সূরা আল-ইন‌শিকাক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আল ইন‌শিকাক
الانشقاق
Sura84.pdf
শ্রেণীমাক্কী সূরা
নামের অর্থখন্ড-বিখন্ড করণ
পরিসংখ্যান
সূরার ক্রম৮৪
আয়াতের সংখ্যা২৫
পারার ক্রম৩০
রুকুর সংখ্যানেই
সিজদাহ্‌র সংখ্যানেই
শব্দের সংখ্যা১০৮
অক্ষরের সংখ্যা৪৩৬
← পূর্ববর্তী সূরাসূরা আত-মুত্বাফ্‌ফিফীন
পরবর্তী সূরা →সূরা আল-বুরুজ
আরবি পাঠ্য · বাংলা অনুবাদ

সূরা আল ইন‌শিকাক (আরবি ভাষায়: الانشقاق‎) মুসলমানদের ধর্মীয় গ্রন্থ কুরআনের ৮৪ তম সূরা, এর আয়াত অর্থাৎ বাক্য সংখ্যা ২৫; তবে এতে কোন রূকু তথা অনুচ্ছেদ নেই। সূরা আল ইনশিকাক‌ মক্কায় অবতীর্ণ হয়েছে।

নামকরণ[সম্পাদনা]

এই সূরাটির প্রথম আয়াতের اِنْشَقَّتْ বাক্যাংশ থেকে এই সূরার নামটি গৃহীত হয়েছে, যার মূল হচ্ছে اِنْشَقَّاق (ফেঁটে যাওয়া); অর্থাৎ, যে সূরাটিতে الانشقاق (‘ইনশিকাক‌’) শব্দটি রয়েছে এটি সেই সূরা।[১]

নাযিল হওয়ার সময় ও স্থান[সম্পাদনা]

শানে নুযূল[সম্পাদনা]

বিষয়বস্তুর বিবরণ[সম্পাদনা]

আয়াত সমূহ[সম্পাদনা]

إِذَا السَّمَاء انشَقَّتْ

যখন আকাশ বিদীর্ণ হবে,

وَأَذِنَتْ لِرَبِّهَا وَحُقَّتْ

ও তার পালনকর্তার আদেশ পালন করবে এবং আকাশ এরই উপযুক্ত

وَإِذَا الْأَرْضُ مُدَّتْ

এবং যখন পৃথিবীকে সম্প্রসারিত করা হবে।

وَأَلْقَتْ مَا فِيهَا وَتَخَلَّتْ

এবং পৃথিবী তার গর্ভস্থিত সবকিছু বাইরে নিক্ষেপ করবে ও শুন্যগর্ভ হয়ে যাবে।

وَأَذِنَتْ لِرَبِّهَا وَحُقَّتْ

এবং তার পালনকর্তার আদেশ পালন করবে এবং পৃথিবী এরই উপযুক্ত।

يَا أَيُّهَا الْإِنسَانُ إِنَّكَ كَادِحٌ إِلَى رَبِّكَ كَدْحًا فَمُلَاقِيهِ

হে মানুষ, তোমাকে তোমরা পালনকর্তা পর্যন্ত পৌছতে কষ্ট স্বীকার করতে হবে, অতঃপর তার সাক্ষাৎ ঘটবে।

فَأَمَّا مَنْ أُوتِيَ كِتَابَهُ بِيَمِينِهِ

যাকে তার আমলনামা ডান হাতে দেয়া হবে

فَسَوْفَ يُحَاسَبُ حِسَابًا يَسِيرًا

তার হিসাব-নিকাশ সহজে হয়ে যাবে

وَيَنقَلِبُ إِلَى أَهْلِهِ مَسْرُورًا

এবং সে তার পরিবার-পরিজনের কাছে হৃষ্টচিত্তে ফিরে যাবে

وَأَمَّا مَنْ أُوتِيَ كِتَابَهُ وَرَاء ظَهْرِهِ

এবং যাকে তার আমলনামা পিঠের পশ্চাদ্দিক থেকে দেয়া, হবে,

فَسَوْفَ يَدْعُو ثُبُورًا

সে মৃত্যুকে আহবান করবে,

وَيَصْلَى سَعِيرًا

এবং জাহান্নামে প্রবেশ করবে।

إِنَّهُ كَانَ فِي أَهْلِهِ مَسْرُورًا

সে তার পরিবার-পরিজনের মধ্যে আনন্দিত ছিল।

إِنَّهُ ظَنَّ أَن لَّن يَحُورَ

সে মনে করত যে, সে কখনও ফিরে যাবে না।

بَلَى إِنَّ رَبَّهُ كَانَ بِهِ بَصِيرًا

কেন যাবে না, তার পালনকর্তা তো তাকে দেখতেন।

فَلَا أُقْسِمُ بِالشَّفَقِ

আমি শপথ করি সন্ধ্যাকালীন লাল আভার

وَاللَّيْلِ وَمَا وَسَقَ

এবং রাত্রির, এবং তাতে যার সমাবেশ ঘটে

وَالْقَمَرِ إِذَا اتَّسَقَ

এবং চন্দ্রের, যখন তা পূর্ণরূপ লাভ করে,

لَتَرْكَبُنَّ طَبَقًا عَن طَبَقٍ

নিশ্চয় তোমরা এক সিঁড়ি থেকে আরেক সিঁড়িতে আরোহণ করবে।

فَمَا لَهُمْ لَا يُؤْمِنُونَ

অতএব, তাদের কি হল যে, তারা ঈমান আনে না?

وَإِذَا قُرِئَ عَلَيْهِمُ الْقُرْآنُ لَا يَسْجُدُونَ

যখন তাদের কাছে কোরআন পাঠ করা হয়, তখন সেজদা করে না।

بَلِ الَّذِينَ كَفَرُواْ يُكَذِّبُونَ

বরং কাফেররা এর প্রতি মিথ্যারোপ করে।

وَاللَّهُ أَعْلَمُ بِمَا يُوعُونَ

তারা যা সংরক্ষণ করে, আল্লাহ তা জানেন।

فَبَشِّرْهُم بِعَذَابٍ أَلِيمٍ

অতএব, তাদেরকে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তির সুসংবাদ দিন।

إِلَّا الَّذِينَ آمَنُواْ وَعَمِلُواْ الصَّالِحَاتِ لَهُمْ أَجْرٌ غَيْرُ مَمْنُونٍ

কিন্তু যারা বিশ্বাস স্থাপন করে ও সৎকর্ম করে, তাদের জন্য রয়েছে অফুরন্ত পুরস্কার।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সূরার নামকরণ"www.banglatafheem.comতাফহীমুল কোরআন, ২০ অক্টোবর ২০১০। ১৭ মার্চ ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ : ২৮ জুলাই ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]