বারিন্দ মেডিকেল কলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বারিন্দ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল
Barind Medical college & Hospital
বারিন্দ মেডিকেল কলেজ.png
বারিন্দ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল লিমিটেডের লোগো
ধরনবেসরকারি মেডিকেল কলেজ
স্থাপিত২০১১ (2011)
প্রাতিষ্ঠানিক অধিভুক্তি
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
অধ্যক্ষপ্রফেসর ডঃ বি কে দাম
শিক্ষায়তনিক ব্যক্তিবর্গ
৮২
প্রশাসনিক ব্যক্তিবর্গ
২৮৩
শিক্ষার্থী৮৭ জন বিদেশীসহ ৪৪৪ জন(২০১৯ সাল পর্যন্ত)
স্নাতকএমবিবিএস
অবস্থান,
বাংলাদেশ
,
শিক্ষাঙ্গনশহুরে, ৩.২ একর (১,৪৮,০২০ বর্গ ফুট)
সংক্ষিপ্ত নামবামেক/বিএমসি
ওয়েবসাইটbmc.edu.bd
বারিন্দ মেডিকেল কলেজ; একাডেমিক ভবন-১

বারিন্দ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল (ইংরেজি: Barind Medical college & Hospital) রাজশাহীতে অবস্থিত[১][২] একটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ।[৩] এ মেডিকেল কলেজ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত একটি প্রতিষ্ঠান। মেডিকেল কলেজটি ২০১১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে ১৯টি অনুষদের অধীনে ৫ বছর মেয়াদী স্নাতক পর্যায়ে এমবিবিএস ডিগ্রী প্রদান করা হয়।[৪] কলেজটি সময় বিবেচনায় নতুন হলেও গুনগত শিক্ষামান এবং উন্নত নিয়ম-শৃঙ্খলার জন্য বাংলাদেশ সহ বাইরের দেশেও অনেক সুনাম অর্জন করেছে। এখানে প্রতি বছর অনেক বিদেশী ছাত্র-ছাত্রী পড়ালেখা করতে আসে ।

অবস্থান[সম্পাদনা]

রাজশাহী শহরের অভিজাত এলাকা পদ্মা আবাসিক এ প্রায় ৩.২ একর জায়গা নিয়ে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালটির নিজস্ব ভবন অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

রাজশাহী অঞ্চলের প্রাচীন নাম বরেন্দ্র শব্দ থেকে এই কলেজের নামকরণ করা হয়েছে। ২০১১ সালে রাজশাহী শহরের অভিজাত এলাকায় এই কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়।

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

৩.২ একর জায়গা জুড়ে মেডিকেল কলেজটি অবস্থিত। এখানে হাসপাতাল ভবন, ছাত্রাবাস, একাডেমিক ভবন ইত্যাদি আছে।

ভর্তি[সম্পাদনা]

বাংলাদেশে সমস্ত মেডিকেল কলেজের সাথে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে এখানে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়।

ছাত্র-ছাত্রী[সম্পাদনা]

বারিন্দ মেডিকেল কলেজে বর্তমানে প্রায় ৩৪৮ জন ছাত্র-ছাত্রী পড়াশোনা করছে, এর মধ্যে প্রায় ৪৪ জন বিদেশি নাগরিক। ভারত,নেপাল,কাশ্মীরসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে তারা বারিন্দ মেডিকেল কলেজে পড়তে এসেছে।

পরিবহন ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

বারিন্দ মেডিকেল কলেজে ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবহনের জন্য বাস ব্যবহার করে। জরুরী অবস্থায় রোগী নিয়ে যাওয়ার জনু নিজস্ব এম্বুলেন্সও আছে।

দেয়ালিকা এবং ম্যাগাজিন[সম্পাদনা]

বারিন্দ মেডিকেল কলেজ থেকে ২০১৫ সালের মার্চ মাসে প্রথম "কিশলয়" নামের একটি দেয়াল পত্রিকা বের করা হয়। এরপর থেকে কলেজে এই ধারা অপরিবর্তিত আছে। এছাড়া বারিন্দ মেডিকেল কলেজ জার্নাল নামেও একটি ষণ্মাসিক ম্যাগাজিন কলেজ প্রশাসন প্রকাশ করেন। কলেজের ছাত্র-ছাত্রী এবং শিক্ষকগণ উক্ত দেয়ালিকা এবং ম্যাগাজিনে লেখালেখি করেন।

পরিচালনা কমিটি[সম্পাদনা]

বারিন্দ মেডিকেল কলেজ ১৬ সদস্যের একটি পরিচালনা কমিটির মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে আসছে। এর সদস্যগণ হলেনঃ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক
  1. মো: শামসুদ্দীন
পরিচালক
  1. প্রফেসর ডা: মো: রফিকুল আলম
  2. প্রফেসর ডা: এ বি সিদ্দিকী
  3. প্রফেসর ডা: গোপাল চন্দ্র সরকার
  4. প্রফেসর ডা: সুজিত কুমার ভদ্র
  5. প্রফেসর ডা: মেরিনা খানম
  6. প্রফেসর ডা: ফখরুল আলম
  7. ডা: অভিজিৎ দাম
  8. ডা: শাহনেওয়াজ আয়ুষ
  9. শাইখ মোহাম্মদ ইলিয়াস
  10. শামীমা আক্তার
  11. মোহাম্মাদ সিরাজুল হক
  12. নাইমুল বাশার চৌধুরী
  13. মাহবুবুস সাকেলিন
  14. শাহিদা আক্তার

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ঢাকার হোটেল থেকে বারিন্দ মেডিকেলের পরিচালকের লাশ উদ্ধার"bangla.bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-০৮ 
  2. "রাজধানীতে বারিন্দ মেডিকেল কলেজ পরিচালকের মৃত্যু"NTV Online। ২০২০-০১-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-০৮ 
  3. "Barind Medical College"Ministry of Health and Family Welfare (MoHFW)। ২০১৫-০২-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-১১-০৩ 
  4. "Barind Medical College"। বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]