সূরা হুমাযাহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
হুমাযাহ
পরিসংখ্যান
সূরার ক্রম ১০৪
আয়াতের সংখ্যা
পূর্ববর্তী সূরা সূরা আছর
পরবর্তী সূরা সূরা ফীল

আরবি পাঠ্য · বাংলা অনুবাদ


সূরা হুমাযাহ মুসলমানদের ধর্মীয় গ্রন্থ কুরআনের ১০৪ নম্বর সূরা। এই সূরাটি মক্কায় অবতীর্ণ হয়েছে এবং এর আয়াত সংখ্যা ৯ টি। এ সূরাটিতে তিনটি জঘন্য গোনাহের কথা বলা হয়েছে। গোনাহ্‌ তিনটি হল গীবত, সামনাসামনি দোষারোপ করা ও মন্দ বলা এবং অর্থলিপ্সা।

নাযিল হওয়ার সময় ও স্থান[সম্পাদনা]

শানে নুযূল[সম্পাদনা]

বিষয়বস্তুর বিবরণ[সম্পাদনা]

এ সূরায় তিনটি জঘন্য গোনাহে শাস্তি ও তার তীব্রতা বর্ণিত হয়েছে। গোনাহ্‌ তিনটি হচ্ছে গীবত অর্থাৎ পশ্চাতে পরনিন্দা করা, সামনাসামনি দোষারোপ করা ও মন্দ বলা এবং অর্থলিপ্সা। এর মধ্যে প্রথম দু'টি গোনাহ্‌ হচ্ছে অত্যন্ত জঘন্যতম। পশ্চাতে পরনিন্দার শাস্তির কথা কুরআন ও হাদীসে বর্ণিত হয়েছে। যার মুখোমুখি নিন্দা করা হয়, তাকে অপমানিত ও লাঞ্ছিত করা হয়। এর কষ্টও বেশী, ফলে শাস্তিও গূরুতর। রসূলুল্লাহ্‌ (সাঃ) বলেনঃ "আল্লাহ্‌র বান্দাদের মধ্যে নিকৃষ্টতম তারা, যারা পরোহ্ম নিন্দা করে, বন্ধুদের মধ্যে বিচ্ছেদ সৃষ্টি করে এবং নিরপরাধ লোকদের দোষ খুঁজে ফিরে"। তৃতীয়টি ছিল অর্থলিপ্সা যা আয়াতে একে এভাবে ব্যক্ত করা হয়েছে-অর্থলিপ্সার কারণে সে তা বার বার গণনা করে। অন্যান্য আয়াত ও হাদীস সাহ্ম্য দেয় যে, অর্থ সঞ্চয় করা সর্বাবস্থায় হারাম ও গোনাহ্‌ নয়। তাই এখানেও উদেশ্য সেই সঞ্চয় হবে, যাতে জরুরী হক আদায় করা হয় না, কিবাং গর্ব ও অহমিকা লহ্ম্য হয় কিবাং লালসা কারণে দ্বীনের জরুরী কাজ বিঘ্নিত হয়।

জাহান্নামের এই অগ্নি হূদয়কে পর্যন্ত গ্রাস করবে। প্রত্যেক অগ্নির এটাই বৈশিষ্ট্য। যা কিছু তাতে পতিত হয়, তার সকল অংশ জ্বলে-পুড়ে ভষ্ম হয়ে যায়। মানুষ তাতে নিহ্মিপ্ত হলে তার অঙ্গ-প্রত্যঙ্গসহ হূদয়ও জ্বলে যাবে। এখানে জাহান্নামের অগ্নির এই বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করার কারণ এই যে, দুনিয়ার অগ্নি মানুষের দেহে লাগলে হূদয় পর্যন্ত পৌঁছার আগেই মৃত্যু হয়ে যায়। জাহান্নামে মৃত্যু নেই। কাজেই জীবিত অবস্থাতেই হূদয় পর্যন্ত অগ্নি পৌঁছবে এবং হূদয়-দহনের তীব্র যন্ত্রণা জীবদ্দশাতেই মানুষ অনুভব করবে।[১]

আয়াত সমূহ[সম্পাদনা]

1. প্রত্যেক পশ্চাতে ও সম্মুখে পরনিন্দাকারীর দুর্ভোগ,

2 যে অর্থ সঞ্চিত করে ও গণনা করে

3 সে মনে করে যে, তার অর্থ চিরকাল তার সাথে থাকবে!

4 কখনও না, সে অবশ্যই নিক্ষিপ্ত হবে পিষ্টকারীর মধ্যে।

5 আপনি কি জানেন, পিষ্টকারী কি?

6 এটা আল্লাহর প্রজ্জ্বলিত অগ্নি,

7 যা হৃদয় পর্যন্ত পৌছবে।

8 এতে তাদেরকে বেঁধে দেয়া হবে,

9 লম্বা লম্বা খুঁটিতে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. তফসীর মাআরেফুল ক্বোরআন (১১ খন্ডের সংহ্মিপ্ত ব্যাখ্যা)।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]