বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সক্রিয় জাহাজের তালিকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বানৌজা সমুদ্র জয় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সর্ববৃহৎ ফ্রিগেটগুলোর একটি।

বাংলাদেশ নৌবাহিনী বর্তমানে ৯৩ টি যুদ্ধজাহাজ পরিচালনা করে যার মধ্যে রয়েছে পাঁচটি ক্ষেপণাস্ত্রবাহী ফ্রিগেট, দুইটি প্রশিক্ষণ ফ্রিগেট, ছয়টি কর্ভেট এবং ৪৬ টি অন্যান্য ছোট জাহাজ।

বাংলাদেশ নৌবাহিনী তাদের জাহাজের নামের আগে "বানৌজা" উপসর্গটি ব্যবহার করে যা "বাংলাদেশ নৌবাহিনী জাহাজ" বুঝায়।

সাবমেরিন[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ ওজন নোট
টাইপ ০৩৫ (মিং ক্লাস) 潜艇.JPG সাবমেরিন বানৌজা নবযাত্রা (এস১৬১)
বানৌজা জয়যাত্রা (এস১৬২)
২১১০ টন ১২ মার্চ ২০১৭ বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে কমিশন করা হয়।[১][২]

হেলিকপ্টার ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ ওজন নোট
প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ফোর্সেস গোল ২০৩০ এর আলোকে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য একটি হেলিকপ্টার ক্যারিয়ার ক্রয় প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

ফ্রিগেট[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় ০৭টি জাহাজ
উলসান ক্লাস Bangladesh Navy Ship Bangabandhu (F-25).jpg ক্ষেপণাস্ত্রবাহী ফ্রিগেট বানৌজা বঙ্গবন্ধু (এফ২৫)  দক্ষিণ কোরিয়া ২৪০০ টন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর নৌবহরে বিদ্যমান সবথেকে আধুনিক ফ্রিগেট।
টাইপ ০৫৩এইচ৩ (জিয়াংওয়েই-২ ক্লাস) Jiangwei class frigate -Sanming-.jpg ক্ষেপণাস্ত্রবাহী ফ্রিগেট বানৌজা ওমর ফারুক (এফ১৬)
বানৌজা আবু উবাইদাহ (এফ ১৯)
 গণচীন ২২৫০ টন
টাইপ ০৫৩এইচ২ (জিংহু-৩ ক্লাস) BNS Abu Bakr during Bongosagar exercise with Indian Navy.jpg ক্ষেপণাস্ত্রবাহী ফ্রিগেট বানৌজা আবু বকর (এফ১৫)
বানৌজা আলী হায়দার (এফ১৭)
 গণচীন ২০০০ টন
হ্যামিল্টন ক্লাস Bangladesh navy frigate Somudro Joy (F-28) at Pearl Harbor in 2013.JPG প্রশিক্ষণ ফ্রিগেট বানৌজা সমুদ্র জয়(এফ২৮)
বানৌজা সমুদ্র অভিযান (এফ২৯)
 যুক্তরাষ্ট্র ৩২৫০ টন মূলত প্রশিক্ষণ, দূরপাল্লার টহল পরিচালনা এবং বিশেষভাবে নজরদারির জন্য ব্যবহৃত হয়।
অর্ডারকৃত (২টি)
টাইপ ০৫৩এইচ৩ (জিয়াংওয়েই-২ ক্লাস) Jiaxing1.jpg ক্ষেপণাস্ত্রবাহী ফ্রিগেট বানৌজা খালিদ বিন ওয়ালিদ (এফ২০)
বানৌজা ওসমান (এফ১৮)
 গণচীন ২২৫০ টন
নির্মাণাধীন জাহাজ ০৬টি
প্রক্রিয়াধীন রয়েছে স্টেল্ট ক্ষেপণাস্ত্রবাহী ফ্রিগেট  বাংলাদেশ ৪০০০ টন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর তত্বাবধায়নে চট্টগ্রাম ড্রাই ডক কর্তৃক নির্মিত হবে।

ক্ষেপণাস্ত্রবাহী কর্ভেট[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় জাহাজ ০৬টি
ক্যাসল ক্লাস Castle-class patrol vessel.jpg ক্ষেপণাস্ত্রবাহী কর্ভেট বানৌজা বিজয় (এফ৩৫)
বানৌজা ধলেশ্বরী (এফ৩৬)
 যুক্তরাজ্য ১৪৩০ টন
সি১৩বি BNS Prottoy during Bongosagar exercise with Indian Navy.jpg স্টেল্ট ক্ষেপণাস্ত্রবাহী কর্ভেট বানৌজা স্বাধীনতা (এফ১১১)
বানৌজা প্রত্যয় (এফ১১২)
বানৌজা সংগ্রাম (এফ১১৩)
বানৌজা প্রত্যাশা (এফ১১৪)
 গণচীন ১৩৩০ টন

লার্জ প্যাট্রোল ক্রাফট (এলপিসি)[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় ০৫টি জাহাজ
দুর্জয় শ্রেণি BNS Nirmul.jpg ক্ষেপণাস্ত্রবাহী এলপিসি বানৌজা দুর্জয়(পি ৮১১)
বানৌজা নির্মূল (পি ৮১৩)
বানৌজা দুর্গম (পি ৮১৪)
বানৌজা নিশান (পি ৮১৫)
 বাংলাদেশ ৬৪৮ টন প্রথম দুটি জাহাজ অ্যান্টি-শিপ ক্ষেপণাস্ত্র সজ্জিত যুদ্ধ জাহাজ হিসাবে চীনে নির্মিত হয়েছিল। শেষ দুটি দুটি টর্পেডো দিয়ে সজ্জিত অ্যান্টি-সাবমেরিন ওয়ারফেয়ার জাহাজ হিসাবে তৈরি করা হয়েছে।
সি ড্রাগন ক্লাস Bangladesh Navy ships (27798620646).jpg এলপিসি বানৌজা মধুমতি (পি ৯১১)  দক্ষিণ কোরিয়া ৬৩৫ টন
নির্মাণাধীন জাহাজ ০২টি
প্রক্রিয়াধীন রয়েছে এলপিসি  বাংলাদেশ ≥৭০০টন এই জাহাজগুলি স্থানীয় শিপইয়ার্ডের তৈরি প্রথম অ্যান্টি-শিপ মিসাইল সশস্ত্র যুদ্ধজাহাজ হতে চলেছে। প্রতিটি জাহাজে ৮টি অ্যান্টি-শিপ মিসাইল সজ্জিত করা হবে।

অফশোর প্যাট্রোল ভেসেল (ওপিভি)[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় ০৫টি জাহাজ
আইল্যান্ড ক্লাস US Navy 110922-N-RI844-011 Bangladesh Navy ships fall in behind the Bangladesh navy frigate BNS Bangabandhu (F 25) during exercises with the U.S. N.jpg ওপিভি বানৌজা সাঙ্গু (পি ৭১৩)
বানৌজা তুরাগ (পি ৭১৪)
বানৌজা কপোতাক্ষ (পি ৯১২)
বানৌজা করতোয়া (পি ৯১৩)
বানৌজা গোমতি (পি ৯১৪)
 যুক্তরাজ্য ১২৮০টন
নির্মাণাধীন জাহাজ ০৬টি
প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ওপিভি  বাংলাদেশ ২০০০ টন ২০১৯ সালে, চট্টগ্রাম ড্রাই ড্রাই ডক লিমিটেডকে (সিডিডিএল) নৌবাহিনীর জন্য ছয়টি ভারি ওপিভি তৈরির চুক্তিতে ভূষিত করা হয়। এই জাহাজগুলি দ্বারা

আইল্যান্ড শ্রেণির ওপিভি প্রতিস্থাপন করা হবে।[৩][৪][৫][৬]

ইনশোর টহল জাহাজ[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় ০৭টি জাহাজ
মেঘনা ক্লাস ইনশোর টহল জাহাজ বানৌজা মেঘনা (পি ২১১)
বানৌজা যমুনা (পি ২১২)
 সিঙ্গাপুর ৪১০টন
পদ্মা শ্রেণি ইনশোর টহল জাহাজ বানৌজা পদ্মা (পি ৩১২)
বানৌজা সুরমা (পি ৩১৩)
বানৌজা অপরাজেয় (পি ২৬১)
বানৌজা অদম্য (পি ২৬২)
বানৌজা অতন্দ্র (পি ২৬৩)
 বাংলাদেশ ৩৫০টন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর অধীনস্থ খুলনা শিপইয়ার্ড কর্তৃক নির্মিত।
নির্মাণাধীন জাহাজ ০৫টি
পদ্মা শ্রেণি ইনশোর টহল জাহাজ  বাংলাদেশ ৩৫০টন খুলনা শিপইয়ার্ডে ০২ ডিসেম্বর ২০১৯ এ নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

ফাস্ট অ্যাটাক ক্রাফট[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
ক্ষেপণাস্ত্রবাহী মিসাইল বোট ০৪ টি
টাইপ ০২১ 駐港部隊艦艇大隊037II型-771導彈艦.JPG মিসাইল বোট বানৌজা দুর্ধর্ষ (পি ৮১২৫)
বানৌজা দুর্দান্ত (পি ৮১২৬)
বানৌজা দোর্দণ্ড (পি ৮১২৮)
বানৌজা অনির্বাণ (পি ৮১৩১)
 গণচীন ২০৫ টন সি-৭০৪ ক্ষেপণাস্ত্র সংযোজন করা হয়েছে।
ডুবোজাহাজ বিধ্বংসী জাহাজ ০৪ টি
ক্রালজেভিকা ক্লাস ডুবোজাহাজ বিধ্বংসী জাহাজ বানৌজা কর্ণফুলী (পি ৩১৪)
বানৌজা তিস্তা (পি ৩১৫)
 সার্বিয়া ২৪৫ টন ১৯৯৫ সালে কর্ণফুলীতে ও ১৯৯৮ সালে তিস্তায় নতুন ইঞ্জিন লাগানো হয়।
টাইপ ০৬২-১ ক্লাস Larkana (PB 157)-090309-N-4774B-055.jpg ডুবোজাহাজ বিধ্বংসী জাহাজ বানৌজা বরকত (পি ৭১১)  গণচীন ১৭০ টন
টাইপ ০৩৭ ক্লাস Hainan-class submarine chaser.png ডুবোজাহাজ বিধ্বংসী জাহাজ বানৌজা নির্ভয় (পি ৮১২)  গণচীন ৩৯২ টন
গানবোট ০৫ টি
টাইপ ০২১ ক্লাস গানবোট বানৌজা সালাম (পি ৭১২)  গণচীন ২০৫ টন
চামসুরি ক্লাস 2010. 7. 동해 한미연합 훈련 Rep. of Korea Navy korea us combine training (7554655104).jpg গানবোট বানৌজা তিতাস (পি ১০১১)
বানৌজা কুশিয়ারা (পি১০১২)
বানৌজা চিত্রা (পি ১০১৩)
বানৌজা ধানসিঁড়ি (পি ১০১৪)
 দক্ষিণ কোরিয়া ১৪৩ টন

গবেষণা ও জরিপ জাহাজ[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় জাহাজ ০৪টি
রয়েবাক ক্লাস HMS Roebuck (H130).jpg হাইড্রোগ্রাফিক জরিপ জাহাজ বানৌজা অনুসন্ধান (এইচ ৫৮৪)  যুক্তরাজ্য ১৪৭৭টন ২০১০ সালের ২৯ ডিসেম্বর তারিখে বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে কমিশন করা হয়।
তল্লাশি ক্লাস হাইড্রোগ্রাফিক জরিপ জাহাজ বানৌজা দর্শক (এইচ ৫৮১)
বানৌজা তল্লাশি (এইচ ৫৮২)
 বাংলাদেশ ৫ নভেম্বর ২০২০ এ কমিশন করা হয়েছে।[৭]

মাইন বিধ্বংসী জাহাজ[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় জাহাজ ০৫ টি
টাইপ ০১০ ক্লাস মাইন সুইপার বানৌজা সাগর (এম৯১)  গণচীন ৫৬৯ টন প্রধানত টহল কাজে ব্যবহৃত হয়।
রিভার ক্লাস P 60 - Bracuí (7203571140).jpg মাইন সুইপার বানৌজা শাপলা (এম৯৫)
বানৌজা সৈকত (এম ৯৬)
বানৌজা সুরভী (এম ৯৭)
বানৌজা শৈবাল (এম ৯৮)
 যুক্তরাজ্য ৯০৪ টন প্রধানত টহল কাজে ব্যবহৃত হয়।

র‍্যাপিড রেসপন্স বোট[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন উৎস পরিমাণ ওজন নোট
সক্রিয় জাহাজ ১৬টি
মেটাল সার্ক বোট Metal Shark Boat US Coast Guard.jpg র‍্যাপিড রেসপন্স বোট  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ০৮টি
ডিফেন্ডার ক্লাস বোট US Navy 110920-N-RI884-270 Members of a Bangladesh navy rigid-hull inflatable boat team train with U.S. Navy Sailors, right, from Riverine Squadron.jpg র‍্যাপিড রেসপন্স বোট  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৬টি ২.৭টন
এক্স-১২ বোট দ্রুতগতির প্যাট্রল বোট  বাংলাদেশ ১৬ টি নারায়ানগঞ্জ ডকইয়ার্ডে নির্মিত।

প্রশিক্ষণ জাহাজ[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় জাহাজ ০১টি
আইল্যান্ড ক্লাস US Navy 110922-N-RI844-011 Bangladesh Navy ships fall in behind the Bangladesh navy frigate BNS Bangabandhu (F 25) during exercises with the U.S. N.jpg ওপিভি বানৌজা শহীদ রুহুল আমিন (এ৫১১)  যুক্তরাজ্য ১২৮০ টন

উভচর যুদ্ধজাহাজ[সম্পাদনা]

ক্লাস ছবি ধরন জাহাজ উৎস ওজন নোট
সক্রিয় (১৫)
ল্যান্ডিং ক্রাফট ইউটিলিটি ল্যান্ডিং ক্রাফট ইউটিলিটি বানৌজা শাহ আমানত (এল ৯০০)  ডেনমার্ক ৩৬৬ ডেনমার্কের তৈরি।
এলসিইউ ১৬৪৬ US Navy 050228-N-8801B-012 U.S. Marines and Sailors, assigned to the 31st Marine Expeditionary Unit (MEU), return to the amphibious assault ship USS Essex (LHD 2).jpg ল্যান্ডিং ক্রাফট ইউটিলিটি বানৌজা শাহ পরান (এল ৯০১)
বানৌজা শশ মখদুম (এল ৯০২)
 যুক্তরাষ্ট্র ৩৮১ প্রাক্তন যুক্তরাষ্ট্র নৌবাহিনীর জাহাজ।
হাতিয়া ক্লাস ল্যান্ডিং ক্রাফট ইউটিলিটি বানৌজা হাতিয়া
বানৌজা সন্দ্বীপ
 বাংলাদেশ খুলনা শিপইয়ার্ডে তৈরি।
ল্যান্ডিং ক্রাফট ট্যাংক ল্যান্ডিং ক্রাফট ট্যাংক বানৌজা এলসিটি ১০৩ (এ ৫৮৬)
বানৌজা এলসিটি ১০৫ (এ ৫৮৮)
 বাংলাদেশ নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ডে তৈরি।
ইউচীন ক্লাস US Navy 090615-N-6676S-456 Landing Craft Mechanized (LCM) 14, assigned to Assault Craft Unit (ACU) 2, transports Sailors, Soldiers and Marines during operations supporting Joint Logistics Over-The-Shore (JLOTS) exercises.jpg ল্যান্ডিং ক্রাফট মেকানাইজড বানৌজা দর্শক (এ ৫৮১)
বানৌজা তল্লাশি (এ ৫৮২)
বানৌজা এলসিটি ১০১ (এ ৫৮৪)
বানৌজা এলসিটি ১০২ (এ ৫৮৫)
বানৌজা এলসিটি ১০৪ (এ ৫৮৬)
 গণচীন ৮৫
ল্যান্ডিং ক্রাফট ভেহিকেল অ্যান্ড পারসনেল ল্যান্ডিং ক্রাফট ভেহিকেল অ্যান্ড পারসনেল বানৌজা এল ১০১১
বানৌজা এল ১০১২
বানৌজা এল ১০১৩
 বাংলাদেশ ৮৩ এল ১০১১ এবং এল ১০১২ খুলনা শিপইয়ার্ডে তৈরি। নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ডে তৈরি এল ১০১৩।

সহায়ক জাহাজ[সম্পাদনা]

নাম ক্লাস ধরন উৎপত্তি নোট
বানৌজা সহায়ক (এ ৫১২) সহায়ক রসদবাহী জাহাজ  বাংলাদেশ
বানৌজা শাহ জালাল (এ ৫১৩) শাহ জালাল ডুবুরী সহায়তা জাহাজ  বাংলাদেশ
বানৌজা খান জাহান আলী (এ ৫১৫) খান জাহান আলী তেলবাহী ট্যাংকার  বাংলাদেশ আনন্দ শিপইয়ার্ডে তৈরি।
বানৌজা ইমাম গাজ্জালী (এ ৫১৫) ইমাম গাজ্জালী তেলবাহী ট্যাংকার  বাংলাদেশ
বিএনএফডি সুন্দরবন (এ ৭১১) ভাসমান ডকইয়ার্ড
বিএনটি খাদেম (এ ৭২১) ডিংহাই টাগবোট  গণচীন
বিএনটি সেবক (এ ৭২২) টাগবোট  বাংলাদেশ
বিএনটি রূপসা (এ ৭২৩) ড্যামেন স্টান টাগ ৩০০৮ টাগবোট  বাংলাদেশ
বিএনটি শিবসা (এ ৭২৪) ড্যামেন স্টান টাগ ৩০০৮ টাগবোট  বাংলাদেশ
বিএনটি হালদা হালদা ক্লাস সাবমেরিন টাগবোট  বাংলাদেশ
বিএনটি পশুর হালদা ক্লাস সাবমেরিন টাগবোট  বাংলাদেশ
বিএনএফসি বলবান (এ ৭৩১) ভাসমান ক্রেন  বাংলাদেশ খুলনা শিপইয়ার্ডে তৈরি
বানৌজা এমএফভি ৫৫ টেন্ডার জাহাজ
বানৌজা এমএফভি ৬৬ টেন্ডার জাহাজ
বানৌজা সংকেত সংকেত টেন্ডার জাহাজ  বাংলাদেশ

স্থাপনা[সম্পাদনা]

  1. বানৌজা শহীদ মোয়াজ্জেম
  2. বানৌজা তিতুমীর
  3. বানৌজা হাজী মহসীন
  4. বানৌজা উল্কা
  5. বানৌজা ঈশা খাঁ
  6. বানৌজা ভাটিয়ারী

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Bangladesh's first 2 submarines commissioned"। The Daily Star। ১২ মার্চ ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০১৭ 
  2. "Bangladesh's first submarines commissioned"। Dhaka Tribune। ১২ মার্চ ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০১৭ 
  3. "Chittagong Dry Dock Ltd to Build Six Offshore Patrol Vessels for Bangladesh Navy - DefPost"defpost.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১৭ 
  4. "CDDL: Bangladesh Navy orders six offshore patrol vessels"Naval Today (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২০-০১-২৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১৭ 
  5. "CDDL: Bangladesh Navy orders six offshore patrol vessels"News Break (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১৭ 
  6. "Bangladesh in the market for six new Offshore Patrol Vessels"Asia Pacific Defense Journal। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১৭ 
  7. "নৌবাহীতে যুক্ত হলো ৫টি আধুনিক জাহাজ"দ্য ডেইলি স্টার। ৫ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০২০