সূরা আত-মুত্বাফ্‌ফিফীন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আত মুত্বাফ্‌ফিফীন
المطفّفين
WadiSuraHumans2.jpg
শ্রেণীমাক্কী সূরা
নামের অর্থপ্রতারণা করা
পরিসংখ্যান
সূরার ক্রম৮৩
আয়াতের সংখ্যা৩৬
পারার ক্রম৩০
রুকুর সংখ্যানেই
সিজদাহ্‌র সংখ্যানেই
← পূর্ববর্তী সূরাসূরা আল-ইনফিতার
পরবর্তী সূরা →সূরা আল-ইন‌শিকাক
আরবি পাঠ্য · বাংলা অনুবাদ

সূরা আত মুত্বাফ্‌ফিফীন‌ (আরবি ভাষায়: المطفّفين‎) মুসলমানদের ধর্মীয় গ্রন্থ কুরআনের ৮৩ তম সূরা, এর আয়াত অর্থাৎ বাক্য সংখ্যা ৩৬; তবে এতে কোন রূকু তথা অনুচ্ছেদ নেই। সূরা আত মুত্বাফ্‌ফিফীন‌ মক্কায় অবতীর্ণ হয়েছে।

নামকরণ[সম্পাদনা]

এই সূরাটির প্রথম আয়াতের وَيُلٌ لِّلْمُطَفِّفِيْنَ বাক্যাংশ থেকে এই সূরার নামটি গৃহীত হয়েছে; অর্থাৎ, যে সূরাটিতে المطفّفين (‘আত মুত্বাফ্‌ফিফীন’) শব্দটি রয়েছে এটি সেই সূরা।[১]

নাযিল হওয়ার সময় ও স্থান[সম্পাদনা]

শানে নুযূল[সম্পাদনা]

বিষয়বস্তুর বিবরণ[সম্পাদনা]

আয়াত সমূহ[সম্পাদনা]

وَيْلٌ لِّلْمُطَفِّفِينَ

যারা মাপে কম করে, তাদের জন্যে দুর্ভোগ,

الَّذِينَ إِذَا اكْتَالُواْ عَلَى النَّاسِ يَسْتَوْفُونَ

যারা লোকের কাছ থেকে যখন মেপে নেয়, তখন পূর্ণ মাত্রায় নেয়

وَإِذَا كَالُوهُمْ أَو وَّزَنُوهُمْ يُخْسِرُونَ

এবং যখন লোকদেরকে মেপে দেয় কিংবা ওজন করে দেয়, তখন কম করে দেয়।

أَلَا يَظُنُّ أُولَئِكَ أَنَّهُم مَّبْعُوثُونَ

তারা কি চিন্তা করে না যে, তারা পুনরুত্থিত হবে।

لِيَوْمٍ عَظِيمٍ

সেই মহাদিবসে,

يَوْمَ يَقُومُ النَّاسُ لِرَبِّ الْعَالَمِينَ

যেদিন মানুষ দাঁড়াবে বিশ্ব পালনকর্তার সামনে।

كَلَّا إِنَّ كِتَابَ الفُجَّارِ لَفِي سِجِّينٍ

এটা কিছুতেই উচিত নয়, নিশ্চয় পাপাচারীদের আমলনামা সিজ্জীনে আছে।

وَمَا أَدْرَاكَ مَا سِجِّينٌ

আপনি জানেন, সিজ্জীন কি?

كِتَابٌ مَّرْقُومٌ

এটা লিপিবদ্ধ খাতা।

وَيْلٌ يَوْمَئِذٍ لِّلْمُكَذِّبِينَ

সেদিন দুর্ভোগ মিথ্যারোপকারীদের,

الَّذِينَ يُكَذِّبُونَ بِيَوْمِ الدِّينِ

যারা প্রতিফল দিবসকে মিথ্যারোপ করে।

وَمَا يُكَذِّبُ بِهِ إِلَّا كُلُّ مُعْتَدٍ أَثِيمٍ

প্রত্যেক সীমালংঘনকারী পাপিষ্ঠই কেবল একে মিথ্যারোপ করে।

إِذَا تُتْلَى عَلَيْهِ آيَاتُنَا قَالَ أَسَاطِيرُ الْأَوَّلِينَ

তার কাছে আমার আয়াতসমূহ পাঠ করা হলে সে বলে, পুরাকালের উপকথা।

كَلَّا بَلْ رَانَ عَلَى قُلُوبِهِم مَّا كَانُوا يَكْسِبُونَ

কখনও না, বরং তারা যা করে, তাই তাদের হৃদয় মরিচা ধরিয়ে দিয়েছে।

كَلَّا إِنَّهُمْ عَن رَّبِّهِمْ يَوْمَئِذٍ لَّمَحْجُوبُونَ

কখনও না, তারা সেদিন তাদের পালনকর্তার থেকে পর্দার অন্তরালে থাকবে।

ثُمَّ إِنَّهُمْ لَصَالُوا الْجَحِيمِ

অতঃপর তারা জাহান্নামে প্রবেশ করবে।

ثُمَّ يُقَالُ هَذَا الَّذِي كُنتُم بِهِ تُكَذِّبُونَ

এরপর বলা হবে, একেই তো তোমরা মিথ্যারোপ করতে।

كَلَّا إِنَّ كِتَابَ الْأَبْرَارِ لَفِي عِلِّيِّينَ

কখনও না, নিশ্চয় সৎলোকদের আমলনামা আছে ইল্লিয়্যীনে।

وَمَا أَدْرَاكَ مَا عِلِّيُّونَ

আপনি জানেন ইল্লিয়্যীন কি?

كِتَابٌ مَّرْقُومٌ

এটা লিপিবদ্ধ খাতা।

يَشْهَدُهُ الْمُقَرَّبُونَ

আল্লাহর নৈকট্যপ্রাপ্ত ফেরেশতাগণ একে প্রত্যক্ষ করে।

إِنَّ الْأَبْرَارَ لَفِي نَعِيمٍ

নিশ্চয় সৎলোকগণ থাকবে পরম আরামে,

عَلَى الْأَرَائِكِ يَنظُرُونَ

সিংহাসনে বসে অবলোকন করবে।

تَعْرِفُ فِي وُجُوهِهِمْ نَضْرَةَ النَّعِيمِ

আপনি তাদের মুখমন্ডলে স্বাচ্ছন্দ্যের সজীবতা দেখতে পাবেন।

يُسْقَوْنَ مِن رَّحِيقٍ مَّخْتُومٍ

তাদেরকে মোহর করা বিশুদ্ধ পানীয় পান করানো হবে।

خِتَامُهُ مِسْكٌ وَفِي ذَلِكَ فَلْيَتَنَافَسِ الْمُتَنَافِسُونَ

তার মোহর হবে কস্তুরী। এ বিষয়ে প্রতিযোগীদের প্রতিযোগিতা করা উচিত।

وَمِزَاجُهُ مِن تَسْنِيمٍ

তার মিশ্রণ হবে তসনীমের পানি।

عَيْنًا يَشْرَبُ بِهَا الْمُقَرَّبُونَ

এটা একটা ঝরণা, যার পানি পান করবে নৈকট্যশীলগণ।

إِنَّ الَّذِينَ أَجْرَمُوا كَانُواْ مِنَ الَّذِينَ آمَنُوا يَضْحَكُونَ

যারা অপরাধী, তারা বিশ্বাসীদেরকে উপহাস করত।

وَإِذَا مَرُّواْ بِهِمْ يَتَغَامَزُونَ

এবং তারা যখন তাদের কাছ দিয়ে গমন করত তখন পরস্পরে চোখ টিপে ইশারা করত।

وَإِذَا انقَلَبُواْ إِلَى أَهْلِهِمُ انقَلَبُواْ فَكِهِينَ

তারা যখন তাদের পরিবার-পরিজনের কাছে ফিরত, তখনও হাসাহাসি করে ফিরত।

وَإِذَا رَأَوْهُمْ قَالُوا إِنَّ هَؤُلَاء لَضَالُّونَ

আর যখন তারা বিশ্বাসীদেরকে দেখত, তখন বলত, নিশ্চয় এরা বিভ্রান্ত।

وَمَا أُرْسِلُوا عَلَيْهِمْ حَافِظِينَ

অথচ তারা বিশ্বাসীদের তত্ত্বাবধায়করূপে প্রেরিত হয়নি।

فَالْيَوْمَ الَّذِينَ آمَنُواْ مِنَ الْكُفَّارِ يَضْحَكُونَ

আজ যারা বিশ্বাসী, তারা কাফেরদেরকে উপহাস করছে।

عَلَى الْأَرَائِكِ يَنظُرُونَ

সিংহাসনে বসে, তাদেরকে অবলোকন করছে,

هَلْ ثُوِّبَ الْكُفَّارُ مَا كَانُوا يَفْعَلُونَ

কাফেররা যা করত, তার প্রতিফল পেয়েছে তো?

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সূরার নামকরণ"www.banglatafheem.comতাফহীমুল কোরআন, ২০ অক্টোবর ২০১০। ১৭ মার্চ ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ : ২৮ জুলাই ২০১৫  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]