২০১৯-২০ ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের নিউজিল্যান্ড সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৯-২০ ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের নিউজিল্যান্ড সফর
Flag of New Zealand.svg
নিউজিল্যান্ড
Flag of England.svg
ইংল্যান্ড
তারিখ ২৭ অক্টোবর – ৩ ডিসেম্বর ২০১৯
অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন (টেস্ট)
টিম সাউদি (টি২০আই)
জো রুট (টেস্ট)
ইয়ন মর্গ্যান (টি২০আই)
টেস্ট সিরিজ
ফলাফল ২-ম্যাচের সিরিজ নিউজিল্যান্ড ১–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান বিজে ওয়াটলিং (২৬০) জো রুট (২৩৯)
সর্বাধিক উইকেট নিল ওয়াগনার (১৩) স্যাম কারেন (৬)
সিরিজ সেরা নিল ওয়াগনার (নিউজিল্যান্ড)
টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৫-ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ড ৩–২ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান মার্টিন গাপটিল (১৫৩) দাউদ মালান (২০৮)
সর্বাধিক উইকেট মিচেল স্যান্টনার (১১) ক্রিস জর্দান (৭)
সিরিজ সেরা মিচেল স্যান্টনার (নিউজিল্যান্ড)

২০১৯ এর অক্টোবর নভেম্বরে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল ২টি টেস্ট ম্যাচ ও পাঁচটি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক (টি২০আই) খেলার জন্য নিউজিল্যান্ড সফর করে।[১][২] নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট সফরের সময়সূচী ২০১৯ এর জুনে নিশ্চিত করে।[৩] বে ওভাল গ্রাউন্ডটিতে সর্বপ্রথম টেস্ট ম্যাচের আয়োজন হতে যাচ্ছে, সেই সাথে দেশের নবম টেস্ট ভেন্যু হিসাবে আত্মপ্রকাশ করবে।[৪][৫]

টেস্ট ম্যাচগুলো ২০১৯-২১ আইসিসি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ-এর অংশ নয়,[৬][৭] কারণ সফরসূচী নির্ধারণ করা হয়েছিল বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ গঠনের পূর্বেই।[৮] ইংল্যান্ড পুরুষ ক্রিকেট দলের নির্বাহী পরিচালক অ্যাশলে জাইলস উপদেশ দেন যে, সফরটির জন্য কোচ ও অধিনায়ক খেলা শুরুর সময় নির্ধারণ করা হবে।[৯] যদিও, সেপ্টেম্বর ২০১৯ এ খেলোয়াড়দের তালিকা ঘোষণার সময়, জো রুটইয়ন মর্গ্যান কে যথাক্রমে টেস্ট ও টি২০আই দলের অধিনায়ক হিসাবে রাখা হয়, কিন্তু জনি বেয়ারস্ট টেস্ট দল থেকে বাদ পড়ে যায়।[১০] স্যাম বিলিংসকে ইংল্যান্ড টি২০আই দলের সহযোগী অধিনায়ক ঘোষণা করা হয়।[১১] ২০১৯ এর নভেম্বরে জো ডেনলির পরিপুরক হিসাবে বেয়ারস্টোকে আবারো টেস্টে দলে যুক্ত করা হয়।[১২]

কোমরের ব্যাথার কারণে কেন উইলিয়ামসনকেও টি২০আই দল থেকে বাদ দেয়া হয়,[১৩]টিম সাউদি নিউজিল্যান্ড টি২০আই দলের অধিনায়ক মনোনীত করা হয়।[১৪] নিউজিল্যান্ডের ট্রেন্ট বোল্টকে টেস্ট প্রস্তুতিতে মনোনিবেশ করার জন্য প্রথম তিনটি টি২০আই থেকে অবসর দেয়া হয়।[১৫]

চূড়ান্ত টি২০আই খেলাটি ড্র হয়, পরে খেলাটি নিষ্পত্তি হয় সুপার ওভার এর মাধ্যমে।[১৬] সুপার ওভারে ইংল্যান্ড বিজয়ী হলে ৩-২ এ সিরিজে জয় পায়।[১৭] টেস্টে সিরিজে নিউজিল্যান্ড প্রথম টেস্টে একটি ইনিংস ও ৬৫ রানের ব্যবধানে জয়ী হয়।[১৮] যার ফলে নিউজিল্যান্ড টেস্ট খেলায় নিজেদের মাঠে টানা ১০টি ম্যাচে অপরাজিত থাকে যেটি শুরু হয় মার্চ ২০১৭, উক্ত সূচীর ৭টি খেলায় নিউজিল্যান্ড অপরাজিত ছিল।[১৯] দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচটি ড্র হওয়ায় নিউজিল্যান্ড ১-০তে টেস্ট সিরিজে জয় পায়।[২০]

দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

টেস্ট টি২০আই
 নিউজিল্যান্ড  ইংল্যান্ড  নিউজিল্যান্ড  ইংল্যান্ড

প্রস্তুতিমূলক খেলা[সম্পাদনা]

২০-ওভার ম্যাচ: নিউজিল্যান্ড একাদশ বনাম ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

২৭ অক্টোবর ২০১৯
১৩:০০
নিউজিল্যান্ড একাদশ 
১৭২/৪ (২০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৭৮/৪ (১৮.১ ওভার)
ইংল্যান্ড ৬ উইকেটে জয়ী
বার্ট সাটক্লিফ ওভাল, লিঙ্কন
আম্পায়ার: শন হাইগ (নিউজিল্যান্ড) ও ওয়েন নাইট (নিউজিল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২০-ওভার ম্যাচ: নিউজিল্যান্ড একাদশ বনাম ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

২৯ অক্টোবর ২০১৯
১৩:০০
Scorecard
ইংল্যান্ড 
১৮৮/৫ (২০ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড একাদশ
১৯১/২ (১৮.৩ ওভার)
জেমস ভিন্স ৪৬ (৩২)
অনুরাগ বর্মা ৩/৪৬ (৪ ওভার)
কলিন মানরো ১০৭* (৫৭)
সাকিব মাহমুদ ১/৩৬ (৩.৩ ওভার)
নিউজিল্যান্ড একাদশ ৮ উইকেটে জয়ী
বার্ট সাটক্লিফ ওভাল, লিঙ্কন
আম্পায়ার: কিম কটন (নিউজিল্যান্ড) ও আশলী মেহরোত্রা (নিউজিল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

দুই দিনের ম্যাচ: নিউজিল্যান্ড একাদশ বনাম ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

১২–১৩ নভেম্বর ২০১৯
Scorecard
৩৭৬/২ডি (৮৭ ওভার)
জ্যাক ক্রাউলী ১০৩* (১৩৭)
হেনরি শিপলে ১/৮১ (১৬ ওভার)
২৮৫/৪ (৭৫ ওভার)
ফিন অ্যালেন ১০৪* (১৩০)
জোফ্রা আর্চার ২/৪৬ (১১ ওভার)
খেলা ড্র
কোভাম ওভাল, ওয়ানগারে
আম্পায়ার: ইউগেন সান্দার্স (নিউজিল্যান্ড) ও গার্থ স্টিরাট (নিউজিল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

তিন দিনের ম্যাচ: নিউজিল্যান্ড একাদশ বনাম ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

১৫–১৭ নভেম্বর ২০১৯
৩০২/৬d (৮৪)
গ্লেন ফিলিপস 116 (২১৯)
জোফ্রা আর্চার ২/৫৮ (১৭ ওভার)
৪০৫ (১১৭.৫ ওভার)
জস বাটলার ১১০ (১৫৩)
স্কট কুগ্গেলেইজন ৩/৪৬ (১৩.৫
১৬৯/৮ (৬৮ ওভার)
গ্লেন ফিলিপস ৩৬ (৫৭)
জোফ্রা আর্চার ৩/৩৪ (১৪ ওভার)
খেলা ড্র
কোভাম ওভাল, ওয়ানগারে
আম্পায়ার: ক্রিস গফানি (নিউজিল্যান্ড) ও ওয়েন নাইট (নিউজিল্যান্ড)

টি২০আই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টি২০আই[সম্পাদনা]

১ নভেম্বর ২০১৯
১৪:০০
Scorecard
নিউজিল্যান্ড 
১৫৩/৫ (২০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৫৪/৩ (১৮.৩ ওভার)
রস টেলর ৪৪ (৩৫)
ক্রিস জর্দান ২/২৮ (৪ ওভার)
ইংল্যান্ড ৭ উইকেটে জয়ী
হাগলে ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: শন হেইগ (নিউজিল্যান্ড) ও ওয়েন নাইট (নিউজিল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: জেমস ভিন্স (ইংল্যান্ড)

২য় টি২০আই[সম্পাদনা]

৩ নভেম্বর ২০১৯
১৮:০০ (দিন/রাত)
Scorecard
নিউজিল্যান্ড 
১৭৬/৮ (২০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৫৫ (১৯.৫ ওভার)
জেমস নিশাম ৪২ (২২)
ক্রিস জর্দান ৩/২৩ (৪ ওভার)
নিউজিল্যান্ড ২১ রানে জয়ী
ওয়েলিংটন আঞ্চলিক স্টেডিয়াম, ওয়েলিংটন
আম্পায়ার: শন হেইগ (নিউজিল্যান্ড) ও ওয়েন নাইট (নিউজিল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: মিচেল স্যান্টনার (নিউজিল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • সাকিব মাহমুদ (ইংল্যান্ড) তার টি২০আই অভিষেক হয়।
  • লুইস গ্রেগরি ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় কোন বোলার, যিনি টি২০আই ক্রিকেটে ইনিংসের ১ম বলে উইকেট নেন।[২২][২৩]

৩য় টি২০আই[সম্পাদনা]

৫ নভেম্বর ২০১৯
১৪:০০
Scorecard
নিউজিল্যান্ড 
১৮০/৭ (২০ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৬৬/৭ (২০ ওভার)
দাউদ মালান ৫৫ (৩৪)
লকি ফার্গুসন ২/২৫ (৪ ওভার)
ব্লাইর টিকনার ২/২৫ (৪ ওভার)
নিউজিল্যান্ড ১৪ রানে জয়ী
স্যাক্সটন ওভাল, নেলসন
আম্পায়ার: ক্রিস ব্রাউন (নিউজিল্যান্ড) ও ওয়েন নাইট (নিউজিল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম (নিউজিল্যান্ড)

৪র্থ টি২০আই[সম্পাদনা]

৮ নভেম্বর ২০১৯
১৮:০০ (দিন/রাত)
Scorecard
ইংল্যান্ড 
২৪১/৩ (২০ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
১৬৫ (১৬.৫ ওভার)
দাউদ মালান ১০৩* (৫১)
মিচেল স্যান্টনার ২/৩২ (৪ ওভার)
টিম সাউদি ৩৯ (১৫)
ম্যাট পার্কিনসন ৪/৪৭ (৪ ওভার)
ইংল্যান্ড ৭৬ রানে জয়ী
ম্যাকলিন পার্ক, নেপিয়ার
আম্পায়ার: ক্রিস গফানি (নিউজিল্যান্ড) ও শন হাইগ (নিউজিল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: দাউদ মালান (ইংল্যান্ড)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • দাউদ মালান টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে নিজের প্রথম সেঞ্চুরী করেন, এবং ইংল্যান্ডের কোন ব্যাটসম্যানের হিসাবে দ্রুততম সেঞ্চুরী (৪৮ বল)।[২৪]
  • এই ম্যাচে ইংল্যান্ডের স্কোরটি ছিল টি২০আই-এ ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ স্কোর।[২৫]

৫ম টি২০আই[সম্পাদনা]

১০ নভেম্বর ২০১৯
১৪:০০
Scorecard
নিউজিল্যান্ড 
১৪৬/৫ (১১ ওভার)
 ইংল্যান্ড
১৪৬/৭ (১১ ওভার)
ম্যাচ ড্র
(ইংল্যান্ড সুপার ওভারে জয়ী)

ইডেন পার্ক, অকল্যান্ড
আম্পায়ার: ক্রিস গফানি (নিউজিল্যান্ড) ও ওয়েন নাইট (নিউজিল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে খেলাটিকে উভয় দলের জন্য ১১ ওভারে সীমিত করা হয়।

টেস্ট সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টেস্ট[সম্পাদনা]

২১–২৫ নভেম্বর ২০১৯
scorecard
৩৫৩ (১২৪ ওভার)
বেন স্টোকস ৯১ (১৪৬)
টিম সাউদি ৪/৮৮ (৩২ ওভার)
৬১৫/৯ডি (২০১ ওভার)
বিজে ওয়াটলিং ২০৫ (৪৭৩)
স্যাম কারেন ৩/১১৯ (৩৫ ওভার)
১৯৭ (৯৬.২ ওভার)
জো ডেনলি ৩৫ (১৪২)
নিল ওয়াগনার ৫/৪৪ (১৯.২ ওভার)
নিউজিল্যান্ড একটি ইনিংস সহ ৬৫ রানে জয়ী
বেয় ওভাল, মাউন্ট মাউঙ্গানুই
আম্পায়ার: কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা) ও পল উইলসন (অস্ট্রেলিয়া)
ম্যাচসেরা: বিজে ওয়াটলিং (নিউজিল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ডম সিবলী (ইংল্যান্ড) টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক করে।
  • এই ম্যাচটি ছিল উক্ত মাঠে অনুষ্ঠিত প্রথম টেস্ট ম্যাচ[২৬]
  • বিজে ওয়াটলিং প্রথম নিউজিল্যান্ডীয় উইকেট-রক্ষক ব্যাটসম্যান যিনি টেস্ট ক্রিকেটে দ্বৈত সেঞ্চুরী করেন।[২৭]
  • মিচেল স্যান্টনার (নিউজিল্যান্ড) টেস্ট ক্রিকেটে তার প্রথম সেঞ্চুরী অর্জন করেন।[২৮]

২য় টেস্ট[সম্পাদনা]

২৯ নভেম্বর–৩ ডিসেম্বর ২০১৯
scorecard
৩৭৫ (১২৯.১ ওভার)
টম ল্যাথাম ১০৫ (১৭২)
স্টুয়ার্ট ব্রড ৪/৭৩ (২৮ ওভার)
৪৭৬ (১৬২.৫ ওভার)
জো রুট ২২৬ (৪৪১)
নিল ওয়াগনার ৫/১২৪ (৩৫.৫ ওভার)
২৪১/২ (৭৫ ওভার)
রস টেলর ১০৫* (১৮৬)
ক্রিস উকস ১/১২ (১১ ওভার)
খেলা ড্র হয়
সেডন পার্ক, হ্যামিল্টন
আম্পায়ার: কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
ম্যাচসেরা: জো রুট (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির কারণে ১ম দিনের চা বিরতির পর মাত্র তিন বল মাঠে গড়ায়।
  • ড্যারিল মিচেল (নিউজিল্যান্ড) ও জ্যাক ক্রাউলি (ইংল্যান্ড) উভয়ে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক করে।
  • জো রুট ইংল্যান্ড দলের অধিনায়ক হিসাবে তার প্রথম ডাবল সেঞ্চুরী করে,[২৯] এবং টেস্ট ক্রিকেটে নিউজিল্যান্ডে সফরকারী প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিয়ান ব্যাটসম্যান।[৩০]
  • রস টেলর নিউজিল্যান্ডের হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে টেস্ট ক্রিকেটে ৭,০০০ রান নিয়ে সর্বাধিক রান সংগ্রহকারী দ্বিতীয় ব্যাটসম্যানের খ্যাতি পান।[৩১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Schedule for inaugural World Test Championship announced"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৯ 
  2. "Men's Future Tours Programme" (PDF)International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৯ 
  3. "Mount Maunganui to host maiden Test against England"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুন ২০১৯ 
  4. "Christchurch T20s against England, Australia to bookend biggest home summer"Stuff। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুন ২০১৯ 
  5. "Mount Maunganui set to become New Zealand's ninth Test venue"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুন ২০১৯ 
  6. "FAQs - What happens if World Test Championship final ends in a draw or tie?"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৯ 
  7. "England in New Zealand: Bowlers fail to fire as tour match ends in draw"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১৩ নভেম্বর ২০১৯ 
  8. "Explainer: why isn't New Zealand-England part of the World Test Championship?"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৭ নভেম্বর ২০১৯ 
  9. "England could have stand-in captain and coach for New Zealand tour - Ashley Giles"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৯ 
  10. "Bairstow dropped from England Test squad for New Zealand series"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  11. "Sam Billings named England's T20 vice-captain for New Zealand tour"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ অক্টোবর ২০১৯ 
  12. "Jonny Bairstow back in England Test side as cover for Joe Denly"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১৩ নভেম্বর ২০১৯ 
  13. "Kane Williamson out of New Zealand's T20 series against England"Sky Sports। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৯ 
  14. "Kane Williamson: New Zealand captain out of England T20 series with injury"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৯ 
  15. "Kane Williamson to miss T20Is against England through injury"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৯ 
  16. "England prevail in Super Over repeat against New Zealand"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৯ 
  17. "England clinch T20I series after another Super Over"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৯ 
  18. "England in New Zealand: Hosts win first Test by innings & 65 runs"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ২৫ নভেম্বর ২০১৯ 
  19. "Kane Williamson hails 'special' performance as New Zealand extend formidable home record"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ নভেম্বর ২০১৯ 
  20. "England in New Zealand: Drawn second Test seals 1-0 series win for hosts"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  21. "Don't countback in anger as new World Cup countdown begins"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৫ নভেম্বর ২০১৯ 
  22. "Records: Twenty20 Internationals: Bowling records: Wicket with first ball in career"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৯ 
  23. "Santner and Neesham star as New Zealand square the series"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৯ 
  24. "Dawid Malan hits England's fastest Twenty20 century as tourists post record total against New Zealand"Evening Standard। সংগ্রহের তারিখ ৮ নভেম্বর ২০১৯ 
  25. "Malan and Morgan shine as England post their highest Twenty20 total"Yahoo Sports। সংগ্রহের তারিখ ৮ নভেম্বর ২০১৯ 
  26. "A Test of firsts for new-look England and Mount Maunganui"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৯ 
  27. "New Zealand vs England 1st Test: BJ Watling joins elite list with maiden double hundred"India Today। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০১৯ 
  28. "Mitchell Santner's maiden Test hundred puts Black Caps in command against England"TVNZ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০১৯ 
  29. "Williamson, Taylor spark New Zealand recovery after Root double ton"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  30. "England in New Zealand: Joe Root double century gives tourists hope in Hamilton"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  31. "Kane Williamson and Ross Taylor carry New Zealand to series win"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]