ভাংনী আহমাদিয়া ফাযিল মাদ্রাসা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভাংনী আহমাদিয়া ফাযিল মাদ্রাসা
ভাংনী ফাযিল মাদ্রাসায় মূল গেট.jpg
মাদ্রাসার মূল গেট (পুর্বমুখী)
ধরনমাদ্রাসা
স্থাপিত১ জানুয়ারি ১৯৪৯; ৭৩ বছর আগে (1949-01-01)
প্রতিষ্ঠাতাআমির উদ্দিন
অধিভুক্তিইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ (২০০৬ – ২০১৬)
ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় (২০১৬ – বর্তমান)
অধ্যক্ষমাওলানা মাকছুদুর রহমান জামেলি
শিক্ষায়তনিক ব্যক্তিবর্গ
২৯ জন
শিক্ষার্থী৪০০+ জন
ঠিকানা, ,
ইআইআইএন১২৭৬১০, মাদ্রাসা কোড-১৪৩৪০
ক্রীড়াক্রিকেট, ফুটবল, ভলিবল
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট

ভাংনী আহমাদিয়া ফাযিল মাদ্রাসা রংপুর বিভাগের রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার ভাংনী ইউনিয়নের একটি ফাযিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসা[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৪৯ সালে প্রথমে আলহাজ আমির উদ্দিন চৌধুরিসহ এলাকার সমাজসেবিগণ ফোরকানিয়া মাদ্রাসা হিসাবে পাঠক্রম চালু করে। পরে দাখিল, আলিম এবং ফাযিল ক্লাস চালু হয়। মাদ্রাসাটি এমপিওভুক্ত।[১]

পোশাক[সম্পাদনা]

ছাত্রের জন্য সাদা পায়জামা, আকাশি রঙের পাঞ্জাবি, সাদা টুপি ও সাদা জুতা এবং মেয়েদের আকাশি রঙের বোরখা ও সাদা ওড়না।

সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড[সম্পাদনা]

মাদাসার অনেক ছাত্র-ছাত্রী স্থানীয় পর্যায়ে রচনা, ইসলামি সংগিত, কেরাত ও খেলাধুলা প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করে বিজয়ী হয়েছে।

ফলাফল[সম্পাদনা]

সুযোগ্য গভর্নিং বডির পরিচালনায়[২] প্রতিবছর মাদরাসাটি বোর্ড ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখে। ২০২০ সালে জেডেসিতে ১০০%, দাখিলে প্রায় ৮৪.৬২% এবং আলিমে ১০০% পাশ করে। ২০২১ সালে দাখিলে ৯৬.৩০৬ জন পাশ করে।[১]

ভবনের বিবরণ[সম্পাদনা]

মাদরাসাটি প্রায় ১.০৮ একর জমির উপর স্থাপিত। মাদরাসার ১১.১৩ একর জমি বাইরে আবাদি হিসাবে আছে। মাদরাসাটিতে ৫টি ভবন আছে-

মাদ্রাসার উত্তর-পুব দিকের পুরাতন একাডেমিক ভবন
  1. প্রশাসনিক ভবন-১টি।
  2. একাডেমিক ভবন-৪টি।

অন্যান্য[সম্পাদনা]

  1. বিজ্ঞানাগার-১টি
  2. কম্পিউটার ল্যাব-১টি
  3. পাঠাগার- ১টি
  4. শিক্ষক কন্ফারেন্স রুম ১টি।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "BHANGNI AHMADIA FAZIL MADRASAH"127610.ebmeb.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৫ 
  2. "গভর্নিং বডি – রংপুর – Islamic Arabic University"iau.edu.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৫