মুক্তিযোদ্ধা সংসদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ
মুক্তিযুদ্ধের প্রতীক.svg
লোগো
সংক্ষেপেজামুকা
নামকরণমুক্তিযুদ্ধ
গঠিত১৩ ফেব্রুয়ারি ১৯৭২; ৫০ বছর আগে (1972-02-13)[১]
ধরনমুক্তিযোদ্ধাদের জন্য অরাজনৈতিক কল্যাণ সংস্থা
সদরদপ্তররূপনগর সড়ক, ঢাকা-১২১৬
দাপ্তরিক ভাষা
বাংলা
ওয়েবসাইটwww.molwa.gov.bd

মুক্তিযোদ্ধা সংসদ বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের একটি অরাজনৈতিক সংগঠন, যেটি ১৯৭২ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি গঠিত হয়। সংগঠনটির মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র নামে একটি ফুটবল ক্লাব রয়েছে।[২][৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ভারত বিভাগের পর পূর্ববাংলা (বর্তমান বাংলাদেশ) পাকিস্তানের একটি প্রদেশে পরিণত হয়, যা পরে পূর্ব পাকিস্তান নামে পরিচিত হয়। পাকিস্তানি ঔপনিবেশিক শক্তির অব্যহত শোষণের দরুন বাঙালিরা বঙ্গবন্ধুর ডাকে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে এবং দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর বিজয় ছিনিয়ে আনে।[৪][৫] মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি চিরজাগরুক রাখার জন্য ১৯৭২ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গঠিত হয়। মুক্তিবাহিনী সদস্যদের কল্যাণের জন্য প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করে। এটি সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৩০% কোটা রাখার দাবি জানায় এবং সেটি সরকারকর্তৃক গৃহীত হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. স্বপন কুমার সরকার (২০১২)। "মুক্তিযোদ্ধা সংসদ"ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওএল 30677644Mওসিএলসি 883871743 
  2. "Muktis avoid relegation"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০১-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২৬ 
  3. "Farashganj into last eight"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০১-১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২৬ 
  4. সৈয়দা মমতাজ শিরীন (২০১২)। "মুক্তিযুদ্ধ"ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওএল 30677644Mওসিএলসি 883871743 
  5. Bangladesh and Global Studies (পাঠ্যবই) (২০১৭ সংস্করণ)। বাংলাদেশ সরকার। ২০১০। পৃষ্ঠা ২৫।