জুহি চাওলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জুহি চাওলা
Juhi Chawla LFW-2017.jpg
লেকমে ফেশন উইক ২০১৭ তে চাওলা
জন্ম (1967-11-13) ১৩ নভেম্বর ১৯৬৭ (বয়স ৫১)
জাতীয়তাভারতীয়
পেশা
  • অভিনেত্রী
  • প্রযোজক
  • মডেল
  • গায়ক
কার্যকাল১৯৮৪–বর্তমান
উচ্চতা৫ ফিট ৪ ইঞ্চি
দাম্পত্য সঙ্গীজেয় মেহতা (পুঃ. ১৯৯৫)
সন্তান
আত্মীয়কাইরা আদভানি (ভাগ্নী)

জুহি চাওলা (জন্ম ১৩ই নভেম্বর ১৯৬৭) একজন ভারতীয় অভিনেত্রী, মডেল, চলচ্চিত্র প্রযোজক এবং ১৯৮৪ সালের মিস ইন্ডিয়া সৌন্দর্যের বিজয়ী। তিনি দুটি ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড সহ বিভিন্ন পুরষ্কার পেয়েছেন। বাংলা , পাঞ্জাবী , মালয়ালাম , তামিল , কন্নড় এবং তেলেগু ভাষার ছায়াছবি ছাড়াও চওলা প্রধানত হিন্দি ভাষা চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। তিনি হিন্দি চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী, [১] [২] এবং তার কমেডিক টাইমিং এবং চিত্তাকর্ষক অন-স্ক্রীন ব্যক্তিত্বের জন্য তিনি বিশেষভাবে প্রশংসা লাভ করেছেন। [৩] [৪]

সুলতানাত (১৯৮৬) চলচ্চিত্রের মাধ্যমে প্রথম অভিষেক করেন চাওলা এবং অত্যন্ত ব্যবসা সফল ট্র্যাজিক রোম্যান্স চলচিত্র কায়ামত সে কায়মাত তাক (১৯৮৮) এর মাধ্যমে তিনি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন, এই চলচিত্রে জন্য তিনি বছরের সেরা লাক্স নিউ ফেসের জন্য ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন। অত্যন্ত জনপ্রিয় পারিবারিক ড্রামার চলচিত্র যেমন স্বরগ (১৯৯০), থ্রিলার ধরনের প্রাতিবাদ (১৯৯০), রোমান্টিক চলচিত্র বোল রাধা বোল (১৯৯২) এবং রোমান্টিক কমেডি রাজু বান গেয়া জেন্টলম্যান (১৯৯২) প্রভৃতির মাধ্যমে তিনি হিন্দি চলচ্চিত্রের শীর্ষস্থানীয় অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেন। এরপর তিনি ধারাবাহিকভাবে শীর্ষস্থানীয় চলচ্চিত্রগুলিতে অভিনয় করেন, যেমন অ্যাকশন থ্রিলার লুটেরে (১৯৯৩) তে মদের বারের নর্তকী হিসাবে, নিজের প্রেম বিসর্জনকারি নারী হিসাবে আশিনা (১৯৯৩) চলচ্চিত্রে, একজন দক্ষিণ ভারতীয় হিসাবে রোমান্টিক কমেডি হাম হেয় রহি পেয়ার কে (১৯৯৩), যার জন্য তিনি ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পুরস্কার পেয়েছিলেন এবং রোমান্টিক থ্রিলার চলচ্চিত্র ডর (১৯৯৩) তে একজন ক্ষতিগ্রস্থ নারী হিসাবে। এছাড়াও তিনি বক্স অফিসের সফলতা অর্জনকারী চলচ্চিত্র যেমন সাজান কে ঘার (১৯৯৪), নাওজায়াজ (১৯৯৫), রাম জানে (১৯৯৫), লোফার (১৯৯৬), মি। এবং মিসেস খিলাড়ী (১৯৯৭), দেওয়ানা মাস্তানা (১৯৯৭), ইয়েস বস (১৯৯৭), ইশক (১৯৯৭) এবং অর্জুন পন্ডিত (১৯৯৯) এর মত চলচ্চিত্রে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করেছেন।। ২১ শতকে, চাওলা আর্ট হাউস প্রকল্পগুলিতে স্বাধীন চলচ্চিত্র নির্মাতাদের সাথে কাজ শুরু করেন, ঝঙ্কার বিটস (২০০৩), ৩ দিওয়ারিন (২০০৩), মাই ব্রাদার নিখিল (২০০৫), বাস এক পাল (২০০৬), আই এম (২০১১), গুলাব গ্যাং (২০১৪) এবং চক এন ডাস্টার (২০১৬) ইত্যাদি কাজের জন্য সমালোচদের কাছ থেকে উচ্চ প্রশংসাধ্বনি অর্জন করেন। [৫]

চলচ্চিত্রে অভিনয় ছাড়াও, চাওলা নৃত্যে রিয়েলিটি শো ঝালক দিখালা যাক এর তৃতীয় পর্বের একজন প্রতিভাবান বিচারক হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি বিভিন্ন ধরণের স্ট্রেজ শো এবং কনসার্ট ট্যুরে অংশগ্রহণ করেছেন, এবং বিভিন্ন দাতব্য ক্রিয়াকলাপের সাথে জড়িত রয়েছেন। চাওলা ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ ক্রিকেট দলের কোলকাতা নাইট রাইডার্সের সহ-মালিক। ১৯৯৫ সালে তিনি শিল্পপতি জে মেহতাকে বিয়ে করেন এবং তাঁর দুটি সন্তান রয়েছে।


প্রাথমিক জীবন এবং পটভূমি[সম্পাদনা]

জুহি চাওলা জন্মগ্রহণ করেন ও বেড়ে উঠেন ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের, আম্বালাতে। তার বাবা ছিলেন ভারতীয় রাজস্ব পরিসেবা (আইআরএস) এর একজন কর্মকর্তা। [৬] তিনি মুম্বাইয়ের ফোর্ট কনভেন্ট স্কুল থেকে পড়াশোনা সম্পন্ন করেন, [৭] এবং মুম্বাইয়ের সিদানহ্যাম কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করেন। [৮] তিনি ১৯৮৪ সালের মিস ইন্ডিয়া শিরোপা বিজয়ী ছিলেন। [৯] তিনি ১৯৮৪ সালে মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ কস্টিউম পুরস্কার জিতেছিলেন। [১০] তিনি একজন সুদক্ষ নৃত্যশিল্পী। টক শো বাজে পায়েল -এ একটি সাক্ষাত্কারে তিনি উল্ল্যেখ করেছিলেন তিন বছর কত্থক শেখার কথা এবং আক্ষেপ প্রকাশ করেছিলেন এটি শেখা ছেড়ে দেয়াটা যা একজন অভিনেত্রী হিসেবে তার কর্মজীবনের সাহায্য করতে পারত। তিনি একটি সফল শাস্ত্রীয় গায়ক এবং গত ছয় বছর ধরে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন।

ফিল্ম ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

১৯৯৬-১৯৮৮: ব্রেকথ্রু এবং সাফল্য[সম্পাদনা]

চাওলা ১৯৮৬ সালে সুলতানাত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন কিন্তু এটি বাণিজ্যিকভাবে ব্যর্থ ছবি হয়েছিল। এরপর তিনি ১৯৮৭ সালে কাজ করেন কান্নাডা ভাষার ক্লাসিক চলচ্চিত্র প্রমালোকাতে, যার পরিচালক ছিলেন রবিচন্দ্রন। মুক্তির পর এই চলচ্চিত্রটি ব্লকবাস্টার হয়ে উঠে এবং সমালোচক ও ভক্তাদের কাছে চাওলার অভিনয় দক্ষতা ব্যাপক ভাবে সাড়া ফেলে। তিনি দুটি ছবিতে মেগাস্টার প্রসেনজিত চ্যাটার্জির বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন। ১৯৮৮ সালে মুক্তি পাওয়া কেয়ামত সে কেয়ামত তাক' ছিল বলিউডের তার কাজ করা প্রথম বড় ধরণের কাজে, যেখানে তিনি আমির খানের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন। চলচ্চিত্রটি ছিল উইলিয়াম শেকসপিয়ারের রোমিও এন্ড জুলিয়েটের আধুনিক সংকরণ, যা ছিল একই সাথে সমালোচকদের কাছে এবং বাণিজ্যিকভাবে সাফল্য অর্জন করে। একজন চলচ্চিত্র সমালোচক লিখেছিলেন: "জুহি চাওলা ইতিমধ্যেই দেখিয়েছেন যে তিনি এখানে সফল হতে এসেছেন। তিনি শুধুমাত্র স্বাভাবিকভাবেই প্রাণবন্ত তাই নন একই সাথে তিনি বিস্ময়কর নিগূঢ়ভাবে "রেশমির" সরলতা, বাচ্চাদের পছন্দ করা এবং মানষিক দৃঢ়তা প্রদর্শন করেছেন চলচ্চিত্রটিতে। এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই যে এর ফলশ্রুতিতে, অন-স্ক্রিনে আমির ও জুহির রসায়ন সবার কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।" আরেকজন সমালোচক লিখেছিলেন, "যদিও অধিকাংশ লোক আমিরকে ক্রেডিট করে তবে এই চলচ্চিত্রটি জুহির কারণে আরও বেশি জনপ্রিয় ক্ল্যাসিক চলচ্চিত্র। জুহির চারুত্ব ও কারিশমা তাকে ভারতীয়দের কাছে ঠিক যেন "পাশের বাড়ির মেয়ে" এই ইমেজ হিসাবে তৈরি করেছে; তার অতি সাধারণ কিন্তু সুরুচিপূর্ণ স্যালোয়ার সুট কিংবা তার নির্দোষ হাসি যে কোন মানুষকে পাগল করে তলে। " এই চলচ্চিত্রটি ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ মুভি অ্যাওয়ার্ড জিতেছিল, এবং এই চলচ্চিত্রের জন্য চাওলা ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাক্স শ্রেষ্ঠ নবাগত অভিনেত্রী পুরষ্কার জিতেছিলেন এবং ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পুরস্কারের জন্য তার প্রথম মনোনীত হয়েছিলেন । [১১] চলচ্চিত্রটি তখন থেকে একটি বিশ্বাসের স্থান অর্জন করেছে, বিনোদন পোর্টাল বলিউড হাঙ্গামা মন্তব্য করেছে ভারতীয় চলচ্চিত্রের জন্য এটি ছিল একটি " নতুন পথসৃষ্টিকারী ও নতুন মোড় সৃষ্টিকারী চলচ্চিত্র"। [১২] [১৩]

১৯৮৯-১৯৯৯: তারকাখ্যাতি[সম্পাদনা]

১৯৯০ সালে, তিনি প্রতিবাদ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন, যা বক্স অফিস সফল চলচ্চিত্র ছিল এবং সমালোচকরা তার অভিনয়ের উচ্ছসিত প্রশংসা করে বলেছিলেন: "চলচ্চিত্রটিতে জুহি চওলার বেশিরভাগ অংশের অভিনয় কেবল তার দুর্দান্ত অভিনয়ের জন্যই নজরকারে সবার। তিনি শান্তি চরিত্রটি সুনিপুনভাবে ফুতিয়ে তুলেছেন, যিনি একজন খেলনা বিক্রেতা, হুট করে নিজেকে একটি হত্যার অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন। " তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য ফিল্মফেয়ার শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পুরস্কার এর তার দ্বিতীয় মনোনয়ন পান । একই বছর পারিবারিক ড্রামার চিত্রনাট্যে নিয়ে সাজানো তার দ্বিতীয় চলচ্চিত্র "সোহাগ" মুক্তি পায়, যেখানে তার সাথে ছিলেন রাজেশ খান্নাগোবিন্দ (অভিনেতা) , যা ছিল ডেভিড ধাওয়ানগোবিন্দের তার করা বহু কাজের প্রারাম্ভ। চলচ্চিত্রটি ছিল ওই বছরের সর্বোচ্চ আয়কারী ছবি। [১৪]

১৯৯২ সালে, তিনি ঋষি কাপুরের সাথে সুপারহিট চলচ্চিত্র বল রাধা বল চলচ্চিত্রে হাজির হন, যার জন্য তিনি তৃতীয়বারের মত ফিল্মফেয়ার সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পান। [১৫] [১৬] একজন সমালোচক লিখেছিলেন [স্পষ্টকরণ প্রয়োজন] "একজন যতটুকু কল্পনা করতে পারে জুহির ততটুক নিখুঁত ছিল। দক্ষতা সহ একটি সাধারণ গ্রাম্য মেয়ে হিসাবে তাকে দেখতে অত্যন্ত কমনীয় ছিল এবং এমন কি চলচ্চিত্রটির দ্বিতীয় অংশে তার চরিত্রের আবেদনময়ী অংশ ফুটিয়ে তোলা হলেও তার সুন্দর নির্দোষ কোমনীয়তা হারিয়ে যায় নি।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Taliculam, Sharmila (১৯ জানুয়ারি ২০০০)। "'There have been many ups and downs'"Rediff.com। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০০৯ 
  2. "Not The End"The Tribune। ১০ মে ২০০১। সংগ্রহের তারিখ ১০ আগস্ট ২০০৯ 
  3. Verma, Sukanya (১১ মার্চ ২০০৪)। "The real stars of Bollywood"। Rediff.com। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০০৯ 
  4. Doval, Nikita (২১ মার্চ ২০০৫)। "Juhi II"The Times of India। India। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০০৯ 
  5. Verma, Sukanya (১৯ মার্চ ২০০৮)। "Readers pick: Bollywood's most under-rated"। Rediff.com। সংগ্রহের তারিখ ২১ এপ্রিল ২০০৯ 
  6. "Shah Rukh is still very simple at heart: Juhi Chawla"। The Times of India। ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৪ 
  7. "Never thought Juhi would take to acting"The Times of India। ১৩ জানু ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৩-২৫ 
  8. "Biography for Juhi Chawla"imdb.com। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০০৭ 
  9. জুহি চাওলা - 1990-1981 ফিমিনি! প্রতিযোগী - ইন্ডিয়া টাইমস । Feminamissindia.indiatimes.com (2011-04-28)। 2013-12-23 এ পুনরুদ্ধার।
  10. "Miss Universe and Juhi Chawla"geocities.com। ৩০ মার্চ ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০০৭ 
  11. "Filmfare Awards Listing" (PDF) 
  12. 25 Must See Bollywood Movies ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৫ সেপ্টেম্বর ২০০৮ তারিখে. Indiatimes.com
  13. Derné, Steve (১৯৯৫)। Culture in Action: Family Life, Emotion, and Male Dominance in Banaras, India। SUNY Press। পৃষ্ঠা 97। আইএসবিএন 0-7914-2425-1 
  14. শীর্ষ লাইফটাইম গ্রোসার 1990-1999 । Boxofficeindia.com। 2012-03-28 তারিখে পুনরুদ্ধার।
  15. "Filmfare Nominations 1992"The Times Of India। ১৬ জুলাই ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  16. "Filmfare nominations 1997"। ১৭ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 

বাহ্যিক লিঙ্ক[সম্পাদনা]

পুরস্কার
পূর্বসূরী   দ্বারা



</br> রেখা হ্যান্ডে
মিস ভারত



</br> 1984
অনুসৃত   দ্বারা



</br> সোনা ওয়ালিয়া