স্পেশাল ওয়ারফেয়ার ডাইভিং অ্যান্ড স্যালভেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্পেশাল ওয়ারফেয়ার ডাইভিং অ্যান্ড স্যালভেজ
বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী
দেশ:বাংলাদেশ বাংলাদেশ
ধরণ:স্পেশাল অপারেশান ফোর্স
কার্যক্রম:
  • চোরাচালান দমন
  • সন্ত্রাস দমন
  • মাদক্দ্রব্য দমন
  • গোপন অনুপ্রবেশ
  • উদ্ধারকার্য
  • শত্রু অবস্থান ধ্বংস
  • ঝটিকা অভিযান
  • গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ
আকার:অপ্রকাশ্য
ঘাঁটি:চট্টগ্রাম
ডাক নাম:সোয়াডস

স্পেশাল ওয়ারফেয়ার ডাইভিং অ্যান্ড স্যালভেজ কিংবা সোয়াডস বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একটি বিশেষ পরিশাখা।

ইতিহাস ও গঠন[সম্পাদনা]

সত্তরের দশকে বংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীতে যুক্তরাষ্ট্রের নেভি সীলদক্ষিণ কোরিয়ার স্পেশাল ফোর্সেসের আলোকে একটি বিশেষায়িত ব্রিগেড গঠিত হয়েছিল। এই ব্রিগেড থেকেই অধুনা সোয়াডসের উৎপত্তি ঘটেছে।[১]

উচ্চ পর্যায়ের বিশেষ বাছাই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে দেশে ও বিদেশে (শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়োজিত) বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর চৌকস সদস্যদের সোয়াডসে অন্তর্ভুক্ত করা হয়ে থাকে। বিশেষ সামরিক অভিযানের জন্য গঠিত সোয়াডসের প্রশিক্ষণ ও ব্যবহার্য অস্ত্রের তালিকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেভি সীল (ইউনাইটেড স্টেটস নেভি সী, এয়ার অ্যান্ড ল্যান্ড টিমস)-এর আলোকে নির্ধারিত হয়েছে।[১]

কার্যক্রম ও বিশেষত্ব[সম্পাদনা]

সোয়াডস এখনও পর্যন্ত আন্তর্জাতিক কোন উল্লেখযোগ্য সামরিক অভিযানে নিয়োজিত হয়নি। যুদ্ধ আক্রান্ত কিছু দেশ যেখানে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়োজিত আছে, সেসব দেশে কিছু ক্ষেত্রে ঝটিকা অভিযান, অনুপ্রবেশ ও উদ্ধারকার্যে সোয়াডসকে মোতায়েন করা হয়েছে। সোয়াডস মূলত সন্ত্রাস দমন, চোরাচালান দমন, মাদকবিরোধী, বন্দী উদ্ধার ইত্যাদি অভিযানের জন্য বিশেষায়িত। এছাড়াও গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহে বিশেষ অভিযানের জন্যও সোয়াডস বিশেষায়িত।[১]

প্রশিক্ষণ ও দায়িত্ম[সম্পাদনা]

সশস্ত্র বাহিনীর বিভিন্ন শাখা (ভূ, নৌবিমান) থেকে নির্বাচিত হওয়ার পর সোয়াডস সদস্যবৃন্দ উচ্চ মাত্রার শারীরিক, মনস্তাত্বিক ও অস্ত্র প্রশিক্ষণ পেয়ে থাকেন। এই বিশেষ প্রশিক্ষণ প্রক্রিয়া মূলত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার সমপর্যায়ের সামরিক আয়োজনের আলোকে নির্ধারণ করা হয়। প্রশিক্ষকগণ নিজেরা যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ কোরিয়া ও তুরস্ক থেকে বিশেষ ভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত। সোয়াডসের প্রশিক্ষণ প্রক্রিয়া ও প্রশিক্ষকগণ কার্যক্ষেত্রে নির্মমতা ও ত্রুটির ব্যাপারে অনমনীয়তা প্রদর্শনের জন্য খ্যাত।[১]

সোয়াডস নিম্নবর্ণিত ক্ষেত্রগুলোতে বিশেষায়িত ও দায়িত্মপ্রাপ্তঃ[১]

অস্ত্র[সম্পাদনা]

  • কোল্ট এম-৪ কার্বাইন
  • দাইয়ু কে-৪ ৫.৫৬ অ্যাসল্ট রাইফেল
  • হ্যাকলার অ্যান্ড কচ জি-৪১৬ অ্যাসল্ট রাইফেল
  • অয়গেন স্টোনার - সুলিভান এম-১৬ অ্যাসল্ট রাইফেল
  • হ্যাকলার অ্যান্ড কচ এমপি-৫ সাবমেশিন গান
  • এম-২৪ স্নাইপার রাইফেল
  • ৯ এমএম সেমি-অটোমেটিক পিস্তল
  • এমকে-১৯ গ্রেনেড লঞ্চার[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]