২০০৪-০৫ জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
২০০৪-০৫ জিম্বাবুয়ে জাতীয় ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর
Flag of Zimbabwe.svg
জিম্বাবুয়ে
Flag of Bangladesh.svg
বাংলাদেশ
তারিখ ৬ জানুয়ারি – ৩১ জানুয়ারি ২০০৫
অধিনায়ক তাতেন্দা তাইবু হাবিবুল বাশার
টেস্ট সিরিজ
ফলাফল ২ ম্যাচের সিরিজে বাংলাদেশ ১–০ ব্যবধানে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান তাতেন্দা তাইবু (৩৩০) নাফিস ইকবাল (২০৫)
সর্বাধিক উইকেট ডগলাস হন্ডো (৯) এনামুল হক জুনিয়র (18)
সিরিজ সেরা এনামুল হক জুনিয়র (বাংলাদেশ)
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৫ ম্যাচের সিরিজে বাংলাদেশ ৩–২ ব্যবধানে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান বার্নি রজার্স (২৫১) আফতাব আহমেদ (179)
সর্বাধিক উইকেট টিনাশে পান্যাংগারা (৭) মানজুরুল ইসলাম রানা (৯)
সিরিজ সেরা বার্নি রজার্স (জিম্বাবুয়ে)

২০০৫ সালে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলের দুটি টেস্ট ম্যাচ সিরিজ ও পাঁচটি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার জন্য বাংলাদেশ সফর। একটি টেস্ট সমতার সঙ্গে টেস্ট সিরিজটি বাংলাদেশ ১–০ জিতে নেয়। এতে ইতিহাসের প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ কোনো খেলা না হেরে টেস্ট সিরিজ জেতে। তারা একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজটিও ৩–২ এগিয়ে জিতে নেয়।[১][২][৩]

সূচি[সম্পাদনা]

তারিখ ম্যাচ মাঠ
জানুয়ারি
৬ জানুয়ারি ২০০৫ ১ম টেস্ট এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
১৪ জানুয়ারি ২০০৫ ২য় টেস্ট বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
২০ জানুয়ারি ২০০৫ ১ম ওডিআই বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
২৪ জানুয়ারি ২০০৫ ২য় ওডিআই এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
২৬ জানুয়ারি ২০০৫ ৩য় ওডিআই এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
২৯ জানুয়ারি ২০০৫ ৪র্থ ওডিআই বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা
৩১ জানুয়ারি ২০০৫ ৫ম ওডিআই বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা

স্কোয়াড[সম্পাদনা]

 জিম্বাবুয়ে টেস্ট  বাংলাদেশ টেস্ট  জিম্বাবুয়ে ওডিআই  বাংলাদেশ ওডিআই

টেস্ট সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টেস্ট[সম্পাদনা]

৬ জানুয়ারি ২০০৫
স্কোরকার্ড
৪৮৮ (১৪৯.৩ ওভার)
হাবিবুল বাশার ৯৪ (১২৮)
ক্রিস্টোফার এমপফু ৪/১০৯ (২৯ ওভার)
৩১২ (১৩১.৪ ওভার)
তাতেন্দা তাইবু ৯২ (২৪১)
মোহাম্মাদ রফিক ৫/৬৫ (৪১.৪ ওভার)
২০৪/৯ (৫১.১ ওভার)
হাবিবুল বাশার ৫৫ (৮০)
এলটন চিগুম্বুরা ৫/৫৪ (১৬.১ ওভার)
১৫৪ (৬৪.২ ওভার)
হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ৫৬ (১৩০)
তাপস বৈশ্য ২/২০ (১০ ওভার)

২য় টেস্ট[সম্পাদনা]

১৪ জানুয়ারি ২০০৫
স্কোরকার্ড
২১১ (৭৮.৪ ওভার)
মোহাম্মাদ রফিক ৫৬ (৭৯)
ডগলাস হন্ডো ৬/৫৯ (২২ ওভার)
২৯৮ (১১৪ ওভার)
তাতেন্দা তাইবু ৮৫ (২১৮)
এনামুল হক জুনিয়র ৭/৯৫ (৩৫ ওভার)
২৮৫/৫ (১৪২ ওভার)
নাফিস ইকবাল ১২১ (৩৫৫)
তিনাশি প্যানিয়াঙ্গারা ৩/২৮ (২১ ওভার)
২৮৬ (১০৩ ওভার)
তাতেন্দা তাইবু ১৫৩ (২৯২)
এনামুল হক জুনিয়র ৫/১০৫ (৩৭ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে বিজয়ী হয়ে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়।
  • এই সমতায় বাংলাদেশ তাদের টেস্ট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো টেস্ট সিরিজ জেতে নেয়।[৭][৮]

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

২০ জানুয়ারি ২০০৫
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
২২৯ (৪৮.১ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
২৫১/৮ (৫০ ওভার)
  • জিম্বাবুয়ে টসে বিজয়ী হয় এবং প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৪ জানুয়ারি ২০০৫
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
২০৬ (৪৭.১ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
২৩৭/৫ (৫০ ওভার)
  • জিম্বাবুয়ে টসে বিজয়ী হয় এবং প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়।

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৬ জানুয়ারি ২০০৫
[স্কোরকার্ড প্রয়োজন]
বাংলাদেশ 
২৪৪/৯ (৫০ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
২০৪ (৪৭.৫ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে বিজয়ী হয় এবং প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়।
  • এনামুল হক জুনিয়র ওডিআইতে তার অভিষেক ঘটে

৪র্থ ওডিআই[সম্পাদনা]

২৯ জানুয়ারি ২০০৫
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
২৪৭/৯ (৫০ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
১৮৯ (৪৭.২ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে বিজয়ী হয় এবং প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়।

৫ম ওডিআই[সম্পাদনা]

৩১ জানুয়ারি ২০০৫
[স্কোরকার্ড প্রয়োজন]
বাংলাদেশ 
২০২/২ (৩৩ ওভার)
 জিম্বাবুয়ে
১৯৮ (৪৯ ওভার)
বার্নি রজার্স ৮৪ (১২০)
মোহাম্মাদ রফিক ২/৩৪ (১০ ওভার)
  • জিম্বাবুয়ে টসে বিজয়ী হয় এবং প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়।
  • এই ম্যাচের ফলাফল অনুযায়ী বাংলাদেশ তাদের ওডিআই ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ওডিআই সিরিজ বিজয়ী হয়।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. রাবেদ ইমাম। "When everything fell in place"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  2. "Bangladesh players rewarded with bonuses"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  3. "ICC consider revised Test programme"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  4. রাবেদ ইমাম। "Bangladesh on the verge of their first Test victory"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  5. রাবেদ ইমাম। "Enamul ends the long wait"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  6. রাবেদ ইমাম। "'The best day of my life,' says Bashar"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  7. রাহুল ভাটিয়া। "Iqbal hundred seals series win"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  8. রাবেদ ইমাম। "'Trying to win could have been risky' - Bashar"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  9. রাবেদ ইমাম। "Aftab leads Bangladesh to series victory"ক্রিকইনফো (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]