২০১৪ চ্যাম্পিয়ন্স লীগ টুয়েন্টি২০

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(2014 Champions League Twenty20 থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৪ চ্যাম্পিয়ন্স লীগ টুয়েন্টি২০
CLT20.svg
তারিখ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (2014-09-13) – ৪ অক্টোবর ২০১৪ (2014-10-04)[১]
ব্যবস্থাপকবিসিসিআই, সিএ, সিএসএ
ক্রিকেটের ধরনটুয়েন্টি২০
প্রতিযোগিতার ধরনরাউন্ড-রবিননক-আউট
আয়োজকভারত ভারত
বিজয়ীভারত চেন্নাই সুপার কিংস (২য় শিরোপা)
অংশগ্রহণকারী১০ (গ্রুপ পর্ব)
১২ (মোট)
খেলার সংখ্যা২৯
প্রতিযোগিতার সেরা
খেলোয়াড়
ভারত সুরেশ রায়না
(চেন্নাই সুপার কিংস)
সর্বোচ্চ রানভারত সুরেশ রায়না (২৩৪)
(চেন্নাই সুপার কিংস)
সর্বোচ্চ উইকেটত্রিনিদাদ ও টোবাগো সুনীল নারাইন (১২)
(কলকাতা নাইট রাইডার্স)
প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইটclt20.com

২০১৪ চ্যাম্পিয়ন্স লীগ টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে টুয়েন্টি২০ ক্রিকেট প্রতিযোগিতা হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ টুয়েন্টি২০-এর ষষ্ঠ আসর। ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ৪ অক্টোবর, ২০১৪ তারিখ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতাটি ভারতে অনুষ্ঠিত হয়।[২][৩] অস্ট্রেলিয়া, ভারত, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঘরোয়া টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী দলগুলো এতে অংশ নেয়।

পূর্বতন চ্যাম্পিয়ন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে উঠতে ব্যর্থ হয়। ৪ অক্টোবর, ২০১৪ তারিখে অনুষ্ঠিত চূড়ান্ত খেলায় চেন্নাই সুপার কিংস দল ৮ উইকেটের ব্যবধানে কলকাতা নাইট রাইডার্স দলকে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা জয় করে।

প্রতিযোগিতার ধরণ[সম্পাদনা]

প্রতিযোগিতাটি বাছাই পর্ব ও গ্রুপ পর্ব - এ দুই অংশে বিভক্ত ছিল। বাছাই পর্বে চারটি দল রাউন্ড রবিন লীগ পদ্ধতিতে অংশগ্রহণ করে। শীর্ষ দুই দল গ্রুপ পর্বে অন্য ৮টি দলের সাথে যোগ দেয়। গ্রুপ পর্ব দুই ভাগে বিভক্ত করা হয়। গ্রুপ পর্বও রাউন্ড রবিন লীগ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হয়। প্রত্যেক গ্রুপের শীর্ষ দুই দল সেমি-ফাইনালে প্রবেশ করে যা এক গ্রুপের শীর্ষ দল অন্য গ্রুপের দ্বিতীয় শীর্ষ দলের বিপক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। সেমি-ফাইনালের বিজয়ী দল চূড়ান্ত খেলায় অংশগ্রহণ করে। কোন কারণে উভয় দলের রান সমান হলে সুপার ওভারের মাধ্যমে খেলার নিষ্পত্তি ঘটবে।

বাছাই-পর্ব ও গ্রুপ পর্বে পয়েন্ট বণ্টন পদ্ধতি নিম্নরূপ:

ফলাফল পয়েন্ট
জয় ৪ পয়েন্ট
ফলাফল না হলে ২ পয়েন্ট
পরাজয় ০ পয়েন্ট

পুরস্কারের অর্থমূল্য[সম্পাদনা]

প্রতিযোগিতার সর্বমোট পুরস্কারের অর্থমূল্য $৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ টি২০ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী দলসমূহের মধ্যে বন্টিত হবে।

  • $২.৫ মিলিয়ন - বিজয়ী
  • $১.৩ মিলিয়ন - রানার্স-আপ
  • $৫০০,০০০ - সেমি-ফাইনালে পরাজিত দল
  • $২০০,০০০ - ৫ম থেকে ১০ম স্থান অধিকারী দল[৪]

যোগ্যতা নির্ধারণ[সম্পাদনা]

সরাসরি বাছাইপর্বে অংশগ্রহণকারী দল
ঘরোয়া প্রতিযোগিতা আগত দল দলের সংখ্যা
২০১৪ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ  ভারত ৩ (শীর্ষ ৩ দল)
২০১৩-১৪ বিগ ব্যাশ লীগ  অস্ট্রেলিয়া ২ (চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স-আপ)
২০১৩-১৪ র‌্যাম স্ল্যাম টি২০ চ্যালেঞ্জ  দক্ষিণ আফ্রিকা ২ (চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স-আপ)
২০১৪ ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগ  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ (চ্যাম্পিয়ন)
২০১৪ বাছাই পর্ব নীচে দেখুন ২ (শীর্ষ ২ দল)
প্রতিযোগিতার বাছাইপর্বে যোগ্যতা লাভকারী দল
ঘরোয়া প্রতিযোগিতা আগত দল দলের সংখ্যা
২০১৩-১৪ এইচআরভি কাপ  নিউজিল্যান্ড ১ (চ্যাম্পিয়ন)
২০১৩-১৪ ফয়সাল ব্যাংক টি২০ কাপ  পাকিস্তান ১ (চ্যাম্পিয়ন)
২০১৪ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ  ভারত ১ (৪র্থ স্থান)
২০১৪ সুপার ফোরস টি২০  শ্রীলঙ্কা ১ (চ্যাম্পিয়ন)

অংশগ্রহণকারী দলসমূহ[সম্পাদনা]

গ্রুপ পর্বে খেলায় যোগ্যতা লাভকারী দল
দল ঘরোয়া প্রতিযোগিতা অবস্থান
পার্থ স্কর্চার্স[৫] অস্ট্রেলিয়া ২০১৩-১৪ বিগ ব্যাশ লীগ চ্যাম্পিয়ন
হোবার্ট হারিকেন্স[৫] অস্ট্রেলিয়া ২০১৩-১৪ বিগ ব্যাশ লীগ রানার্স-আপ
ডলফিন্স দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১৩-১৪ র‌্যাম স্ল্যাম টি২০ চ্যালেঞ্জ চ্যাম্পিয়ন
কেপ কোবরাস দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১৩-১৪ র‌্যাম স্ল্যাম টি২০ চ্যালেঞ্জ রানার্স-আপ
কলকাতা নাইট রাইডার্স ভারত ২০১৪ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ চ্যাম্পিয়ন
কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ভারত ২০১৪ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ রানার্স-আপ
চেন্নাই সুপার কিংস ভারত ২০১৪ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ তৃতীয় স্থান
বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২০১৪ ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগ চ্যাম্পিয়ন
প্রতিযোগিতার বাছাইপর্বে যোগ্যতা লাভকারী দল[৬]
দল ঘরোয়া প্রতিযোগিতা অবস্থান
মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ভারত ২০১৪ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ চতুর্থ স্থান
নর্দার্ন নাইটস নিউজিল্যান্ড ২০১৩-১৪ এইচআরভি কাপ চ্যাম্পিয়ন
লাহোর লায়ন্স[৭] পাকিস্তান ২০১৩-১৪ ফয়সাল ব্যাংক টি২০ কাপ চ্যাম্পিয়ন
সাউদার্ন এক্সপ্রেস শ্রীলঙ্কা ২০১৪ সুপার ফোরস টি২০ চ্যাম্পিয়ন

দলের সদস্য[সম্পাদনা]

২২ আগস্ট, ২০১৪ তারিখে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী দলসমূহ তাদের ১৫-সদস্যের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করে।

বাছাই পর্ব[সম্পাদনা]

দল খেলা জয় পরাজয় ফলাফল হয়নি পয়েন্ট এনআরআর
নিউজিল্যান্ড নর্দার্ন নাইটস ১২ +২.০৮০
পাকিস্তান লাহোর লায়ন্স −০.০৬৫
ভারত মুম্বই ইন্ডিয়ান্স −০.০৬৪
শ্রীলঙ্কা সাউদার্ন এক্সপ্রেস −২.০৩৩

সংক্ষিপ্ত বিবরণ[সম্পাদনা]

১৩ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নিউজিল্যান্ড নর্দার্ন নাইটস
৯৬/৩ (৯.৩ ওভার)
  • নর্দার্ন নাইটস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে উভয় দলের ইনিংস ১০ ওভারে কমিয়ে আনা হয়।

১৩ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ভারত
১৩৫/৭ (২০ ওভার)
পাকিস্তান লাহোর লায়ন্স
১৩৯/৪ (১৮.৪ ওভার)
আদিত্য তারে ৩৭ (৩৬)
আইজাজ চিমা ২/২২ (৪ ওভার)
উমর আকমল ৩৮* (১৮)
প্রজ্ঞান ওঝা ২/১৮ (৪ ওভার)
  • লাহোর লায়ন্স টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১৪ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নর্দার্ন নাইটস নিউজিল্যান্ড
১৭০/৬ (২০ ওভার)
পাকিস্তান লাহোর লায়ন্স
৯৮ (১৮ ওভার)
সাদ নাসিম ৫৮ (৪০)
টিম সাউদি ৩/২২ (৪ ওভার)
  • লাহোর লায়ন্স টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১৪ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
সাউদার্ন এক্সপ্রেস শ্রীলঙ্কা
১৬১/৬ (২০ ওভার)
ভারত মুম্বই ইন্ডিয়ান্স
১৬৫/১ (১৬.২ ওভার)
লেন্ডল সিমন্স ৭৬ (৫১)
সচিত পাথিরানা ১/২৬ (১.২ ওভার)
  • মুম্বই ইন্ডিয়ান্স টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১৬ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
সাউদার্ন এক্সপ্রেস শ্রীলঙ্কা
১০৯ (১৮.০ ওভার)
পাকিস্তান লাহোর লায়ন্স
১৬৪/৬ (২০ ওভার)
জিহান মুবারক ৩৫ (২৬)
আইজাজ চিমা ৩/১৫ (৩ ওভার)
  • সাউদার্ন এক্সপ্রেস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১৬ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ভারত
১৩২/৯ (২০ ওভার)
নিউজিল্যান্ড নর্দার্ন নাইটস
১৩৩/৪ (১৭.২ ওভার)
  • নর্দার্ন নাইটস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • খেলার ফলাফলে লাহোর লায়ন্স গ্রুপ-এ ও নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টস গ্রুপ-বিতে উন্নীত হয়।

গ্রুপ পর্ব[সম্পাদনা]

গ্রুপ এ[সম্পাদনা]

দল খেলা জয় পরাজয় ফলাফল হয়নি পয়েন্ট এনআরআর
ভারত কলকাতা নাইট রাইডার্স ১৬ +০.৭১৬
ভারত চেন্নাই সুপার কিংস ১০ +০.৯৪৫
অস্ট্রেলিয়া পার্থ স্কর্চার্স −০.০৩৮
পাকিস্তান লাহোর লায়ন্স -০.০৫১
দক্ষিণ আফ্রিকা ডলফিন্স −১.৩৩৮

সংক্ষিপ্ত বিবরণ[সম্পাদনা]

১৭ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ভারত চেন্নাই সুপার কিংস
১৫৭/৪ (২০ ওভার)
আন্দ্রে রাসেল ৫৮ (২৫)
আশীষ নেহরা ৪/২১ (৪ ওভার)
  • কলকাতা নাইট রাইডার্স টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২০ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ডলফিন্স দক্ষিণ আফ্রিকা
১৬৪/৭ (২০ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া পার্থ স্কর্চার্স
১৬৫/৪ (২০ ওভার)
পার্থ স্কর্চার্স ৬ উইকেটে বিজয়ী
শহীদ বীর নারায়ণ সিং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম, রায়পুর
আম্পায়ার: এস. রবি (ভারত) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: মিচেল মার্শ (পার্থ স্কর্চার্স)
  • ডলফিন্স টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২১ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
কলকাতা নাইট রাইডার্স ভারত
১৫৩/৬ (১৯.৩ ওভার)
পাকিস্তান লাহোর লায়ন্স
১৫১/৭ (২০ ওভার)
গৌতম গম্ভীর ৬০ (৪৭)
সুনীল নারাইন ৩/৯ (৪ ওভার)
আহমেদ শেহজাদ ৫৯ (৪২)
আইজাজ চিমা ২/৪২ (৪ ওভার)
  • কলকাতা নাইট রাইডার্স টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২২ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ডলফিন্স দক্ষিণ আফ্রিকা
১৮৮ (২০ ওভার)
ভারত চেন্নাই সুপার কিংস
২৪২/৬ (২০ ওভার)
কডি চেতি ৩৭ (২৮)
মোহিত শর্মা ৪/৪১ (৪ ওভার)
  • ডলফিন্স ক্রিকেট দল টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২৪ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
পার্থ স্কর্চার্স অস্ট্রেলিয়া
১৫১/৭ (২০ ওভার)
ভারত কলকাতা নাইট রাইডার্স
১৫৩/৭ (১৯.৪ ওভার)
  • পার্থ স্কর্চার্স টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • খেলার ফলাফলে কলকাতা নাইট রাইডার্স সেমি-ফাইনালে উন্নীত

২৫ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
  • বৃষ্টির কারণে খেলা পরিত্যক্ত।

২৭ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
লাহোর লায়ন্স পাকিস্তান
১৬৪/৫ (২০ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ডলফিন্স
১৪৮/৯ (২০ ওভার)
উমর আকমল ৭৩* (৪৫)
রবি ফ্রাইলিঙ্ক ৩/২২ (৪ ওভার)
  • লাহোর লায়ন্স টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • খেলার ফলাফলে ডলফিন্স দলের বিদায়

২৭ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
চেন্নাই সুপার কিংস ভারত
১৫৫/৬ (২০ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া পার্থ স্কর্চার্স
১৪২/৭ (২০ ওভার)
চেন্নাই সুপার কিংস ১৩ রানে বিজয়ী
এম. চিনাস্বামী স্টেডিয়াম, বেঙ্গালুরু
আম্পায়ার: কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা) ও বিনীত কুলকার্নি (ভারত)
সেরা খেলোয়াড়: রবীন্দ্র জাদেজা (চেন্নাই সুপার কিংস)
  • পার্থ স্কর্চার্স টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • খেলার ফলাফলে পার্থ স্কর্চার্সের বিদায়

২৯ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা ডলফিন্স
১৫১/৮ (২০ ওভার)
  • কলকাতা নাইট রাইডার্স টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৩০ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
লাহোর লায়ন্স পাকিস্তান
১২৪/৬ (২০ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া পার্থ স্কর্চার্স
১৩০/৭ (১৯ ওভার)
সাদ নাসিম ৬৯* (৫৫)
জোয়েল প্যারিস ৩/২২ (৪ ওভার)
পার্থ স্কর্চার্স ৩ উইকেটে বিজয়ী
এম. চিনাস্বামী স্টেডিয়াম, বেঙ্গালুরু
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: মিচেল মার্শ (পার্থ স্কর্চার্স)
  • পার্থ স্কর্চার্স টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • খেলার ফলাফলে চেন্নাই সুপার কিংস সেমি-ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়লাহোর লায়ন্সের বিদায়
  • ক্যামেরন ব্যানক্রফ্টের টি২০ খেলায় অভিষেক ঘটে।

গ্রুপ বি[সম্পাদনা]

দল খেলা জয় পরাজয় ফলাফল হয়নি পয়েন্ট এনআরআর
ভারত কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ১৬ +২.১৩০
অস্ট্রেলিয়া হোবার্ট হারিকেন্স ১২ +১.১৯৩
ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস −০.২৩০
দক্ষিণ আফ্রিকা কেপ কোবরাস −০.৯৫৫
নিউজিল্যান্ড নর্দার্ন নাইটস −২.৬৯৭

সংক্ষিপ্ত বিবরণ[সম্পাদনা]

১৮ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া হোবার্ট হারিকেন্স
১৪৪/৬ (২০ ওভার)
কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ভারত
১৪৬/৫ (১৭.৪ ওভার)
কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ৫ উইকেটে বিজয়ী
পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম, মোহালি
আম্পায়ার: এস. রবি (ভারত) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: থিসারা পেরেরা (কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব)
  • কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

১৯ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নিউজিল্যান্ড নর্দার্ন নাইটস
২০৬/৫ (২০ ওভার)
কেপ কোবরাস দক্ষিণ আফ্রিকা
৪৪/২ (৭.২ ওভার)
হাশিম আমলা ২০ (১৪)
ট্রেন্ট বোল্ট ১/৮ (২ ওভার)

২০ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ভারত কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব
১৭৮/৬ (১৯.৪ ওভার)
ডেভিড মিলার ৪৬*(৩৪)
জীবন মেন্ডিস ২/১৮ (৪ ওভার)
কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ৪ উইকেটে বিজয়ী
পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম, মোহালি
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও এস. রবি (ভারত)
সেরা খেলোয়াড়: ডেভিড মিলার (কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব)
  • কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২১ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
কেপ কোবরাজ দক্ষিণ আফ্রিকা
১৮৪/৬ (২০ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া হোবার্ট হারিকেন্স
১৮৬/৪ (১৯ ওভার)
রিচার্ড লেভি ৪২ (৩০)
বেন লাফলিন ২/৩১ (৪ ওভার)
  • কেপ কোবরাজ ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২৩ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
হোবার্ট হারিকেন্স অস্ট্রেলিয়া
১৭৮/৩ (২০ ওভার)
নিউজিল্যান্ড নর্দার্ন নাইটস
৯২ (১৬.৪ ওভার)
আইদেন ব্লিজার্ড ৬২ (৪৩)
টিম সাউদি ১/২৯ (৪ ওভার)
  • নর্দার্ন নাইটস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২৬ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা কেপ কোবরাস
১৭৪/৫ (২০ ওভার)
হাশিম আমলা ৫৯ (৪২)
জীবন মেন্ডিস ৪/২৭ (৪ ওভার)
  • কেপ কোবরাজ টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২৬ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ভারত
২১৫/৫ (২০ ওভার)
নিউজিল্যান্ড নর্দার্ন নাইটস
৯৫ (১৫.২ ওভার)
মানন বোরা ৬৫ (৩২)
স্কট কাগলেইন ২/৩৪ (৪ ওভার)
অ্যান্টন ডেভসিচ ২৮ (১৫)
কর্ণবীর সিং ৪/১৫ (৩.২ ওভার)
কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ১২০ রানে বিজয়ী
পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম, মোহালি
আম্পায়ার: এস. রবি (ভারত) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: মনন বোরা (কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব)
  • নর্দার্ন নাইটস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • খেলার ফলাফলে কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব সেমি-ফাইনালে উন্নীত

২৮ সেপ্টেম্বর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া হোবার্ট হারিকেন্স
১১৭/৪ (১৮.২ ওভার)
শোয়েব মালিক ৩৯* (৩৫)
আকিল হোসেন ২/২৫ (৪ ওভার)
হোবার্ট হারিকেন্স ৬ উইকেটে বিজয়ী
পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম, মোহালি
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও এস. রবি (ভারত)
সেরা খেলোয়াড়: জেভিয়ার ডোহার্টি (হোবার্ট হারিকেন্স)
  • হোবার্ট হারিকেন্স টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • খেলার ফলাফলে হোবার্ট হারিকেন্স সেমি-ফাইনালে উন্নীতবার্বাডোস ট্রাইডেন্টস, কেপ কোবরাজ এবং নর্দার্ন নাইটসের বিদায়

২৮ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
কেপ কোবরাজ দক্ষিণ আফ্রিকা
১৩৫ (১৮.৩ ওভার)
ভারত কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব
১৩৯/৩ (১৮.১ ওভার)
কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ৭ উইকেটে বিজয়ী
পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম, মোহালি
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: অক্ষর প্যাটেল (কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব)
  • কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৩০ সেপ্টেম্বর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নর্দার্ন নাইটস নিউজিল্যান্ড
১৩৫/৮ (১৯ ওভার)
জেমস ফ্রাঙ্কলিন ৩৩* (২৫)
ইশ সোধি ৩/১৮ (৪ ওভার)
বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস ৬ উইকেটে বিজয়ী (ডি/এল)
এম চিনাস্বামী স্টেডিয়াম, বেঙ্গালুরু
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও এস. রবি (ভারত)
সেরা খেলোয়াড়: জেমস ফ্রাঙ্কলিন (বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস)
  • বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে বার্বাডোসের লক্ষ্যমাত্রা ডি/এল পদ্ধতিতে ১৯ ওভারের ১৩৮ রানের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয়।

নক-আউট পর্ব[সম্পাদনা]

  সেমিফাইনাল ফাইনাল
                 
এ১  ভারত কলকাতা নাইট রাইডার্স ১৪১/৩ (১৯.১ ওভার)  
বি২  অস্ট্রেলিয়া হোবার্ট হারিকেন্স ১৪০/৬ (২০ ওভার)  
    এসএফ১  ভারত কলকাতা নাইট রাইডার্স ১৮০/৬ (২০ ওভার)
  এসএফ২  ভারত চেন্নাই সুপার কিংস ১৮৫/২ (১৮.৩ ওভার)
বি১  ভারত কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ১১৭ (১৮.২ ওভার)
এ২  ভারত চেন্নাই সুপার কিংস ১৮২/৭ (২০ ওভার)  

সংক্ষিপ্ত বিবরণ[সম্পাদনা]

সেমি-ফাইনাল

২ অক্টোবর
১৬:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
হোবার্ট হারিকেন্স অস্ট্রেলিয়া
১৪০/৬ (২০ ওভার)
ভারত কলকাতা নাইট রাইডার্স
১৪১/৩ (১৯.১ ওভার)
কলকাতা নাইট রাইডার্স ৭ উইকেটে বিজয়ী
রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম, হায়দরাবাদ
আম্পায়ার: এস. রবি (ভারত) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: জ্যাক ক্যালিস (কলকাতা নাইট রাইডার্স)
  • হোবার্ট হারিকেন্স টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২ অক্টোবর
২০:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
চেন্নাই সুপার কিংস ভারত
১৮২/৭ (২০ ওভার)
ভারত কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব
১১৭ (১৮.২ ওভার)
অক্ষর প্যাটেল ৩১ (১৮)
আশীষ নেহরা ২/৯ (৩ ওভার)
চেন্নাই সুপার কিংস ৬৫ রানে বিজয়ী
রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম, হায়দরাবাদ
আম্পায়ার: কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: ডোয়েন ব্র্যাভো (চেন্নাই সুপার কিংস)
  • কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

ফাইনাল

৪ অক্টোবর
১৯:০০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ভারত চেন্নাই সুপার কিংস
১৮৫/২ (১৮.৩ ওভার)
গৌতম গম্ভীর ৮০ (৫২)
পবন নেগি ৫/২২ (৪ ওভার)
সুরেশ রায়না ১০৯* (৬২)
প্যাট কামিন্স ১/৩২ (৩ ওভার)
চেন্নাই সুপার কিংস ৮ উইকেটে বিজয়ী
এম. চিনাস্বামী স্টেডিয়াম, বেঙ্গালুরু
আম্পায়ার: কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: পবন নেগি (চেন্নাই সুপার কিংস)
  • চেন্নাই সুপার কিংস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

সর্বাধিক রান[সম্পাদনা]

নিম্নবর্ণিত খেলোয়াড়গণ মূল প্রতিযোগিতার শীর্ষ রান সংগ্রহকারী হন:

জাতীয়তা খেলোয়াড় দল রান ইনিংস গড় এসআর সর্বোচ্চ ১০০ ৫০
ভারত সুরেশ রায়না চেন্নাই সুপার কিংস ২৩৪ ৫৮.৫০ ১৭৩.৩৩ ১০৯* ১৪ ১৬
ভারত রবিন উথাপ্পা কলকাতা নাইট রাইডার্স ২১০ ৫২.৫০ ১৩১.২৫ ৮৫* ২৮
বার্বাডোস জোনাথন কার্টার বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস ২০৩ ৬৭.৬৬ ১৩৬.২৪ ১১১* ১৮
অস্ট্রেলিয়া আইদেন ব্লিজার্ড হোবার্ট হারিকেন্স ১৮৮ ৪৭.০০ ১৪০.২৯ ৭৮* ১৬
পাকিস্তান শোয়েব মালিক হোবার্ট হারিকেন্স ১৭২ ৮৬.০০ ১৩৮.৭০ ৬৬* 0 1 14

সূত্র: গোল্ডেন ব্যাট[৮]

  • সর্বশেষ হালনাগাদ: ৪ অক্টোবর, ২০১৪.

     মূল প্রতিযোগিতার শীর্ষ রান সংগ্রহকারী গোল্ডেন ব্যাট পুরস্কার লাভ করেন।

সর্বাধিক উইকেট[সম্পাদনা]

নিম্নবর্ণিত খেলোয়াড়গণ মূল প্রতিযোগিতার শীর্ষ উইকেট সংগ্রহকারী হন:

জাতীয়তা খেলোয়াড় দল উইকেট ইনিংস গড় এসআর ইকোনোমি সেরা বোলিং ৪উইঃ ৫উইঃ
ত্রিনিদাদ ও টোবাগো সুনীল নারাইন কলকাতা নাইট রাইডার্স ১২ ৮.৮৩ ১০.০০ ৫.৩০ &10000000000000003071428৪/৩১
ভারত আশীষ নেহরা চেন্নাই সুপার কিংস ১০ ১৫.৩০ ১১.৪০ ৮.০৫ &10000000000000003071428৪/২১
অস্ট্রেলিয়া ডগ বলিঙ্গার হোবার্ট হারিকেন্স ১৬.০০ ১১.৮৮ ৮.০৭ &10000000000000003071428৩/২২
ভারত পারবিন্দর আয়ানা কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব ১৮.০০ ১২.৬৬ ৮.৫২ &10000000000000003071428৪/৩০
ভারত মোহিত শর্মা চেন্নাই সুপার কিংস ১২.৮৭ ৯.৭৫ ৭.৯২ &10000000000000003071428৪/৪১

সূত্র: গোল্ডেন উইকেট[৯]

  • সর্বশেষ হালনাগাদ: ৪ অক্টোবর, ২০১৪

     মূল প্রতিযোগিতার শীর্ষ উইকেট সংগ্রহকারী গোল্ডেন উইকেট পুরস্কার লাভ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Champions League T20 2014"। espncricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৯-১০ 
  2. http://www.espncricinfo.com/india/content/current/story/756929.html
  3. "Champions League Twenty20 2014"altiusdirectory.com। Altius Directory। ১৪ জুলাই ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুন ২০১৪ 
  4. http://beecricket.com/champions-league-t20/champions-league-t20-2014-prize-money/
  5. Malcolm, Alex (৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৪)। "Marsh brothers give Scorchers title"Cricinfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  6. "Champion League T20 2014"। Smart Cric। সংগ্রহের তারিখ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৪  Authors list-এ |প্রথমাংশ1= এর |শেষাংশ1= নেই (সাহায্য)
  7. Lahore lions to play Champions T20 in India
  8. "Most Runs / Golden Bat"। Champions League T20। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪ 
  9. "Most Wickets / Golden Wicket"। Champions League T20। ২ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]