কেপ ভার্দে

স্থানাঙ্ক: ১৫°৫৫′০″ উত্তর ২৪°৫′০″ পশ্চিম / ১৫.৯১৬৬৭° উত্তর ২৪.০৮৩৩৩° পশ্চিম / 15.91667; -24.08333
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(কেপ ভার্দ থেকে পুনর্নির্দেশিত)
কেপ ভার্দে প্রজাতন্ত্র

República de Cabo Verde  (পর্তুগিজ)
Repúblika di Kabu Verdi  (কাবু ভের্দীয় ক্রেওল)
কেপ ভার্দের জাতীয় পতাকা
পতাকা
কেপ ভার্দের জাতীয় প্রতীক
জাতীয় প্রতীক
 কেপ ভার্দে-এর অবস্থান (dark blue) – Africa-এ (light blue & dark grey) – the African Union-এ (light blue)
 কেপ ভার্দে-এর অবস্থান (dark blue)

– Africa-এ (light blue & dark grey)
– the African Union-এ (light blue)

রাজধানী
ও বৃহত্তম নগরী বা বসতি
প্রায়া
সরকারি ভাষাপর্তুগিজ
স্বীকৃত আঞ্চলিক ভাষাকেপ ভার্দীয় ক্রেওল
সরকারপ্রজাতন্ত্র
Pedro Pires
José Maria Neves
স্বাধীনতা 
• পরিচিত
জুলাই ৫ ১৯৭৫
আয়তন
• মোট
৪,০৩৩ কিমি (১,৫৫৭ মা) (166th)
• পানি/জল (%)
negligible
জনসংখ্যা
• ২০১৫ আনুমানিক
532,913 (167th)
• ঘনত্ব
১২৩.৭ /কিমি (৩২০.৪ /বর্গমাইল) (89th)
জিডিপি (পিপিপি)2016 আনুমানিক
• মোট
$3.649 billion[১]
• মাথাপিছু
$6,867[১]
জিডিপি (মনোনীত)2016 আনুমানিক
• মোট
$1.747 billion[১]
• মাথাপিছু
$3,287[১]
জিনি (2008)47.2[২]
উচ্চ
মানব উন্নয়ন সূচক (2015)বৃদ্ধি 0.648[৩]
মধ্যম · 122nd
মুদ্রাকাবু ভের্দীয় এস্কুদো (CVE)
সময় অঞ্চলইউটিসি-১ (CVT)
• গ্রীষ্মকালীন (ডিএসটি)
ইউটিসি-১ (পর্যবেক্ষণ করা হয়নি)
কলিং কোড২৩৮
ইন্টারনেট টিএলডি.সিভি
কেপ ভার্ডের একটি টপোগ্রাফিক মানচিত্র

কেপ ভার্দে (/ˈvɜːrd(i)/ (এই শব্দ সম্পর্কেশুনুন)) or কাবু ভের্দি (/ˌkɑːb ˈvɜːrd/ (এই শব্দ সম্পর্কেশুনুন), /ˌkæb-/; পর্তুগিজ: [ˈkabu ˈveɾdɨ]), আনুষ্ঠানিকভাবে কাবু ভের্দি প্রজাতন্ত্র, আফ্রিকা মহাদেশের পশ্চিম উপকূলের নিকটে অবস্থিত একটি দ্বীপ রাষ্ট্র। এটি উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরের ম্যাক্রোনেশিয়া বাস্তু-অঞ্চলের দ্বীপপুঞ্জের অন্তর্ভুক্ত। পঞ্চদশ শতকে পর্তুগিজরা এই দ্বীপ আবিষ্কার করে বসতি স্থাপন করে। এর আগে এখানে কোন মানব বসতি ছিল না।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৪৬০ সালে পর্তুগিজদের আগমনের পূর্বে কাবু ভের্দিতে কোন মানব বসতি ছিলনা। [৪][৫][৬] তারা ১৪৬০ সালে এই দ্বীপটিকে তাদের সাম্রাজ্যের অধীনে আনে। অবস্থানগত দিক থেকে আফ্রিকার উপকূলে হবার কারণে কাবু ভের্দি প্রথমে একটি গুরুত্বপূর্ণ পানি সরবরাহ কেন্দ্র, চিনি উ‍‌ৎপাদন কেন্দ্র এবং পরবর্তীতে দাস ব্যাবসায়ের প্রধান কেন্দ্রে পরিণত হয়।

১৯৭৫ সালে পর্তুগালের সাথে গিনি-বিসাউ জঙ্গলে দীর্ঘ এক সশস্ত্র যুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা লাভ করে কাবু ভের্দি। স্বাধীনতা অর্জনের জন্য মূলত "দ্য আফ্রিকান পার্টি ফর দা ইন্ডিপেন্ডেন্স অভ গিনি-বিসাউ অ্যান্ড কাবু ভের্দি" এর অবদান সবচেয়ে বেশি ছিল। স্বাধীনতার পর "আফ্রিকান পার্টি ফর দা ইন্ডিপেন্ডেন্স অভ গিনি-বিসাউ অ্যান্ড কাবু ভের্দি" গিনি-বিসাউ ও কেপ ভের্দকে একত্রিত করে একটি দেশে পরিণত করবার চেষ্টা করে যেহেতু তারা নিজেরাই দুইটি অঞ্চলকে নিয়ন্ত্রণ করছিলো। ১৯৮০ সালে একটি সামরিক অভ্যুত্থানের ফলশ্রুতিতে এই পরিকল্পনা ধূলিস্যাৎ হয়ে যায়। পরবর্তীতে আফ্রিকান পার্টি ফর দ্য ইন্ডিপেনডেন্স অফ কেপ ভের্দি সৃষ্টি হয়। ১৯৯১ সালের গণতান্ত্রিক নির্বাচনের মাধ্যমে এই দলের শাসনের অবসান ঘটে। এই নির্বাচনে 'মুভিমেন্তো প্যারা অ‍্যা ডেমক্রাসিয়া জয় লাভ করে। এরা ১৯৯৬ সালে আবার নির্বাচিত হয়। দীর্ঘ ১০ বছর পর আবার ২০০১ সালে আফ্রিকান পার্টি ফর দ্য ইন্ডিপেনডেন্স অফ কেপ ভের্দি নির্বাচিত হয়, ২০০৬ সালে এইদল আবার নির্বাচিত হয়।

রাজনীতি[সম্পাদনা]

প্রশাসনিক অঞ্চলসমূহ[সম্পাদনা]

পূর্ব আফ্রিকার ১৫.০২(দ) ২৩.৩৪(পূ) এ কেপ ভের্দ দ্বীপপুঞ্জ অবস্থিত । ১০টি বড় দ্বীপ এবং ৮টি ছোট দ্বীপের সমন্বয়ে কাবু ভের্দি গঠিত। প্রধান দ্বীপগুলো হলোঃ

এর মধ্যে শুধুমাত্র সান্টা লুজিয়া এবং আর ৫ টি জনশূন্য। বর্তমানে এগুলোকে প্রাকৃতিক সম্পদ হিসেবে সংরক্ষণ করা হয়েছে। সবগুলো দ্বীপে আগ্নেয়গিরি থাকলেও শুধু মাত্র ফোগোতেই অগ্ন্যুৎপাত ঘটে।

প্রশাসনিক অঞ্চলসমূহ[সম্পাদনা]

ভূগোল[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

সামরিক বাহিনী[সম্পাদনা]

কাবু ভের্দির সামরিক বাহিনী স্থলবাহিনী এবং কোস্ট গার্ডের সমন্বয়ে গঠিত। ২০০৫ সালে সামরিক বাহিনীর জন্য প্রায় ৮৪,৬৪১ জন লভ্য ছিল। এদের মধ্যে শারীরিকভাবে সক্ষম ছিল ৬৫,৬১৪ জন। কেপ ভের্দি সামরিক খাতে বাৎসরিক ৭.১৮ মিলিয়ন ডলার খরচ করে, যা মোট জাতীয় উৎপাদনের ০.৭%।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

টীকা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Burundi"। International Monetary Fund। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জানুয়ারি ২০১৫ 
  2. "GINI index"। World Bank। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুলাই ২০১৩ 
  3. "2016 Human Development Report" (PDF)। United Nations Development Programme। ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১৭ 
  4. "Cabo Verde – Cultural life"Encyclopedia Britannica (ইংরেজি ভাষায়)। Although there is no conclusive evidence that the islands were inhabited before the arrival of the Portuguese, cases may be made for visits by Phoenicians, Moors, and Africans in previous centuries. 
  5. "Cape Verde, Country on the West Coast of Africa | South African History Online"South Africa History OnlineThe early settlement in Cape Verde by Arab and African fishermen has only been related through oral history, and remains a part of the mythological stories of origin of the archipelago. It is generally agreed that the Islands where [sic] uninhabited when the Portuguese first landed in 1456. 
  6. Halter, Marilyn (২০১৩)। "Cape Verdeans and Cape Verdean Americans, 1870–1940"। Barkan, Elliott Robert। Immigrants in American History: Arrival, Adaptation, and Integration, Volume 1। ABC-CLIO Publisher। পৃষ্ঠা 269। আইএসবিএন 978-1-59884-219-7Although Cape Verdean folklore includes stories of landings by Arab and African fishermen prior to the sighting of the archipelago by Portuguese navigators in the mid-fifteenth century, most historians concur that it was uninhabited when the Portuguese began to settle there. 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

সরকারী
সাধারণ তথ্য