রোবের্তো মার্তিনেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(রবের্তো মার্তিনেস থেকে পুনর্নির্দেশিত)
রোবের্তো মার্তিনেস
Roberto Martínez 2018 (cropped).jpg
২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের ম্যানেজার হিসেবে মার্তিনেস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম রোবের্তো মার্তিনেস মোন্তোলিউ
জন্ম (1973-07-13) ১৩ জুলাই ১৯৭৩ (বয়স ৪৮)
জন্ম স্থান বালাগে, স্পেন
উচ্চতা ১.৭৮ মিটার (৫ ফুট ১০ ইঞ্চি)
মাঠে অবস্থান মধ্যমাঠের খেলোয়াড়
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব
বেলজিয়াম (ম্যানেজার)
যুব পর্যায়
১৯৮২–১৯৯০ বালাগে
১৯৯০–১৯৯২ সারাগোসা
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
১৯৯১–১৯৯৩ সারাগোসা বি ৪৩ (৪)
১৯৯৩–১৯৯৪ সারাগোসা (০)
১৯৯৪–১৯৯৫ বালাগে ১৯ (২)
১৯৯৫–২০০১ উইগান অ্যাথলেটিক ১৮৭ (১৭)
২০০১–২০০২ মাদারওয়েল ১৬ (০)
২০০২–২০০৩ ওলসল (০)
২০০৩–২০০৬ সোয়ানসি সিটি ১২২ (৪)
২০০৬–২০০৭ চেস্টার সিটি ৩১ (৩)
মোট ৪২৫ (৩০)
পরিচালিত দল
২০০৭–২০০৯ সোয়ানসি সিটি
২০০৯–২০১৩ উইগান অ্যাথলেটিক
২০১৩–২০১৬ এভার্টন
২০১৬– বেলজিয়াম
* শুধুমাত্র ঘরোয়া লীগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে

রোবের্তো মার্তিনেস মোন্তোলিউ (স্পেনীয়: Roberto Martínez, স্পেনীয় উচ্চারণ: [roˈβeɾto maɾˈtineθ montoˈliw]; জন্ম: ১৩ জুলাই ১৯৭৩; রোবের্তো মার্তিনেস নামে সুপরিচিত) হলেন একজন স্পেনীয় সাবেক পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড় এবং ম্যানেজার। তিনি বর্তমানে বেলজিয়াম জাতীয় দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন। ভক্তদের কাছে এল জুদাস (অর্থ: ঈষ্করিয়োতীয় যিহূদা) ডাকনামে পরিচিত মার্তিনেস তার খেলোয়াড়ি জীবনের অধিকাংশ সময় উইগান অ্যাথলেটিক এবং সোয়ানসি সিটির হয়ে মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেছেন। তিনি মূলত রক্ষণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে খেললেও মাঝেমধ্যে কেন্দ্রীয় মধ্যমাঠের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেছেন।

১৯৮২–৮৩ মৌসুমে, স্পেনীয় ফুটবল ক্লাব বালাগের যুব পর্যায়ের হয়ে খেলার মাধ্যমে মার্তিনেস ফুটবল জগতে প্রবেশ করেছিলেন এবং পরবর্তীকালে সারাগোসার যুব দলের হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি ফুটবল খেলায় বিকশিত হয়েছিলেন। ১৯৯১–৯২ মৌসুমে, স্পেনীয় ক্লাব সারাগোসা বি-এর হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি তার জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ি জীবন শুরু করেছিলেন, যেখানে তিনি ২ মৌসুম অতিবাহিত করেছিলেন; সারাগোসা বি-এর হয়ে তিনি ৪৩ ম্যাচে ৪টি গোল করেছিলেন। অতঃপর সারাগোসা এবং বালাগের যথাক্রমে ১ মৌসুম করে অতিবাহিত করার পর তিনি ইংরেজ ক্লাব উইগান অ্যাথলেটিকে যোগদান করেছিলেন, উইগান অ্যাথলেটিকের হয়ে ৬ মৌসুমে ১৮৭ ম্যাচে ১৭টি গোল করেছেন। ২০০১–০২ মৌসুমে তিনি মাদারওয়েলে যোগদান করেছিলেন। অতঃপর ওলসলে মাত্র ১ মৌসুম অতিবাহিত করার পর সোয়ানসি সিটির সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন, যেখানে তিনি ১২২ ম্যাচে ৪টি গোল করেছিলেন। সর্বশেষ ২০০৬–০৭ মৌসুমে, তিনি চেস্টার সিটিতে যোগদান করেছিলেন; চেস্টার সিটির হয়ে মাত্র ১ মৌসুম খেলার পর তিনি অবসর গ্রহণ করেছিলেন।

খেলোয়াড়ি জীবনের ইতি টানার পর ২০০৭ সালে, মার্তিনেস ইংরেজ ফুটবল ক্লাব সোয়ানসি সিটির ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করার মাধ্যমে ম্যানেজার হিসেবে ফুটবল জগতে অভিষেক করেন। সোয়ানসি সিটির হয়ে ২ মৌসুম ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করার পর তিনি প্রিমিয়ার লীগের ক্লাব উইগান অ্যাথলেটিকে ম্যানেজার হিসেবে পুনরায় যোগদান করেন; উইগান অ্যাথলেটিকের হয়ে তিনি ১টি শিরোপা জয়লাভ করেছেন। ২০১৩–১৪ মৌসুমে, তিনি এভার্টনের ম্যানেজারের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ২০১৬ সালে বেলজিয়াম জাতীয় দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। তার অধীনে বেলজিয়াম ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান অর্জন করতে সক্ষম হয়েছিল।

ব্যক্তিগতভাবে, মার্তিনেস বেশ কিছু পুরস্কার জয়লাভ করেছেন, যার মধ্যে তানা ২ মৌসুম তৃতীয় বিভাগের পিএফএ বর্ষসেরা দলে স্থান পাওয়া অন্যতম। দলগতভাবে, খেলোয়াড় হিসেবে মার্তিনেস সর্বমোট ৪টি শিরোপা জয়লাভ করেছিলেন, যার মধ্যে ১টি রিয়াল সারাগোসার হয়ে, ২টি উইগান অ্যাথলেটিকের হয়ে এবং ১টি সোয়ানসি সিটির হয়ে জয়লাভ করেছিলেন। অন্যদিকে, ম্যানেজার হিসেবে, এপর্যন্ত ২টি শিরোপা জয়লাভ করেছেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

রোবের্তো মার্তিনেস মোন্তোলিউ ১৯৭৩ সালের ১৩ই জুলাই তারিখে স্পেনের বালাগেতে জন্মগ্রহণ করেছেন এবং সেখানেই তার শৈশব অতিবাহিত করেছেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

২০০২ সাল হতে, মার্তিনেস বেথ টমসনের সাথে একটি সম্পর্কে আবদ্ধ ছিলেন।[১] অতঃপর ২০০৯ সালের জুন মাসে, মার্তিনেস তার স্কটিশ বান্ধবী বেথ টমসনের সাথে সোয়ানসির সেন্ট জোসেফ'স গির্জায় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।[২] তাদের উভয়ের লুয়েয়া নামে একটি কন্যাসন্তান রয়েছে।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "El Gaffer: Swansea City manager Roberto Martinez"। Wales Online। ২২ নভেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০ মার্চ ২০১১ 
  2. "Roberto Martinez is married in Swansea"। Wales Online। ২৮ জুন ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০ মার্চ ২০১১ 
  3. "Five things we learned from the Merseyside derby"। BBC Sport। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]