এম এ হামিদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এম এ হামিদ
১৯৬০ সালে এম এ হামিদ
মৃত্যু২৫ জুলাই ২০০৮(২০০৮-০৭-২৫) (aged 76)
ঢাকা, বাংলাদেশ
সার্ভিস/শাখা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
পদমর্যাদালেফটেন্যান্ট কর্নেল

এম এ হামিদ (২৫ জুলাই ২০০৮ সালে মারা যান) বাংলাদেশী ক্রীড়া সংগঠক এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট কর্নেল ছিলেন । তিনি বাংলাদেশ হ্যান্ডবল ফেডারেশনের প্রতিষ্ঠাতা।[১] আর্মি স্পোর্টস কন্ট্রোল বোর্ডের সভাপতি এবং জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। ২০০৬ সালে সংগঠক ক্যাটাগরিতে জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পেয়েছিলেন। [২]

পেশা[সম্পাদনা]

১৯৭৫ সালে এম এ হামিদ ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের স্টেশন কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। [৩] এম এ হামিদ ''তিনটি সেনা অভ্যুত্থান ও কিছু না বলা কথা'' নামে একটি বই লেখেন। [৩][৪][৫]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

এম এ হামিদের স্ত্রী রাণী হামিদ তিনি বাংলাদেশের প্রথম মহিলা আন্তর্জাতিক দাবা মাস্টার। তাদের জ্যেষ্ঠ পুত্র কায়সার হামিদ বাংলাদেশের একজন কৃতি ফুটবলার। তিনি মোহামেডান স্পোর্টিং-এর হয়ে আশির দশক ও নব্বইয়ের দশকে খেলতেন। সে আমলের সেরা সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার-দের অন্যতম। দীর্ঘদিন মোহামেডান দলের দলনেতা ছিলেন। বাংলাদেশের জাতীয় দলেও অনেকদিন খেলেছেন।[১] দ্বিতীয় ছেলে সোহেল হামিদ জাতীয় স্কোয়াশ চ্যাম্পিয়ন ছিলেন এবং সবচেয়ে ছোট ছেলে ববি হামিদ ফুটবল খেলোয়াড় ছিলেন।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Noted sportsman MA Hamid dies at 76"bdnews24.com। ২০০৮-০৭-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-১২ 
  2. "Local Snippets"The Daily Star। ২০০৭-০৬-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-১২ 
  3. "How Gen Zia took the helm of army"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৪-০৮-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-১২ 
  4. "তিনটি সেনা অভ্যুত্থান ও কিছু না বলা কথা"www.goodreads.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২৯ 
  5. "ইতিহাসের পাতায় জিয়া-মঞ্জুর-এরশাদ ত্রয়ী"NTV Online। ২০১৯-০৬-২৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২৯