আইভরি কোস্ট–বাংলাদেশ সম্পর্ক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আইভরি কোস্ট–বাংলাদেশ সম্পর্ক
মানচিত্র Ivory Coast এবং Bangladesh অবস্থান নির্দেশ করছে

কোত দিভোয়ার

বাংলাদেশ

আইভরি কোস্ট–বাংলাদেশ সম্পর্ক হল আইভরি কোস্ট এবং বাংলাদেশ রাষ্ট্রদ্বয়ের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক

উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সফর[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের প্রাক্তন পররাষ্ট্র সচিব মোহাম্মদ মিজারুল কায়েস ২০১০ সালে আবিজানে আনুষ্ঠানিক সফর করেন।[১]

শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের অবদান[সম্পাদনা]

২০০৪ সাল থেকে আইভরি কোস্টে শান্তিরক্ষা মিশনে কাজ করে চলেছে এবং এ মিশনে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ অবদান রেখেছে বাংলাদেশ।[২] বাংলাদেশি শান্তিরক্ষা বাহিনী নিরাপত্তা এবং স্বাস্থ্যখাতে সহায়তা দিয়ে আসছে। ২০০৮ সালে এবং ২০১৩ সালে এই শান্তিরক্ষা বাহিনী জাতিসংঘ মেডেল লাভ করে।[৩][৪] ২০১০ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মেজর জেনারেল আবদুল হাফিজ আইভরি কোস্টে ইউএন মিশনের ফোর্স কমান্ডার হিসেবে নিয়োজিত হন।[৫] বাংলাদেশ বিমানবাহিনীও এ মিশনে কর্মী পাঠিয়েছে। ২০০৪ সাল পর্যন্ত প্রায় ১০৪ জন সেনা এবং তিনটি বেল-২১২ হেলিকপ্টার আইভরি কোস্টে কাজ করে চলেছে।[৬]

কৃষিখাতে সহযোগিতা[সম্পাদনা]

খাদ্য নিরাপত্তা কর্মসূচীতে বাংলাদেশি ব্যবসায়ী কর্তৃক অব্যবহৃত জমি ইজারার মাধ্যমে ব্যবহার করতে পারার সুযোগ আছে এমন পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলোর মধ্যে আইভরি কোস্ট প্রথম স্থানে রয়েছে।[১] আইভরি কোস্ট বাংলাদেশ কৃষিখাতে যে সকল প্রযুক্তি ব্যবহার করছে তা প্রয়োগের ব্যাপারেও আগ্রহ প্রকাশ করেছে।[১][৭]

অর্থনৈতিক সহযোগিতা[সম্পাদনা]

আইভরি কোস্টে ফল প্রক্রিয়াকরণ শিল্প স্থাপনে বাংলাদেশি বিনিয়োগকারীরা আগ্রহ প্রকাশ করেছে।[১] আইভরি কোস্টে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক এবং ঔষধের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Bangladesh eyes trade, farming in west Africa"। দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৪বাংলাদেশ পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলোতে কৃষি উৎপাদনের নতুন ক্ষেত্রসৃষ্টির পরিকল্পনা করছে, যে অঞ্চলে বৃহৎ উর্বর জমি রয়েছে এবং প্রায় সম্পূর্ণই আমদানিনির্ভর। পররাষ্ট্রসচিব মিজারুল কায়েস, যিনি ২৪ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর ঘানা, আইভরি কোস্ট, লাইবেরিয়া ও সেনেগাল — পশ্চিম আফ্রিকার এ চারটি রাষ্ট্রে সফররত পাঁচ-সদস্যবিশিষ্ট দলের প্রধান, মিডিয়া ব্রিফিংয়ে জানান যে এই দেশগুলোর কৃষিবিদ ও কৃষকদের সাথে ব্যবসায়ীদের কাজ চলতে পারে, এখানে কম দামে জমি ইজারা নিয়ে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতি বছর ধান উৎপাদন করা যেতে পারে, যেমনটা বাংলাদেশে হচ্ছে। 
  2. "Road accident kills six Bangladeshi peacekeepers in Ivory Coast"। বিডিনিউজ২৪.কম। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৫ 
  3. ":: ONUCI -Opération des Nations Unies en Côte d'Ivoire ::"। onuci.org। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৪ 
  4. "Bangladeshi peacekeepers get UN medal"। দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৪ 
  5. "Gen Hafiz made force commander"। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৫ 
  6. "Air Force to send fresh peacekeepers to Ivory Coast"। দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৫ 
  7. "The Daily Star Web Edition Vol. 5 Num 1120"। দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৪আইভরি কোস্টের ১৭৫ জন এমপির মধ্যকার একজন এমপি এবং ব্যবসায়ী জাম্বি বিতা বলেন, যে তিনি বাংলাদেশে সাথে ব্যবসায়ীক সম্পর্ক স্থাপনে খুবই আগ্রহী। "আমি বাংলাদেশ থেকে ঔষধ ও পোশাক আমদানি করতে ইচ্ছুক। বর্তমানে আমাদের ঔষধের বাজার চীনা ঔষধ দ্বারাই নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। আমরা জানি যে বাংলাদেশের ঔষধ এবং পোশাক ভালো এবং দামও সাধ্যের মধ্যেই।"...বিতা আরো বলেন যে তিনি শুনেছেন যে বাংলাদেশের কৃষিপ্রযুক্তি আধুনিক এবং তিনি তার দেশের সাথে এই প্রযুক্তির পরিচয় ঘটিয়ে দিতে আগ্রহী। 

টেমপ্লেট:আইভরি কোস্টের বৈদেশিক সম্পর্ক