অ্যামিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
অ্যামিনের সাধারণ গঠন

অ্যামিনসমূহ হল জৈব যৌগ এবং এক ধরনের ফাংশনাল গ্রুপ যাদের কার্যকরী মূলক হল নাইট্রোজেন। গঠনগতভাবে অ্যামিনসমূহ অ্যামোনিয়া থেকে উদ্ভাবিত হয়, এক্ষেত্রে অ্যামোনিয়া এক বা একাধিক অণু অ্যালকাইল বা অ্যারাইল গ্রুপ দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়। এই নিয়মের একটি ব্যতিক্রম হল RC(O)NR2, যাকে অ্যামিন না বলে অ্যামিড বলা হয়ে থাকে। এদের গঠন ও বৈশিষ্ট্যের মধ্যে যথেষ্ট ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়। যে সকল অ্যামিনের N-H গ্রুপকে N-M গ্রুপ দ্বারা (M = metal বা ধাতু) প্রতিস্থাপিত করা হয় সেগুলোকেও অ্যমিড বলে। ফলে (CH3)2NLi হল লিথিয়াম ডিমেথিলামাইড।

অ্যালিফেটিক অ্যমিন[সম্পাদনা]

নিচের চিত্রাণুযায়ী, প্রাথমিক বা প্রাইমারি অ্যামিন তৈরি হয় যখন তিনটি হাইড্রোজেন অণুর একটি জৈব মূলক দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়। অনুরূপভাবে দুটি H প্রতিস্থাপিত হলে তাকে সেকেণ্ডারি অ্যামিন ও সবকটি হাইড্রোজেন অণু প্রতিস্থাপিত হলে তাকে টার্সিয়ারি অ্যামিন বলে। এই যৌগগুলোর নাইট্রোজেন কেন্দ্র আধানযুক্ত হয়, ফলে তাদের কোয়াণ্টানারি অ্যামোনিয়াম লবণ বলে।

প্রাইমারি অ্যামিন সেকেণ্ডারি অ্যামিন টার্সিয়ারি অ্যামিন
primary amine
secondary amine
tertiary amine

অনুরূপভাবে, একাধিক অ্যামিন গ্রুপ সম্পন্ন জৈব যৌগকে ডাইঅ্যামিন, ট্রাইঅ্যামিন, টেট্রাঅ্যামিন ইত্যাদি বলে।

অ্যারোমেটিক অ্যামিন[সম্পাদনা]

অ্যারোমেটিক অ্যামিনসমূহ অ্যানিলিনরূপে নাইট্রোজেন অণুর সাথে যুক্ত থাকে। অ্যামিন গ্রুপের উপস্থিতি অ্যারোমেটিক চক্রের কার্যকারিতা প্রচুর পরিমাণে বৃদ্ধি করে।

সাধারণ বৈশিষ্ট্যসমূহ[সম্পাদনা]

  1. প্রাইমারি ও সেকেণ্ডারি অ্যামিনের বৈশিষ্ট্যকে হাইড্রোজেন বন্ধন বিশেষভাবে প্রভাবিত করে। এর ফলে সমরূপী ফসফিন থেকে অ্যামিনের স্ফুটনাঙ্ক বেশি, সমরূপী অ্যালকোহল থেকে কম। অ্যালকোহল বা অ্যালকানল অ্যামিনের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ হলেও এতে NR2 এর বদলে একটি -OH গ্রুপ থাকে। যেহেতু অক্সিজেন, নাইট্রোজেন থেকে বেশিমাত্রায় তড়িতঋনাত্মক, তাই RO-H, R2N-H যৌগের থেকে বেশি অম্লীয়।
  2. গ্যাসীয় অ্যামিনসমূহের গন্ধ অ্যামোনিয়ার মত হয়, তরল অ্যামিনের গন্ধ মাছের মত আঁশটে হয়।
  3. অধিকাংশ অ্যালিফেটিক অ্যামিন পানিতে দ্রবণীয় হয়ে থাকে। এতে তাদের হাইড্রোজেন বন্ধন গঠনের প্রবণতা পরিলক্ষিত হয়। কার্বন অণূর সংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে বিশেষ করে এর সংখ্যা ৬ এর বেশি হলে দ্রাব্যতা কমে যায়।
  4. অ্যালিফেটিক অ্যামিনসমূহ জৈব যৌগে অধিকমাত্রায় দ্রবণীয়তা দেখায়।