সংস্কৃতি সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ের বই লিখেছেন, সংকলন করেছেন এবং অনুবাদ করেছেন। তিনি তাঁর শিক্ষাবর্ষে যুক্তি সম্পর্কিত মুফীদুত তালিবা নামক একটি বই লিখেছিলেন, যা এখনও বিভিন্ন মাদ্রাসায় পড়ানো হয়। তিনি শাহ ওয়ালী উল্লাহর আলোকে সামাজিক ন্যায়বিচার ও সমষ্টিবাদ (সিন্ধি:سماجي انصاف ۽ اجتماعيت‎) (রোমান-সিন্ধি নাম (সমজি ইনসাফ এন ইজতিমাইয়াত)) ও কুরআনের বৈশিষ্ট্য নামক একটি বই লিখেছিলেন। তিনি ফারসি অনুদিত কুরআন এবং সূরা সাবার তাফসীর সম্পাদনা করেছেন।

অর্জন[সম্পাদনা]

তাকে পাকিস্তান সরকার সিতারা-ই-ইমতিয়াজ উপাধী দিয়ে ভূষিত করেছিল।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

২০০৩ সালের ডিসেম্বর মাসে তিনি মারা যান এবং গোলাম নবী কালহোর সমাধির নিকটে তাকে দাফন করা হয়।[৪][৫]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Correspondent, The Newspaper's Staff (২০১৩-১২-১০)। "Tribute paid to Allama Qasmi"DAWN.COM (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৫ 
  2. A.A. Brohi। "Allama Qasmi remembered" পাকিস্তান প্রেস ফাউন্ডেশন (পিপিএফ) । ১ জুলাই ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৬ 
  3. "A rich tribute was paid to eminent scholar Allama Ghulam Mustafa Qasmi on his 10th death anniversary organized by Allama Ghulam Mustafa Qasimi Chair, University of Sindh in very decent and gracious manner at the tomb of Mian Ghulam Nabi Kalhoro on Monday. | University of Sindh - Information Portal"web.archive.org। ২০১৬-০৬-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৫ 
  4. "Tareekh e Pakistan - Allama GhulAm Mustafa Qasmi (علامہ غلام مصطفی قاسمی کی وفات) | Online History Of Pakistan"www.tareekhepakistan.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৫ 
  5. "Thesindhtimes.com"www.thesindhtimes.com। ২০১৭-০৬-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৫