পাকুল্যা ইউনিয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পাকুল্যা ইউনিয়ন
ইউনিয়ন
৬ পাকুল্যা নং ইউনিয়ন পরিষদ
দেশবাংলাদেশ
বিভাগরাজশাহী বিভাগ
জেলাবগুড়া জেলা
উপজেলাসোনাতলা উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সরকার
 • চেয়ারম্যানএ কে এম লতিফুল বারী টিম সরকার[১]
জনসংখ্যা
 • মোট২০,৭০০[২]
সাক্ষরতার হার
 • মোট৩৪.৪০
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

পাকুল্যা ইউনিয়ন বাংলাদেশের বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার একটি ইউনিয়ন।[৩]

অবস্থান[সম্পাদনা]

পাকুল্লা ইউনিয়নের পূর্বপাশ দিয়ে যমুনা নদী এবং পশ্চিম পাশ দিয়ে বাঙালি নদী প্রবাহিত হচ্ছে। পাকুল্লা ইউনিয়নের সাথে সর্বমোট ৫টি ইউনিয়নের সীমানা রয়েছে, তন্মধ্যে সারিয়াকান্দি উপজেলার দুটি ইউনিয়নের সীমানা রয়েছে:

পাকুল্লা ইউনিয়নের সাথে আরও যে তিনটি ইউনিয়নের সীমান্ত রয়েছে তা হলো:

  1. জোড়গাছা
  2. মধুপুর
  3. তেকানী চুকাইনগর

যোগাযোগ[সম্পাদনা]

পাকুল্লা ইউনিয়নের যোগাযোগ ব্যবস্থা মোটামুটি উন্নত। কিছু অঞ্চল ব্যতীত প্রায় সব অঞ্চলের রাস্তা পাকা। জেলার সাথে যোগাযোগ উন্নত হওয়ার ফলে সহজেই গমন করা যায়। এছাড়া, উপজেলা সোনাতলার সাথেও যোগাযোগ ব্যবস্থা বেশ উন্নত।

আয়তন[সম্পাদনা]

এই ইউনিয়নের মোট আয়তন ৫৯৫৩ একর।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

এই ইউনিয়নের মোট জনসংখ্যা ২০,৭০০ জন। তন্মধ্যে, ১০,৪৫৭ জন পুরুষ এবং ১০,২৪৩ জন নারী।[২]

প্রশাসনিক কাঠামো[সম্পাদনা]

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

এই ইউনিয়নের সাক্ষরতার হার ৩৪.৪০%[২]

হাট-বাজার[সম্পাদনা]

পাকুল্লা হাট পাকুল্লা ইউনিয়নের একমাত্র ঐতিহ্যবাহী হাট।

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান এ কে এম লতিফুল বারী টিম সরকার

পূর্বতন চেয়ারম্যানবৃন্দ
  1. মোঃ আফাছউদ্দীন
  2. মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান বিটু
  3. জুলফিকার রহমান শান্ত

ধর্মীয় উপাসনালয়[সম্পাদনা]

  1. পাকুল্লা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ
  2. সাতবেকী উত্তর পাড়া জামে মসজিদ।

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

১. ব্লোকের মাথা: পাকুল্লা ইউনিয়ন দুটি প্রবাহমান নদীর মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত তাই এটি প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সবারই নজর কাড়ায়। দর্শনীয় স্থান হিসেবে আছে পাকুল্লা গ্রামের সামনে অবস্থিত যমুনার পাড়। যেটি ব্লোকের মাথা নামে সমধিক পরিচিত। প্রতিবছর বন্যার পানির দৃশ্য অবলোকন করার জন্য এখানে অনেক দর্শনার্থীর ভিড় লক্ষ্য করা যায়। সেই যমুনা নদী এখন প্রায় মৃত। এই নদীর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আগের মতো আর নেই। বর্ষাকাল ছাড়া এই নদীতে আর পানি লক্ষ্য করা যায় না।

২. বাঙালি ব্রিজ: পাকুল্লা ও জোড়গাছা ইউনিয়নকে বিভক্তকারী একটি সেতু হচ্ছে বাঙালি ব্রিজ। এই ব্রিজ সোনাতলা উপজেলার সর্ববৃহৎ একটি ব্রিজ। গ্রাম্য এলাকায় এমন বড় সেতু সচরাচর লক্ষ্য করা যায় না; তাই বিভিন্ন উৎসবের সময় এই ব্রিজকে ঘিরে দর্শনার্থীদের ভিড় লক্ষ্য করা যায়।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ইউনিয়নের চেয়ারম্যান"। বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০২০ 
  2. "সোনাতলা উপজেলা"। বাংলাপিডিয়া। 
  3. "পাকুল্যা ইউনিয়ন"। বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন।