কুরআনে নারী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

কুরআনে নারী একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। বিভিন্ন সূরার আয়াতে অনেক নারীর কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এসব নারীদের মধ্যে অনেকে সৎ কাজের জন্য আবার অনেকে অসৎ কাজের জন্য উল্লেখিত হয়েছে। একমাত্র মরিয়ম (আ.) কে নাম দ্বারা কুরআনে উল্লেখ করা হয়েছে।

হাওয়া[সম্পাদনা]

হাওয়া হলেন আদম এর স্ত্রী। কুরআনহাদিস অনুসারে তিনি সৃষ্ট প্রথম মানবী। খৃষ্ট ধর্মানুসারে তাঁর নাম ইভ। মরিয়ম (আ.) ব্যতীত অন্য নারীদের মতো কুরআনে তাঁর নামও উল্লেখ করা হয়নি।

নূহ (আ.) এর স্ত্রী ও বোনগণ[সম্পাদনা]

সারাহ (ইব্রাহীম (আ.) এর স্ত্রী)[সম্পাদনা]

সারাহ ছিলেন হযরত ইব্রাহীম (আ.) এর স্ত্রী ও হযরত ইসাহাক (আ.) এর মা [১]। ইব্রাহীম (আ.) এর নিজ পরিবারের মধ্যে তিনি ও ইব্রাহীমের ভ্রাতুষ্পূত্র লূত মুসলমান হন [২]।হযরত ইসমাঈল (আ.) এর জন্মের ১৪ বছর পরে তাঁর গর্ভে হযরত ইসাহাক (আ.) জন্ম হয়। তাঁর চাপেই ইব্রাহীম (আ.) তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী হাজেরাকে নির্বাসনে দেন[১]। তিঁনি ছিলেন হযরত হাওয়া (আ.) এর পরে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সুন্দরী মহিলা[২]

জুলেখা (আজিজ এর স্ত্রী)[সম্পাদনা]

জুলেখা বাদশাহ আজিজ এর স্ত্রী ছিলেন[৩]। কুরআনে সূরা ইউসূফে তার কথা বর্ণিত রয়েছে। তিনি হযরত ইউসূফ (আ.) কে প্রেম নিবেদন করেছিলেন এবং মূলত তার জন্যই ইউসূফ (আ.) গ্রেপ্তার হয়েছিলেন[৩]

মূসা (আ.) এর মা ও স্ত্রী[সম্পাদনা]

মরিয়ম[সম্পাদনা]

মরিয়ম হলেন ঈসা এর মাতা। কুরআনে উল্লেখিত মহিলাদের মধ্যে একমাত্র তাঁরই নাম উল্লেখ করা আছে [৪]। এমনকি তাঁর নামে একটি সূরাও নাযিল হয়েছে। সূরা মারইয়াম ও সূরা ইমরানে তাঁর কথা উল্লেখ রয়েছে। তাঁর পিতা ইমরান। আল্লাহ কুরআনের ৩১ টি আয়াতে তাঁর নাম উল্লেখ করেছেন[৫]

আবু লাহাবের স্ত্রী[সম্পাদনা]

কুরআনে আবু লাহাবের স্ত্রী এর কথা সূরা লাহাবে উল্লেখ আছে। হাদিস অনুসারে তার নাম উম্মে জামিল বিনতে হারাব । তিনি কুরইশ নেতা আবু সুফিয়ানের বোন। [৬]। তবে কুরআনে তাকে নাম দ্বার উল্লেখ না করে আবু লাহাবের স্ত্রী বলে উল্লেখ করা হয়েছে। সূরা লাহাবে তার অপকর্মের জন্য তাকে শাস্তি পেতে হবে একথা বলা হয়েছে। তিনি রাসূল (স.) গীবত করতেন। এছাড়াও তাঁর পথে কাটা বিছিয়ে রাখতেন যেন তিঁনি কষ্ট পান [৬]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]