২০১৫ অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৫ অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর
WestIndiesCricketFlagPre1999.svg
ওয়েস্ট ইন্ডিজ
Flag of Australia.svg
অস্ট্রেলিয়া
তারিখ ২৭ মে ২০১৫ – ১৫ জুন ২০১৫
অধিনায়ক দীনেশ রামদিন মাইকেল ক্লার্ক
টেস্ট সিরিজ
ফলাফল ২-ম্যাচের সিরিজ ২–২ এ ড্র হয়
সর্বাধিক রান জেসন হোল্ডার (১১৬) স্টিভ স্মিথ (২৮৩)
সর্বাধিক উইকেট জেরোমি টেলর (৮) জোশ হজলউড (১২)
সিরিজ সেরা জোশ হজলউড (অস্ট্রেলিয়া)
২০১১-১২ (পূর্ববর্তী)

অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল পূর্ব-নির্ধারিত সময়সূচী মোতাবেক ২৭ মে থেকে ১৫ জুন, ২০১৫ তারিখ পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর করে। এ সফরে সফরকারী দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের বিপক্ষে একটি প্রথম-শ্রেণীর প্রস্তুতিমূলক খেলাসহ দু’টি টেস্ট খেলায় অংশগ্রহণ করে।[১]

৮ এপ্রিল, ২০১৫ তারিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড তাদের নিজেদের স্বার্থে দুই টেস্ট আয়োজনের জন্য দুই দিন পিছিয়ে দেয়।[২] অস্ট্রেলিয়া ২-ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ২-০ তে জয়লাভ করে ও ফ্রাঙ্ক ওরেল ট্রফি ধরে রাখে।

দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

৩১ মার্চ, ২০১৫ তারিখে অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্যদের নামের তালিকা ঘোষণা করা হয়। ক্যাপবিহীন অবস্থায় স্পিনার ফাহাদ আহমেদ, উইকেট-কিপার পিটার নেভিল ও ব্যাটসম্যান এ্যাডাম ভোজেস - এ তিনজনকে দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।[৩] ২৪ মে, ২০১৫ তারিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের প্রাথমিক তালিকা প্রকাশিত হয়। ১২-সদস্যের প্রাথমিক দলে শিবনারায়ণ চন্দরপলকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।[৪] ব্রায়ান লারা এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন।[৫] কিন্তু, সাবেক ফাস্ট বোলার মাইকেল হোল্ডিংয়ের মতে, ‘আমি মনে করি না যে, ক্রিকেটারগণ শুধুমাত্র সিরিজ থেকে বিদায় নেয়ার জন্য অংশগ্রহণ করেন না।’[৬] ৩০ মে চন্দরপলকে বাদ দিয়ে চূড়ান্ত তালিকা ঘোষণা করা হয়।[৭]

 ওয়েস্ট ইন্ডিজ  অস্ট্রেলিয়া

প্রস্তুতিমূলক খেলা[সম্পাদনা]

ডব্লিউআইসিবি সভাপতি একাদশ ব অস্ট্রেলিয়া একাদশ[সম্পাদনা]

২৭-২৯ মে ২০১৫
স্কোরকার্ড
ডব্লিউআইসিবি সভাপতি একাদশ
৩৮২ (১১৪ ওভার)
শেন ডোরিচ ৭৮ (১৬৭)
জোশ হজলউড ২/৩৬ (১৯ ওভার)
২৫০ (১০৪ ওভার)
শন মার্শ ১১৮ (২২০)
কার্লোস ব্রাদওয়েট ৩/৩৯ (২১ ওভার)
১৬১/৪ (৪৮ ওভার)
রোস্টন চেজ ৫৫* (১০৩)
জোশ হজলউড ৩/৪ (৪ ওভার)
  • বোর্ড একাদশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

টেস্ট সিরিজ (ফ্রাঙ্ক ওরেল ট্রফি)[সম্পাদনা]

১ম টেস্ট[সম্পাদনা]

৩-৭ জুন ২০১৫
স্কোরকার্ড
১৪৮ (৫৩.৫ ওভার)
শাই হোপ ৩৬ (৫৪)
জোশ হজলউড ৩/৩৩ (১৫ ওভার)
৩১৮ (১০৭ ওভার)
এ্যাডাম ভোজেস ১৩০* (২৪৭)
দেবেন্দ্র বিশু ৬/৮০ (৩৩ ওভার)
২১৬ (৮৬ ওভার)
মারলন স্যামুয়েলস ৭৪ (১৮৪)
মিচেল স্টার্ক ৪/২৮ (১৮ ওভার)
৪৭/১ (৫ ওভার)
ডেভিড ওয়ার্নার ২৮ (২০)
জেরোমি টেলর ১/২২ (৩ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৯ উইকেটে বিজয়ী
উইন্ডসর পার্ক, রোজো, ডমিনিকা
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও রিচার্ড কেটেলবরা (ইংল্যান্ড)
ম্যাচসেরা: এ্যাডাম ভোজেস (অস্ট্রেলিয়া)
  • ওয়েস্ট ইন্ডিজ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে শেন ডোরিচ ও অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে এ্যাডাম ভোজেসের টেস্ট অভিষেক ঘটে।
  • টেস্ট ক্রিকেট অভিষেকে সর্বাপেক্ষা বয়োজ্যেষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে এ্যাডাম ভোজেস সেঞ্চুরি করেন।[৮]
  • অস্ট্রেলিয়া ১-০ ব্যবধানে সিরিজে এগিয়ে।

২য় টেস্ট[সম্পাদনা]

১১-১৫ জুন ২০১৫
স্কোরকার্ড
৩৯৯ (১২৬.৫ ওভার)
স্টিভ স্মিথ ১৯৯ (৩৬১)
জেরোমি টেলর ৬/৪৭ (২৫ ওভার)
২২০ (৫৯.৫ ওভার)
জেসন হোল্ডার ৮২* (৬৩)
জোশ হজলউড ৫/৩৫ (১৫.৫ ওভার)
২১২/২ডি. (৬৫ ওভার)
শন মার্শ ৬৯ (১৫৩)
কেমার রোচ ১/২৬ (৯ ওভার)
১১৪ (৪২ ওভার)
দীনেশ রামদিন ২৯ (৭৪)
মিচেল স্টার্ক ৩/৩৪ (১৩ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ২৭৭ রানে বিজয়ী
সাবিনা পার্ক, কিংস্টন, জ্যামাইকা
আম্পায়ার: ইয়ান গোল্ড (ইংল্যান্ড) ও রিচার্ড কেটেলবরা (ইংল্যান্ড)
ম্যাচসেরা: স্টিভ স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Australia tour of West Indies, 2015"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৫ 
  2. "WICB reschedules Australia Tests"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৫ 
  3. "Ashes 2015: Australia announce squad to tour England" (ইংরেজি ভাষায়)। বিবিসি স্পোর্ট। ৩১ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১৫ 
  4. "Chanderpaul excluded from WI training squad"ইএসপিএনক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মে ২০১৫ 
  5. "Chanderpaul has earned farewell series - Lara"ইএসপিএনক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মে ২০১৫ 
  6. "Chanderpaul no longer good enough to play for West Indies - Holding"ইএসপিএনক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০১৫ 
  7. "Chanderpaul dropped from West Indies squad"ইএসপিএনক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মে ২০১৫ 
  8. "Voges' debut hundred builds Australia's lead"ইএসপিএনক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০১৫ 
  9. "Smith and Lyon strengthen Australia's grip"ইএসপিএনক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুন ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]