অ্যামিনো অ্যাসিড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আলফা অ্যামিনো অ্যাসিডের সাধারণ চিত্র

কোনো যৌগে যুগপৎ অন্ততপক্ষে একটি কার্বক্সিলিক অ্যাসিড ও অন্তত একটি অ্যামিন কার্যকরী মূলক থাকলে তাকে অ্যামিনো অ্যাসিড বলা যায়। আমিষের মৌলিক গাঠনিক একক হলো এই অ্যামিনো অম্ল।[১]

তবে প্রাণরসায়নে অ্যামিনো অ্যাসিড শব্দটি বিশেষভাবে প্রয়োগ হয় আলফা অ্যামিনো অ্যাসিড হিসেবে, যেখানে কার্বক্সিলিক অ্যাসিড আর অ্যামিন গ্রুপদুটি একই (আলফা) কার্বনে যুক্ত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

উনিশ শতকের শুরুর দিকে কিছু অ্যামিনো অম্ল আবিষ্কৃত হয়। ১৮০৬ সালে ফরাসি রসায়নবিদ লুই নিকোলা ভাকলাঁ এবং পিয়ের-জঁ রবিকে প্রথম অ্যামিনো এসিড অ্যাসপারাজিন আবিষ্কার করেন শতমূলী থেকে।[২][৩]


২০টি অ্যামিনো অ্যাসিড প্রোটিন তৈরীতে ব্যবহৃত
অ্যালানিন (dp) | আর্জিনিন (dp) | অ্যাস্পারাজিন (dp) | অ্যাস্পার্টিক অ্যাসিড (dp) | সিস্টিন (dp) | গ্লুটামিক অ্যাসিড (dp) | গ্লুটামিন (dp) | গ্লাইসিন (dp) | হিস্টিডিন (dp) | আইসোলিউসিন (dp) | লিউসিন (dp) | লাইসিন (dp) | মিথায়োনিন (dp) | ফেনাইল অ্যালানিন (dp) | প্রোলিন (dp) | সেরিন (dp) | থ্রিয়োনিন (dp) | ট্রিপ্টোফ্যান (dp) | টাইরোসিন (dp) | ভ্যালিন (dp)
←Peptides Major families of biochemicals Nucleic acids→

সাধারণ গঠন

বিক্রিয়া[সম্পাদনা]

ব্যবহার[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Chang, Raymond (২০০৭)। Chemistry। ভারত: ম্যাকগ্র-হিল এজুকেশন। পৃষ্ঠা ১০৪৬। 
  2. Vauquelin LN, Robiquet PJ (১৮০৬)। "The discovery of a new plant principle in Asparagus sativus"। Annales de Chimie57: 88–93। 
  3. Anfinsen CB, Edsall JT, Richards FM (১৯৭২)। Advances in Protein Chemistry। New York: Academic Press। পৃষ্ঠা 99, 103। আইএসবিএন 978-0-12-034226-6