বিষয়বস্তুতে চলুন

গুজরাত

স্থানাঙ্ক: ২৩°১৩′ উত্তর ৭২°৪১′ পূর্ব / ২৩.২১৭° উত্তর ৭২.৬৮৩° পূর্ব / 23.217; 72.683
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(গুজরাট থেকে পুনর্নির্দেশিত)
গুজরাট
ગુજરાત
রাজ্য
গুজরাটের অফিসিয়াল সীলমোহর
সীলমোহর
ভারতের মানচিত্রে গুজরাটের অবস্থান
ভারতের মানচিত্রে গুজরাটের অবস্থান
গুজরাতের মানচিত্র
গুজরাতের মানচিত্র
স্থানাঙ্ক (গান্ধীনগর): ২৩°১৩′ উত্তর ৭২°৪১′ পূর্ব / ২৩.২১৭° উত্তর ৭২.৬৮৩° পূর্ব / 23.217; 72.683
দেশ ভারত
গঠন১ মে, ১৯৬০
রাজধানীগান্ধীনগর
বৃহত্তম শহরআহমেদাবাদ
জেলা৩৩
সরকার
 • রাজ্যপালআচার্য দেবব্রত
 • মুখ্যমন্ত্রীভূপেন্দ্র রজনীকান্ত প্যাটেল (বিজেপি)
 • বিধানসভাএককক্ষীয় (১৮২ আসন)
 • লোকসভা কেন্দ্র৩৩
 • হাইকোর্টগুজরাত হাইকোর্ট
আয়তন
 • মোট১,৯৬,০২৪ বর্গকিমি (৭৫,৬৮৫ বর্গমাইল)
এলাকার ক্রম৫ম
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৬,০৪,৩৯,৬৯২
 • ক্রম৯ম
 • জনঘনত্ব৩১০/বর্গকিমি (৮০০/বর্গমাইল)
ভাষা
 • সরকারিগুজরাটি
 • কথ্য ভাষা
সময় অঞ্চলভারতীয় সময় (ইউটিসি+০৫:৩০)
আইএসও ৩১৬৬ কোডIN-GJ
এইচডিআইবৃদ্ধি ০.৫২৭[২] (medium)
এইচডিআই র‌্যাঙ্ক১১তম (২০১১)
লিঙ্গ অনুপাত৮৫৫/
সাক্ষরতা৮০.১৮%
ওয়েবসাইটgujaratindia.com

গুজরাট (গুজরাটি: ગુજરાત; /ˌɡʊəˈrɑːt/ GUUJ-ə-RAHT, স্থানীয়ভাবে: [ˈɡudʒəɾat̪] (শুনুন)) ভারতের পশ্চিমে অবস্থিত রাজ্য। এই রাজ্যের অধিবাসীরা প্রধানত গুজরাটিলোথালধোলাবীরার মতো প্রাচীন সিন্ধু সভ্যতার কয়েকটি কেন্দ্র এই রাজ্যে অবস্থিত। প্রাচীন কাল থেকেই ভারতের অর্থনৈতিক ইতিহাসে গুজরাট এক গুরুত্বপূর্ণ স্থানের অধিকারী।[৩] প্রাচীন ও বর্তমান ভারতের কয়েকটি প্রধান বন্দর এই রাজ্যে অবস্থিত। এই কারণে গুজরাট প্রাচীন কাল থেকেই ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যকেন্দ্রও বটে। বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন বন্দর লোথালও এই রাজ্যে অবস্থিত ছিল। ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব মহাত্মা গান্ধী [৪] এবং পাকিস্তান রাষ্ট্রের স্থপতি মুহাম্মদ আলী জিন্নাহ ছিলেন গুজরাটি। বর্তমানে গুজরাতের অর্থব্যবস্থা ভারতের দ্রুত বর্ধনশীল অর্থব্যবস্থাগুলির অন্যতম।[৫]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

স্বাধীনতা পূর্ববর্তী সময়ে বর্তমান গুজরাত অঞ্চলটি দুটি ভাগে বিভক্ত ছিল।

ভূগোল ও জলবায়ু[সম্পাদনা]

জীবজগৎ[সম্পাদনা]

সরকার ব্যবস্থা ও রাজনীতি[সম্পাদনা]

প্রশাসনিক বিভাগ[সম্পাদনা]

অনেক গুলি বিভাগ আছে।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

এই রাজ্য আয়কর প্রদানে দেশের মধ্যে ৫ম সর্বোচ্চ অবদান রাখে। প্রায় ৪৯ হাজার কোটি রুপি আয়কর আদায় হয় এখান থেকে।

বেকারত্বের হারে এই রাজ্য ভারতের সর্বনিম্ম স্থানে রয়েছে। ১৫-২৯ বর্ষীয়দের ৮.৪% এবং সামগ্রিকভাবে ৩.২% রয়েছে মাত্র।

পরিবহন ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

আকাশপথে[সম্পাদনা]

গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হলো :

রেলপথে[সম্পাদনা]

ভারতীয় রেলের অন্তর্গত পশ্চিম রেল ডিভিশন এই রাজ্যে বিস্তৃত।

জনপরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

গণমাধ্যম[সম্পাদনা]

খেলাধুলা[সম্পাদনা]

এই রাজ্যের প্রধান ক্রীড়া হচ্ছে ক্রিকেট। প্রধান স্টেডিয়াম হচ্ছে :

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]