কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম
2018.02.03.20.52.20-AUSvNZL T20 NZL innings, SCG (38618201470) (de Grandhomme cropped).jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামকলিন ডি গ্র্যান্ডহোম
জন্ম (1986-07-22) ২২ জুলাই ১৯৮৬ (বয়স ৩২)
হারারে, জিম্বাবুয়ে
ডাকনামডাচি
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
সম্পর্কএলএল ডি গ্র্যান্ডহোম (বাবা)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ২৭০)
১৭ নভেম্বর ২০১৬ বনাম পাকিস্তান
একমাত্র ওডিআই
(ক্যাপ ১৭৩)
৩ মার্চ ২০১২ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ওডিআই শার্ট নং৭১
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৪মনিকাল্যান্ড
২০০৬মিডল্যান্ডস
২০০৬-বর্তমানঅকল্যান্ড (দল নং ৭৭)
২০১২নাগেনাহিরা নাগাস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৮৬ ১০২
রানের সংখ্যা ১১২ ৬৫ ৪,৪২০ ২,০২৬
ব্যাটিং গড় ২৮.০০ ১৬.২৫ ৩৫.৬৪ ২৪.৫২
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ১০/২৫ ২/৬
সর্বোচ্চ রান ৩৭ ৩৬ ১৪৪* ১৫১
বল করেছে ৪২৫ ১৫৬ ৮,২৫৩ ২,৬৩৬
উইকেট ১৩২ ৫৫
বোলিং গড় ১৯.৪৪ ৫৩.৩৩ ২৯.৪৫ ৪২.৪৫
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৬/৪১ ২/৫০ ৬/২৪ ৪/৩৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩/– ২/– ৮৭/– ৪৮/–
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ, ১৭ জানুয়ারি ২০১৭

কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম (ইংরেজি: Colin de Grandhomme; জন্ম: ২২ জুলাই, ১৯৮৬) জিম্বাবুয়ের হারারে এলাকায় জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটার। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। অকল্যান্ড এইসের প্রতিনিধিত্ব করছেন। এছাড়াও ঘরোয়া রাজ্য চ্যাম্পিয়নশীপের প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে মনিকাল্যান্ড, মিডল্যান্ডস, নাগেনাহিরা নাগাসের পক্ষে খেলেছেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার হিসেবে খেলছেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে ফাস্ট মিডিয়াম বোলিং করে থাকেন তিনি।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

২০০৪ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়ের পক্ষে অংশ নেন। ২০০৬ সালে জিম্বাবুয়ে থেকে অভিবাসিত হয়ে নিউজিল্যান্ডে চলে যান ও অকল্যান্ড দলের সদস্য মনোনীত হন। তার বাবা লরেন্স জিম্বাবুয়ের টেস্ট মর্যাদা প্রাপ্তির পূর্বে জিম্বাবুয়ের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১২ তারিখে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। নিজ জন্মভূমি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক খেলার জন্য নিউজিল্যান্ডের সদস্যরূপে খেলেন। একই বছরের মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অভিষেক ওডিআইয়ে আলবি মরকেলের রান-আউটের শিকারে পরিণত হবার পূর্বে ৩৬ বলে ৩৬ রান সংগ্রহ করেন তিনি। নভেম্বর, ২০১৬ সালে সফরকারী পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য নিউজিল্যান্ড দলের সদস্য করা হয়। ১৭ নভেম্বর ক্রাইস্টচার্চে সিরিজের প্রথম টেস্টে তার অভিষেক হয়।[১] আজহার আলীকে আউটের মাধ্যমে নিজস্ব প্রথম টেস্ট উইকেট তুলে নেন। এছাড়াও প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট লাভের কৃতিত্বের অধিকার হন তিনি।[২] খেলায় তার দল ৮ উইকেটে জয় পায় ও তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন।[৩][৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Guptill left out for Pakistan Tests; Raval, Todd Astle picked"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৬ 
  2. "Pakistan tour of New Zealand, 1st Test: New Zealand v Pakistan at Christchurch, Nov 17-21, 2016"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৮ নভেম্বর ২০১৬ 
  3. "Raval and Williamson seal solid eight-wicket win"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৬ 
  4. "Man of the Match on Test debut"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]