জেফ্রি ভ্যান্ডারসে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জেফ্রি ভ্যান্ডারসে
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজেফ্রি ডেক্সটার ফ্রান্সিস ভ্যান্ডারসে
জন্ম (1990-02-05) ৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৯০ (বয়স ২৯)
ওয়াত্তালা, শ্রীলঙ্কা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১৬৮)
২৮ ডিসেম্বর ২০১৫ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ ওডিআই২ জানুয়ারি ২০১৬ বনাম নিউজিল্যান্ড
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ ৫৬)
৩০ জুলাই ২০১৫ বনাম পাকিস্তান
শেষ টি২০আই১০ জানুয়ারি ২০১৬ বনাম নিউজিল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
মুরস এসসি
সিডুয়া রাদ্দোলুয়া সিসি
এসএসসি
শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট উন্নয়ন একাদশ
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই টি২০আই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৪
রানের সংখ্যা ১২ ২২৪ ১৭
ব্যাটিং গড় - - ১২.৪৪ ৫.৬৬
১০০/৫০ -/- -/- -/- -/-
সর্বোচ্চ রান ৭* ৮* ২৬ ১৭
বল করেছে ৭৮ ৭২ ৪,১০১ ২২২
উইকেট ১০৩
বোলিং গড় ৫২.০০ ১১৫.০০ ২৫.৮০ ৩৬.২০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ২/৫৫ - ৭/৭৭ ২/১৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ১/– ১০/- ৩/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ১০ জানুয়ারি ২০১৬

জেফ্রি ডেক্সটার ফ্রান্সিস ভ্যান্ডারসে (সিংহলি: ජෙෆ්රි වැන්ඩසේ; জন্ম: ৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯০) ওয়াতালায় জন্মগ্রহণকারী শ্রীলঙ্কার বিশিষ্ট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।[১] শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশ নিচ্ছেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ লেগ ব্রেক বোলার। পাশাপাশি ডানহাতে ব্যাটিংয়েও অভ্যস্ত জেফ্রি ভ্যান্ডারসে

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

জুন, ২০১৫ সালে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড একাদশের সদস্যরূপে সফরকারী পাকিস্তান দলের বিপক্ষে খেলেন।[২]

৩০ জুলাই, ২০১৫ তারিখে পাকিস্তানের বিপক্ষে তার টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে। নির্ধারিত ৪ ওভারে ২৫ রান দিলেও কোন উইকেট লাভ করতে পারেননি তিনি।[৩] ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৫ তারিখে শ্রীলঙ্কার ১৬৭তম খেলোয়াড়রূপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওডিআইয়ে অভিষেক হয় তার। খেলায় তিনি অপরাজিত ৭ রান করার পর বোলিংয়ে মার্টিন গাপটিলের ব্যাটে নাস্তানাবুদ হন। ২ ওভারে ৩৪ রান দেন তিনি। ঐ খেলায় তার দল ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে শোচনীয়ভাবে পরাজিত হয়।[৪] স্যাক্সটন ওভালে অনুষ্ঠিত তৃতীয় ওডিআইয়ে টম ল্যাথামের উইকেট প্রাপ্তির মাধ্যমে হিসাবের খাতা খুলেন।

বে ওভালে অনুষ্ঠিত খেলায় কোরে অ্যান্ডারসনকে আউট করে তিনি তার প্রথম টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকের উইকেট লাভে সক্ষম হন। ২০১৬ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় খেলার জন্য শ্রীলঙ্কা দলের অন্যতম সদস্য মনোনীত হন। কিন্তু নিউজিল্যান্ড ও পাকিস্তান সফরে দূর্বল ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের কারণে তাকে বাদ দেয়া হয়।[৫] পরবর্তীতে লাসিথ মালিঙ্গার আঘাতপ্রাপ্তির ফলে তাকে পুণরায় অন্তর্ভূক্ত করা হয়।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Jeffrey Vandersay"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুন ২০১৫ 
  2. "Pakistan tour of Sri Lanka, Tour Match: Sri Lanka Board President's XI v Pakistanis at Colombo (Colts), Jun 11-13, 2015"ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুন ২০১৫ 
  3. "Pakistan tour of Sri Lanka, 1st T20I: Sri Lanka v Pakistan at Colombo (RPS), Jul 30, 2015"ESPNcricinfo। ESPN Sports Media। ৩০ জুলাই ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুলাই ২০১৫ 
  4. "Sri Lanka tour of New Zealand, 2nd ODI: Sri Lanka v New Zealand at Hagley Oval, Dec 28, 2015"ESPNcricinfo। ESPN Cricinfo। ২৮ ডিসেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  5. "Malinga steps down as captain, Mathews to lead in World T20"। সংগ্রহের তারিখ ৮ মার্চ ২০১৬ 
  6. "Vandersay replaces Malinga in SL squad"। ESPNcricinfo। ১৯ মার্চ ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]