কাম্পালা

স্থানাঙ্ক: ০০°১৮′৪৯″ উত্তর ৩২°৩৪′৫২″ পূর্ব / ০.৩১৩৬১° উত্তর ৩২.৫৮১১১° পূর্ব / 0.31361; 32.58111
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কাম্পালা
রাজধানী
উপরে: নাকাসেরো এলাকা থেকে কামপাড়া শহরের দৃশ্য; দ্বিতীয়: বাহাই মন্দির, গাদ্দাফি জাতীয় মসজিদ; তৃতীয়: মাকেরেরে বিশ্ববিদ্যালয়, কাম্পারা ওয়ার্কার্স হাউজ; নিচ: ভিক্টোরিয়া হ্রদের দৃশ্য
উপরে: নাকাসেরো এলাকা থেকে কামপাড়া শহরের দৃশ্য; দ্বিতীয়: বাহাই মন্দির, গাদ্দাফি জাতীয় মসজিদ; তৃতীয়: মাকেরেরে বিশ্ববিদ্যালয়, কাম্পারা ওয়ার্কার্স হাউজ; নিচ: ভিক্টোরিয়া হ্রদের দৃশ্য
কাম্পালা কাম্পালা-এ অবস্থিত
কাম্পালা
কাম্পালা
কাম্পালা উগান্ডা-এ অবস্থিত
কাম্পালা
কাম্পালা
কাম্পালা আফ্রিকা-এ অবস্থিত
কাম্পালা
কাম্পালা
কাম্পালার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ০০°১৮′৪৯″ উত্তর ৩২°৩৪′৫২″ পূর্ব / ০.৩১৩৬১° উত্তর ৩২.৫৮১১১° পূর্ব / 0.31361; 32.58111
দেশউগান্ডা
শহরকাম্পালা
সরকার
 • লর্ড মেয়রএরিয়াস লুকোয়াগো
 • নির্বাহী পরিচালকদরোথি কিসাকা[১]
আয়তন
 • রাজধানী১৮৯ বর্গকিমি (৭৩ বর্গমাইল)
 • স্থলভাগ১৭৬ বর্গকিমি (৬৮ বর্গমাইল)
 • জলভাগ১৩ বর্গকিমি (৫ বর্গমাইল)
 • মহানগর৮,৪৫১.৯ বর্গকিমি (৩,২৬৩.৩ বর্গমাইল)
উচ্চতা১,২০০ মিটার (৩,৯০০ ফুট)
জনসংখ্যা (২০১৯)[২]
 • রাজধানী১৬,৫০,৬০০
 • পৌর এলাকা[৩]৩১,৩৮,০০০
 • মহানগর৬৭,০৯,৯০০[২]
সময় অঞ্চলইএটি (ইউটিসি+৩)
ওয়েবসাইটwww.kcca.go.ug

কাম্পালা (ইউকে: /kæmˈpɑːlə/, ইউএস: /kɑːmˈ-/) উগান্ডার রাজধানী ও বৃহত্তম শহর। নগরটি পাঁচটি বোরোকে বিভক্ত করা হয় যা স্থানীয় পরিকল্পনার তত্ত্বাবধান করে: কাম্পালা সেন্ট্রাল বিভাগ, কাভেম বিভাগ, ম্যাকিন্দে বিভাগ, নাকাওয়া বিভাগ এবং লুবাগা বিভাগ। কাম্পালা জেলা এর সাথে শহরটি নিখুঁত। কাম্পালার আশপাশে দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে ওয়াকিসো জেলা, যার জনসংখ্যা ২০০২ থেকে ২০১৪ সালের তুলনায় দ্বিগুণ এবং বর্তমানে ২ মিলিয়নেরও বেশি।[৪]

সিটি মেয়র কতৃর্ক পৃথিবীর ১৩ তম দ্রুততম ক্রমবর্ধমান শহরের নামকরণ করা হয় কাম্পালাকে, যার গড় জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ৪.০৩ শতাংশ।[৫] মার্ছার কর্তৃক কাম্পালাকে পূর্ব আফ্রিকায় বসবাসের জন্য সেরা শহর হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে[৬] যেটি নাইরোবি ও কিগালি থেকে এগিয়ে, মার্ছার হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে অবস্থিত একটি বিশ্বব্যাপী উন্নয়ন পরামর্শক সংস্থা।

২০১৫ সালের ডিসেম্বরে, গুগল কাম্পালাতে তাদের দ্রুতগতির ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক চালু করেছিল।[৭]

প্রাণিবিদ্যা[সম্পাদনা]

ব্রিটিশ উপনিবেশের আগমনের পূর্বে, বাগন্ডার কাবাক সেই এলাকাটি বেছে নিয়েছিল যেটি কাম্পালার মতো শিকার রেখা হবে। উপত্যকায় ঘাসযুক্ত জলাভূমি সহ ঘূর্ণায়মান পাহাড়গুলির গঠিত এলাকা, বিশেষত ইমপাল এন্টেলোপের বিভিন্ন প্রজাতির আবাসভূমি ছিল। যখন ব্রিটিশরা এসেছিল, তখন তারা এটিকে "ইমপালার পাহাড়" নামে অভিহিত করেছিল। ইংরেজদের সাথে তাদের পারস্পরিক ক্রিয়ার কারণে অনেক ইংরেজি শব্দ গ্রহণ করে, বাগন্ডা, লুগান্ডা ভাষা। বাগান্ডায় "ইম্পালা হিল" "আকাসোজি কে এম্পালা" হিসাবে "" - "কসোজী" অর্থ "পাহাড়", "কে" অর্থ "এর", এবং "এম্পালা" বহুবচন "ইম্পালা"। লুগান্ডায়, "কপাল" শব্দটি "পাহাড়ের" রেফারেন্সে "আগলা" এবং "কাম্পাল" শব্দটি কাবাকা পাহাড় থেকে উৎপত্তির জন্য শহরটির নাম "কাম্পালা" নামে পরিচিত ছিল।[৮]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কাম্পালা শহর (১৯৩৬ সালে ক্যাথেড্রাল হিল থেকে তোলা ছবি)

কিউসি টমস (১৮৮১ সালে নির্মিত), লুবিরি প্রাসাদ, বাগান্ডা সংসদ) এবং বুগান্ডা কোর্ট অফ জাস্টিস বুবুদা রাজ্যের রাজধানী হিসেবে এই শহরটি বৃদ্ধি পেয়েছে। ১৮৯০ সালে, ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক প্রশাসক ফ্রেডেরিক লগার্ড মেনগো হিল শহরের ভিতর একটি ফোরাম গঠন করেন, যা ব্রিটিশদের কাম্পালা সহ বাগন্ডা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলটি দখল করে নেয়।[৯] ১৮৯৪ সালে, ব্রিটিশ সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে এই অঞ্চলের মধ্যে একটি সুরক্ষিত সুরক্ষা প্রতিষ্ঠা করে।[১০] ১৯০৫ সালে, ব্রিটিশ সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে সমগ্র উপনিবেশটি ব্রিটিশ উপনিবেশ হিসেবে ঘোষণা করে।[১১] ১৯৬২ সালে দেশের স্বাধীনতা পর্যন্ত এই রাজধানীকে এনটেবেতে স্থানান্তরিত করা হয়, যদিও শহরটি প্রাথমিক ভাবে উগান্ডার জন্য একটি অর্থনৈতিক ও উৎপাদন অঞ্চলে পরিনত হতে থাকে। ১৯২২ সালে, বর্তমানের মেকরেই বিশ্ববিদ্যালয় পূর্বে পরিচিত ছিল মেকরেই টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট নামে যেটি কাম্পালা এবং আফ্রিকার পূর্ব উপকূলে ব্রিটিশ উপনিবেশসমূহের মধ্যে স্থাপিত প্রথম কলেজভিত্তিক প্রতিষ্ঠান, ১৯৬২ সালের স্বাধীনতার পর, মিল্টন ওভোট উগান্ডার রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন এবং এই পদে ১৯৭১ পর্যন্ত থাকেন, সাবেক সার্জেন্ট ইদি আমিন তার সরকারকে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে পরাজিত করেন, তিনি কাম্পালায় বসবাসকারী সমস্ত এশিয়ান বাসিন্দাদের বহিষ্কৃত করেন এবং শহরের মধ্যে বসবাসরত ইহুদি জনগোষ্ঠীকে আক্রমণ করেন। ১৯৭৮ সালে তিনি প্রতিবেশী দেশ তানজানিয়া আক্রমণ করেন, এবং এর পরিবর্তে সরকার উগান্ডা-তানজানিয়া যুদ্ধ শুরু করে, যা কাম্পালার ভবনগুলিকে মারাত্মক ক্ষতি করে।[১২] তারপর থেকে, শহরটির হোটেল, ব্যাংক, শপিং মল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল এবং নতুন ভবন নির্মাণ এবং যুদ্ধের ক্ষতিগ্রস্ত ভবন এবং অবকাঠামো উন্নয়নের সাথে পুনর্নির্মাণ করা হয়েছে পুনরায়। ঐতিহ্যগতভাবে, কাম্পালা সাতটি পাহাড়ের একটি শহর ছিল, কিন্তু সময়ের সাথে এটি আরও অনেক কিছুতে এসেছে।[১৩]

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

মেকরেই বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রধান ক্যাম্পাসটি শহরটির মেকরেইউর পাহাড় এলাকায় অবস্থিত।

ইকো আফ্রিকান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক এর সদরদপ্তর নাকাসেরো হিলে অবস্থিত এবং উগান্ডা স্থানীয় সরকার এসোসিয়েশন এর সদর দপ্তর কাম্পালার এম্বেটেবে অবস্থিত।

কাম্পালা মূলত সাত পাহাড়ের উপর নির্মিত হয়েছে , কিন্তু এর আকার বৃদ্ধি পেয়েছে, এটি আরও বেশি পাহাড়ে সাতটি পর্যন্ত প্রসারিত হয়েছে। মূল সাতটি পাহাড়:

  1. ঐতিহাসিক গুরুত্বের প্রথম পাহাড়টি কাসুবি পাহাড়।
  2. দ্বিতীয়টি মেনগো হিল
  3. তৃতীয়টি কিবুলি হিল, যা কিবুলির মসজিদ বাড়ি।
  4. চতুর্থটি হল নােমিরেমে হিল, নােমিরেমে বাড়ি এংলিকান ক্যাথেড্রাল
  5. পঞ্চম লুবাগা হিল, রুবাগা ক্যাথলিক ক্যাথিড্রালের স্থান।
  6. ষষ্ঠটি নাসাম্বিয়া পাহাড়।
  7. সপ্তমটি কাম্পালা হিল (পুরনো কাম্পালা)। কাম্পালার কাম্পালা হিলে অবস্থিত উগাণ্ডার গাদ্দাফি জাতীয় মসজিদ। এ মসজিদ উগাণ্ডা তথা পূর্ব আফ্রিকার সর্ববৃহৎ মসজিদ। ২০০৬ সালে মসজিদের নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হলেও আনুষ্ঠানিকভাবে এটি ২০০৭ সালে চালু করা হয়। গাদ্দাফি মসজিদে একসাথে ১৫০০০ মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারে। উগান্ডায় অনেক মসজিদ রয়েছে কিন্তু এটিই একমাত্র গগনচুম্বী মসজিদ।[১৪]

মসজিদের নামকরণ করা হয় লিবিয়ার প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মুয়াম্মর গাদ্দাফির নামে। গাদ্দাফি মসজিদ লিবিয়ার পক্ষ থেকে উগান্ডার মুসলিম জনসংখ্যার জন্য উপহার স্বরুপ ছিল বলে এ নামকরণ করা হয়েছিল। এ মসজিদের এক অংশে উগান্ডা মুসলিম সুপ্রিম কাউন্সিল এর প্রধান কার্যালয় অবস্থিত।[১৫]

উপবন কাম্পালার একটি দৃশ্য

শহরটি নাকাসেরো হিলে ছড়িয়ে পড়েছে, যেখানে কিছু হোটেল রয়েছে। যেমন: হোটেল ইন্টারন্যাশনাল ২০০০, গ্র্যান্ড ইমপেরিয়াল হোটেল, কাম্পালা হিলটন হোটেল, কাম্পালা ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেল, ইমপেরিয়াল রয়্যাল হোটেল, কাম্পালা সেরানা হোটেল, কাম্পালা শেরেটেন হোটেল এবং কাম্পালা স্পেক হোটেল

এছাড়াও ট্যাঙ্ক হিল এবং মুলাগো হিল রয়েছে। শহরটি মাকিন্ডে হিল এবং কোং হিল অন্তর্ভুক্ত করার জন্য দ্রুত বিস্তৃত হচ্ছে।

শহরের অন্যান্য বৈশিষ্ট্যগুলি হল উগান্ডা মিউজিয়াম, উগান্ডান ন্যাশনাল থিয়েটার, নাকাসোরো মার্কেট এবং সেন্ট বালিকুডেমে মার্কেট (পূর্বে ওভিনো মার্কেট) অন্তর্ভুক্ত করেছে। কাম্পালা তার নাইট লাইফের জন্যও পরিচিত,[১৬] যাতে রয়েছে অনেকগুলি ক্যাসিনো , বিশেষ করে ক্যাসিনো সিমবা গার্ডেন সিটি শপিং সেন্টারে, কাম্পালা ক্যাসিনো এবং মেফার ক্যাসিনো। পোর্ট বেল লেক ভিক্টোরিয়া এর আশপাশে ১০ কিলোমিটার (৬.২ মা) দূরে অবস্থিত।

কাম্পালা একটি বাহাই হাউস অফ ওরশীপ আয়োজন করে যা আফ্রিকার মাদার টেপ নামে পরিচিত এবং এটি শহরের বাইরে অবস্থিত কিকায়া পাহাড়ে অবস্থিত। ১৯৬১ সালের জানুয়ারিতে এই মন্দিরটি উদ্বোধন করা হয়েছিল।[১৭]

কাম্পালায় অবস্থিত আহমদীয়া কেন্দ্রীয় মসজিদ আহমদিয়া মুসলিম সম্প্রদায় এর কেন্দ্রীয় মসজিদ, যার ছয়টি মিনারা রয়েছে এবং এতে ৯,০০০ জনের জন্য স্থান রয়েছে।[১৮]

কাম্পালার ৩০% এরও বেশি অধিবাসীরা শহুরে কৃষি অনুশীলন করে, তবে কাম্পালা নগরটি কায়াংগা এর উত্তরপূর্ব প্যারিশ শহরে শহুরে কৃষি উন্নয়নে ৩২ একর জমি দান করে। [১৯]

জলবায়ু[সম্পাদনা]

কাম্পালায় ট্রপিকাল রেইনফরেস্ট ক্লাইমেট বিরাজমান।[২০] কাম্পালার জলবায়ুর আরেকটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এর দুটি বর্ষা মৌসুম রয়েছে। আগস্ট থেকে ডিসেম্বর দীর্ঘ বর্ষা মৌসুম এবং ফেব্রুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত স্বল্পকালীন বর্ষা মৌসুম। এই সময়ে ভারী বৃষ্টিপাত হয়, এপ্রিলে গড়ে ১৬৯ মিলিমিটার (৬.৭ ইঞ্চি) বৃষ্টিপাত হয়। বিশ্বের অন্যতম বজ্রপাতের স্থান গুলোর মধ্যে কাম্পালা অন্যতম।

কাম্পালা-এর আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানু ফেব্রু মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টে অক্টো নভে ডিসে বছর
সর্বোচ্চ রেকর্ড °সে (°ফা) ৩৩
(৯১)
৩৬
(৯৭)
৩৩
(৯১)
৩৩
(৯১)
২৯
(৮৪)
২৯
(৮৪)
২৯
(৮৪)
২৯
(৮৪)
৩১
(৮৮)
৩২
(৯০)
৩২
(৯০)
৩২
(৯০)
৩৬
(৯৭)
সর্বোচ্চ গড় °সে (°ফা) ২৮.৬
(৮৩.৫)
২৯.৩
(৮৪.৭)
২৮.৭
(৮৩.৭)
২৭.৭
(৮১.৯)
২৭.৩
(৮১.১)
২৭.১
(৮০.৮)
২৬.৯
(৮০.৪)
২৭.২
(৮১.০)
২৭.৯
(৮২.২)
২৭.৭
(৮১.৯)
২৭.৪
(৮১.৩)
২৭.৯
(৮২.২)
২৭.৮
(৮২.০)
দৈনিক গড় °সে (°ফা) ২৩.২
(৭৩.৮)
২৩.৭
(৭৪.৭)
২৩.৪
(৭৪.১)
২২.৯
(৭৩.২)
২২.৬
(৭২.৭)
২২.৪
(৭২.৩)
২২.০
(৭১.৬)
২২.২
(৭২.০)
২২.৬
(৭২.৭)
২২.৬
(৭২.৭)
২২.৫
(৭২.৫)
২২.৭
(৭২.৯)
২২.৭
(৭২.৯)
সর্বনিম্ন গড় °সে (°ফা) ১৭.৭
(৬৩.৯)
১৮.০
(৬৪.৪)
১৮.১
(৬৪.৬)
১৮.০
(৬৪.৪)
১৭.৯
(৬৪.২)
১৭.৬
(৬৩.৭)
১৭.১
(৬২.৮)
১৭.১
(৬২.৮)
১৭.২
(৬৩.০)
১৭.৪
(৬৩.৩)
১৭.৫
(৬৩.৫)
১৭.৫
(৬৩.৫)
১৭.৬
(৬৩.৭)
সর্বনিম্ন রেকর্ড °সে (°ফা) ১২
(৫৪)
১৪
(৫৭)
১৩
(৫৫)
১৪
(৫৭)
১৫
(৫৯)
১২
(৫৪)
১২
(৫৪)
১২
(৫৪)
১৩
(৫৫)
১৩
(৫৫)
১৪
(৫৭)
১২
(৫৪)
১২
(৫৪)
বৃষ্টিপাতের গড় মিমি (ইঞ্চি) ৬৮.৪
(২.৬৯)
৬৩.০
(২.৪৮)
১৩১.৫
(৫.১৮)
১৬৯.৩
(৬.৬৭)
১১৭.৫
(৪.৬৩)
৬৯.২
(২.৭২)
৬৩.১
(২.৪৮)
৯৫.৭
(৩.৭৭)
১০৮.৪
(৪.২৭)
১৩৮.০
(৫.৪৩)
১৪৮.৭
(৫.৮৫)
৯১.৫
(৩.৬০)
১,২৬৪.৩
(৪৯.৭৭)
বৃষ্টিবহুল দিনগুলির গড় (≥ ১.০ mm) ৪.৮ ৫.১ ৯.৫ ১২.২ ১০.৯ ৬.৩ ৪.৭ ৬.৭ ৮.৬ ৯.১ ৮.৪ ৭.৪ ৯৩.৭
আপেক্ষিক আদ্রতার গড় (%) ৬৬ ৬৮.৫ ৭৩ ৭৮.৫ ৮০.৫ ৭৮.৫ ৭৭.৫ ৭৭.৫ ৭৫.৫ ৭৩.৫ ৭৩ ৭১.৫ ৭৪.৫
মাসিক সূর্যালোক ঘণ্টার গড় ১৫৫ ১৭০ ১৫৫ ১২০ ১২৪ ১৮০ ১৮৬ ১৫৫ ১৫০ ১৫৫ ১৫০ ১২৪ ১,৮২৪
উৎস ১: World Meteorological Organization,[২১] Climate-Data.org for mean temperatures[২০]
উৎস ২: বিবিসি ওয়েদার[২২]

ক্রীড়া[সম্পাদনা]

কাম্পালা হচ্ছে সিটি অয়েলার্স এর হোমগ্রাউন্ড, পূর্ব আফ্রিকার শীর্ষ বাস্কেটবল ক্লাব দলগুলোর একটি। এটি ফিবা আফ্রিকান ক্লাবস চ্যাম্পিয়নস কাপ এ প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী একমাত্র পূর্ব আফ্রিকান দল। এমটিএন অরিনা এ অয়েলার্স তাদের হোম গেম খেলে, যা কাম্পালার লোগোগো এলাকা অবস্থিত।[২৩]

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

মেজর লীগ সকারের মিকেল আজিরা, উগান্ডান ফুটবলার যিনি কলোরাডো রেপিডস এ খেলে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Profile: Who is Dorothy Kisaka" 
  2. https://www.ubos.org/wp-content/uploads/publications/09_2019Final_2020_21_LLG_IPFs_Sept_2019.pdf
  3. PopulationStat.com
  4. "Uganda: Administrative Division"। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০১৫ 
  5. http://www.citymayors.com/statistics/urban_growth1.html Fastest growing cities in the world
  6. http://www.newvision.co.ug/new_vision/news/1418082/kampala-ranked-city-east-africa ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৫ মে ২০২০ তারিখে Kampala Best city to live in, East Africa
  7. "Google launches wi-fi network in Kampala, Uganda"। ৪ ডিসেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  8. "Kampala: Origin of The Name"। Myetymology.com। সংগ্রহের তারিখ ১১ জুন ২০১৪ 
  9. "Kampala, Uganda (1890- ) | The Black Past: Remembered and Reclaimed"www.blackpast.org। সংগ্রহের তারিখ ১২ নভেম্বর ২০১৬ 
  10. "HISTORY OF UGANDA"www.historyworld.net। সংগ্রহের তারিখ ১২ নভেম্বর ২০১৬ 
  11. (http://www.hydrant.co.uk), Site designed and built by Hydrant। "Uganda : History | The Commonwealth"thecommonwealth.org। সংগ্রহের তারিখ ১২ নভেম্বর ২০১৬ 
  12. "HISTORY OF UGANDA"www.historyworld.net। সংগ্রহের তারিখ ১২ নভেম্বর ২০১৬ 
  13. "History of the City of Kampala"। Ugandatravelguide.com। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুলাই ২০১২ 
  14. New Mosque Redraws Kampala's Skyline UGPulse.com, August 24, 2006
  15. "Uganda People News: Kayongo free to enter Gaddafi Mosque-Mubajje"। Ultimate Media Consult। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০১২ 
  16. Azzarito, Amy। "Where to Party in Kampala, the City That (Really) Never Sleeps" 
  17. "Fifty years on, Uganda's Baha'i temple stands as a symbol of unity and progress - Bahá'í World News Service (BWNS)"। ১৮ জানুয়ারি ২০১১। 
  18. Ahmadiyya Muslim Mosques Around the World, pg. 112
  19. Wolfe, J. M., & McCans, S. (2009). DESIGNING FOR URBAN AGRICULTURE IN AN AFRICAN CITY: KAMPALA, UGANDA. Open House International, 34
  20. "Climate: Kampala – Climate graph, Temperature graph, Climate table"। Climate-Data.org। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুলাই ২০১৫ 
  21. "World Weather Information Service – Kampala"। ওয়ার্ল্ড মেটেরোলজিক্যাল অর্গানাইজেশন। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মার্চ ২০১৬ 
  22. "কাম্পালার গড় অবস্থা, উগান্ডা"। বিবিসি ওয়েদার। সংগ্রহের তারিখ ১১ জুন ২০১৪ 
  23. Juruni eyes 2013 Basketball crown ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৩ আগস্ট ২০১৭ তারিখে, NewVision.co.ug, 17 May 2013. Accessed 16 May 2017.
  24. BRC (৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬)। "John Mugabi: Biography"। Boxrec.com (BRC)। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

{{#coordinates:}}: প্রতি পাতায় একাধিক প্রাথমিক ট্যাগ থাকতে পারবে না