সুপার ওভার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

সুপার ওভার[১][২] একটি ক্রিকেটীয় পরিভাষা। একে বর্জনকারী বা এলিমিনেটর হিসেবেও ডাকা হয়।[৩][৪] সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলায় টাই-ব্রেকিং পদ্ধতির ক্ষেত্রে এ ধরনের ওভারের ব্যবহার ঘটে। সুপার ওভার ক্রিকেট খেলার সংক্ষেপিত রূপ যাতে কেবলমাত্র ছয় বলে গড়া একটি ওভারে খেলার নিষ্পত্তি ঘটে।[৫] এতে প্রত্যেক দলের সর্বোচ্চ দুইটি উইকেটের পতন ঘটতে পারে। আনুষ্ঠানিকভাবে খেলার ফলাফল টাই হিসেবে গণনা করা হয়। কিন্তু প্রতিযোগিতা কিংবা সিরিজের শর্ত অনুযায়ী সুপার ওভারে বিজয়ী দলকে প্রচলিত খেলায় বিজয়ীরূপে আখ্যায়িত করা হয়। তবে, সুপার ওভারে সংগৃহীত রানকে খেলোয়াড়ের পরিসংখ্যানগত রেকর্ড হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয় না। ২০০৮ সালে টুয়েন্টি২০ ক্রিকেটে সর্বপ্রথম সুপার ওভারের প্রবর্তন ঘটে। এ ব্যবস্থাটি টাই-ব্রেকিংয়ের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত বোল-আউট পদ্ধতির স্থলাভিষিক্ত হয়। মূলতঃ টুয়েন্টি২০ ক্রিকেট খেলায় সুপার ওভার ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

ক্রিকেট বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

২০১১ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের নক-আউট পর্বে সর্বপ্রথম সুপার ওভার ব্যবহার করা হয়েছিল।[৬] কোন খেলায় টাই ভাঙ্গার ক্ষেত্রে ফল আনয়ণের জন্য এর প্রবর্তন ঘটে। কিন্তু নক-আউট পর্বের কোন খেলা টাই না হওয়ায় এর ব্যবহার ঘটেনি। ২০১৫ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য কেবলমাত্র চূড়ান্ত খেলায় সুপার ওভারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। নক-আউট পর্বের কোন খেলা টাই হলে পূর্বতন নিয়ম-কানুন অর্থাৎ গ্রুপ পর্বের সেরা দল পরবর্তী পর্বে উত্তরণ ঘটবে।[৭][৮]

সমালোচনা[সম্পাদনা]

অন্যান্য ক্রীড়ায় টাই ভাঙ্গার জন্য বিভিন্ন ধরনের পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়। টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতার গ্রুপ পর্বে প্রায়শঃই সুপার ওভার পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। তবে, প্রখ্যাত সাংবাদিক সম্বিত বালের মতে নক-আউট পর্বের বাইরে এর ব্যবহার অপ্রয়োজনীয়। তিনি দেখেছেন যে, টাই ব্যবস্থা দলগুলোর মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ফলাফল ও বিনোদনের মানদণ্ডে আদর্শ।[৯]

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের কোচ মাইক হেসন ২০১২ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতার সুপার এইট পর্বে দলের দুই খেলায় তার দল হেরে যাওয়ায় এ ব্যবস্থার সমালোচনা করেন। খেলায় তার দল গ্রুপে সর্বনিম্ন স্থান দখল করে।[১০]

এক দিনের আন্তর্জাতিক বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

তারিখ মাঠ বিজয়ী দল রান পরাজিত দল রান তম সূত্র
১৪ জুলাই, ২০১৯ লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড, লন্ডন, ইংল্যান্ড ইংল্যান্ড 15/0 নিউজিল্যান্ড 15/1 ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ

টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

তারিখ মাঠ বিজয়ী দল রান পরাজিত দল রান টি২০আই সূত্র
২৬ ডিসেম্বর, ২০০৮ নিউজিল্যান্ড ইডেন পার্ক, অকল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড  ওয়েস্ট ইন্ডিজ &10000000000000025000000২৫/১  নিউজিল্যান্ড &10000000000000015000000১৫ ১ম [১১]
২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১০ নিউজিল্যান্ড এএমআই স্টেডিয়াম, ক্রাইস্টচার্চ, নিউজিল্যান্ড  নিউজিল্যান্ড &10000000000000009000000৯/০  অস্ট্রেলিয়া &10000000000000006000000৬/১ ২য় [১২]
৭ সেপ্টেম্বর, ২০১২ সংযুক্ত আরব আমিরাত ডিএসসি ক্রিকেট স্টেডিয়াম, দুবাই, সংযুক্ত আরব আমিরাত  পাকিস্তান &10000000000000012000000১২/০  অস্ট্রেলিয়া &10000000000000011000000১১/১ ২য় [১৩]
২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১২ শ্রীলঙ্কা পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম, ক্যান্ডি, শ্রীলঙ্কা  শ্রীলঙ্কা &10000000000000013000000১৩/১  নিউজিল্যান্ড &10000000000000007000000৭/১ ১৩তম খেলা [১৪]
১ অক্টোবর, ২০১২ শ্রীলঙ্কা পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম, ক্যান্ডি, শ্রীলঙ্কা  ওয়েস্ট ইন্ডিজ &10000000000000018000000১৮/০  নিউজিল্যান্ড &10000000000000007000000১৭/০ ২১তম খেলা [১৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Windies edge NZ in Twenty20 thriller"Australian Broadcasting Corporation। ২৬ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-২৬ 
  2. "Benn stars in thrilling tie"Cricinfo। ESPN। ২৬ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-২৬ 
  3. "One-over eliminator could replace bowl-out"Cricinfo। ESPN। ২৭ জুন ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-২৬ 
  4. "2009/10 Champions League Twenty20, Match 11 - Feroz Shah Kotla Ground, Delhi, IND"Australian Broadcasting Corporation। ১৩ অক্টোবর ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১০-১৪ 
  5. "Procedure for the One Over Per Side Eliminator (Oopse)" (PDF)Cricinfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৩ 
  6. "Points Table | ICC Cricket World Cup 2010/11"। CricInfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৬ 
  7. "No super over! Teams to share World Cup trophy in case of tie, no result"। India Today। ১০ নভেম্বর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জানুয়ারি ২০১৫ 
  8. "Super Over in place for World Cup final once again"Cricinfo। ESPN। ২৯ জানুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৫ 
  9. Bal, Sambit (২৪ এপ্রিল ২০০৯)। "Two overs too many"Cricinfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৩ 
  10. "Hesson criticises ICC on Super Over"Cricinfo। ESPN। ৩ অক্টোবর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৩ 
  11. "Commentary - 1st Twenty20 International - New Zealand v West Indies at Auckland, December 26, 2008"। cricinfo.com cricinfo.com। ২৬ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০১-১৪ 
  12. "Black Caps win super over thriller"ABC Radio Grandstand website। ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৬ মে ২০১০ 
  13. "Australia tour of United Arab Emirates, 2nd T20I: Australia v Pakistan at Dubai (DSC), Sep 7, 2012"। সংগ্রহের তারিখ ৭ সেপ্টে ২০১২ 
  14. Radhakrishnan, R.K. (২৭ সেপ্টেম্বর ২০১২)। "Sri Lanka beat New Zealand in super over thriller"। Chennai, India: The Hindu website। সংগ্রহের তারিখ ২৭ সেপ্টে ২০১২ 
  15. Monga date=2012-10-01, Sidharth। "New Zealand knocked out after Super Over"CricInfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১০-০২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]