প্রজ্ঞান ওঝা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Pragyan Ojha থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
প্রজ্ঞান ওঝা
PragyanOjha .jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামপ্রজ্ঞান প্রকাশ ওঝা
জন্ম (1986-09-05) ৫ সেপ্টেম্বর ১৯৮৬ (বয়স ৩৩)
ভুবনেশ্বর, ওড়িশা, ভারত
উচ্চতা১.৮৩ মিটার (৬ ফুট ০ ইঞ্চি)
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো-লেফট আর্ম অর্থোডক্স
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৬১)
২৪ নভেম্বর ২০০৯ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ টেস্ট১৮ নভেম্বর ২০১৩ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১৭৪)
২৮ জুন ২০০৮ বনাম বাংলাদেশ
শেষ ওডিআই২৪ জুলাই ২০১২ বনাম শ্রীলঙ্কা
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ ২৩)
৬ জুন ২০০৯ বনাম বাংলাদেশ
শেষ টি২০আই১৩ জুন ২০১০ বনাম জিম্বাবুয়ে
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৪/০৫–২০১৫/১৬হায়দ্রাবাদ
২০০৮–২০১১ডেকান চার্জার্স
২০১২–২০১৫মুম্বই ইন্ডিয়ান্স[১]
২০১১সারে
২০১৫/১৬-২০১৬/১৭বাংলা
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৪ ১৮ ১০৭ ১০০
রানের সংখ্যা ৮৯ ৪৬ ৮৪৭ ২৮১
ব্যাটিং গড় ৮.৯০ ২৩.০০ ৯.৩৪ ৮.২৬
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ০/১ ০/০
সর্বোচ্চ রান ১৮* ১৬* ৫১ ২০
বল করেছে ৭,৬৩৩ ৮৭৬ ২৫,২৭৬ ৫,২৩৫
উইকেট ১১৩ ২১ ৪২৩ ১২২
বোলিং গড় ৩০.২৭ ৩১.০৫ ২৮.৬০ ৩৩.৭১
ইনিংসে ৫ উইকেট ২৩
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৬/৪৭ ৪/৩৮ ৭/৫৮ ৫/১৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১০/– ৭/– ৩৫/– ৩১/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৫ জুন ২০১৮

প্রজ্ঞান প্রয়াস ওঝা (মারাঠি: प्रज्ञान ओझा; জন্ম: ৫ সেপ্টেম্বর, ১৯৮৬) উড়িষ্যার ভুবনেশ্বর এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে হায়দরাবাদের প্রতিনিধিত্ব করছেন তিনি। আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের সদস্য তিনি। দলে তিনি মূলতঃ স্লো লেফট আর্ম অর্থোডক্স বোলার ছিলেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে বামহাতে ব্যাটিংয়ে অভ্যস্ত ‘ওঝি’ ডাকনামে পরিচিত প্রজ্ঞান ওঝা

২০০৪-০৫ মৌসুমে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক হয় তার। অনূর্ধ্ব-১৯ স্তরের ক্রিকেটে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেন। ২০০৬-০৭ মৌসুমের রঞ্জী ট্রফিতে ছয় খেলায় অংশ নিয়ে ১৯.৮৯ গড়ে ২৯ উইকেট পান। হায়দরাবাদের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে ভারতের পক্ষে সকল স্তরে ক্রিকেট খেলার সুযোগ পান।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

চন্দ্রশেখরপুরের ডি.এ.ভি পাবলিক স্কুলে অধ্যয়ন করেন। এ সময়ে ভুবনেশ্বরে শহীদ স্পোর্টিং ক্লাবের গ্রীষ্মকালীন শিবিরে যোগ দেন। এভাবেই ক্রিকেটের প্রতি তার আকর্ষণ গড়ে উঠে। এরপর হায়দরাবাদের ভাবন্স শ্রী রামকৃষ্ণ বিদ্যালয়ে চলে যান। বিজয় পাল ক্রিকেট একাডেমিতে ক্রিকেট বিষয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।

ঘরোয়া ক্রিকেটে হায়দরাবাদ ক্রিকেট সংস্থার প্রতিনিধিত্ব করেন। এরপূর্বে ডেকান চার্জার্সের সদস্য ছিলেন ও বর্তমানে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের পক্ষে খেলছেন। ঘরোয়া ক্রিকেট ও আইপিএলে ক্রমাগত সফলতা লাভের কারণে ২০০৮ সালে বাংলাদেশ সফর ও এশিয়া কাপে খেলার জন্য ১৫-সদস্যের দলে তাকে মনোনীত করা হয়।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

টেস্টে অংশগ্রহণের পূর্বে ২৮ জুন, ২০০৮ তারিখে করাচীতে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম একদিনের খেলায় অভিষেক হয় তার। খেলায় তিনি ২/৪৩ বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড় করান।

এরপর ২৪ নভেম্বর, ২০০৯ তারিখে সফরকারী শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক ঘটে প্রজ্ঞান ওঝার। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে নিজস্ব প্রথম খেলায় অমিত মিশ্রের স্থলাভিষিক্ত হন। ২৩ ওভারে ২/৩৭ ও ১৫.৩ ওভারে ২/৩৬ নিয়ে ভারতের শততম টেস্ট জয়ে প্রভূতঃ ভূমিকা রাখেন। তৃতীয় টেস্টে প্রথম পাঁচ উইকেট পান ও ভারতকে আরও একটি ইনিংস জয়ে সহায়তা করেন। দুই খেলায় অংশ নিয়ে ২৮.৬৬ গড়ে নয় উইকেট দখল করেন। তবে, টেস্ট ইতিহাসের সর্বোচ্চ উইকেট লাভকারী মুত্তিয়া মুরালিধরনের বিদায়ী টেস্টে ৮০০তম উইকেট শিকারীতে পরিণত হন তিনি।

৬ জুন, ২০০৯ তারিখে বাংলাদেশের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে প্রথম অংশ নেন। চার ওভারে ৪/২১ পান। খেলা জয়ে সহায়তা করায় ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন। ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ২০০৯ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন।

কাউন্টি ক্রিকেট[সম্পাদনা]

আগস্ট, ২০১১ সালে মৌসুমের শেষ কয়েক সপ্তাহ খেলার জন্য ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে সারের সদস্যরূপে চুক্তিবদ্ধ হন।

দলে ফিরে এসে নভেম্বরে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দূর্দান্ত খেলা প্রদর্শন করেন। প্রথম ইনিংসে ৭২ রানে ৬ উইকেট পান। ১৪ নভেম্বর, ২০১৩ তারিখে শুরু হওয়া শচীনের বিদায়ী ও ২০০তম টেস্টের উভয় ইনিংসে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৫/৪০ ও ৫/৪৯ লাভ করে দলকে ইনিংস ও ১২৬ রানে জয় এনে দেন। খেলায় তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেয়েছিলেন।

এক স্বাক্ষাৎকারে বিখ্যাত সাবেক বামহাতি স্পিনার ভেঙ্কটাপতি রাজুকে তার আদর্শ মানেন যিনি তাকে ভারতের পক্ষে খেলার জন্য অনুপ্রাণিত করেছেন।[২] এছাড়াও ভিভিএস লক্ষ্মণকে তার সফলতা লাভে কৃতজ্ঞতা প্রদর্শন করেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

১৬ মে, ২০১০ তারিখে কারাবি কৈলাশ নাম্নী এক রমণীর পাণিগ্রহণ করেন। সম্পূর্ণ উড়ীয় সংস্কৃতি, রীতি-নীতিতে তাদের এ বিবাহকার্যাদি সম্পন্ন হয়। বর্তমানে তারা হায়দরাবাদে বসবাস করছেন।

২৬ মার্চ, ২০১২ তারিখে কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে অনুশীলনীকালে ঘাড়ে বল লেগে প্রচণ্ড আঘাতপ্রাপ্ত হন। শারীরিক সুস্থতা লাভের পর তাকে হাসপাতাল থেকে মুক্তি দেয়া হয়। ৪ আগস্ট, ২০১৩ তারিখে টেস্টে শততম উইকেট দখল করায় উড়িষ্যার মূখ্যমন্ত্রী নবীন পাটনায়েক প্রজ্ঞান ওঝাকে স্মারকসূচক পুরস্কার প্রদান করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Pragyan Ojha transfers to Mumbai Indians from Deccan Chargers 
  2. "Raju inspired me to play for India: Ojha"cricketnext.com। আগস্ট ১০, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]