অ্যালিসন বেকার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
অ্যালিসন বেকার
20180610 FIFA Friendly Match Austria vs. Brazil 850 1625.jpg
২০১৮ সালে ব্রাজিলের হয়ে অ্যালিসন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম অ্যালিসন রামসেস বেকার
জন্ম (১৯৯২-১০-০২) ২ অক্টোবর ১৯৯২ (বয়স ২৬)
জন্ম স্থান নভো অ্যামবুর্গো, ব্রাজিল
উচ্চতা ১.৯১ মিটার (৬ ফুট ৩ ইঞ্চি)[১]
মাঠে অবস্থান গোলরক্ষক
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব লিভারপুল
জার্সি নম্বর
যুব পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন
২০০৮–২০১২ ইন্টারন্যাশনাল
জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
২০১৩–২০১৬ ইন্টারন্যাশনাল ৪৪ (০)
২০১৬– রোমা ৩১ (০)
২০১৮– লিভারপুল (০)
জাতীয় দল
২০০৯ ব্রাজিল অনূর্ধ্ব ১৭ (০)
২০১৩ ব্রাজিল অনূর্ধ্ব ২১ (০)
২০১৫– ব্রাজিল ২৪ (০)
  • পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ৮ এপ্রিল ২০১৮ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ২৮ এপ্রিল ২০১৮ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

অ্যালিসন রামসেস বেকার (ব্রাজিলীয় পর্তুগিজ: [ˈalisõ ˈbɛkeʁ]; জন্ম: ২ অক্টোবর ১৯৯২), অ্যালিসন নামে অধিক পরিচিত, হচ্ছেন ব্রাজিলের একজন পেশাদার ফুটবলার, যিনি ইংলিশ ক্লাব লিভারপুল এবং ব্রাজিল জাতীয় ফুটবল দলের হয়ে একজন গোলরক্ষক হিসেবে খেলেন।

২০১৩ সালে, অ্যালিসন ইন্টারন্যাশনালে খেলার মাধ্যমে তার পেশাদার ক্যারিয়ার শুরু করেন, যেখানে তিনি ১০০টিরও বেশি খেলায় অংশগ্রহণ করেন এবং সেখানে খেলা ৪ মৌসুমে ক্লাবের হয়ে চ্যাম্পিওনাতো গৌচো জয়লাভ করেন। ২০১৬ সালে, তিনি রোমার সাথে ৭.৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে চুক্তিবদ্ধ হন, যেখানে তিনি প্রাথমিকভাবে শুরু লাইন আপে স্থান পাননি। সেসময় তিনি ওজিক স্টেন্সনির বদলি হিসেবে খেলতেন।

২০১৫ সালে, আন্তর্জাতিক অভিষেক হওয়ার পূর্বে অ্যালিসন ব্রাজিলের হয়ে যুব পর্যায়ে খেলেছেন। তিনি ২০১৬ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত কোপা আমেরিকা ব্রাজিলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন।

আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

২০১৬ সালে ব্রাজিলের হয়ে খেলছেন অ্যালিসন

ব্রাজিলকে অনূর্ধ্ব ১৭ এবং অনূর্ধ্ব ২০ পর্যায়ে নেতৃত্ব দেওয়ার পর, চিলি এবং ভেনেজুয়েলা বিরুদ্ধে ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের প্রথম ২ ম্যাচের জন্য দুঙ্গা তাকে জাতীয় দলের মূল একাদশের জন্য ডাক দেন।[২] অ্যালিসন ২০১৫ সালের ১৩ অক্টোবর অভিষেক করেন, ক্যাস্টেলাও-এ অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে ব্রাজিল ৩–১ গোলে জয়লাভ করে।[৩]

২০১৬ সালের ৫ মে তারিখে, অ্যালিসন ২০১৬ কোপা আমেরিকার ২৩ সদস্যের দলে স্থান পান।[৪] উক্ত বছরের কোপা আমেরিকার প্রথম খেলা ইকুয়েডরের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র হয়, যেখানে অ্যালিসন মিলার বোলানোসের নেয়া একটি শটে খাবি খেয়েছিলেন।[৫] উক্ত প্রতিযোগিতায় তিনি সর্বমোট ৩টি গোল হজম করেছিলেন, যেখানে ব্রাজিল গ্রুপ পর্ব হতে বিদায় নিয়েছিল।

সম্মাননা[সম্পাদনা]

ক্লাব[সম্পাদনা]

ইন্টারন্যাশনাল

আন্তর্জাতিক[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Alisson Ramses Becker"। AS Roma। সংগ্রহের তারিখ ২১ অক্টোবর ২০১৬ 
  2. "Alisson celebra convocação e chance de trabalhar com Taffarel: "Espelho"" [Alisson celebrates call-up and chance of working with Taffarel: "Example"] (পর্তুগিজ ভাষায়)। Globo Esporte। ১৩ আগস্ট ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৫ 
  3. "Brazil 3–1 Venezuela: Willian strikes after just 40 seconds to set Samba stars on way to simple World Cup 2018 qualifying win"Daily Mail। ১৪ অক্টোবর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১৫ 
  4. "Dunga convoca Seleção para a Copa América com 7 jogadores olímpicos" [Dunga calls up Seleção to the Copa América with seven Olympic players] (পর্তুগিজ ভাষায়)। Globo Esporte। ৫ মে ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১০ মে ২০১৬ 
  5. Belon, Jorge (৫ জুন ২০১৬)। "Copa America Centenario: Ecuador's Miler Bolaños denies game-winning goal in dull draw against Brazil"। Vavel। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৬ 
  6. "10 things you need to know about new Roma goalkeeper Alisson"AS Roma। ৬ জুলাই ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৮ ডিসেম্বর ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]