রোমান সাম্রাজ্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রোমান সাম্রাজ্য
Res publica Romana[১]

২৭ খ্রিস্টপূর্বাব্দ–৪৭৬
 

নীতিবাক্য
Senatus Populusque Romanus (SPQR)  (লাতিন)
"সিনেট ও রোমান জনগণ"
রোমান সাম্রাজ্যের সর্বোচ্চ বিস্তার (১১৭ খ্রিস্টাব্দ), সম্রাট ট্রাইয়ানের রাজত্বকালে
রাজধানী রোম
(৪৪ খ্রিপূ – ২৮৬ খ্রি)

কন্সটান্টিনোপল
(৩৩০ খ্রি থেকে)

ভাষাসমূহ লাতিন (রাজকীয়), গ্রিক (প্রশাসনিক)
ধর্ম রোমান পাগানবাদ, পরে খ্রিস্টধর্ম
সরকার রাজতন্ত্র
সম্রাট
 -  ২৭ খ্রিপূ – ১৪ খ্রি আউগুস্তুস
 -  ৪৭৫–৪৭৬ রোমুলুস আউগুস্তুস
কনসাল
 -  27–23 BC Augustus
 -  476 Basiliscus
আইন-সভা Roman Senate
ঐতিহাসিক যুগ প্রাচীন যুগ
 -  আউগুস্তুস princeps উপাধিপ্রাপ্ত ২৭ খ্রিস্টপূর্বাব্দ
 -  আক্তিয়ুমের যুদ্ধ September 2 31 BC
 -  অক্তাভিয়ানের আউগুস্তুস উপাধি গ্রহণ 16 January 27 BC
 -  Diocletian splits imperial administration between east and west 285
 -  Constantine I declares Constantinople new imperial capital 330
 -  রোমুলুস আউগুস্তুলুস Odoacer কর্তৃক ক্ষমতাচ্যুত ৪ঠা সেপ্টেম্বর, ৪৭৬ ৪৭৬
আয়তন
 -  25 BC[২][৩] ২৭,৫০,০০০ বর্গ কি.মি. (১০,৬১,৭৮১ বর্গ মাইল)
 -  50[২] ৪২,০০,০০০ বর্গ কি.মি. (১৬,২১,৬২৯ বর্গ মাইল)
 -  117[২] ৫০,০০,০০০ বর্গ কি.মি. (১৯,৩০,৫১১ বর্গ মাইল)
 -  390 [২] ৪৪,০০,০০০ বর্গ কি.মি. (১৬,৯৮,৮৪৯ বর্গ মাইল)
জনসংখ্যা
 •  25 BC[২][৩] আনুমানিক ৫,৬৮,০০,০০০ 
     ঘনত্ব ২০.৭ /কিমি  (৫৩.৫ /বর্গ মাইল)
 •  117[২] আনুমানিক ৮,৮০,০০,০০০ 
     ঘনত্ব ১৭.৬ /কিমি  (৪৫.৬ /বর্গ মাইল)
মুদ্রা সোলিদুস, আউরেয়ুস, দেনারিউস, সেস্তেরিউস, আস
সতর্কীকরণ: "মহাদেশের" জন্য উল্লিখিত মান সম্মত নয়

রোমান সাম্রাজ্য রোমান সাম্রাজ্য (Latin: Imperium Rōmānum; ) প্রাচীন রোমান সভ্যতার একটি পর্যায়, সাম্রাজ্য টি একজন সম্রাটের নেতৃত্বে থাকা সরকারের দ্বারা পরিচালিত হত এবং রোমান সাম্রাজ্যের শাসনাধীন অঞ্চলসমূহ ভূমধ্যসাগরের চারিদিকে ইউরোপ, আফ্রিকা এবং এশিয়া পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। খ্রিঃপূঃ ১০০-৪০০ খ্রিঃ পর্যন্ত রোম পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহত্তম নগরী ছিল[৪], এবং রোমান সাম্রাজ্যের জনসংখ্যা ৫০-৯০ মিলিয়নে উন্নীত হয়েছিল (যা তৎকালীন সময়ে পৃথিবীর জনসংখ্যার প্রায় ২০% ছিল)।[৫] এর আগে গৃহযুদ্ধ এবং রাজনৈতিক সংঘাতের ফলে রোমে বিরাজমান ৫০০ বছরের রোমান প্রজাতন্ত্রে চরম অস্থিরতার সৃষ্টি হয়। অস্থিরতার ঐ সময়ে জুলিয়াস সিজার কে স্থায়ী ডিক্টেটর বা ন্যায়পালিক হিসেবে নিযুক্ত করা হয়। খ্ৰী:পূ: ৪৪-তে তাকে কয়েকজন ষড়যন্ত্রকারীরা হত্যা করে। ফলস্বরূপ গৃহযুদ্ধ এবং হত্যালীলা অব্যাহত থাকে। সিজারের পোষ্য পুত্র অক্টাভিয়ান খ্রী:পূ: ৩১-এ এক্টিয়ামের যুদ্ধে মার্ক এন্টনী এবং ক্লিয় পেট্রাকে পরাজিত করে। এরপর অক্টাভিয়ান অদমনীয় হয়ে উঠে এবং খ্রী:পূ: ২৭-এ রোমান সিনেটে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে অসীম ক্ষমতা দেয়ার সাথে আউগুস্তুস উপাধি প্রদান করে যা রোমান সাম্রাজ্যের শুরুর একটি মাইলফলক।

রোমান প্রজাতন্ত্র প্রায় ১৪০০ বছর ধরে প্রচলিত ছিল। এর প্রথম দুই শতক রাজনৈতিক সুস্থরতা এবং সমৃদ্ধির কারণে এদের “রোমান শান্তি”র যুগ হিসেবে অভিহিত করা হয়। অক্টেভিয়ানের বিজয়ের পর রোমান সাম্রাজ্যের পরিসর নাটকীয়ভাবে সম্প্রসারিত হয়। ৪১ সালে কেলিগুলার হত্যার পর সিনেটে পুনরায় প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠার কথা বিবেচনা করা হয়। কিন্তু ইতিমধ্যে প্রেইটোরিয়ান দেহরক্ষী বাহিনী ক্লডিয়াসকে সম্রাট ঘোষণা করে। ক্লডিয়াসের নেতৃত্বে রোমানরা ব্রিটানিয়াকে নিজ সাম্রাজ্যের অন্তর্গত করে। অক্টেভিয়ানের পর এটাই ছিল সর্ববৃহৎ রাজ্য বিস্তারের ঘটনা। ক্লডিয়াসের পরবর্তী সম্রাট নীরো ৬৮ সালে আত্মহত্যা করার পর পুনরায় রাজনৈতিক অস্থিরতার উদ্ভব হয়। গৃহযুদ্ধ এবং বিদ্রোহের (ইহুদী-রোমান যুদ্ধ) সময় চারজন সেনাধ্যক্ষক সম্রাট ঘোষণা করা হয়। ৬৯ সালে ভেসপাসিয়ানে বিজয় লাভ করে এবং ফ্লেভিয়ান রাজবংশের প্রতিষ্ঠা করে। তার পুত্র পরবর্তী সম্রাট টাইটাসে রোমের বিখ্যাত কলোসিয়াম নির্মাণ করে। টাইটাসের অল্প সময়ের রাজত্যের পর তার ভাই ডমিটিয়ান রোমান সিংহাসনে আরোহণ করে এবং দীর্ঘকাল রাজত্বের পর হত্যার বলি হয়। এরপর সিনেট পাঁচজন সম্রাটকে বাছাই করে। এর দ্বিতীয় সম্রাট ট্রাজানের শাসনামলে রোমান সাম্রাজ্য সর্বোচ্চ শিখরে উন্নীত হয়।

কমডাসের রাজত্বকালে অস্থিরতা আর পতনোন্মুখ গতি পুনরায় আরম্ভ হয় এবং ১৯২ সালে তাকে হত্যা করা হয়, পঞ্চম সম্রাটের শাসনামলে। এরপর সেপ্টিমাস সেভেরাস সম্রাট হয়। ২৩৫ সালে আলেকজান্ডার সেভেরাসের হত্যার পর রোমান রাজনৈতিক ক্ষেত্ৰে প্রবল অস্থিরতা সৃষ্টি হয় এবং রোমান সিনেটে মাত্র ৫০ বছরের ভিতর ২৬ জন লোককে সম্রাট ঘোষণা করে। ডিয়ক্লেটিয়ানের শাসনকালে দেশ চার ভাগে ভাগ করে প্রত্যেকটি অংশে একজন নির্দিষ্ট শাসনকর্তা নিয়োগ করা হয় যার ফলস্বরূপ দেশে পুনরায় সুস্থিরতা আসলেও প্ৰথম কনষ্টেণ্টাইন এর শাসনকালে গৃহযুদ্ধের মাধ্যমে এর অবসান ঘটে, এবং সকল প্রতিদ্বন্দীকে পরাভূত করে তিনি একছত্র সম্রাট হিসেবে অধিষ্ঠিত হন। কনস্টেন্টাইন রোমান রাজধানী বাইজেন্টাইনে স্থানান্তর করেন এবং তার সন্মানার্থে কনষ্টাণ্টিনপল হিসেবে জায়গাটির নতুন নামাকরণ করা হয়। নগরীর পতনের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত এটি ছিল প্রাচ্যের রাজধানী। তিনি খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহণ করার পর রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে এটা গৃহীত হয়। সাম্রাজ্যের পূর্বাঞ্চল(বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্য) বিশ্বের এক অগ্রণী শক্তি হিসেবে পরিগণিত হয়। সংযুক্ত রোমান সাম্রাজ্যের শেষ সম্রাট প্রথম থিয়ডসিয়াসের মৃত্যুর পর ক্ষমতার অপব্যবহার, গৃহযুদ্ধ, বহিরাগত আগ্রাসন, অর্থনৈতিক মন্দাবস্থা ইত্যাদি কারণে রোমান সাম্রাজ্যের আধিপত্য ক্ৰমশ হ্রাস পায় বলে মনে করা হয়। রোমান সাম্রাজ্য অর্থনৈতিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং সামরিক ক্ষেত্রে সেই সময়কার সবথেকে শক্তিশালী এবং সমৃদ্ধিশালী সাম্রাজ্যসমূহের অন্যতম ছিল। এটি ছিল প্রাচীন কালের এবং পৃথিবীর বৃহত্তম সাম্রাজ্যসমূহের একটি। ট্রাজানের সময়কালে এর আয়তন ছিল ৫০ লাখ বর্গ কিলোমিটার[২][৬] , যা ২১ শতকের ৪৮ টি জাতিগোষ্ঠীর সম পর্যায়ের[৭][৮]। এবং প্রায় ৭ কোটি লোকের বসবাস ছিল যা তৎকালীন বিশ্ব জনসংখ্যার ২১% ধারণ করছিল। রোমান সাম্রাজ্যের বিস্তৃতি এবং স্থায়ীত্বই লেটিন এবং গ্রীক ভাষা, সংস্কৃতি, ধর্ম, আবিষ্কার, স্থাপত্য, দর্শন, আইন এবং সরকার গঠনের বিস্তৃতি এবং স্থায়ীত্ব নিশ্চিত করেছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Other possibilities are Imperium Romanum and Romania. Res publica, as a term denoting the Roman "commonwealth" in general, can refer to both the Republican and the Imperial era, while Imperium Romanum is used to denote the territorial extent of Roman authority. The later term Romania, which was eventually carried over to Byzantium, appears in Greek and Latin sources from the fourth century onward. (See Wolff, R.L. "Romania: The Latin Empire of Constantinople". In: Speculum, 23 (1948), pp. 1-34 (pp. 2-3).)
  2. ২.০ ২.১ ২.২ ২.৩ ২.৪ Taagepera, Rein (১৯৭৯)। "Size and Duration of Empires: Growth-Decline Curves, 600 B.C. to 600 A.D."Social Science History 3 (3/4): 125। ডিওআই:10.2307/1170959 
  3. John D. Durand, Historical Estimates of World Population: An Evaluation, 1977, pp. 253-296.
  4. (a) Ian Morris, Social Development, Stanford University, October 2010. This contains supporting materials for the following book: (b) Ian Morris, Why the West Rules—For Now, New York: Farrar, Straus and Giroux, 2010. ISBN 978-0-374-29002-3.
  5. an average of figures from different sources as listed at the US Census Bureau's Historical Estimates of World Population; see also *Kremer, Michael (1993). "Population Growth and Technological Change: One Million B.C. to 1990" in The Quarterly Journal of Economics 108(3): 681–716.
  6. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; cliodynamics.info নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  7. http://www.roman-empire.net/maps/empire/extent/rome-modern-day-nations.html
  8. http://www.allaboutturkey.com/romans.htm