বাংলাদেশ–হাইতি সম্পর্ক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাংলাদেশ–হাইতি সম্পর্ক
মানচিত্র বাংলাদেশ এবং হাইতির অবস্থান নির্দেশ করছে

বাংলাদেশ

হাইতি

বাংলাদেশ–হাইতি সম্পর্ক হল বাংলাদেশহাইতি রাষ্ট্রদ্বয়ের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক। হাইতিতে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের অবদান এ দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্ককে ব্যাপক প্রভাবিত করেছে। সেইসাথে বাংলাদেশি এনজিও এবং অন্যান্য সংস্থাও হাইতির সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে তাদের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে চলেছে। সাম্প্রতিক সময়ে দুই দেশের মধ্যে খেলাসহ কিছু খাতে সাংস্কৃতিক বিনিময়ও সংঘটিত হয়েছে।

বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের অবদান[সম্পাদনা]

হাইতির শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা সর্বদাই সক্রিয়।[১] ২০০৪ সালে প্রথমবারের মত ইউনাইটেড ন্যাশনস স্ট্যাবিলাইজেশন মিশন ইন হাইতির অংশ হিসেবে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা হাইতিতে তাদের কর্মকাণ্ড পরিচালনা শুরু করে। ২০১০ সালে হাইতি প্রথম দেশ হিসেবে বাংলাদেশ থেকে সকল নারী পুলিশ কনটিংমেন্ট লাভ করে।[২] ২০১২ সালে বাংলাদেশি পুলিশ ইউনিটের কর্মকর্তারা হাইতির শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে তাদের অবদানের জন্য জাতিসংঘ মেডেল লাভ করে।[৩]

সামাজিক উন্নয়নে সহযোগিতা[সম্পাদনা]

হাইতিতে কিছু বাংলাদেশ-ভিত্তিক এনজিও কাজ করে চলেছে। এর মধ্যে সবচেয় পরিচিত হল ব্র্যাক যা কিনা ক্ষুদ্রঋণ, কৃষিজ উন্নয়ন, নারী এবং কর্মসংস্থান প্রভৃতি বিষয়ে কাজ করে চলেছে।[৪]

বাংলাদেশ ভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ডায়রিয়া ডিজিজ রিসার্চ এর অভিজ্ঞদেরকে হাইতিতে পাঠাচ্ছে, সেখানে মহামারি আকারে কলেরা ছড়িয়ে যাবার কারণ ও তা হতে মুক্তির উপায় খুঁজতে।[৫][৬]

মানবিক সাহায্য[সম্পাদনা]

২০১০ সালে ভূমিকম্পের পর বাংলাদেশ সরকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে একটি মেডিকেল টীমকে হাইতি পাঠায়।[৭] এ দলে মোট ২০ জন চিকিৎসক এবং ১০ জন স্বাস্থ্য প্রশিক্ষক ছিলেন।[৮]

সাংস্কৃতিক বিনিময়[সম্পাদনা]

হাইরিয়ান ফুটবল খেলোয়াড় সোনি নর্দে এবং প্যাস্কেল মিলিয়েন বাংলাদেশি ফুটবল ক্লাবের জন্য খেলেছে।[৯][১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Q&A with peacekeeper Sahely Ferdous, Superintendent in the Bangladesh Formed Police Unit, Haiti"। UN Women। ২৯ মে ২০১২। ২১ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  2. "Bangladesh to send female peacekeeper unit to Haiti"গুগল নিউজ। Agence France-Presse। ১৮ মে ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০১৪ 
  3. "Bangladeshi peacekeepers get UN medal in Haiti"New Age। Dhaka। ১৬ মে ২০১২। ১৭ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  4. "Haiti Girls Join BRAC's Club for Adolescents"PRWeb। ৮ আগস্ট ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  5. "Choléra : Arrivée de la mission d'experts choisis par Ban Ki Moun" [Cholera: Arrival of the mission of experts appointed by Ban Ki Moun] (ফরাসি ভাষায়)। Haiti En Marche। ১৮ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  6. "Le banquier des pauvres en visite en Haiti" [The banker to the poor visiting Haiti] (ফরাসি ভাষায়)। Haiti En Marche। ১৮ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  7. "Bangladesh to send medical team to Haiti_English_Xinhua"Xinhua News Agency। ১৪ জানুয়ারি ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  8. Unb, Dhaka (১৭ জানুয়ারি ২০১০)। "Bangladesh to send medical team tomorrow"The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  9. "Sony Norde sends Sheikh Jamal into semis"ডেইলি সান। ৩০ নভেম্বর ২০১৩। ৮ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৪ 
  10. "Traveller Millien here"দ্য ডেইলি স্টার। ১৭ জানুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১৫ 

টেমপ্লেট:হাইতির বৈদেশিক সম্পর্ক