ফরজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ফরজ (আরবি: فَرَضْ‎‎) সরাসরি মুসলিম সমাজের সাথে সম্পৃক্ত, একটি আরবি শব্দ যা অবশ্য কর্তব্য কোন ধর্মীয় আচারকে নির্দেশ করে। ইসলাম ধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ আল-কুরআনের সূরা আন-নূূূর এর ১নং আয়াতে ব্যাবহারের কারণে, ফরজকে একটি কুুুরআনিক শব্দেও অভিহিত করা হয়।

سُوۡرَۃٌ اَنۡزَلۡنٰہَا وَفَرَضۡنٰہَا وَاَنۡزَلۡنَا فِیۡہَاۤ اٰیٰتٍۭ بَیِّنٰتٍ لَّعَلَّکُمۡ تَذَکَّرُوۡنَ

অনুবাদ; একটি সূরাহ্ -- আমরা এটি অবতারণ করেছি এবং এটিকে অবশ্য-পালনীয় (ফরজ) করেছি, আর এতে আমরা অবতারণ করেছি সুস্পষ্ট আয়াতসমূহ, যাতে তোমরা উপদেশ গ্রহন কর। [সূূূরা আন-নূূর, আয়াত ১][১]

সংক্ষিপ্ত বিবরণ[সম্পাদনা]

পারসি, তুর্কি, উর্দু, হিন্দি ভাষায়ও ফরজ একই অর্থে ব্যবহৃত হয়। ইসলাম ধর্মে ফরজ বলতে বুঝায়– আল্লাহ তাঁর অনুসারীদের উপর যেসব কাজ আবশ্যক করেছেন। যে সকল মুসলমান এই আবশ্যক কাজগুলো পালন করবেন তারা মুক্তি ও সওয়াব অর্জন করবেন।

শ্রেণীবিভাগ[সম্পাদনা]

ফিকাহ্ ফরজকে দুই শ্রেণিতে ভাগ করেছে।

ফরজ-এ-আইন[সম্পাদনা]

সকল মুসলমানকে ব্যক্তিক পর্যায় থেকে এই কাজগুলো পালন করতে হবে। যেমন- প্রতিদিনের নামাজ, রমজান মাসের রোজা ও জীবনে অন্তত একবার হজ্জ আদায়।

ফরজ-এ-কিফায়াহ[সম্পাদনা]

কোন সম্প্রদায় বা উম্মাহর উপর আরোপিত কর্তব্য। যেমন- জানাজার নামাজ, সম্প্রদায়ের সকল সদস্যকে অংশগ্রহণ করতে হয় না বরং সেখান থেকে যথেষ্ট পরিমাণ মানুষ অংশগ্রহণ করলেই চলে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সূরা আন-নূর শ্লোক/আয়াত 1 | 24:1 النور - Quran O"qurano.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৪-১৭ 
  2. সাত্তার, মাওলানা শাহ আবদুস। "সর্বশ্রেষ্ঠ ইবাদত সালাত"দৈনিক কালের কণ্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মে ২০১৮ 

[পূর্ণ তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]