রত্নাপালং ইউনিয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(রত্না পালং ইউনিয়ন থেকে পুনর্নির্দেশিত)
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
রত্নাপালং
ইউনিয়ন
২নং রত্নাপালং ইউনিয়ন পরিষদ
রত্নাপালং বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
রত্নাপালং
রত্নাপালং
বাংলাদেশে রত্নাপালং ইউনিয়নের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২১°১৬.২′ উত্তর ৯২°৭′ পূর্ব / ২১.২৭০০° উত্তর ৯২.১১৭° পূর্ব / 21.2700; 92.117স্থানাঙ্ক: ২১°১৬.২′ উত্তর ৯২°৭′ পূর্ব / ২১.২৭০০° উত্তর ৯২.১১৭° পূর্ব / 21.2700; 92.117
দেশ  বাংলাদেশ
বিভাগ চট্টগ্রাম বিভাগ
জেলা কক্সবাজার জেলা
উপজেলা উখিয়া উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সরকার
 • চেয়ারম্যান মোহাম্মদ খাইরুল আলম চৌধুরী
আয়তন
 • মোট ২০.৬৭ কিমি (৭.৯৮ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা
 • মোট ২২,৫২৪
 • ঘনত্ব ১১০০/কিমি (২৮০০/বর্গমাইল)
স্বাক্ষরতার হার
 • মোট ৩২.৪০%
সময় অঞ্চল বিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড ৪৭৫০
ওয়েবসাইট অফিসিয়াল ওয়েবসাইট

রত্নাপালং বাংলাদেশের কক্সবাজার জেলার অন্তর্গত উখিয়া উপজেলার একটি ইউনিয়ন

আয়তন[সম্পাদনা]

রত্নাপালং ইউনিয়নের আয়তন ৫১০৭ একর (২০.৬৭ বর্গ কিলোমিটার)।[১] এটি উখিয়া উপজেলার সবচেয়ে ছোট ইউনিয়ন।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

২০১১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী রত্নাপালং ইউনিয়নের লোকসংখ্যা ২২,৫২৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১১,১৬৭ জন এবং মহিলা ১১,৩৫৭ জন।[২]

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

উখিয়া উপজেলার উত্তরাংশে রত্নাপালং ইউনিয়নের অবস্থান। উপজেলা সদর থেকে এ ইউনিয়নের দূরত্ব প্রায় ৭ কিলোমিটার। এ ইউনিয়নের উত্তরে হলদিয়াপালং ইউনিয়ন, পশ্চিমে জালিয়াপালং ইউনিয়ন, দক্ষিণে রাজাপালং ইউনিয়ন এবং পূর্বে বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়ন অবস্থিত।

প্রশাসনিক কাঠামো[সম্পাদনা]

রত্নাপালং ইউনিয়ন উখিয়া উপজেলার আওতাধীন ২নং ইউনিয়ন পরিষদ। এ ইউনিয়নের প্রশাসনিক কার্যক্রম উখিয়া থানার আওতাধীন। এ ইউনিয়ন জাতীয় সংসদের ২৯৭নং নির্বাচনী এলাকা কক্সবাজার-৪ এর অংশ। এটি রত্নাপালং মৌজায় বিভক্ত।[২]

ওয়ার্ডভিত্তিক এ ইউনিয়নের গ্রামগুলো হল:

ওয়ার্ড নং গ্রামের নাম
১নং ওয়ার্ড মধ্য রত্নাপালং, পূর্ব রত্নাপালং, ভালুকিয়া
২নং ওয়ার্ড ভালুকিয়া
৩নং ওয়ার্ড ভালুকিয়া, থিমছড়ি, পূর্বকূল, তুলাতলী
৪নং ওয়ার্ড আমতলী
৫নং ওয়ার্ড চাকবৈঠা, করইবনিয়া
৬নং ওয়ার্ড গয়ালমারা
৭নং ওয়ার্ড রুহুল্লারডেবা
৮নং ওয়ার্ড টেকপাড়া
৯নং ওয়ার্ড কোটবাজার, পশ্চিম রত্নাপালং, সাদ্দিরকাটা

[২]

শিক্ষা ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

রত্নাপালং ইউনিয়নের স্বাক্ষরতার হার ৩২.৪০%।[১] এ ইউনিয়নে ২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৪টি দাখিল মাদ্রাসা, ১২টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ২টি কিন্ডারগার্টেন রয়েছে।[২]

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

মাধ্যমিক বিদ্যালয়

[২]

মাদ্রাসা

[২]

প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • আমতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • করইবনিয়া পাহাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • কামারিয়ার বিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • গয়ালমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • তেলীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • থিমছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • দক্ষিণ রত্নাপালং মোজাহেরঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পশ্চিম রত্নাপালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • পূর্ব ভালুকিয়া তুলাতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • ভালুকিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • রত্নাপালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • রুহল্লারডেবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

[৩]

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

রত্নাপালং ইউনিয়নে যোগাযোগের প্রধান সড়ক হল কক্সবাজার-টেকনাফ সড়ক। সব ধরণের যানবাহনে যোগাযোগ করা যায়।

ধর্মীয় উপাসনালয়[সম্পাদনা]

রত্নাপালং ইউনিয়নে ৫০টি মসজিদ ও ৯টি বিহার রয়েছে।[২]

খাল ও নদী[সম্পাদনা]

রত্নাপালং ইউনিয়নের দক্ষিণ প্রান্ত দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে রেজু খাল। এছাড়া রয়েছে চেইংচুরী খাল।[২]

হাট-বাজার[সম্পাদনা]

রত্নাপালং ইউনিয়নের প্রধান ২টি হাট-বাজার হল কোটবাজার এবং ভালুকিয়া বাজার।[২]

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

  • বর্তমান চেয়ারম্যান: মোহাম্মদ খাইরুল আলম চৌধুরী[৪]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]