কামধেনু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কামধেনু
গোমাতা
Batu Caves Kamadhenu.jpg
মালয়েশিয়ার বাটু গুহায় থাকা কামধেনুর প্ৰতিমূৰ্তি
অন্যান্য নামসুরভি
দেবনাগরীकामधेनु
অন্তর্ভুক্তিদেবী
আবাসগোলোক, পাতাল বা জমদগ্নি ও বশিষ্ঠ ঋষির আশ্ৰম
সন্তাননন্দিনী, ধেনু, হৰ্ষিকা ও সুভদ্ৰা
সঙ্গীকাশ্যপ

কামধেনু (সংস্কৃত: कामधेनु) বা সুরভি (सुरभि) হচ্ছে এক ঐশ্বরিক গো-দেবী ও হিন্দু ধর্মে তাকে গো-মাতা বা সকল গরুর মাতা হিসাবে বর্ণনা করা হয়। কামধেনু "প্রাচুর্যের গাভী" হিসাবে পরিচিত, যা তার কাছে কামনা করা হয় সে সেই সকল সামগ্রী প্রদান করে। কামধেনুকে প্রায়ই গবাদি পশুর মাতা হিসাবে চিত্রায়িত করা হয়। সাধারণত কামধেনুকে পাখির ডানা, ময়ুরের পেখম এবং নারীর মস্তক ও স্তন সহ শুক্লা গাভী রূপে অঙ্কন করা হয়। তার শরীরের বিভিন্ন অংগে বিভিন্ন দেব-দেবীর বাসস্থান। হিন্দু ধর্ম অনুসারে সকল গাভী কামধেনুর পার্থিব রূপ। তবে কামধেনুকে স্বকীয় দেবী হিসাবে পূজা করা হয় না ও তার জন্য কোনো নিজস্ব উপাসনাস্থল নেই। ধার্মিক হিন্দুরা গাভীমাত্রেই পূজা ক'রে কামধেনুর প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে। হিন্দু ধর্মের পুঁথিসমূহে কামধেনুর জন্ম সম্পর্কে বিচিত্র কাহিনী পাওয়া যায়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কামধেনুকে সুরভি অর্থাৎ সাধারণ গাভী হিসাবেও সম্বোধন করা হয়।[১] জেকবি নামের এজন অধ্যাপকের মতে সুরভি (সুগন্ধি) নামটি গাভীর দেহ থেকে নির্গত বিশেষ গন্ধ হতে উদ্ভূত হয়েছে।[২] মোনিয়র উইলিয়ামসের সংস্কৃত-ইংরেজি অভিধানের (১৮৯৯) মতে সুরভি শব্দের অর্থ সুগন্ধি, আকর্ষণীয়, আনন্দদায়ক ছাড়াও গরু ও পৃথিবীকে বুঝায়।[৩] কামধেনুকে সবালা (বিন্দুযুক্ত) ও কপিলা (রক্তবর্ণ) নামেও ডাকা হয়।[৪]

আক্ষরিক অর্থে "কামধেনু", "কামদূহ" ও "কামদূহা" মানে এমন একটি গাভী যা যে, "সকলের মনোবাঞ্ছা পূরণ করতে পারে"।[৪][৫] মহাভারতদেবীভাগবত পুরাণে বর্ণিত পিতামহ ভীষ্মর জন্ম সম্পর্কিত আখ্যানে নন্দিনী নামের একটি গাভীকে কামধেনু আখ্যা দেওয়া হয়েছে।[৬]

জন্মের আখ্যান[সম্পাদনা]

সমুদ্র মন্থনে নির্গত কামধেনু

মহাভারতের আদি পর্বে উল্লেখ আছে যে অমৃত সন্ধানী দেবতা ও অসুরের করা সমুদ্র মন্থনেই কামধেনু-সুরভির আবির্ভাব হয়েছিল।[১] তাই তাকে দেবতা ও অসুর উভয়ের সন্তান হিসাবে গণ্য করে সপ্তর্ষিকে প্রদান করা হয়েছিল।[৭]

অনুশাসন পর্বের মতে অমৃত পান করে প্রজাপতি দক্ষর কাছ থেকে সুরভির জন্ম হয়। পরে সুরভি কপিলা নামে পরিচিত একটি গাভীর জন্ম দেয় ও তাকে পৃথিবীর মাতা হিসাবে গণ্য করা হয়।[২][৮] শতপথ ব্রাহ্মণে একই আখ্যান পাওয়া যায়।[২] রামায়ণের আখ্যান অনুসারে সুরভি ঋষি কাশ্যপ ও দক্ষর সন্তান।[১][৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Mani pp. 379–81
  2. Jacobi, H. (১৯০৮–১৯২৭)। "Cow (Hindu)"। James Hastings। Encyclopaedia of Religion and Ethics4। পৃষ্ঠা 225–6। 
  3. Monier-Williams, Monier (২০০৮) [1899]। "Monier Williams Sanskrit-English Dictionary"Universität zu Köln। পৃষ্ঠা 1232। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  4. Biardeau, Madeleine (১৯৯৩)। "Kamadhenu: The Religious Cow, Symbol of Prosperity"। Yves Bonnefoy। Asian mythologies। University of Chicago Press। পৃষ্ঠা 99আইএসবিএন 978-0-226-06456-7 
  5. Monier-Williams, Monier (২০০৮) [1899]। "Monier Williams Sanskrit-English Dictionary"Universität zu Köln। পৃষ্ঠা 272। ১৪ জুলাই ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  6. Vijñanananda, Swami (১৯২১–১৯২২)। "The S'rîmad Devî Bhâgawatam: Book 2: Chapter 3"। Sacred texts archive। সংগ্রহের তারিখ ১৩ নভেম্বর ২০১০ 
  7. Smith, Frederick M. (২০০৬)। The self possessed: Deity and spirit possession in South Asian literature and civilizationসীমিত পরীক্ষা সাপেক্ষে বিনামূল্যে প্রবেশাধিকার, সাধারণত সদস্যতা প্রয়োজন। Columbia University Press। পৃষ্ঠা 404, pp. 402–3 (Plates 5 and 6 for the two representations of Kamadhenu)। আইএসবিএন 978-0-231-13748-5 
  8. Ganguli, Kisari Mohan (১৮৮৩–১৮৯৬)। "SECTION LXXVII"The Mahabharata: Book 13: Anusasana Parva। Sacred texts archive। 
  9. Sharma, Ramashraya (১৯৭১)। Socio-Political Study of the Valmiki Ramayana। Motilal Banarsidass Publ। পৃষ্ঠা 220। আইএসবিএন 978-81-208-0078-6