সোনালী বেন্দ্রে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সোনালী বেন্দ্রে
सोनाली बेंद्रे
সোনালী বেন্দ্রে
২০১৮ সালে বেন্দ্রে
জন্ম
সোনালী বেন্দ্রে

(1975-01-01) জানুয়ারি ১, ১৯৭৫ (বয়স ৪৫)
জাতীয়তাভারতীয়
নাগরিকত্বভারত
যেখানের শিক্ষার্থীকেন্দ্রীয় বিদ্যালয়, হলি ক্রস কনভেন্ট উচ্চ বিদ্যালয়
পেশা
কার্যকাল১৯৯৪–২০০৪, ২০০৯–বর্তমান
আদি নিবাসমুম্বই
দাম্পত্য সঙ্গীগোল্ডি বেহল (বি. ২০০২)
সন্তানরণবীর (জ. ২০০২)

সোনালী বেন্দ্রে (মারাঠি: सोनाली बेंद्रे, জন্ম: ১ জানুয়ারি ১৯৭৫[১]) একজন ভারতীয় মডেল, টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব এবং অভিনেত্রী। তিনি রোমান্স, অ্যাকশন এবং কমেডি ধরনের পঞ্চাশটির অধিক হিন্দি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। এছাড়াও বলিউড চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন তামিল, তেলুগু, মারাঠি এবং কন্নড় চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

তিনি ইন্ডিয়ান আইডল ৪র্থ আসর এবং ইন্ডিয়া'স গট টেলেন্ট প্রতিযোগীতার চারজন বিচারকের মধ্যে একজন। তিনি মহারাষ্ট্র এবং অন্ধ্র প্রদেশের কল্যাণ কাঞ্চীতে প্রিল সোপ, সূর্য বাল্বস এ্যন্ড টিউব্‌স, ওমেগা ওয়াচেস, ড. মরপেন, ডাবর, ভি-জন গ্রুপ ইত্যাদির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর (মুখপাত্র) হিসেবে নিয়োজিত রয়েছেন।[২][৩][৪] তিনি কালার‌স টিভি প্রদর্শিত মিশন সাপনে টেলিভিশন রিয়ালিটি শোর কথক হিসেবে কাজ করবেন।

প্রাথমিক কর্মজীবন[সম্পাদনা]

সোনালী বেন্দ্রে ১৯৭৫ সালে মুম্বইয়ে এক মারাঠি পরিবারে জন্ম নেন।[৫] তিনি বেঙ্গালুরু এবং মুম্বইয়ে কেন্দ্রীয় বিদ্যালয় এবং হলি ক্রস কনভেন্ট উচ্চ বিদ্যালয়, থানেতে লেখাপড়া করেন। এরপর তিনি ওয়েলহাম গার্লস স্কুল, দেরাদুনে অধ্যয়ন করেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

তিনি নভেম্বর ১২, ২০০২ সালে চলচ্চিত্র পরিচালক গোল্ডি বেহলকে বিয়ে করেন।[৬] আগস্ট ১১, ২০০৫ সালে বিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে তাদের ছেলে, রণবীরের জন্ম হয়।[৭]

পেশাদারী জীবন[সম্পাদনা]

"ষ্টার ডাষ্ট ট্যালেন্ট সাৰ্চ" এ নিৰ্বাচিত হবার আগে বেন্দ্ৰে একজন মডেল হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন। তারপর তিনি মুম্বাই এ আমন্ত্ৰিত হয়ে যান। সেখানে তিনি ভারতীয় চলচ্চিত্ৰ উদ্যোক্তা ও অভিনয় শিল্পীদের দ্বারা প্ৰশিক্ষণ লাভ করেন। ১৯৯৪ সালে ‘’আগ’’ ছবিতে গোবিন্দার বিপরীতে অভিনয় করে রুপালিজগতে পা রাখেন।

প্ৰথম অবস্থায় সফল হতে কিছুটা সংগ্ৰাম করতে হলেও পরে ‘’দিলজলে’’(১৯৯৬), ’’ভাই’’, ’’সরফরোজ’’, ’’জখম’’, ’’ডুপ্লিকেট’’, ’’কধলর ধিমান (তামিল)’’, ’’হম সাথ সাথ হে’’(১৯৯৯), ’’তেরা মেরা সাথ রহে’’, ’’অনাহত’’(২০০৩) ইত্যাদি ছবির জন্য সমালোচকদের প্ৰশংসা লাভ করেন। চার খান (শাহরুখ, আমির, সালমান ও সাইফ)এর বিপরীতে অভিনয় করা কমসংখ্যক অভিনেত্ৰীদের মধ্যে তিনি একজন। তদুপরি তিনি বলিউডের শীৰ্ষ অভিনেতা অক্ষয় কুমার, সুনীল শেট্টি, অজয় দেবগণ, সঞ্জয় দত্ত, অনিল কাপুর এর বিপরীতেও অভিনয় করেছেন। ‘’ইন্দ্ৰ’’,’’শংকরদাদা এম.বি.বি.এস.’’,’’অংগারে’’,’’মনমধুড়ু’’ ছবিতে তিনি তেলেগু সুপারষ্টার চিরঞ্জিবী,অাক্কিনেনী নাগাৰ্জুনা ও ‘’প্ৰীথসে’’ ছবিতে কানাড়া সুপারষ্টার উপেন্দ্ৰের সাথেও অভিনয় করেছেন।

একজন অভিনেত্ৰী হবার পাশাপাশি তিনি গদ্দার, সপুত, বোম্বে, লজ্জা, মেজর সাব ছবিতে একজন ভাল নৰ্তকী হিসেবে ও খ্যাতি লাভ করেছেন। ২০০৩ সালে তিনি শাহরুখ খান,সাইফ আলি খানপ্রীতি জিনতা অভিনীত ‘’কল হো না হো’’তে বিশেষ ভূমিকায় অভিনয় করেন।[৮] বেন্দ্ৰে আপ কি সোনিয়া নামে এক নাটকে ও অভিনয় করেন।[৯] ১৯৯৬ সালের ১ নভেম্বর মাইকেল জ্যাকসন ভারতে আসলে তিনি পরম্পরাগত মহারাষ্ট্ৰীয় নাওয়ারি শাড়ি পরে তাকে স্বাগত জানান।

টেলিভিশন জগত[সম্পাদনা]

বেন্দ্ৰে টেলিভিশনে "ক্যা মস্তি ক্যা ধুম" নামক নৃত্যানুষ্ঠানের উপস্থাপিকা ছিলেন।তিনি সনি এন্টারটেইনমেন্ট টেলিভিশনের ‘’ইণ্ডিয়ান আইডল’’ এর একজন বিচারক ছিলেন।২০০৫ সালের ২৬ ফেব্ৰুয়ারি তিনি সাইফ আলি খান ও ফরিদা জালালের সাথে ৫০তম ফিল্মফেয়ার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থাপিকা ছিলেন। তারপর তিনি ‘’মি এণ্ড মিসেস টেলিভিশন’’, ’’ইণ্ডিয়ান আইডল ৪’’, ’’ইণ্ডিয়া গট ট্যালেন্ট’’ অনুষ্ঠানে বিচারক ছিলেন। ২০১২ সালে তিনি কোরিয়োগ্ৰাফার টেরেঞ্চ লিরিসের সাথে লাইফ ওকে চ্যানেলে ‘’হিন্দুস্থান কে হুনরবাজ’’ নামক নৃত্যানুষ্ঠানে বিচারক ছিলেন।[১০][১১]

বলিউডে পুনরাগমণ[সম্পাদনা]

গোয়ায় আইএফএফআই ২০১৭ তে
এলএফডাব্লু সামার / রিসর্ট ফ্যাশন শো ২০১২ তে সোনালী বেন্দ্রে

২০১২ সালের জুন মাসে বেন্দ্ৰে ‘’ইণ্ডিয়া গট ট্যালেন্ট ৪’’ এ বিচারকের আসন ছেড়ে দিলে গুজব উঠে। তার জায়গায় রিতেশ দেশমুখকে নেওয়ার কথা ভাবা হয়।[১২] অবশ্য পরে জানা যায় যে অনাগত কথাছবি ‘’ওয়ান্স আপন এ টাইম এগেইন’’কে সময় দিতে অনুষ্ঠানটি ছাড়েন।[১৩][১৪] পরে জুলাই এর শুরুতে তিনি ঘোষণা করেন যে[১৪][১৫] এই ছবি দিয়ে তার বলিউডে পুনরাগমণ হবে। নিৰ্দেশক মিলান লুথারিয়া তার চরিত্ৰটির বিষয়ে বলেন: "সোনালীর চরিত্ৰটির নাম মুমতাজ। ছবিতে এই চরিত্ৰটি অতি গুৰুত্বপূৰ্ণ। কারো মা,বোন বা বৌ নয়, বরং এর এক নিজস্ব পরিচয় আছে। চরিত্ৰটির এই বিশেষত্বের জন্য সোনালী এই ছবিতে কাজ করতে রাজি হয়।"[১৪] ২০০৪ সালে তিনি ছবিজগত থেকে বিদায় নেন। পুত্ৰসন্তানের জন্ম দেয়ার পর তিনি টেলিভিশন জগতে কাজ করেন। এর আগে তিনি বহু ছবির প্ৰস্তাব নাকচ করেন। কারণ তিনি পরিবার বিশেষত নিজের পুত্ৰকে অধিক গুরুত্ব দিয়েছিলেন। কিন্তু একতা ও শোভা কাপুরের সাথে তার বন্ধুত্ব আছে। তিনি বন্ধু লুথারিয়ার সাথে (চোরি চোরি) ও অক্ষয় কুমারের সাথে (তরাজু, সপুত, অংগারে, কিমত, আগ)তেও অভিনয় করেন।অক্ষয়ের সাথে তিনি ‘’ওয়ান্স আপন এ টাইম এগেইন” তে ও কাজ করেন।[১৬][১৭]

চলচ্চিত্ৰ তালিকা[সম্পাদনা]

বৰ্ষ ছবি চরিত্ৰ টীকা
১৯৯৪ আগ পারুল
১৯৯৪ নারাজ
১৯৯৫ দ্য ডন অনিতা মালিক
১৯৯৫ গদ্দার প্ৰিয়া
১৯৯৫ টক্কর মোহিনী
১৯৯৫ বোম্বে তামিল ছবিতে
বিশেষ ভূমিকা
১৯৯৬ রক্ষক ড পূজা মালহোত্রা
১৯৯৬ ইংলিশ বাবু দেশি মেম বিজুরিয়া
১৯৯৬ দিলজলে রাধিকা
১৯৯৬ অপনে দম পর বিশেষ ভূমিকা
১৯৯৬ সপুত কাজল
১৯৯৭ ভাই মীনু
১৯৯৭ তরাজু পূজা
১৯৯৭ কহর নীলম
১৯৯৮ কিমত-দেই অর বেক মানসী
১৯৯৮ ডুপ্লিকেট লিলি
১৯৯৮ হামসে বরকর কৌন অনু
১৯৯৮ মেজর সাব নিশা
১৯৯৮ অংগারে রোমা
১৯৯৮ জখম সোনিয়া
১৯৯৯ লাভ ইউ হামেশা শিবানী ২০০১ এ মুক্তিপ্ৰাপ্ত
১৯৯৯ কধলর ধিনম রোজা তামিল ছবি
তেলেগু ভাষায় ‘’প্ৰেমিকুলারোজু’’ হিসেবে
হিন্দীী দিল হি দিল মে নামে রিমেক
১৯৯৯ কান্নোড়ু কানবাথেল্লাম কল্যাণী তামিল ছবি
১৯৯৯ হাম সাথ-সাথ হ্যাঁয় প্ৰীতি
১৯৯৯ দহেক সবিনা বক্সী/নীলিমা বক্সী
১৯৯৯ সরফরোজ সীমা
২০০০ দিল হি দিল মে রোজা
২০০০ হামারা দিল আপকে পাছ হে খুশী
২০০০ ধাই অক্সর প্ৰেম কে নিশা বিশেষ ভূমিকা
২০০০ জিস দেশ মে গঙ্গা বেহতা হে সারণী
২০০০ প্ৰীথছে কিরণ কানাড়া ছবি
২০০১ মুরারি বসুন্ধৰা তেলেগু ছবি
২০০১ লাভ কে লিয়ে কুছ ভি করেগা সপনা চোপ্ৰা
২০০১ লজ্জা নৰ্তকী "মুঝে সাজনকে ঘর জানা হে" গানে বিশেষ আবিৰ্ভাব
২০০১ তেরা মেরা সাথ রহে মাধুরি
২০০২ ইন্দ্ৰ পল্লবী তেলেগু ছবি
২০০২ খড়গম স্বাতী তেলেগু ছবি
২০০২ মনমুধুড়ু হরিকা তেলেগু ছবি
২০০৩ অনাহত রাণী শীলাবতী মারাঠী ছবি
২০০৩ প্যায়ার কিয়া নহি জাতা
২০০৩ পলনতি ব্ৰহ্মানাইডু শিবা নাগেশ্বৰী তেলেগু ছবি
২০০৩ চোরি চোরি পূজা
২০০৩ কল হো না হো প্ৰিয়া অতিথি শিল্পী
২০০৪ শংকরদাদা এম.বি.বি.এস ড সুনীতা তেলেগু ছবি
২০০৪ আগা বাঈ অরেচা মারাঠী ছবি
২০১৩ ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন মুম্বাই এগেইন মুমতাজ হিন্দি

পুরস্কার এবং মনোনয়ন[সম্পাদনা]

বছর পুরস্কার বিভাগ ফলাফল টীকা
১৯৯৪ স্টার স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস স্টার স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস সর্বাধিক আশাপ্রদ নবাগত - নারী বিজয়ী
১৯৯৫ ফিল্মফেয়ার পুরস্কার ফিল্মফেয়ার লাক্স নতুন মুখ পুরস্কার - আগ বিজয়ী
২০০০ আন্তর্জাতিক ভারতীয় চলচ্চিত্র একাডেমি পুরস্কার আইফা পুরস্কার - শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী - সারফারোশ মনোনীত
২০০১ আন্তর্জাতিক ভারতীয় চলচ্চিত্র একাডেমি পুরস্কার আইফা পুরস্কার - শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী - হামারা দিল আপকে পাস হে মনোনীত
২০০১ স্টার স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস স্টার স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রীহামারা দিল আপকে পাস হে বিজয়ী
২০০৪ স্টার স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস স্টার স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডস, শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী মারাঠি – আনাহাত বিজয়ী
২০১১ গোল্ডেন প্যাটেল অ্যাওয়ার্ডস সর্বাধিক ব্যক্তিত্ব – ইন্ডিয়া'স গট টেলেন্ট বিজয়ী

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Sonali Bendre Birthday Bash"। Reviews.in.88db.com। ২০১৩-১০-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৭-১০ 
  2. "Sonali Bendre becomes the brand ambassador for an almond hair oil"The Times of India। ৭ সেপ্টেম্বর ২০১১। 
  3. "Many takers for married actresses in ad world"। Masala.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৭-১০ 
  4. "Sonali Bendre and Genelia in Kalyana Kanchi Jewellery Designs(wedding jewellery) – Bollywood Mantra – Sonali Bendre"। Bollywood Mantra। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৭-১০ 
  5. Interview with Sonali Bendre
  6. "bollyvista.com"Sonali Bendre's set to tie the knot!। ৮ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০০৭ 
  7. "Sonali Bendre delivers a baby boy"। ExpressIndia.com। ১২ আগস্ট ২০০৫। ২০১৩-০১-০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-১৮ 
  8. Kal Ho Naa Ho ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৩০ এপ্রিল ২০০৮ তারিখে Indiafm.com
  9. "deccanherald.com"Sonali Bendre's to star in the theatre। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০০৭ 
  10. "No crying and weeping please. Just Enjoy!"। Hindustan Times। অক্টোবর ২৭, ২০১২। 
  11. "Busker Boys hopeful for 'Hindustan Ke Hunarbaz'"। The Times of India। অক্টো ২৮, ২০১২। 
  12. "Ritesh Deshmukh to judge India's Got Talent?"। ২০ জুন ২০১২। 
  13. "I might never do another film role"। ৩ জুলাই ২০১২। ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  14. "Sonali Bendre returns to films"। ২ জুলাই ২০১২। 
  15. "Sonali set to make a comeback"। ৩ জুলাই ২০১২। 
  16. "Sonali Bendre makes a comeback in films"। ৩ জুলাই ২০১২। 
  17. "I feel like I'm coming home: Sonali Bendre"। ৩ জুলাই ২০১২। ১২ জুন ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]