২০১৯ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনাল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৯ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনাল
২০১৯ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনালের প্রচ্ছদ.jpg
ম্যাচের প্রচ্ছদ
ইভেন্ট২০১৮–১৯ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ
তারিখ১ জুন ২০১৯ (2019-06-01)
ভেন্যুওয়ান্দা মেত্রপলিতানো, মাদ্রিদ
ম্যান অফ
দ্য ম্যাচ
নেদারল্যান্ডস ভার্জিল ভ্যান ডাইক (লিভারপুল)[১]
রেফারিদামির স্কোমিনা (স্লোভেনিয়া)[২]
দর্শক সংখ্যা৬৩,২৭২[৩]
আবহাওয়াউজ্জ্বল
৩০ °সে (৮৬ °ফা)
১৫% আর্দ্রতা[৪]

২০১৯ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনাল হচ্ছে ২০১৮–১৯ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের চূড়ান্ত অর্থাৎ ফাইনাল ম্যাচ ছিল, এটি উয়েফা কর্তৃক আয়োজিত ইউরোপের প্রিমিয়ার ক্লাব ফুটবল প্রতিযোগিতার ৬৪তম ফাইনাল এবং উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ যুগে ২৭তম ফাইনাল। ২০১৯ সালের ১লা জুন তারিখে স্পেনের মাদ্রিদের ওয়ান্দা মেত্রপলিতানোতে এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়েছে,[৫] এই ম্যাচটি দুটি ইংরেজ ক্লাব টটেনহ্যাম হটস্পার এবং লিভারপুলের মধ্যে আয়োজিত হয়েছে। টটেনহ্যাম তাদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এবং লিভারপুল তাদের ইতিহাসে সর্বমোট ৯ বার ও টানা দ্বিতীয়বারের মতো ইউরোপীয় কাপ ফাইনালে উপস্থিত হয়েছে; তারা পূর্ববর্তী আসরের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে যায়। এটি সপ্তম এবং এই দশকের চতুর্থ চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনাল ছিল, যেখানে একই অ্যাসোসিয়েশন হতে দুটি দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে এবং ২০০৮-এর পরে দ্বিতীয় সম্পূর্ণ ইংরেজ ফাইনাল। একই সাথে এটি ২০১৩ সালের পর প্রথম চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনাল, যেখানে বার্সেলোনা এবং রিয়াল মাদ্রিদের মধ্যে অন্তত একটি স্পেনীয় ক্লাব নেই।

মাত্র ১০৬ সেকেন্ড পর পেনাল্টি হতে মোহাম্মদ সালাহ এবং ৮৭ মিনিটে ডিভোক ওরিগির করা গোলের বিনিময়ে লিভারপুল ফাইনালে ২–০ গোলের ব্যবধানে টটেনহ্যাম হটস্পারকে হারিয়ে ২০০৫ সালের পর প্রথমবার এবং সর্বমোট ৬ষ্ঠ বারের মতো চ্যাম্পিয়নস লীগের শিরোপা জয়লাভ করে। লিভারপুল ২০১৯ উয়েফা সুপার কাপে ২০১৮–১৯ উয়েফা ইউরোপা লীগের বিজয়ী দল চেলসির বিরুদ্ধে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে এবং একই সাথে তারা ২০১৯–২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের জন্য স্বয়ংক্রিয়ভাবে উত্তীর্ণ হয়েছে;যেহেতু লিভারপুল তাদের লীগের মাধ্যমে চ্যাম্পিয়নস লীগের পরবর্তী আসরের জন্য সরাসরি উত্তীর্ণ হয়, তাই তাদের জন্য সংরক্ষিত আসনটি ২০১৮–১৯ অস্ট্রিয়ান বুন্দেসলিগা বিজয়ী দলকে দিয়ে দেওয়া হয়েছে।[৬]

২০১৮ সালের মার্চ মাসে, উয়েফা ঘোষণা করে যে, অতিরিক্ত সময়ে চতুর্থ বদলি খেলোয়াড় মাঠে প্রবেশ করানো যাবে এবং একই সাথে বদলি দলে খেলোয়াড়ের সংখ্যা ৭ থেকে ১২ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। এই আসরে কিক-অফ সময়ও ২০:৪৫ সিইএসটি হতে ২১:০০ সিইএসটি-এ পরিবর্তন করা হয়েছিল।[৭] উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনালে ইতিহাসে এবারই প্রথম ভিডিও সহকারী রেফারি (ভিএআর) পদ্ধতিটি ব্যবহার করা হয়েছে।[৮]

দল[সম্পাদনা]

নিম্নে উল্লেখিত টেবিলে, ১৯৯২ সাল পর্যন্ত প্রতিযোগিতা ইউরোপিয়ান কাপ যুগ এবং ১৯৯৩ সাল হতে বর্তমান পর্যন্ত উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ যুগ

দল পূর্ববর্তী ফাইনালে উপস্থিতি (গাঢ় দ্বারা উক্ত আসরের বিজয়ী দল নির্দেশিত)
ইংল্যান্ড টটেনহ্যাম হটস্পার
ইংল্যান্ড লিভারপুল ৮ (১৯৭৭, ১৯৭৮, ১৯৮১, ১৯৮৪, ১৯৮৫, ২০০৫, ২০০৭, ২০১৮)

মাঠ[সম্পাদনা]

এই আসরের ফাইনালের মাঠ মাদ্রিদের ওয়ান্দা মেত্রপলিতানো

এটি ১৯৫৭, ১৯৬৯, ১৯৮০ এবং ২০১০ সালের ফাইনালের পর পঞ্চম ইউরোপীয় কাপ / উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনাল, যেটি স্পেন মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত হয়েছে। পূর্বের ৪টি ফাইনালই রিয়াল মাদ্রিদের এস্তাদিও সান্তিয়াগো বার্নাব্যু-এ অনুষ্ঠিত হয়েছিল।[৯]

৬৭,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট ওয়ান্দা মেত্রপলিতানো হচ্ছে স্পেনীয় ক্লাব আতলেতিকো মাদ্রিদের নিজস্ব মাঠ, যারা এই ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে এই মাঠের প্রধান সংস্কার সম্পন্ন করেছে।[১০] উয়েফা কর্তৃক টুর্নামেন্টে অ-স্পন্সরের নামকরণ বিষয়ক বিধিমালার কারণে স্টেডিয়ামটিকে "ওয়ান্দা মেত্রপলিতানো"র পরিবর্তে " এস্তাদিও মেত্রপলিতানো" হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।[৯]

আয়োজক নির্ধারণ[সম্পাদনা]

প্রথমবারের মতো, উয়েফা ক্লাব প্রতিযোগিতার ফাইনাল (উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ, উয়েফা ইউরোপা লীগ, উয়েফা নারী চ্যাম্পিয়নস লীগ এবং উয়েফা সুপার কাপ) এর স্থান নির্বাচন করার জন্য একটি উন্মুক্ত নিলাম প্রক্রিয়া আয়োজন করেছে।[১১][১২] এই নিলাম প্রক্রিয়াটি ২০১৬ সালের ৯ই ডিসেম্বর তারিখে শুরু করা হয়েছিল এবং সকল এসোসিয়েশনকে ২০১৭ সালের ২৭ই জানুয়ারি তারিখের মধ্যে তাদের আয়োজক হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ এবং ২০১৭ সালের ৬ই জুন তারিখে মধ্যে দলিল জমা দিতে বলা হয়েছিল।[১৩]

২০১৭ সালের ৩রা ফেব্রুয়ারি তারিখে, উয়েফা ঘোষণা করে যে, আজারবাইজান এবং স্পেন চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনাল আয়োজনের ইচ্ছা পোষণ করেছে।[১৪] ২০১৭ সালের ৭ই জুন তারিখে, উয়েফা নিশ্চিত করে যে, আজাইরবাইজানের ৬৮,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট বাকু অলিম্পিক স্টেডিয়াম এবং স্পেনের ৬৭,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট ওয়ান্দা মেত্রপলিতানো ২০১৯ সালের উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ফাইনাল বিড জমা দিয়েছে।[১৩][১৫] ২০১৭ সালের ১৪ই সেপ্টেম্বর তারিখে উয়েফা নিলামের এক মূল্যায়ন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল।[১৬] ২০১৭ সালের ২০শে সেপ্টেম্বর তারিখে, উয়েফার নির্বাহী কমিটির এক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় যে, ২০১৯ সালে আজারবাইজানের বাকু অলিম্পিক স্টেডিয়াম উয়েফা ইউরোপা লীগের ফাইনাল আয়োজন করবে।[৫][১৭][১৮]

ফাইনালে যাত্রা[সম্পাদনা]

নোট: নিম্নে উল্লেখিত সকল ফলাফলে, ফাইনালের দলগুলোর স্কোর প্রথমে উল্লেখ করা হয়েছে (হো: হোম; অ্যা:অ্যাওয়ে)।

ইংল্যান্ড টটেনহ্যাম হটস্পার পর্ব ইংল্যান্ড লিভারপুল
প্রতিপক্ষ ফলাফল গ্রুপ পর্ব প্রতিপক্ষ ফলাফল
ইতালি ইন্টার মিলান ১–২ {অ্যা} ম্যাচদিন ১ ফ্রান্স পারি সাঁ-জেরমাঁ ৩–২ {হো}
স্পেন বার্সেলোনা ২–৪ {হো} ম্যাচদিন ২ ইতালি নাপোলি ০–১ {অ্যা}
নেদারল্যান্ডস পিএসভি আইন্দোভেন ২–২ {অ্যা} ম্যাচদিন ৩ সার্বিয়া রেড স্টার বেলগ্রেড ৪–০ {হো}
নেদারল্যান্ডস পিএসভি আইন্দোভেন ২–১ {হো} ম্যাচদিন ৪ সার্বিয়া রেড স্টার বেলগ্রেড ০–২ {অ্যা}
ইতালি ইন্টার মিলান ১–০ {হো} ম্যাচদিন ৫ ফ্রান্স পারি সাঁ-জেরমাঁ ১–২ {অ্যা}
স্পেন বার্সেলোনা ১–১ {অ্যা} ম্যাচদিন ৬ ইতালি নাপোলি ১–০ {হো}
গ্রুপ বি রানার-আপ
অব দল খে পয়েন্ট
স্পেন বার্সেলোনা ১৪
ইংল্যান্ড টটেনহ্যাম হটস্পার
ইতালি ইন্টার মিলান
নেদারল্যান্ডস পিএসভি আইন্দোভেন
চূড়ান্ত অবস্থান গ্রুপ সি রানার-আপ
অব দল খে পয়েন্ট
ফ্রান্স পারি সাঁ-জেরমাঁ ১১
ইংল্যান্ড লিভারপুল
ইতালি নাপোলি
সার্বিয়া রেড স্টার বেলগ্রেড
প্রতিপক্ষ সামগ্রিক ১ম লেগ ২য় লেগ নকআউট পর্ব প্রতিপক্ষ সামগ্রিক ১ম লেগ ২য় লেগ
জার্মানি বরুসিয়া ডর্টমুন্ড ৪–০ ৩–০ {হো} ১–০ {অ্যা} ১৬ দলের পর্ব জার্মানি বায়ার্ন মিউনিখ ৩–১ ০–০ {হো} ৩–১ {অ্যা}
ইংল্যান্ড ম্যানচেস্টার সিটি ৪–৪ (অ্যা) ১–০ {হো} ৩–৪ {অ্যা} কোয়ার্টার-ফাইনাল পর্তুগাল পোর্তো ৬–১ ২–০ {হো} ৪–১ {অ্যা}
নেদারল্যান্ডস আয়াক্স ৩–৩ (অ্যা) ০–১ {হো} ৩–২ {অ্যা} সেমি-ফাইনাল স্পেন বার্সেলোনা ৪–৩ ০–৩ {অ্যা} ৪–০ {হো}

ম্যাচ[সম্পাদনা]

বিস্তারিত[সম্পাদনা]

কোয়ার্টার-ফাইনাল এবং সেমি-ফাইনাল ড্রয়ের পর, ২০১৯ সালের ১৫ই মার্চ তারিখে, ১২:০০ টায় (সিইটি) সুইজারল্যান্ডের নিওনে অনুষ্ঠিত এক অতিরিক্ত ড্রয়ের মাধ্যমে "হোম" দল (প্রশাসনিক উদ্দেশ্যে) নির্ধারণ করা হয়েছিল।[১৯][২০]

টটেনহ্যাম হটস্পার[৪]
লিভারপুল[৪]
গো ফ্রান্স উগো লরিস (অধি:)
রা.ব্যা. ইংল্যান্ড কিরান ট্রিপিয়ার
সে.ব্যা. বেলজিয়াম টবি অল্ডারওয়েরেল্ড
সে.ব্যা. বেলজিয়াম ইয়ান ভের্তোনেন
লে.ব্যা. ইংল্যান্ড ড্যানি রোজ
সে.মি. ১৭ ফ্রান্স মুসা সিসোকো মাঠ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে ৭৪ মিনিটে ৭৪’
সে.মি. ইংল্যান্ড হ্যারি উইঙ্কস মাঠ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে ৬৬ মিনিটে ৬৬’
রা.উ. ২০ ইংল্যান্ড ডেলে আলী মাঠ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে ৮১ মিনিটে ৮১’
অ্যা.মি. ২৩ ডেনমার্ক ক্রেস্টিয়ান এয়ারিকসন
লে.উ. দক্ষিণ কোরিয়া সোন হুং মিন
সে.ফ. ১০ ইংল্যান্ড হ্যারি কেন
বদলি:
গো ১৩ নেদারল্যান্ডস মিশেল ভর্ম
গো ২২ আর্জেন্টিনা পাওলো গাজানিগা
কলম্বিয়া দাভিনসন সানচেজ
১৬ ইংল্যান্ড কাইল ওয়াকার-পিটার্স
২১ আর্জেন্টিনা হুয়ান ফয়েথ
২৪ কোত দিভোয়ার সার্জ অরিয়ে
৩৩ ওয়েল্‌স্‌ বেন ডেভিস
১১ আর্জেন্টিনা এরিক লামেলা
১২ কেনিয়া ভিক্টর ওয়ানিয়ামা
১৫ ইংল্যান্ড এরিক ডিয়ার মাঠে নামানো হয়েছে ৭৪ মিনিটে ৭৪’
২৭ ব্রাজিল লুকাস মৌরা মাঠে নামানো হয়েছে ৬৬ মিনিটে ৬৬’
১৮ স্পেন ফার্নান্দো লরেন্ত মাঠে নামানো হয়েছে ৮১ মিনিটে ৮১’
ম্যানেজার:
আর্জেন্টিনা মৌরিসিয়ো পোচেটিনো
Tottenham Hotspur vs Liverpool 2019-06-01.svg
গো ১৩ ব্রাজিল অ্যালিসন বেকার
রা.ব্যা. ৬৬ ইংল্যান্ড ট্রেন্ট আলেকজান্ডার-আর্নল্ড
সে.ব্যা. ৩২ ক্যামেরুন জোয়েল মাটিপ
সে.ব্যা. নেদারল্যান্ডস ভার্জিল ভ্যান ডাইক
লে.ব্যা. ২৬ স্কটল্যান্ড অ্যান্ড্রু রবার্টসন
সে.মি. ১৪ ইংল্যান্ড জর্ডান হেন্ডারসন (অধি:)
সে.মি. ব্রাজিল ফাবিনিয়ো
সে.মি. নেদারল্যান্ডস জর্জিনিও উইনাল্ডাম মাঠ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে ৬২ মিনিটে ৬২’
রা.ফ. ১১ মিশর মোহাম্মদ সালাহ
সে.ফ. ব্রাজিল রবার্তো ফিরমিনো মাঠ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে ৫৮ মিনিটে ৫৮’
লে.ফ. ১০ সেনেগাল সাদিও মানে মাঠ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে ৯০ মিনিটে ৯০’
বদলি:
গো ২২ বেলজিয়াম সিমোন মিয়োলেট
গো ৬২ প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড চাইওমহিম কেলেহার
ক্রোয়েশিয়া দেজান লভ্রেন
১২ ইংল্যান্ড জো গোমেজ (ফুটবলার) মাঠে নামানো হয়েছে ৯০ মিনিটে ৯০’
১৮ স্পেন আলবার্তো মরিনো
ইংল্যান্ড জেমস মিলনার মাঠে নামানো হয়েছে ৬২ মিনিটে ৬২’
২০ ইংল্যান্ড অ্যাডাম লালানা
২১ ইংল্যান্ড অ্যালেক্স অক্সলেড-চ্যাম্বারলেইন
২৩ সুইজারল্যান্ড জারদান শাকিরি
১৫ ইংল্যান্ড ড্যানিয়েল স্টারিজ
২৪ ইংল্যান্ড রায়ান ব্রেউস্টার
২৭ বেলজিয়াম ডিভোক ওরিগি মাঠে নামানো হয়েছে ৫৮ মিনিটে ৫৮’
ম্যানেজার:
জার্মানি ইয়ুর্গেন ক্লপ

ম্যাচসেরা:
নেদারল্যান্ডস ভার্জিল ভ্যান ডাইক (লিভারপুল)[১]

সহকারী রেফারিগণ:[২]
জুরে প্রাপ্রোটনিক (স্লোভেনিয়া)
রবার্ট ভুকান (স্লোভেনিয়া)
চতুর্থ অফিসিয়াল:[২]
আন্তোনিও মাতেউ লাহোজ (স্পেন)
ভিডিও সহকারি রেফারি:[২]
ড্যানি মাকেলি (নেদারল্যান্ডস)
সহকারি ভিডিও সহকারি রেফারি:[২]
পল ভ্যান বোকেল (নেদারল্যান্ডস)
ফেলিক্স জোওয়ায়ের (জার্মানি)
অফসাইড ভিডিও সহকারি রেফারি:[২]
মার্ক বর্শ (জার্মানি)

ম্যাচ নিয়ম[২১]

  • ৯০ মিনিট
  • ৩০ মিনিট অতিরিক্ত সময় (যদি প্রয়োজন হয়)
  • পেনাল্টি শুট-আউট (যদি ফলাফল সমতায় থাকে)
  • ১২ জন বদলি খেলোয়াড়
  • সর্বোচ্চ ৩ জন বদলি খেলোয়াড়, অতিরিক্ত সময়ে চতুর্থ বদলি খেলোয়াড় প্রবেশ করানো যাবে।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Liverpool beat Tottenham to win sixth European Cup"UEFA.com। Union of European Football Associations। ১ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১ জুন ২০১৯ 
  2. "Referee team appointed for UEFA Champions League final in Madrid"UEFA.com। Union of European Football Associations। ১৪ মে ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৯ 
  3. "Full Time Report Final – Tottenhঅ্যা.মি.Hotspur v Liverpool" (PDF)UEFA.com। Union of European Football Associations। ১ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১ জুন ২০১৯ 
  4. "Tactical Line-ups – Final – Saturday 1 June 2019" (PDF)UEFA.com। Union of European Football Associations। ১ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১ জুন ২০১৯ 
  5. "Madrid to host UEFA Champions League Final 2019"UFEA.com। Union of European Football Associations। ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  6. "Real Madrid and Spain top UEFA rankings again"। UEFA.com। ২৯ মে ২০১৮। 
  7. "Additional fine-tuning of club competition regulations for 2018/19 onwards"UEFA.com। Union of European Football Associations। ২৭ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০১৮ 
  8. "VAR to be used in UEFA Champions League knockout phase"UEFA.com। Union of European Football Associations। ৩ ডিসেম্বর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  9. "Madrid's Estadio Metropolitano to host 2019 Champions League final"UEFA.com। Union of European Football Associations। ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  10. Lowe, Sid (১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭)। "A stadium called Wanda: opening night at Atlético Madrid's new home"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৯ 
  11. "Lyon to host 2018 UEFA Europa League final"UEFA.com। Union of European Football Associations। ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  12. "UEFA club competition finals 2019: bid regulations" (PDF)UEFA.com। Union of European Football Associations। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  13. "Ten associations bidding to host 2019 club finals"UEFA.com। Union of European Football Associations। ৭ জুন ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  14. "15 associations interested in hosting 2019 club finals"UEFA.com। Union of European Football Associations। ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  15. Rumsby, Ben (৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭)। "Champions League final to be held in Baku or Madrid in 2019"The Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৯ 
  16. "UEFA Club Competition Finals 2019 Evaluation Report" (PDF)UEFA.com। Union of European Football Associations। ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  17. "UEFA Executive Committee agenda for Nyon meeting"UEFA.com। Union of European Football Associations। ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  18. "Atletico Madrid's stadium hosts 2019 Champions League final"Associated Press। ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১৭ এপ্রিল ২০১৯ 
  19. "2018/19 Champions League match and draw calendar"UEFA.com। Union of European Football Associations। ৯ জানুয়ারি ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০১৮ 
  20. "UEFA Champions League quarter-final, semi-final and final draws"UEFA.com। Union of European Football Associations। ১৫ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৯ মে ২০১৯ 
  21. "2018/19 UEFA Champions League regulations" (PDF)UEFA.com। Union of European Football Associations। ১০ মে ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১২ মে ২০১৮ 
  22. "Team statistics" (PDF)UEFA.com। Union of European Football Associations। ১ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১ জুন ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]