শ্বেতা বসু প্রসাদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শ্বেতা বসু প্রসাদ
Shweta Basu Prasad (cropped).jpg
জন্ম (1991-01-11) ১১ জানুয়ারি ১৯৯১ (বয়স ২৯)
জাতীয়তাভারতীয়
পেশাঅভিনেত্রী
কার্যকাল২০০২–বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীরোহিত মিত্তল (বি. ২০১৮; বিচ্ছেদ. ২০১৯)
পিতা-মাতাঅনুজ প্রসাদ
শর্মিষ্ঠা বসু
আত্মীয়রাহুল (ভাই)

শ্বেতা বসু প্রসাদ (জন্ম: ১১ জানুয়ারি ১৯৯১) হলেন একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। তিনি হিন্দি চলচ্চিত্র এবং টেলিভিশন ধারাবাহিকে শিশু অভিনেত্রী হিসাবে অভিনয় জগতে পদার্পণ করেন এবং বাংলা, তেলুগু এবং তামিল চলচ্চিত্রে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। ২০০২ সালে মাকড়ি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি "সেরা শিশুশিল্পী" বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছিলেন।[১]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

শ্বেতা বসু প্রসাদ ১৯৯১ সালের ১১শে জানুয়ারি তারিখে ভারতের ঝাড়খণ্ডের জামশেদপুরে জন্মগ্রহণ করেছেন এবং পরবর্তীতে তাঁর পরিবারের সাথে বোম্বেতে (বর্তমান মুম্বই) পাড়ি জমান।[২] তাঁর বাবা অনুজ প্রসাদ বিহারের এবং তাঁর মা শর্মিষ্ঠা বসু প্রসাদ পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা।

শ্বেতার দাদু নতুন দিল্লির গোয়েন্দা ব্যুরোর চিফ অপারেটিং অফিসার হিসাবে অবসর নিয়েছিলেন। তাঁর পিতা অনুজ নতুন দিল্লির শ্রীরাম সেন্টার থেকে নির্দেশনা ও অভিনয়ে ডিপ্লোমা অর্জনকারী। পরে তাঁরা জামশেদপুরে বসতি স্থাপন করেন, যেখানে তিনি ১৯৯০ সালে, এক বছরের সম্পর্কের পরে, শ্বেতার মা, সংগীতশিল্পী ও লেখক শর্মিষ্ঠাকে বিয়ে করেছিলেন এবং পরের বছর শ্বেতা জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

শ্বেতা মুম্বইয়ের সানতাক্রুজের আরএন পোদ্দার উচ্চ বিদ্যালয়ে বাণিজ্য বিভাগে পড়াশোনা করেছেন এবং গণমাধ্যম ও সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর শেষ করেছেন। তিনি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের জন্য কলামও লিখেছিলেন।[৩]

তিনি তাঁর মায়ের পূর্বের নাম "বসু" তাঁর নামের সাথে যোগ করেছেন।[৪] তিনি ২০১৮ সালের ১৩ই ডিসেম্বর তারিখে চলচ্চিত্র নির্মাতা রোহিত মিত্তলের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। কিন্তু ২০১৯ সালের ১০ই ডিসেম্বর তারিখে, তিনি এক ইন্সটাগ্রাম পোস্টে তাঁদের বিচ্ছেদের কথা জানিয়েছিলেন।[৫]

পেশা[সম্পাদনা]

শ্বেতা খুব কম বয়সে তার কর্মজীবন শুরু করেছিলেন। তিনি টেলিভিশনে পদার্পণ করলেও শীঘ্রই বলিউডে চলে আসেন। ২০০২ সালে মাকড়ি চলচ্চিত্রে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করার মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে পদার্পণ করেছিলেন; যার জন্য তিনি "সেরা শিশু অভিনেত্রী" বিভাগে জাতীয় পুরস্কার লাভ করেছিলেন। রুপালি পর্দায় তাঁর সাফল্যের পরে, তিনি কাহানী ঘর ঘর কি এবং কারিশমা কা কারিশমার মতো টেলিভিশন ধারাবাহিকে কাজ করেছিলেন। ২০০৫ সালে, তাঁর প্রতিভা আবার পরিচালক নাগেশ কুকুনুর দ্বারা স্বীকৃতি পেয়েছিল এবং তিনি তাঁকে ইকবাল চলচ্চিত্রের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। উক্ত চলচ্চিত্রে তিনি খাদিজা চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। তিনি ইকবালের জন্য ৫ম করাচি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে "সেরা সহায়ক অভিনেত্রী" বিভাগে পুরস্কার জয়লাভ করেছিলেন।

শ্বেতা তেলুগু চলচ্চিত্রে ২০০৮ সালে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। তার অভিষেক চলচ্চিত্রটির নাম কোথা বঙ্গারু লোকম। তিনি এ পর্যন্ত তামিল, তেলুগু এবং বাংলা ভাষায় মোট আটটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।[৬]

বিতর্ক[সম্পাদনা]

উচ্চ-শ্রেণীর পতিতাবৃত্তি মামলায় জড়িত থাকার জন্য ২০১১ সালের ৩১শে আগস্ট তারিখে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শ্বেতা বসু প্রসাদকে হায়দরাবাদ পুলিশ আটক করেছিল।[৭] প্রথমে তিনি বলেছিলেন যে, "আমি আমার কর্মজীবনে অনেক ভুল করেছি এবং সেসময় আমার অর্থের প্রয়োজন ছিল" এই বলে তাঁর জড়িত থাকাকে ন্যায়সঙ্গত করে তুলতে চেয়েছিলেন। পরে তিনি এই বিবৃতি এবং মামলায় জড়িত থাকার বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছিলেন।[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Shweta Basu Prasad"। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০২০ 
  2. "Shweta Basu Prasad Biography"। www.celenote.com। ২০১৯-১২-১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১১ 
  3. Basu Prasad columns
  4. Shweta Prasad's name games. Hindustan Times (2007-11-26). Retrieved on 2012-06-21.
  5. "Shweta Basu Prasad Announces Separation from Husband Rohit Mittal in Less Than a Year of Marriage"News18। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১১ 
  6. "Shweta Basu Prasad Biography, Age, Height, Weight, Boyfriend, Family, Wiki & More"। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০২০ 
  7. "Former child artiste Shweta Basu Prasad caught in alleged prostitution racket"Deccan Chronicle (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৪-০৯-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-১৫ 
  8. Jha, Subhash K. (২০১৪-১১-০৩)। "Shweta Basu breaks silence, explains her version of events in the 'prostitution' scandal"DNA India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]