ডম শিবলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ডম শিবলি
Dom Sibley in June 2019 (cropped).jpg
২০১৯ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে ডম শিবলি
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামডমিনিক পিটার শিবলি
জন্ম (1995-09-05) ৫ সেপ্টেম্বর ১৯৯৫ (বয়স ২৫)
এপসম, সারে, ইংল্যান্ড
ডাকনামদ্য ফ্রিজ
উচ্চতা৬ ফুট ০ ইঞ্চি (১.৮৩ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি লেগ ব্রেক
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৬৯৪)
২১ নভেম্বর ২০১৯ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ টেস্ট৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বনাম ভারত
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১৩–২০১৭সারে (জার্সি নং ৪৫)
২০১৭ওয়ারউইকশায়ার (ধারকৃত)
২০১৮–বর্তমানওয়ারউইকশায়ার (জার্সি নং ৪৫)
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ১৫ ৮৩ ২২ ৩৫
রানের সংখ্যা ৮৫১ ৫,১৮১ ৪১৬ ৮৫৯
ব্যাটিং গড় ৩৭.০০ ৪০.৭৯ ২৩.১১ ২৯.৬২
১০০/৫০ ২/৪ ১৫/২৪ ১/০ ০/৭
সর্বোচ্চ রান ১৩৩* ২৪৪ ১১৫ ৭৪*
বল করেছে ৩৮০ ৫৪ ২২৮
উইকেট
বোলিং গড় ৬৭.৭৫ ৬২.০০ ৬৬.৭০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ২/১০৩ ১/২০ ২/৩৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৯/– ৬৪/– ১০/– ১৭/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

ডমিনিক পিটার শিবলি (ইংরেজি: Dom Sibley; জন্ম: ৫ সেপ্টেম্বর, ১৯৯৫) সারের এপসম এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ২০১০-এর দশকের শেষদিক থেকে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করছেন। ২০১৯ সালে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে সারে ও ওয়ারউইকশায়ার দলের প্রতিনিধিত্ব করেন ছয় ফুট উচ্চতার অধিকারী ও দ্য ফ্রিজ ডাকনামে পরিচিত ডম শিবলি[১] দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলে থাকেন। এছাড়াও, ডানহাতে লেগ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শী তিনি।

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

সারের যুব নীতির আলোকে হুইটগিফ্ট স্কুল থেকে ক্রীড়া বৃত্তি লাভ করে ক্রিকেট জগতে প্রবেশ করেন। ১৫ বছর বয়সে সারের দ্বিতীয় একাদশের পক্ষে প্রথম খেলেন তিনি। হোরশ্যামে সাসেক্সের বিপক্ষে ৩৭ রান করেছিলেন। ঐ গ্রীষ্মে নিজ ক্লাব অ্যাশটিডের পক্ষে দ্বি-শতরান করেন। পরবর্তী দুই মৌসুম সারে একাডেমির পরিচালক গারেথ টাউনসেন্ডের নির্দেশনায় নিজেকে গড়ে তোলেন। ২০১২-১৩ মৌসুমের শীতকালে দক্ষিণ আফ্রিকা গমনার্থে ইংল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সদস্যরূপে মনোনীত হন। দ্বিতীয় যুব টেস্টে শতরান করেন তিনি।

আগস্টের শুরুতে ইয়র্কশায়ার ব্যাংক ৪০ প্রতিযোগিতায় এসেক্সের বিপক্ষে খেলাকালীন হোঁচট খান। মারাত্মকভাবে আহত হন তিনি। ফলশ্রুতিতে, ত্রি-দেশীয় সিরিজে ইংল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বাইরে রাখা হয়। তবে, ঐ মাস শেষেই সারের প্রথম একাদশে যুক্ত হন। এজবাস্টনে ওয়ারউইকশায়ারের বিপক্ষে শূন্য রান করেন তিনি।

ডানহাতি ব্যাটসম্যান ও ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শী তিনি। ২ আগস্ট, ২০১৩ তারিখে লন্ডনে অনুষ্ঠিত ইয়র্কশায়ার ব্যাংক ৪০ প্রতিযোগিতায় সারের সদস্যরূপে এসেক্সের বিপক্ষে লিস্ট এ খেলায় তার অভিষক ঘটে। তবে, আঘাতপ্রাপ্তির ফলে তাকে রিটায়ার করতে হয়েছিল।[২]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০১৩ সাল থেকে ডম শিবলি’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান রয়েছে। প্রাচীন ঘরানার উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে ডম শিবলি দিনব্যাপী ব্যাট আঁকড়ে অবস্থান করতে সক্ষম। ঘরোয়া ক্রিকেটে বেশ রান তুলেন। এর স্বীকৃতিস্বরূপ ইংল্যান্ড দলে খেলার জন্যে তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

সর্বকনিষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপে দ্বি-শতরানের ইনিংস খেলের সকলের মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে উপনীত হন। হুইটগিফ্ট স্কুলের ছাত্রাবস্থায় ১৮ বছর ২১ দিন বয়সে ২০১৩ সালে ওভালে ইয়র্কশায়ারের বোলিং আক্রমণ মোকাবেলা করে নিজস্ব তৃতীয় প্রথম-শ্রেণীর খেলায় এ সফলতা পেয়েছিলেন। ২০১৩ সালে হুইটগিফ্টের শেষ বর্ষে থাকাকালে শেষ তিন খেলায় অংশ নেন। টানটনে সমারসেটের বিপক্ষে ভালো খেলতে না পারলেও এজবাস্টনে ফিরে আসেন। ওভালে ইয়র্কশায়ারের বিপক্ষে ২৪২ রান তুলে নিজেকে রেকর্ড বুকে স্থান করে নেন। সারের পক্ষে অভিষেকে সর্বোচ্চ রান ও প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ডব্লিউজি গ্রেসের পর দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ ইংরেজ হিসেবে দ্বি-শতরান করার গৌরব অর্জন করেন তিনি। এরফলে, কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেকে দ্বি-শতরান, দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ ইংরেজ হিসেবে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে দ্বি-শতরান ও বৈশ্বিকভাবে ত্রয়োদশ সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে দ্বি-শতরান করার গৌরব অর্জন করেন।[৩] চারদিনের খেলার শেষদিনে ২৪২ রান তুলে রায়ান সাইডবটমের বলে বোল্ড হন।[৪]

সারে দলের অবনমনের পর ডম শিবলি খুব কমই নিজেকে মেলে ধরেছিলেন। পরের দুই মৌসুমে কিশোর অবস্থাতেই তার উপর অধিক প্রত্যাশা করা হয়েছিল। এ দুই বছরে তিনি মাত্র এক ডজন খেলায় অংশ নিতে পেরেছিলেন ও ক্রমশঃ উত্তরণ ঘটা দলের কেন্দ্রীয় পর্যায়ে যেতে পারেননি। ক্লাবের খুব কমসংখ্যক সদস্যই তার ফিরে আসার বিষয়ে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছিলেন ও প্রমাণিত করেছিলেন যে, ইয়র্কশায়ারের বিপক্ষে তার ঐ ইনিংসটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছিল।

২০১৬ সালে এ স্থবিরতা ভেঙ্গে চ্যাম্পিয়নশীপে নিজস্ব দ্বিতীয় শতকের দ্বারপ্রান্তে ছিলেন। অ্যাজিয়াস বোলে হ্যাম্পশায়ারের বিপক্ষে ৯৯ রান তুলে গারেথ বার্জের বলে বিদেয় নেন। এছাড়াও, বিস্ময়করভাবে সারের টুয়েন্টি২০ গড়ে শীর্ষে ছিলেন। ২০১৬ সালের শেষদিকে মার্ক স্টোনম্যানস্কট বর্থউইককে শীর্ষসারির ব্যাটসম্যানের সারের সিদ্ধান্তের দ্বি-মত পোষণ করেন।

দল পরিবর্তন[সম্পাদনা]

২০১৭ সালের আগস্টে সারে দলের পক্ষে তিন বছরের নতুন চুক্তির প্রস্তাবনা ফিরিয়ে দেন। ২০১৮ মৌসুমকে ঘিরে ওয়ারউইকশায়ারের সাথে তিন-বছরের জন্যে চুক্তিবদ্ধ হন।[৫] উভয় দলের মাঝেই অস্থিরতা ভাব বিরাজ করে। আগস্টে ধারকৃত খেলোয়াড় হিসেবে খেলার অনুমতি পান ও প্রতিপক্ষের রিক্কি ক্লার্কের সাথে বিনিময় চুক্তিতে আসেন। ৩ আগস্ট, ২০১৭ তারিখে রিক্কি ক্লার্কের চলে যাবার ফলে মৌসুমের বাদ-বাকী সময়ের জন্যে ওয়ারউইকশায়ারের ধারকৃত খেলোয়াড় হিসেবে অংশ নেন।[৬] এরফলে, দ্রুতগতিতে লাল ও সাদা বলে দলের শীর্ষসারির ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হন। সমসংখ্যক খেলায় তিনটি শতরান তুলে সেপ্টেম্বরের স্বর্ণালী সময়ে ওয়ারউইকশায়ারকে এক বছর পরই প্রথম বিভাগে নিয়ে যান।

এক পর্যায়ে তাকে নজরে রাখা হলেও ওয়ারউইকশায়ারে চলে যাবার পর ২০১৭ সাল পর্যন্ত রান খরায় ভুগতে থাকেন। দশটি প্রথম-শ্রেণীর ইনিংসে ২০-এর কম রান ও আটটি ইনিংসে উপর্যুপরী দশের কম রান তুলেছেন। তবে, ব্যাটিং কোচ গ্যারি পালমারের পরামর্শক্রমে ২০১৮ সালের শেষদিক থেকে কিছু কৌশলগত পরিবর্তনের ফলে তার খেলায় নাটকীয়ভাবে পরিবর্তন আসে। নয়টি খেলার মধ্যে উপর্যুপরী ছয়টি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় শতরানের ইনিংস খেলেন। তন্মধ্যে, দুবাইয়ে এমসিসির সদস্যরূপে চ্যাম্পিয়ন কাউন্টি দল সারের বিপক্ষে একটি করেছিলেন। সবগুলো শতরানই ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ থেকে ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ তারিখের মধ্যে করেন। অবশেষে ইংল্যান্ড দল নির্বাচকমণ্ডলী তাদের ইপ্সিত আগ্রাসী উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের সন্ধান পায়।

ধৈর্য্যশীল, দৃঢ়প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ও কৌশলগতভাবে বেশ নিখুঁতভাবে বজায় রেখে ২০১৯ সালের প্রথম বিভাগ চ্যাম্পিয়নশীপে একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে সহস্র রান করেছেন। পাঁচটি শতক, পাঁচটি অর্ধ-শতক সহযোগে ৬৯.৬৮ গড়ে ১,৩২৪ রান তুলেন। এ মৌসুমে ব্যাটের তুলনায় বল হাতে নিয়েই খেলোয়াড়েরা অধিক সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন। অ্যালাস্টেয়ার কুকের সাথে তুলনান্তে শীর্ষসারির ব্যাটসম্যান হিসেবে লেগ সাইডের দিকেই অধিক মনোযোগী ছিলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে পনেরোটি টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন ডম শিবলি। ২১ নভেম্বর, ২০১৯ তারিখে মঙ্গানুইয়ে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ তারিখে চেন্নাইয়ে স্বাগতিক ভারত দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি। এখনো তাকে কোন ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়া হয়নি।

ঘরোয়া ক্রিকেটে সুন্দর ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৯ সালের শেষদিকে নিউজিল্যান্ড গমনার্থে তাকে ইংল্যান্ডের টেস্ট দলে রাখা হয়। তবে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অস্থিরচিত্তে খেলা শুরুর কারণে তিনি বেশ সমালোচিত হন। তবে, দক্ষিণ আফ্রিকায় নিজেকে মেলে ধরেন। ৫০-এর অধিক গড়ে রান তুলেন ও ইংল্যান্ডের সিরিজ বিজয়ে দূর্দান্ত ভূমিকা রাখেন। তন্মধ্যে, কেপ টাউনে নিজস্ব প্রথম শতরানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি।

সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সালে নিউজিল্যান্ড গমনার্থে তাকে ইংল্যান্ডের টেস্ট দলের সদস্য করা হয়।[৭] ২১ নভেম্বর, ২০১৯ তারিখে মাউন্ট মুঙ্গানুইয়ে সিরিজের প্রথম টেস্টে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড দলের বিপক্ষে অভিষক পর্ব সম্পন্ন হয় তার।[৮] টেস্ট খেলোয়াড়ী জীবনের শুরুতে ‘দ্য ফ্রিজ’ ডাকনামে পরিচিত ডম শিবলি মন্তব্য করেন যে, কাউন্টি ক্রিকেটের বিপরীতে পাঁচ দিনের খেলার সাথে তিনি উপযুক্ত নন।[৯]

দক্ষিণ আফ্রিকা গমন[সম্পাদনা]

৬ জানুয়ারি, ২০২০ তারিখে টেস্ট ক্রিকেটে নিজস্ব প্রথম শতরানের সন্ধান পান। স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে তিনি এ কৃতিত্ব গড়েন ও ইংল্যান্ডকে চালকের আসনে নিয়ে যান।[১০] ১৯১০ সালে জ্যাক হবসের পর প্রথম ইংরেজ উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে নিউল্যান্ডসে প্রথম শতক হাঁকান।[১১]

২৯ মে, ২০২০ তারিখে কোভিড-১৯ মহামারী পরবর্তী ইংল্যান্ডের আন্তর্জাতিক সময়সূচীকে ঘিরে প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্যে ৫৫-সদস্যের তালিকায় তাকে রাখা হয়।[১২][১৩] ১৭ জুন, ২০২০ তারিখে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজকে ঘিরে ইংল্যান্ডের ৩০-সদস্যের তালিকায় নিবীড় অনুশীলনের লক্ষ্যে তাকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়।[১৪][১৫] ৪ জুলাই, ২০২০ তারিখে সিরিজের প্রথম টেস্টের জন্যে ইংল্যান্ডের তেরো-সদস্যের তালিকায় তাকে রাখা হয়।[১৬][১৭] ঐ সিরিজের তিন টেস্টের সবকটিতেই খেলার সুযোগ পান। তন্মধ্যে, দ্বিতীয় টেস্টে নিজস্ব দ্বিতীয় শতরানের ইনিংস খেলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Dominic Sibley, Warwickshire County Cricket Club. Retrieved 20 July 2020.
  2. "Yorkshire Bank 40, Group B: Surrey v Essex at London, August 2, 2013"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৩ 
  3. Record-breaking Sibley shows Surrey the light Retrieved 27 September 2013
  4. Dominic Sibley: Surrey youngster's historic innings ended Retrieved 27 September 2013
  5. "Sibley leaves Surrey after Stewart refuses to give guarantees"। ESPNcricinfo। ২ আগস্ট ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০১৭ 
  6. "Rikki Clarke & Dom Sibley: Pair to move to Surrey and Warwickshire immediately"। BBC Sport। ৩ আগস্ট ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১০ আগস্ট ২০১৭ 
  7. "Bairstow dropped from England Test squad for New Zealand series"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  8. "1st Test, England tour of New Zealand at Mount Maunganui, Nov 21-25 2019"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৯ 
  9. Hoult, Nick (২১ জানুয়ারি ২০২০)। "Pope and Bess Lead Way Into New Era"। The Daily Telegraph 
  10. "Sibley scores maiden Test century as dominant England pile on runs"Evening Express। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০২০ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  11. Newlands, Vic Marks at (২০২০-০১-০৬)। "Jimmy Anderson strikes late but South Africa remain in hunt against England"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0261-3077। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-০৭ 
  12. "England Men confirm back-to-training group"England and Wales Cricket Board। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০২০ 
  13. "Alex Hales, Liam Plunkett left out as England name 55-man training group"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০২০ 
  14. "England announce 30-man training squad ahead of first West Indies Test"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুন ২০২০ 
  15. "Moeen Ali back in Test frame as England name 30-man training squad"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুন ২০২০ 
  16. "England name squad for first Test against West Indies"England and Wales Cricket Board। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০২০ 
  17. "England v West Indies: Dom Bess in squad, Jack Leach misses out"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]