২০১৯ বাংলাদেশ ফুটবল প্রিমিয়ার লীগ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ
মৌসুম২০১৮–১৯
তারিখ১৮ জানুয়ারি ২০১৯ - ০৩ আগস্ট ২০১৯[১]
চ্যাম্পিয়নবসুন্ধরা কিংস (১ম শিরোপা)
অবনমনবিজেএমসি দল
নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব
মোট খেলা১৫৬
মোট গোলসংখ্যা৪৩৯ (ম্যাচ প্রতি ২.৮১টি)
সেরা খেলোয়াড়ড্যানিয়েল কলিন্ড্রেস
শীর্ষ গোলদাতারাফায়েল ওডভিন
(২২ টি গোল)
সেরা গোলরক্ষকআশরাফুল ইসলাম রানা
সবচেয়ে বড় হোম জয়বসুন্ধরা কিংস ৫–০ ব্রাদার্স ইউনিয়ন
(১৬ জুলাই ২০১৯)
সবচেয়ে বড় এওয়ে জয়মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ১–৬ শেখ রাসেল কেসি
(২৪ জুলাই ২০১৯)
সর্বোচ্চ স্কোরিংআরামবাগ ক্রীড়া সংঘ ৬–৩ রহমতগঞ্জ এমএফএস
(২০ জুলাই ২০১৯)
দীর্ঘতম টানা জয়১৪ ম্যাচ
বসুন্ধরা কিংস
দীর্ঘতম টানা অপরাজিত২০ ম্যাচ
বসুন্ধরা কিংস
দীর্ঘতম টানা জয়বিহীন১৫ ম্যাচ
বিজেএমসি দল
দীর্ঘতম টানা পরাজয়৭ ম্যাচ
ব্রাদার্স ইউনিয়ন
সব পরিসংখ্যান ৩ আগস্ট ২০১৯ অনুযায়ী সঠিক।

২০১৯ বাংলাদেশ ফুটবল প্রিমিয়ার লীগ হচ্ছে ২০০৭ সালে শুরু হওয়া বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের ১১তম আসর। ১৩টি দল আসরে অংশগ্রহণ করে[২]। গত আসরের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনী এই মৌসুমে তাদের শিরোপা পুনরুদ্ধার করতে পারেনি। ২০১৭ বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগ থেকে বসুন্ধরা কিংস এবং নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব প্রিমিয়ার লীগে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। এই দুইটি ক্লাব প্রথমবারের মত বাংলাদেশের ফুটবলের শীর্ষস্থানীয় লিগে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। বসুন্ধরা কিংস দুই ম্যাচ হাতে রেখে এই মৌসুমের শিরোপা জিতে এবং প্রথম বার বিপিএল- খেলতে এসে অভিষেকে শিরোপা জেতার রেকর্ড গড়ে[৩][৪][৫]। নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব ও টিম বিজেএমসি লীগের পয়েন্ট তালিকায় সবার নীচে থাকায় মৌসুম শেষে অবনমিত হয়[৬]। এই মৌসুম ১৮, জানুয়ারি, ২০১৯[৭] হতে ৩ আগস্ট, ২০১৯[৮][৯][১০] পর্যন্ত চলে।

নিয়ম পরিবর্তন[সম্পাদনা]

এই আসর থেকে বাংলাদেশ এএফসির ৩+১ নিয়মটি ব্যবহার করবে।যেখানে প্রতি দলে চারজন বিদেশী খেলতে পারবে।তবে একজন হতে হবে এশিয়ান।আগের নিয়ম অনুযায়ী ৩ জন বিদেশী নেয়া যেত।[১১]

দল ও স্টেডিয়ামসমূহ[সম্পাদনা]


দল স্টেডিয়াম[১২] ধারণক্ষমতা
আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ রফিক উদ্দিন ভুঁইয়া স্টেডিয়াম, ময়মনসিংহ ১৫,০০০
বসুন্ধরা কিংস শেখ কামাল স্টেডিয়াম, নীলফামারী ২১,০০০
ব্রাদার্স ইউনিয়ন বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা ৩৬,০০০
চট্টগ্রাম আবাহনী বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা ৩৬,০০০
ঢাকা আবাহনী বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা ৩৬,০০০
ঢাকা মোহামেডান বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম ৩৬,০০০
শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা ৩৬,০০০
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়াম, গোপালগঞ্জ ৮,০০০
নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব শহিদ ভুলু স্টেডিয়াম, নোয়াখালী ১০,০০০
রহমতগঞ্জ এমএফএস বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা ৩৬,০০০
সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব রফিকউদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়াম, ময়মনসিংহ ১৫,০০০
শেখ রাসেল কেসি সিলেট জেলা স্টেডিয়াম ২০,০০০
বিজেএমসি দল শহিদ ভুলু স্টেডিয়াম, নোয়াখালী ১০,০০০

কর্মীবৃন্দ এবং পৃষ্ঠপোষক[সম্পাদনা]

দল প্রধান প্রশিক্ষক অধিনায়ক শার্ট পৃষ্ঠপোষক কিট প্রস্তুতকারী
আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ মারুফুল হক রবিউল হাসান
বসুন্ধরা কিংস অস্কার ব্রুজন তৌহিদুল আলম সবুজ বসুন্ধরা গ্রুপ
ব্রাদার্স ইউনিয়ন সৈয়দ নাইমুদ্দীন এমরুল হাসান বিশ্বাস বিল্ডার্স লিমিটেড & নভোএয়ার
চট্টগ্রাম আবাহনী যুলফিকার মাহমুদ মিন্টু মোনায়েম খান রাজু সাইফ পাওয়ার ব্যাটারি
ঢাকা আবাহনী মারিও লেমস শহিদুল ইউসুফ সোহেল
এফবিটি
ঢাকা মোহামেডান ক্রিস্টোফার ইভান্স জাহিদ হাসান এমিলি কে–স্পোর্টস
শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব জোসেফ আফুসি সলোমান কিং কানফর্ম এ৪ বসুন্ধরা পেপার
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আবদুল কাইয়ুম সেন্টু অনিক আহমেদ
নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব কামাল বাবু মনসুর আলাম সাইফ পাওয়ার ব্যাটারি
রহমতগঞ্জ এমএফএস সৈয়দ গোলাম জিলানি মানডে ওসাগি টাইগার সিমেন্ট
সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব জনি ম্যাককিন্সট্রি জামাল ভূইয়া সাইফ পাওয়ার ব্যাটারি
শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র সাইফুল বারি টিটু আশরাফুল ইসলাম রানা বসুন্ধরা সিমেন্ট
বিজেএমসি দল জাহিদুল ইসলাম মিলন স্যামসান ঈলিয়াসু

পয়েন্ট তালিকা[সম্পাদনা]

অব দল খে ড্র হা স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন বা অবনমন
বসুন্ধরা কিংস (C) ২৪ ২০ ৫৪ ১৪ +৪০ ৬৩ এএফসি কাপ গ্রুপ পর্বের জন্য উত্তীর্ণ
ঢাকা আবহনী ২৪ ১৯ ৬০ ২৮ +৩২ ৫৮
শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র ২৪ ১৬ ৪৩ ২০ +২৩ ৫২
সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব ২৪ ১৪ ৪০ ২৪ +১৬ ৪৭
আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ ২৪ ১০ ১১ ৩৩ ৩২ +১ ৩৩
শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ২৪ ১০ ৩১ ৩৭ −৬ ২৮
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ২৪ ১০ ২৬ ৩৮ −১২ ২৬
চট্টগ্রাম আবাহনী ২৪ ১০ ২২ ২৬ −৪ ২৫
ঢাকা মোহামেডান ২৪ ১১ ৩১ ৪০ −৯ ২৫
১০ রহমতগঞ্জ এমএফএস ২৪ ১০ ১০ ৩৪ ৫৩ −১৯ ২২
১১ ব্রাদার্স ইউনিয়ন ২৪ ১৩ ২৮ ৪৯ −২১ ২১
১২ নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব (R) ২৪ ১৪ ২৩ ৪২ −১৯ ২০ বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগে অবনমন
১৩ বিজেএমসি দল (R) ২৪ ১৭ ১৪ ৩৬ −২২ ১১
৩ আগস্ট ২০১৯ তারিখের ম্যাচ খেলা শেষের পর হালনাগাদকৃত। উৎস: বাফুফে
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: ১) পয়েন্ট; ২) গোল পার্থক্য; ৩) গোল স্কোর
(C) চ্যাম্পিয়ন; (R) অবনমন।

ফলাফল[সম্পাদনা]

স্বগৃহ \ অন্যত্র আরামবাগ বসুন্ধরা ব্রাদার্স চট্টগ্রাম আবাহনী ঢাকা আবাহনী মোহামেডান জামাল মুক্তিযোদ্ধা নোফেল রহমতগঞ্জ সাইফ রাসেল বিজেএমসি
আরামবাগ ০-৩ ০-১ ২-০ ১-২ ৪-১ ০-১ ২-১ ১-০ ৬-৩ ১-১ ০-১ ২-১
বসুন্ধরা ৩ - ২ ৫-০ ৩-০ ৩-০ ১-১ ৩-১ ৪-১ ২-০ ১-০ ৩-২ ১-০ ২-০
ব্রাদার্স ২-৫ ০-২ ১-১ ৩-৫ ৩-৩ ০-১ ০-০ ২-১ ০-০ ১-২ ২-৩ ২-০
চট্টগ্রাম আবাহনী ০-১ ১-১ ৩-২ ২-২ ০-০ ০-০ ১-০ ০-১ ১-২ ১-১ ৩-০ ০-০
ঢাকা আবাহনী ৩-০ ০-১ ২-০ ৪-০ ৩-০ ৪-১ ২-১ ২-০ ৫-২ ৪-১ ১-০ ১-০
মোহামেডান ১-০ ১-৪ ০-১ ২-০ ৪-০ ১-১ ১-২ ৩-১ ২-২ ১-২ ২-৪ ২-১
জামাল ২-০ ০-১ ২-৫ ২-০ ৩-৪ ২-১ ১-১ ২-২ ২-২ ০-৩ ০-০ ১-২
মুক্তিযোদ্ধা ১-১ ১-৩ ৩-০ ১-৪ ১-৪ ১-১ ৩-০ ১-১ ০-০ ০-২ ১-৬ ২-০
নোফেল ১-২ ১-৩ ২-০ ০-৩ ০-২ ১-০ ০-০ ০-২ ৫-২ ০-৩ ০-৪ ০-০
রহমতগঞ্জ ১-১ ২-৩ ২-২ ১-১ ১-৫ ২-১ ০-৪ ২-২ ২-২ ১-২ ০-২ ৩-২
সাইফ ০-১ ০-২ ২-০ ০-০ ১-৩ ১-১ ৩-২ ৩-১ ১-০ ২-১ ১-১ ৩-০
রাসেল ২-১ ১-০ ৩-১ ১-০ ২-০ ৩-০ ২-১ ০-০ ২-০ ২-২ ০-৩ ৩-১
বিজেএমসি ১-০ ০-০ ০-০ ১-১ ১-২ ১-২ ০-২ ০-১ ৩-৪ ০-১ ০-১ ০-১

সর্বোচ্চ গোলদাতা[সম্পাদনা]

সর্বোচ্চ ১০ গোলদাতা

ক্রম নাম দেশ দল গোল তথ্যসুত্র
রাফায়েল ওডোইন নাইজেরিয়া নাইজেরিয়া শেখ রাসেল ২২ [১৩]
সানডে সিজোবা ঢাকা আবাহনী ২০
নাবিব নেওয়াজ জীবন বাংলাদেশ বাংলাদেশ ১৬
মার্কোস ভিনিসিয়ুস ব্রাজিল ব্রাজিল বসুন্ধরা কিংস ১৪
সিও জুনাপিও কঙ্গো প্রজাতন্ত্র কঙ্গো রহমতগঞ্জ ১৩
ইসমাইল বাঙ্গুরা গিনি গিনি নোফেল ১২
ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেস সোলেরা কোস্টা রিকা কোস্টারিকা বসুন্ধরা কিংস ১১
দেইনের করদোবা কলম্বিয়া কলম্বিয়া সাইফ স্পোর্টিং
বালো ফামুসা কোত দিভোয়ার আইভরি কোস্ট মুক্তিযোদ্ধা
১০ মতিন মিয়া বাংলাদেশ বাংলাদেশ বসুন্ধরা কিংস

পুরষ্কার[সম্পাদনা]

ক্যাটাগরি দল/খেলোয়ার দেশ মন্তব্য তথ্যসুত্র
চ্যাম্পিয়ন/শিরোপাজয়ী বসুন্ধরা কিংস দলটির প্রথম বিপিএল শিরোপা [৪][৮][১০]
রানার্স-আপ ঢাকা আবাহনী [১৪][৮][১০]
ফেয়ার প্লে ট্রফি শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র [৯][৮][১০]
সেরা খেলোয়াড় ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেস সোলেরা (বসুন্ধরা কিংস) কোস্টা রিকা কোস্টারিকা বসুন্ধরা কিংস-এর অধিনায়ক। [৮][৯][১৪]
সেরা উদীয়মান ফুটবলার রবিউল হাসান (আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ ) বাংলাদেশ বাংলাদেশ বাংলাদেশ জাতীয় দলেও খেলেন। [৯][১৪]
সেরা গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা (শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র)
সেরা কোচ অস্কার ব্রুজোন (বসুন্ধরা কিংস) স্পেনস্পেন [৯][১৪]
সর্বোচ্চ গোলদাতা রাফায়েল ওডোইন (শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র) নাইজেরিয়া নাইজেরিয়া পুরো মৌসুমে ২২ গোল করেছেন। পরপর দুই আসরে সর্বোচ্চ গোলদাতা [৯][১৪][১৫]


তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "BFF President's statement for July 2018"। Bangladesh Football Federation। ১ আগস্ট ২০১৮। 
  2. "ফেডারেশন কাপের পাঁচদিন পরেই লীগ!"মানবজমিন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২০ 
  3. "ড্রয়ে লিগ শেষ করল চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  4. "চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস"The Daily Star Bangla। ২০১৯-০৭-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  5. "ড্র দিয়ে শিরোপা উৎসবে মাতল বসুন্ধরা কিংস"কালের কণ্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  6. "'নোয়াখালী–ফেনী–লক্ষ্মীপুর' এক হয়েও কাজ হলো না"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  7. "প্রকাশিত হলো বিপিএল ফুটবলের ফিক্সচার"Sports News। ২০১৯-০১-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  8. "চ্যাম্পিয়ন ট্রফি পেল বসুন্ধরা কিংস"Jugantor। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  9. "B. Kings held by Ctg. Abahoni in last game of the season"BFF (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  10. "ড্র দিয়ে লীগ শেষ করলো চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা"মানবজমিন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৫ 
  11. http://m.banglatribune.com/sport/news/321599/বাংলাদেশ-প্রিমিয়ার-লিগে-থাকছে-এশিয়ান-কোটা
  12. "আট স্টেডিয়াম জুন পর্যন্ত পেল বাফুফে"Daily Nayadiganta। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-২৩ 
  13. "দেশের ফুটবলে এবারও জয়জয়কার বিদেশিদের"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৮ 
  14. "জয়ে শিরোপা উৎসব হলো না বসুন্ধরার"Daily Nayadiganta। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  15. "রাফায়েলের অনন্য রেকর্ড"মানবজমিন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪