বাংলাদেশ–মালদ্বীপ সম্পর্ক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাংলাদেশ–মালদ্বীপ সম্পর্ক

বাংলাদেশ

মালদ্বীপ

বাংলাদেশ–মালদ্বীপ সম্পর্ক বলতে বাংলাদেশ এবং মালদ্বীপর মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে বোঝায়।[১] রিয়ার অ্যাডমিরাল আখতার হাবিব মালদ্বীপের বাংলাদেশ দূতাবাস।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মালদ্বীপ এবং বাংলাদেশ তাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে ২২ শে সেপ্টেম্বর ১৯৭৮ সালে। ২০০৮ সালে মালদ্বীপ বাংলাদেশে দূতাবাস চালু করে।[৩] ২০১১ সালে মালদ্বীপ সরকার দেশের সব বাংলাদেশি রপ্তানির উপর দায়িত্ব ছেড়ে দেয়।[৪] ২০১১ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী মালদ্বীপের ন্যাশনাল ডিফেন্স ফোর্স কে 7 টি সামরিক ট্রাক দিয়েছে।[৫] পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বাজেট ৪০ শতাংশ কমে যাওয়ার কারনে মালদ্বীপ ২০১৪ সালের মার্চ মাসে বাংলাদেশে তার দূতাবাস বন্ধ করে দেয়। বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রাঙ্গণে অন্যান্য স্থানীয় খরচের জন্য ভাড়া দিতে প্রস্তাব দেয় কিন্তু মালদ্বীপ "বিনীতভাবে" তা প্রত্যাখ্যান করে।[৩] ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে মালদ্বীপের একমাত্র জল দেলেলিনেট প্ল্যানটিতে অগ্নিকাণ্ডের পর কাজ বন্ধ হয়ে গেলে বাংলাদেশ থেকে ১০০ হাজার লিটার পানি পাঠানো হয়।[৬] মালদ্বীপ জুলাই ২০১৫ সালে ঢাকায় পুনরায় দূতাবাস উদ্বোধনের ইচ্ছা পোষণ করে।[৭]

অর্থনৈতিক সম্পর্ক[সম্পাদনা]

মালদ্বীপের একটি উল্লেখযোগ্য বাংলাদেশী অভিবাসী শ্রমিক জনসংখ্যা রয়েছে এবং বাংলাদেশ শ্রমিকদের স্থানান্তরের জন্য দেশটি উৎসাহিত করেছে।[৮][৯] মালদ্বীপে বাংলাদেশের একটি দূতাবাস রয়েছে।[১০] মালদ্বীপের সরকার ২০০৯ সালে ১৬ হাজারেরও বেশি বাংলাদেশি নাগরিকদের অভিবাসন অবস্থা নিয়মিত করেছে।[১১] ২০১১ সালে মালদ্বীপে বাংলাদেশ রপ্তানি করেছে .৭২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং আমদানি করেছে ১.৪৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।[৪] অফিসিয়াল হিসেব মতে মালদ্বীপে ৭০ থেকে ৮০ হাজার বাংলাদেশি আছে। ৩০ মার্চ ২০১৫ তারিখে বাংলাদেশী প্রবাসীরা বাংলাদেশ দূতাবাসের বাইরে দুই বাংলাদেশী প্রবাসীর মৃত্যুর প্রতিবাদ জানায়। মালদ্বীপ সরকার সতর্ক করে দেয় যে বিক্ষোভকারীরা তাদের ভিসা হারানোর ঝুঁকি নিচ্ছে। মালদ্বীপের মানবাধিকার কমিশনের সহ-সভাপতি আহমেদ তোলাল সরকারকে অসাংবিধানিক পদক্ষেপের কথা বলেন।[১২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Enduring links with Maldives"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ জুন ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  2. "Akhtar Habib new ambassador to Maldives"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২৯ মার্চ ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  3. "Maldives closes Dhaka mission today"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ১ এপ্রিল ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  4. "Maldives eyes direct shipping link with Bangladesh"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ১৫ জুলাই ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  5. "Bangladesh Army chief meets Maldives President"www.banglanews24.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  6. "Bangladesh sends water to aid Maldives' crisis"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ৭ ডিসেম্বর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  7. "Maldives to reopen Dhaka mission"bdnews24.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  8. "Bangladesh seeks stronger trade ties with Maldives"maldivesindependent.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  9. "Maldives keen to recruit more workers from Bangladesh"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২ আগস্ট ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  10. "Newly appointed Bangladesh high commissioner to Maldives makes a courtesy call on President" (ইংরেজি ভাষায়)। BSS। ২০১৫-০৭-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  11. "16,100 Bangladeshi workers in Maldives to be regularised"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ১ নভেম্বর ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 
  12. "Bangladeshi expats to protest 2 compatriots' death in Maldives"thedailystar.net (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০১৭ 

টেমপ্লেট:মালদ্বীপের বৈদেশিক সম্পর্ক